ডুমুরিয়ায় সন্দেহ জনক দুই মহিলা আটক

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি : ডুমুরিয়ায় ব্যাংক থেকে টাকা নিয়ে ফেরার সময় বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সরকারি কর্মকর্তার ১১ হাজার ৫’শ টাকা খোয়া গেছে। থানা পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুই মহিলাকে আটক করেছে।
পুলিশ ও ভুক্তভোগী সুত্রে জানা গেছে, উপজেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের ক্যাশিয়ার খাদিজা খাতুন সোনালী ব্যাংক ডুমুরিয়া শাখা থেকে এক লাখ চুয়াল্লিশ হাজার নয়’শ আঠাশ টাকা উত্তোলন করে অফিসে ফিরছিলেন। তিনি ব্যাংকের দোতলার সিঁড়ি ধরে নামতে নামতে দেখেন দু’জন মহিলা তার পেছনে পেছনে রয়েছে। এক পর্যায়ে তারা ওই কর্মকর্তাকে ধাক্কা দেয়। তখন তার সন্দেহ হয় এবং সাইড ব্যাগ উল্টিয়ে দেখেন ধারালো অস্ত্র দিয়ে ব্যাগের কিছুটা অংশ কাটা আর টাকা বের হচ্ছে। এ সময় তিনি চিৎকার করলে আশপাশের ব্যবসায়ীরা এসে ওই দুই মহিলাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। এ ঘটনায় ক্যাশিয়ার খাদিজা খাতুন জানান, আমি ব্যাংক থেকে টাকা তুলে সিঁড়ি ধরে নামার সময় ওই দু’জন আমার পিছু নেয়। হঠাৎ ওরা আমাকে ধাক্কা দেয়। তখন আমার সন্দেহ হলে সাইড ব্যাগটি চেক করে দেখি ব্যাগের পাশে কাটা আর কেমন যেন টাকা বেরিয়ে আসছে। এ সময় আমি চিৎকার দিলে পাশের দোকানদাররা ছুটে এসে ওদের আটক করে। পরে আমি টাকা গনণা করে দেখি মোট টাকা হতে ১১ হাজার ৫’শ টাকা কম পড়ছে। আমরা ধারণা ওই দু’জন ব্যাগ কেটে টাকা বের করে নিয়েছে। এ বিষয়ে ডুমুরিয়া থানা ডিউটিরত অফিসার এ এস আই আলমগীর হোসেন জানান, ব্যাগ কেটে টাকা নেওয়ার অভিযোগে দুই মহিলাকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। এরা হল রুপসার কর্ণপুর এলাকার আবুল কালামের স্ত্রী আমিরুন বেগম (৫০) ও ছাচিবুনিয়া এলাকার সিদ্দিক আলীর স্ত্রী রবেজান বেগম (৪০)। আটক দু’জনকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে এবং উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দিক নির্দেশনা মতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আপনার মতামত জানানঃ