জোটের নেতৃত্ব ছাড়বে না বিএনপি

ঢাকা অফিস : বিএনপি’র হাতেই থাকবে ২০ দলীয় জোটের নেতৃত্ব।  এ কথাই জানিয়েছেন দলটির নেতারা। তবে, যারা এ নেতৃত্ব মানতে পারবে না তাদেরকে জোট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তারা। একইসঙ্গে জোটের রাজনীতি বাদ দিয়ে দলকে শক্তিশালী করার কথাও বলছেন তারা।

সম্প্রতি বিএনপিকে ২০ দলীয় জোটের নেতৃত্ব ছেড়ে দিতে বলায় জোট শরিক এলডিপি প্রধানকে কড়া জবাব দিচ্ছেন বিএনপি নেতারা। তারা বলছেন, ২০ দলীয় জোটের চালিকাশক্তি হল বিএনপি। তাই জোটের নেতৃত্বই তাদের হাতেই থাকবে।

এ বিষয়ে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য শেখ মুজিবুর রহমান ইকবাল বলেন, ‘বিএনপি এতোবড় একটা দল। ওনার থেকে অনেক বড় আর যোগ্য নেতা আমাদের দলে এখনো আছে। বিএনপি এতটুকু দেউলিয়ায় এখনো হয়নি যে, বিএনপির নেতৃত্ব অন্য কারো হাতে দিতে হবে।’

অলি আহমেদ জোটের দায়িত্ব নিতে চাওয়া নেয়া প্রসঙ্গে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি এস এম এ বকর বলেন, ‘কর্ণেল অলি আহমেদ যে কথা বলেছেন সেটা তার একক কথা বলেই আমার মনে হয়। কারণ বিএনপি এতো বড় একটা দল সেটার নেতৃত্ব অন্য কারও হাতে ছেড়ে দেবে বলে আমার মনে হয়না। আর আমরা যেহেতু আছি সেহেতু এটা আমরা কখনো করতেও দেব না।’

বিএনপির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সহ-সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন বকুল বলেন, ‘কেউ আমার সাথে থাকতেও পারে, নাও থাকতে পারে। আবার দেখা গেল মহাজোট থেকে বের হয়ে আমাকে বা আমার আদর্শকে কারও ভালো লাগতে পারে। কাজেই এখানে আমার ভূমিকাটাই হল বড় জিনিস।

বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের নেতারা টাকার বিনিময়ে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করেছেন, কর্নেল অলির এই দাবিকেও ভিত্তিহীন বলছেন বিএনপি নেতারা।

বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেন, ‘আমাদের দলের কোনো নেতাকর্মী অথবা দলের কোনো প্রার্থীর এ ধরনের কোনো কার্যক্রমের সাথে সংশ্লিষ্টতা আছে বলে আমি বিশ্বাস করিনা।’

তবে, এসব অভিযোগকে ভিত্তিহীন উল্লেখ করে দলটির নির্বাহী কমিটির সদস্য শেখ মুজিবুর রহমান ইকবাল বলেন, ‘আমি মনে করি এসব ভিত্তিহীন কথাবার্তা, যদি এরকম কিছু হয়েই থাকে তাহলে তার প্রমাণ দিক এবং জনসম্মুখে প্রকাশ করুক। আমরা তার প্রতিবাদ করব।’

জোট নয়, বিএনপির নিজেকে শক্তিশালী করার সময় এসেছে বলেও মত দলটির শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের।

বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার মোহাম্মদ শাহজাহান ওমর (বীর উত্তম) বলেন, এই যে নাম সর্বস্ব, অফিস ও দপ্তর বিহীন, কর্মী ও নেতা বিহীন ২০ দলীয় জোট, এসব হাস্যকর।

তবে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোট সম্পর্কে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, ‘আমি অতীতেও এসবের পক্ষে ছিলাম না এখনও নই। কারণ বিএনপি কারও করুণার রাজনীতি করেনা। বিএনপি একটা বিশাল রাজনৈতিক দল।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভরাডুবির পর সংসদে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত থাকলেও হঠাৎ করে বিএনপির সংসদ সদস্যদের শপথ নেয়াকে কেন্দ্র করে টানাপড়েন শুরু হয়েছে ২০ দলীয় জোটে।

আপনার মতামত জানানঃ