দাকোপে যজ্ঞমাঠে ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী গনধর্ষনের শিকার

দাকোপ প্রতিনিধি : খুলনার দাকোপে নামযজ্ঞ দেখতে এসে ৬ষ্ঠ শ্রেনীর এক ছাত্রী গনধর্ষনের শিকার হয়েছে । এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এলাকাবাসী এক যুবককে আটক করে থানা পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে।
উপজেলার বাজুয়া ইউনিয়নের আর্য্য হরিসভা মন্দির সংলগ্ন বিলের মধ্যে গত শুক্রবার (২ মার্চ) আনুমানিক রাত সাড়ে নয়টার দিকে এই গনধর্ষনের ঘটনা ঘটে। ভিকটিম বাগেরহাট জেলার রামপাল থানাধীন চকগোলা গ্রামের গৌরাঙ্গ সরকারের কন্যা । জানা যায় নামযজ্ঞ শোনর জন্য বাজুয়ার চুনকুড়ি গ্রামে মামা বাড়ীতে আসে। ঘটনার দিন শুক্রবার সন্ধ্যায় সে মামাদের সাথে নামযজ্ঞ মেলার মাঠে যায়। মাঠের একটি টেবিলে বসে খাবার খাওয়ার সময় ৫ যুবক এসে তাদের সরে গিয়ে একটু দূরে জমির আইলে বসার জন্য বলে। তখন মামাদের সাথে উক্ত ছাত্রীও সেখানে যায়। কিছুক্ষণ পর অচেনা যুবকরা তার মামাদের বেঁধে মারতে মারতে দূরে নিয়ে যায়। এরপর কয়েকজন যুবক ওই ছাত্রীর মুখ বেঁধে একটি নির্জন কাঁটাবনে নিয়ে তাকে পালাক্রমে ধর্ষন করে এবং ধর্ষনের ভিডিও ধারণ করে। মেয়েটি নিস্তেজ হয়ে পড়লে তারা যাওয়ার সময় এই মর্মে হুমকি দেয় বিষয়টি কাউকে জানালে এই ভিডিও বাজারে ছড়িয়ে দেওয়া হবে। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর মাঠে উপস্থিত জনতা ইউনিয়নের চুনকুড়ি গ্রামের রফিকুল ইসলাম (৩২) নামের এক যুবককে ধরে দাকোপ থানা পুলিশে সোপর্দ করে। ভিকটিমের স্বজনরা তাকে ওই রাতেই দাকোপ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে চিকিৎসকরা উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনাা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক ধারনামতে ধর্ষনের আলামত পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, অতিরিক্ত রক্ত ক্ষরনে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনায় পাঠানো হয়। এ রিপোর্ট লেখার সময় ভিকটিমের পিতার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ব্যস্ততায় নতুন কোন তথ্য দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। থানা পুলিশ জানায় তাৎক্ষনিক এলাকাবাসী একজনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে। তবে এ ঘটনায় ভিকটিম পরিবারের পক্ষ থেকে কোন মামলা দায়ের করা হয়নি।

আপনার মতামত জানানঃ