দাকোপে আত্মঘাতি ড্রেজারে চলছে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন

আজগর হোসেন ছাব্বির,দাকোপ : দাকোপের শিংজোড়া ছিটেবুনিয়া এলাকায় উন্নয়ন কাজের নামে আত্মঘাতি ড্রেজার দিয়ে চলছে বালি উত্তোলন। যে কারনে বেড়ে চলেছে ভূমি ধসের আশংকা। ঘটনাটি বে আইনী হলেও দেখার যেন কেউ নেই।
উপজেলার কালীনগর ব্রীজ সংলগ্ন দাকোপ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় হতে ধোপাদী হরির ব্রীজ অভিমুখে জনগুরুত্বপূর্ন রাস্তাটি দীর্ঘ ১ বছরের অধিক সময় খুড়ে ফেলে রাখা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার কাজ না করায় সেখানে জন দূর্ভোগ চরমে। এলাকাবাসীর এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরেজমিন বিষয়টি দেখতে গেলে আতœঘাতি ড্রেজার ব্যবহারে বালি তুলে ভূমি ধসের ব্যবস্থা হচ্ছে এমন অভিযোগের গুঞ্জন শোনা যায় এলাকাবাসীর মাঝে। গুঞ্জনের সুত্র ধরে সেখানে উপস্থিত হলে দেখা যায়, ছিটেবুনিয়া দক্ষিন শেরের খালে চলছে আতœঘাতি ড্রেজার। দিনরাত সেই ড্রেজার দিয়ে চলছে বালি উত্তোলনের কাজ। কয়েকজন শ্রমিককে সেখানে কাজটি দেখভাল করতে দেখা যায়। তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয় কাজটি কে করাচ্ছে। সকলে মুখে যেন কুলুপ এটে বসে আছে। কেউ মুখ খুলতে চাইলোনা। অগত্য অদুরে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেল সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান দাকোপ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বিনয় কৃষ্ণ রায় কাজটি করাচ্ছেন। যে কারনে সহসা কেউ মুখ খুলতে চাইছেনা। ছোট খালের ভিতর থেকে এভাবে বালি উত্তোলনের ফলে সেখানে ভূমি ধসের সম্ভবনা শতভাগ। অর্থাৎ সেখানকার কৃষি জমি নিশ্চিত হুমকির মুখে। বিষয়টি দাকোপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের নজরে আনা হয়। তিনি দেখবেন বলে জানালেন। এভাবে বালি উত্তোলন কতটুকু বৈধ জানতে চাওয়া হয় সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান বিনয় কৃষ্ণ রায়ের কাছে। তিনি বললেন জনগুরুত্বপূর্ন রাস্তাটি ঠিকাদার খুড়ে ফেলে যাওয়ায় আমি সেখানে সামান্য কিছু বালি দিয়ে জনসাধারণের কল্যানে কাজটি করছি। অভিজ্ঞ মহলের প্রশ্ন একটি কল্যাণে যদি আরেকটি অকল্যাণের সৃষ্টি হয় তাহলে সেই কল্যাণের মূল্য কতটুকু থাকে ? শুধু শিংজোড়া নয়, দাকোপের বিভিন্ন এলাকায় এভাবে বিভিন্ন সময় অবৈধপন্থায় বেআইনী বালি উত্তোলন চলতে দেখা যায়। এলাকাবাসীর দাবী অকল্যান দিয়ে কল্যান না করে প্রকৃত উন্নয়ন এবং জনকল্যানে কাজ করা হোক।

আপনার মতামত জানানঃ