ঝালকাঠিতে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার কান্ড !

মো:নজরুল ইসলাম, ঝালকাঠি : ঝালকাঠিতে আবারও সেই সাবেক ছাত্রলীগ নেতার কান্ড টক অব দ্যা টাউনে পরিনত। ঝালকাঠি পৌর-সভার কামারপট্টি রোডের ব্যাবসায়ী লাভু চৌধুরীকে হত্যার চেষ্টায় ওই সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সৈয়দ মিলন ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযোগ সূত্রে ও আহত লাভু জানায়, সৈয়দ মিলন তার মোবাইল ফোন দিয়ে তার স্ত্রী ও কলেজ পড়–য়া মেয়ের ফোনে কল দিয়ে উত্ত্যক্ত করে ও বিভিন্ন অপত্তিকর কথা বলে। এবিষয় সৈয়দ মিলন কে জিজ্ঞাসা করলে মিলন ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী হামলা চালায়। এতে লাভু গুরুত্বর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় লাভুকে উদ্ধার করে ঝালকাঠি হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করায়।

এঘটনায় মঙ্গলবার রাতেই আহত লাভুর স্ত্রী শিউলি বেগম বাদী হয়ে ব্যবসায়ী ও সৈয়দ টাওয়ারের মালিক সৈয়দ মিলনকে প্রধান আসামি করে ৪ জনের বিরুদ্ধে ঝালকাঠি সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন বলে পুলিশ নিশ্চিত করেছেন। এ হামলার ঘটনার পর থেকে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

মামলার বিবরণে ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের মতো ব্যবসায়ী লাভু চৌধুরী মঙ্গলবার রাতে ডাক্তার পট্টি রোড দিয়ে যাওয়ার সাথে সাথে কোনো কিছু বুঝে উঠার আগেই পূর্ব থেকে ওত পেতে থাকা একদল সন্ত্রাসী অতর্কিত লাভুর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। সন্ত্রাসীরা এলোপাথারি লাথি,ঘুসি মারতে মারতে রাস্তায় ফেলে দেয়। এসময় এলাকার শত শত লোকজন এই দৃশ্য দেখলেও সন্ত্রাসীদের ভয়ে কেউ এগিয়ে আসেনি। লাভু চৌধুরীকে হত্যার চেষ্টা করে ও তার সাথে থাকা মোবাইল টাকা পয়সা ছিনিয়ে নিয়ে সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।

অপরদিকে ঘটনার পরপরই সৈয়দ মিলন ও তার বাহিনী আত্মগোপনে রয়েছে। তবে একটি নির্ভর যোগ্য সূত্র জানিয়েছে,ঘটনার সময় মিলনও গুরুত্বর আহত হয়েছে। সে বরিশালে চিকিৎসা নিচ্ছে বলে সূত্রটি জানায়।

উল্লেখ্য সৈয়দ মিলন হঠাৎ করে সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি পদ পেয়ে আঙ্গুল ফঁলে কলাগাছ বনে গিয়েছে। এমনকি ক্ষমতাশীন দলের সাইনবোর্ডে টেন্ডারবাজী,জমি জবরদখলসহ বহু ঘটনার জন্ম দিয়ে কোটি পতির খাতায় নাম লিখিয়ে একের পর এক বিতর্কিত কর্মকান্ড করে আসছে। সম্প্রতি ক্ষমতার জোরে শহরের ডাক্তার পট্টি সরকারী খাল দখল করে সৈয়দ টাওয়ার নামে এক ভবন হাকিয়ে তার মধ্যে বসে নানা অপকর্ম করে আসছে বলে স্থানীয় একটি সূত্র জানিয়েছে।

এ ব্যাপারে সৈয়দ মিলন মুঠোফেনে বিষয়টি দুঃখজনক বলে সুকৌশলে ফোন কেটে দিয়ে কোন বক্তব্য দেননি।

এ ব্যাপারে ঝালকাঠি সদর থানার ওসি মো: তাজুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় রাতেই অভিযোগ পেয়ে থানায় মামলা রুজু হয়েছে। মামলা নং ২২ তারিখ ২৮/৩/২০১৮ইং। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত জানানঃ