আবরার ছিল মেধাবী ও মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান

ঢাকা অফিস : বুয়েট চাইলে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে পারে। আমরা এতে হস্তক্ষেপ করবো না।  বুয়েটে নিহত শিক্ষার্থী আবরারকে প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আবরার খুবই ব্রিয়িলান্ট একজন ছাত্র ছিল, মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান ছিল। একটা বাচ্চা ছেলে, ২১ বছর বয়স। তাকে কী অমানবিকভাবে হত্যা করেছে। পিটিয়ে পিটিয়ে মেরেছে। আবরার হত্যাকে ‘অমানবিক’ বলে অভিহিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাত্র ২১ বছরের একটা ছেলেকে যারা মেরেছে তারা যতই মেধাবী হোক যে দলেরই হোক তাদের সবার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।দলীয় পরিচয়ের হলেও কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

বুধবার বিকেলে, গণভবনে জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনের অভিজ্ঞতা ও ভারত সফর নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

বক্তব্যের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ অধিবেশনের সফর নিয়ে ও ভারতের সফর নিয়ে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন। এরপর সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যাকাণ্ডে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। আমি ঘটনাটি শুনার সঙ্গে সঙ্গে ছাত্রলীগকে বলেছি তাদেরকে বহিষ্কার করতে।পুলিশকে বলেছি এরেস্ট করতে।

শেখ হাসিনা বলেন, বুয়েটের খবর জানার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে আলামত সংগ্রহের নির্দেশ দেই। যখন পুলিশ আলামত সংগ্রহ করে নিয়ে আসবে তাদের আটকে দেয়া হলো। তিন ঘণ্টা আটকে রাখা হলো, কেন? সেটা জানা দরকার। অন্য কোনো উদ্দেশ্য ছিল কিনা। পরে আইজিপি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে।

তিনি বলেন, আমি তো সঙ্গে সঙ্গে আইজিপিকে নির্দেশ দিয়েছি কোন রুমে কারা ছিল সবগুলোকে ধরে অ্যারেস্ট করো। যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটাবে আমি মেনে নেবো না। ছাত্রলীগকে সঙ্গে সঙ্গে ডেকেছি, নির্দেশ দিয়েছি ব্যবস্থা নেয়ার।

ছাত্র রাজনীতি বন্ধ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটা ঘটনার জন্য ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করা যৌক্তিক নয়। রাজনীতি একটি প্রশিক্ষনের বিষয়, যেটা ছাত্র রাজনীতি থেকেই তৈরি হয়। বুয়েট চাইলে তাদের ক্যাম্পাসে রাজনীতি বন্ধ করতে পারে, এতে আমাদের কোন সমস্যা নেই।

এ সময় দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও হলে তল্লাশির নির্দেশও দেন তিনি।

আপনার মতামত জানানঃ