ঢাকার দর্শক মাতালো ‘কপাল’

নিজস্ব প্রতিনিধি : জাতীয় শিশু কিশোর নাট্য ও সাংস্কৃকিত উৎসবে ব্যাপক দর্শকনন্দীত হল ‘কপাল’ বৃহস্পতিবার জাতীয় শিল্পকলার নৃত্য ও সংগীত মিলনায়তনে কাব্য বিলাস নাট্য গোষ্ঠী মঞ্চায় করে নদী ভাঙ্গা মানুষের জীবন চিত্রের গল্প অবলম্বনে নাটক কপাল। রাহুল রাজ এর রচনা ও নির্দেশনা নাটকটি সব শ্রেনীর দর্শকের হৃদয় ছুঁয়ে যায়।

সোহাগ, টুনি, পাখির যেমন ছিল স্বাবলীল অভিনয় তেমনি রিজন ও ওসমান চরিত্রে সবার ছিল কড়া দৃষ্টি।

প্রতিটি দৃশ্যের পর পরই দর্শকদের মুহুর মুহুর করতালিতেই বোঝা যাচ্ছিল, যান্ত্রিক শহরের মানুষ গুলো সুস্থ্যধারার বিনোদনের জন্য কতটা মুখিয়ে থাকে। নাটক শেষে দর্শকেরা কপাল নাটক নিয়ে বিভিন্ন মন্তব্য জানান, মুন্ডা থেকে  নাটক দেখতে আসা জাহাঙ্গীর আলম জানান কাব্য বিলাসের সবার অভিনয় ছিল মন ছোঁয়। নাটকের কাহিনী ও সবার স্বাবলীল অভিনয়ে পদ্মার পাড়ের মানুষের জীবন চিত্র বাস্তব ভাবে আমাদের চোখের সামনে ফুটে উঠেছে।

কাব্য বিলাস নাট্য গোষ্ঠীর কপাল নাটকটি ছিল তাদের ৭৯ তম প্রযোজনা। গত বছর কোলকাতা আর্ন্তজাতিক নাট্য উৎসবে কপাল নাটকটি ব্যাপক দর্শকপ্রিয়তা পায়।

কপাল নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করে, মো: নাঈম, মালিহা বিশ্বাস, রাসেল, চাঁদনী নূর, আশরাফুল ইসলাম, অন্তর সরকার, নূর ইসলাম খান মামুন, মো: রিজন, মেহেদী হাসান, মনিকা বিশ্বাস, মিত্রা বিশ্বাস সহ আরো অনেকে। দলের পক্ষ থেকে মো: নাঈম জাতীয় ভাবে মঞ্চকুড়ি পদক অর্জণ করে। এবার নাট্য উৎসবে কাব্য বিলাস নাট্য গোষ্ঠীর অফিসিয়াল সহযোগী ছিল মীর সিরামিক্স।

উল্লেখ্য ‘প্রতিভার প্রতিক্ষায় নতুনের জয়গান’ এই শ্লোগানে কাব্য বিলাস নাট্য গোষ্ঠী বিগত ১৫ বছর যাবৎ নিয়মিত অপ সাংস্কৃতিক রোধে দেশ ও আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে সমাজ সচেতন ও ভিন্ন ধারা নাটক মঞ্চায়ন করে যাচ্ছে।

আপনার মতামত জানানঃ