কাঁদলে পানি নয়, ঝরছে ‘ক্রিস্টাল

 আন্তর্জাতিক : কাঁদলে সবার চোখ থেকে যখন পানি ঝরে, সেখানে আরমেনিয়ার ২২ বছর বয়সী তরুণী স্যাতেনিক কারাজায়ানের চোখ থেকে পানি নয় ঝরছে ক্রিস্টালের মতো দেখতে পানির দলা। তার চোখ থেকে দিনে অন্তত ৫০টি ক্রিস্টালের মতো স্বচ্ছ টুকরা ঝরে।

কাঁদলে সবার চোখ থেকে যখন পানি ঝরে, সেখানে আরমেনিয়ার ২২ বছর বয়সী তরুণী স্যাতেনিক কারাজায়ানের চোখ থেকে পানি নয় ঝরছে ক্রিস্টালের মতো দেখতে পানির দলা। তার চোখ থেকে দিনে অন্তত ৫০টি ক্রিস্টালের মতো স্বচ্ছ টুকরা ঝরে। ইউকের দ্যা সান পত্রিকা জানায়।

স্যাতেনিক কারাজায়ান জানান, একদিন তিনি অনুভব করলেন তার চোখ থেকে গুড়া গুড়া কিছু আসছে। আমি চোখে ব্যাথা অনুভব করছিলাম। পরে চিকিৎসকের কাছে গেলে চিকিৎসক আমার চোখ থেকে অনেকগুলো ক্রিস্টাল সাদৃশ্য টুকরা বের করে আনেন।

তিনি বলেন, প্রথমে ওসুধে কাজ হলেও এখন প্রায় সব সময়ই চোখ থেকে ক্রিস্টালের মত দেখতে ছোট ছোট টুকরো আসতে থাকে। আমি প্রতিদিন নরক যন্ত্রনার মধ্যদিয়ে পার করি। মনে হয় আমি জীবন্ত নরকে আছি।’

চিকিৎসকরা এ রোগের কোন চিকিৎসাই দিতে পারছেন না। কেন এমন হচ্ছে সে বিষয়ে তারা কিছুই বলতে পারছেন না। তারা হতাশ বলে জানালেন স্যাতেনিক কারাজায়ান।

স্যাতেনিক কারাজায়ানের পরিবার জানান, তার চোখ থেকে প্রথম যখন ক্রিস্টালের মতো দেখতে একটি দানা বেরুলে তার ভেবে ছিলেন ফার্মে কাজ করার সময় কাঁচ ঢুকেছে। কিন্তু স্যাতেনিকের চোখের যন্ত্রনা কিছুতেই কমছিল না। পরে তার চোখ থেকে আরও কিছু দানা বেরুলে তারা অবাক হন। এবং তাকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। এমনকি চিকিৎক প্রথমে আমাদের কথা বিশ্বাস করতে চাইছিলেন না। তাকে অনেক ডাক্তার দেখানো হয়েছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা তার চোখের পানি পরীক্ষা করেছেন কিন্তু কিছুই জানতে পারেন নি। এখন একটিই উপায় তাকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠানো। কিন্তু তাদের পরিবারের আর্থিক সামর্থ নেই।

এদিকে, আরমেনিয়ার স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ওগানেস আরটিউইয়ান জানান, ওই তরুণীর কেস নিয়ে গবেষণা চলছে। আমরা কিছু তথ্য উদঘাটন করতে পেরেছি। আরও কিছু গবেষণা বাকি। সকল তথ্য সংগ্রহ করে আমরা জানাতে পারবো কি কারণে এমনটি হচ্ছে।

আপনার মতামত জানানঃ