গোপালগঞ্জে বাস-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে কলেজ ছাত্রসহ নিহত ২ : আহত-৩০

গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে বাস-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে কলেজ ছাত্রসহ ২জন নিহত হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে কমপক্ষে ২০জন। এ ঘটনায় গোপালগঞ্জের চন্দ্রদীঘলিয়া পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটের বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। রোববার সকালে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার গোপীনাথপুরে এ সড়ক দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। গুরুতর আহত মর্জিনা বেগম (৪০) ও মন্টু শেখকে (৬০) আশংকা জনক অবস্থায় খুলনা পাঠানো হয়েছে। নিহতরা হলেন গোপালগঞ্জের গোপীনাথপুর পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটের ফুড টেকনোলজি বিভাগের ২য় পর্বের ১ম সেমিস্টারের ছাত্র কাশিয়ানী উপজেলার তিলছাড়া গ্রামের আনিচ মোল্লার ছেলে আশিকুর রহমান রেজা (১৭) ও অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার বোয়ালিয়া গ্রামের রুকু মোল্লা (৬২)। আহতদের গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আহতরা হলেন, মুকসুদপুর উপজেলার মমতাজ বেগম (৫০), হাসিনা বেগম (৫০), পারভেজ (২৫), ময়না (২৮), রীতা বেগম (৪২), কাশিয়ানীর রুনা বেগম (৩৫), মানতাসা বেগম (২০), কেরামত আলী সরদার (৪০), ফজর আলী (৬০), পটু (৩২), ছফেদা বেগম (৫৫), তন্দ্রা মনি (২১), সদর উপজেলার জামিরুর মোল্লা (৩৫), আলীম (৩৬), রিপন কাজী (২৫), মফিজুর রহমান (২৫), মর্জিনা (৪৫), লিটন মোল্লা (২৫), বাগেরহাটের ইসরাত (৩০) ও অজ্ঞাত (৪২)। আহত অন্যান্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
এ ঘটনার পর গোপালগঞ্জ পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউটের বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা প্রথমে ওই সড়কের চন্দ্রদীঘলিয়ায় সড়ক অবরোধ করে। পরে তারা গোপীনাথপুরে সড়ক অবরোধ করে এবং বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিআরসেল নিক্ষেপ করে। ঘটনার পর থেকে ওই সড়কের দু’পাশে অসংখ্য যানবাহন আটকা পড়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দুপুর ৩টা পর্যন্ত সড়ক অবরোধ চলছিলো।
অপর দিকে বাসে আগুন দেয়ার প্রতিবাদে দুপুর ১টা থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের পুলিশ লাইন্স মোড়ে আগুন জালিয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে বাস শ্রমিকরা।
গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি মো: মনিরুল ইসলাম জানান, ব্যাসপুর থেকে ছেড়ে আসা গোপালগঞ্জগামী একটি লোকাল বাসের সাথে গোপীনাথপুরে ইট ভর্তি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে বাসটি রাস্তার উপর উল্টে যায়। ঘটনাস্থলে বাসযাত্রী কলেজ ছাত্র রেজা মারা যায়। হাসপাতালে নেয়ার পর রুকু মোল্লাকে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সড়ক থেকে অবরোধ তুলে দিতে পুলিশ চেষ্টা করছে।
গোপালগঞ্জের এএসপি (সার্কেল) মোঃ সানোয়ার হোসেন জানান, মহাসড়ক অবরোধ প্রত্যাহারের জন্য বিক্ষুদ্ধ ছাত্র ও জনতার সাথে কথা বলছি। শ্রমিকদের সাথেও আলোাচনা চলছে। খুব দ্রুতই অবরোধ প্রত্যাহার হবে এবং যানবহন চলাচল স্বাভাবিক হবে বলে আশা করছি।

আপনার মতামত জানানঃ