করোনা নিয়ে গুজবের ছড়াছড়ি, ভুল তথ্যে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি

ঢাকা অফিস : করোনাভাইরাসের আক্রমণ থেকে মুক্তি পেতে ১৫ মিনিট পরপর পানি পান কিংবা আদা-রসুন খাওয়ার পরামর্শ ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এসব তথ্যের কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। না জেনেই অনেকেই বিশ্বাস করছেন এসব, যা মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করতে পারে।

করোনাভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্য: ১৫ মিনিট পরপর পানি পান করতে হবে

  • করোনাভাইরাস চারদিন গলায় থাকে। ফুসফুসে পৌঁছানোর আগেই প্রচুর ভিনেগার বা লবন মিশ্রিত পানি পান করলে অসুখ সেরে যায়। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এখন ঘুরে বেড়াচ্ছে এ তথ্য। না জেনে অনেকে এ পরামর্শ মেনেও চলছেন।
  • বিশেষজ্ঞদের মতে, পানি পান করা এবং হাইড্রেটেড থাকা স্বাস্থ্যকর। তবে ১৫ মিনিট পরপর পানি পান করে সংক্রমণ ঠেকানো যাবে, এমন তথ্যের কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।

করোনাভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্য: শ্বাস আটকে রেখে স্বাস্থ্য পরীক্ষা

  • করোনা শনাক্তে এখন জনপ্রিয় মিথ ১০ সেকেন্ড শ্বাস আটকে রেখে স্বাস্থ্য পরীক্ষা। অনেকেই বলছেন, এ সময়ের মধ্যে কাশি হলেই বুঝতে হবে করোনা পজিটিভ, যা সম্পূর্ণ ভুল তথ্য।

করোনাভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্য: কোন বস্তুর ওপর এক মাস থাকে কোভিড-১৯

  • কোন বস্তুর উপরে ভাইরাসের স্থায়িত্ব নিয়েও রয়েছে ভুল ধারণা। বিভিন্ন গবেষণা থেকে দেখা গেছে, ভাইরাস ধাতু, প্লাস্টিক বা কাচের ওপরে দুই ঘণ্টা থেকে নয়দিন পর্যন্ত থাকতে পারে। যদিও ৭২ ঘণ্টা পরেই ভাইরাসের সংক্রমিত করার ক্ষমতা অনেক কমে যায়।

করোনাভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্য: ওষুধ হিসেবে গোমূত্র পান

  • দিনরাত কাজ করেও এখনো করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কার করতে পারেননি বিজ্ঞানীরা। এরইমধ্যে ভারতে করোনা সারাতে গোমূত্র পান করেছেন অনেকে। এভাবে আক্রান্ত রোগী সুস্থ হওয়ার কোন প্রমাণ চিকিৎসা বিজ্ঞানে না থাকলেও পশ্চিমবঙ্গসহ অনেক এলাকাতেই অসুস্থ হয়েছেন।

করোনাভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্য: আদা চা পান এবং রসুন খেতে হবে

  • আদা ও রসুন স্বাস্থ্যকর এ নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু আদা চা পান ও রসুন খেয়ে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করা যায় না।

করোনাভাইরাস নিয়ে ভুল তথ্য: আইসক্রিম খাওয়া যাবে না

  • ফ্লু ভাইরাস শরীরের বাইরে গ্রীষ্মের তাপে বেশিক্ষণ টিকে থাকতে পারে না। তবে তাপমাত্রা করোনাভাইরাসের ওপর কী প্রভাব ফেলে তা জানতে এখনো গবেষণা চলছে। ফলে আইসক্রিম খাওয়া যাবে না কিংবা করোনা ঠেকাতে শরীর উষ্ণ রাখতে হবে এসব তথ্যেরও কোন বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।

মনে রাখতে হবে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ জ্বর, শুকনো কাশি ও শ্বাসকষ্ট। সংক্রমণ এড়াতে আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শ এড়িয়ে চলা, পরিচ্ছন্ন থাকা এবং বার বার হাত ধোঁয়ার কোন বিকল্প নেই।

আপনার মতামত জানানঃ