শরণখোলায় বাস চাপায় স্কুলছাত্রী নিহত: আহত ৫

শরণখোলা প্রতিনিধিঃ বাগেরাহাটের শরণখোলা-মোরেলগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে সুমাইয়া আক্তার (১১) নামের এক স্কুল ছাত্রী নিহত হওয়ার ঘহটনায় সকাল থেকে সড়ক অবরোধ করে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় জনতা। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সড়কের গাজির ব্রিজ সংলগ্ন আলতাফ আকনের বাড়ির সামনে শিক্ষার্থীবাহী একটি মোটর চালিত ভ্যানে বিপরিত দিক থেকে আসা বাসে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই সুমাইয়া মারা যায়। এঘটনা আরো চার শিক্ষার্থী ও ভ্যান চালক গুরুতর আহত হয়েছে। নিহত স্কুল ছাত্রী উপজেলার ধানসাগর ইউনিয়নের ছোট নলবুনিয়া গ্রামের আ. আউয়াল তালুকদারে মেয়ে। সে ১১০ নম্বর নলবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী। এদিকে, ঘটনার প্রতিবাদে স্থানীয় বিক্ষুব্ধ জনতা শরণখোলা-মোরেলগঞ্জ রুটে চলাচলকারী লোকাল পরিবহণের সমস্ত বাস বন্ধ করে দিয়েছে। শত শত মানুষ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে। মর্মান্তি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না হওয়া পর্যন্ত অবরোধ চলবে বলে জানিয়ে বিক্ষোভকারীরা। ঘটনার পরই পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, এদিন সকাল সাড়ে ৯টার দিকে নলবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছয় জন শিক্ষার্থী পঞ্চম শ্রেণির মডেল টেষ্ট পরীক্ষা দিতে ভ্যানযোগে আমড়াগাছিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সেন্টারে যাচ্ছিলো। এমন সময় বিপরিত দিক থেকে ঢাকা-ব-১০১৩ নম্বরের একটি যাত্রীবাহী বাস শিক্ষার্থীদের বহনকারী ভ্যানে ধাক্কা দেয়। এসময় চাকার নিয়ে পড়ে সুমাইয়ার মৃত্যু ঘটে। এঘটনায় রাব্বি, মহসিন, রহিম, বাদশাসহ চার শিক্ষার্থী ও ভ্যানচালক ইলিয়াস তালুকদার (২০) গুরুতর আহত হয়। আহতদের শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল জলিল জানান, সুমাইয়ার লাশ হাসপাতালে পুলিশের তত্বাবধানে রয়েছে। ময়না তদন্ত না করার জন্য জেলা প্রশাসক বরাবর অভিবাবকদের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছে। বিষয়টি সমাধানের জন্য মালিক সমিতির নেতাদের সাথে বসার কথা রয়েছে। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (দুপুর দেড়টা) সড়ক অবরোধ চলছে।

আপনার মতামত জানানঃ