মরা মানুষ জীবিত হলো, ভয়ানক ঘটনা

ইউনিক ডেস্কঃ হাসপাতালে কন্যা সন্তান প্রসবের পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ প্রসূতিকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত দেহের সৎকার করার সময় পরিবারের লোকজন মৃত দেহকে নড়তে চড়তে দেখে অবাক হয়ে যায়। পরে আবার তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে দ্রুত হাসপতালে নেওয়া হয়। এটা কোনো সিনেমা বা গল্প নয়। সত্যি এরকম ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের ছত্রপুর জেলার সরকারি হাসপাতালের এক প্রসূতি মায়ের সঙ্গে। অভিযোগ উঠেছে চিকিৎসার গাফিলতির অভিযোগে প্রাণ হারাতে হল প্রসূতি ওই মহিলাকে। গত শুক্রবার ছত্রপুর জেলার সরকারি হাসপাতালে একটি কন্যাসন্তানের জন্ম দেন এক প্রসূতি। কিন্তু সন্তান জন্ম দেওয়ার পরেই শ্বাসকষ্ট শুরু হয় ওই মহিলার। কিছুক্ষণের মধ্যেই ওই প্রসূতির মৃত্যু হয় বলে জানিয়ে দেন চিকিৎসকেরা।

মৃত সেই প্রসূতির শেষকৃত্যের জন্য হাজির হয়েছিলেন পুরোহিতও। সমস্ত বাড়ি জুড়ে তখন শোকের ছায়া। কিন্তু আচমকাই ছন্দপতন। শেষকৃত্যের আগেই নড়াচড়া শুরু হল মৃতদেহে। জীবিত মানুষকে মৃত বলে ঘোষণা করে দিলেন চিকিৎসকেরা। সন্তান প্রসব করার পর পরিবারের লোকেদের বলে দেওয়া হয়, শ্বাসকষ্টে ওই মহিলার মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পরেই দেখা যায়, রীতিমতো নড়াচড়া করছেন ওই মহিলা।

তড়িঘড়ি ওই মহিলাকে অ্যাম্বুল্যান্সে করে হাসপাতালে রওনা দেন পরিবারের লোকেরা। মাঝপথেই ফের শ্বাসকষ্ট শুরু হয় ওই মহিলার। কিন্তু অ্যাম্বুলেন্সে অক্সিজেন সিলিন্ডার না থাকায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাঁর। পরে জেলা হাসপাতালে ওই মহিলাকে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসকেরা ফের তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। গোটা ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে চিকিৎসার গাফিলতির অভিযোগ করেছেন মৃতের পরিবার এবং প্রশ্নের মুখে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ভূমিকা।

সূত্র-এবেলা

আপনার মতামত জানানঃ