সাঁথিয়ায় আ’লীগের দুগ্রুপের পাল্টাপাল্টি সভায় উত্তপ্ত রাজনৈতিক অঙ্গন

ফারুক হোসেন, সাঁথিয়া(পাবনা): একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার প্রত্যাশয় আ’লীগের দু’গ্রুপের পাল্টাপাল্টি সভা-সমাবেশকে কেন্দ্র করে পাবনার সাঁথিয়ায় আ’লীগের রাজনৈতিক অঙ্গন বেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। চলছে নানামূখী সমীকরণ। আ’লীগের একদিকে রয়েছেন সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশ সংবিধান প্রনয়ণ কমিটির সদস্য মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক অধ্যাপক ড.আবু সাঈয়িদ। অপরদিকে রয়েছেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এ্যাড. শামসুল হক টুকু এমপি। অধ্যাপক সাঈয়িদ “বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরতœ শেখ হাসিনা মঞ্চর”মাধ্যমে জঙ্গীবাদ,সন্ত্রাস,দুর্নীতি, মাদক ও স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তিকে রুখে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণে দেশরতœ শেখ হাসিনার কর্মকান্ডকে তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে ৫ মে থেকে ১১ মে পর্যন্ত ৬৮,পাবনা-১ (সাঁথিয়া-বেড়া ) আসনে ১৬টি ইউনিয়নের শতাধিক গ্রামে জনসভা করেন। এদিকে একই ভাবে জঙ্গীবাদ,সন্ত্রাস,দুর্নীতি, মাদক ও স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তিকে রুখে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণে দেশরতœ শেখ হাসিনার কর্মকান্ডকে তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে দেয়ার লক্ষে এ্যাড শামসুল হক টুকু তার জনসংযোগ কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন।এরই মধ্যে তিনি উপজেলার পাইকরহাটিতে শহীদ নগর ডাব বাগান দিবস পালন উপলক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীকে প্রধান অতিথি করে বিশাল জনসভা করেছেন। আবার সোমবার (১৪মে) উপজেলার বাউশগাড়িতে গণহত্যা দিবস পালন উপলক্ষে বিশাল জনসভার আয়োজন করেছেন।এতে প্রধান অতিথি হিসেবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এমপি ও বিশেষ অথিতি শামীম ওসমান এমপি থাকার কথা রয়েছে । কর্মসূচি পালনকালে উভয় নেতার সাথে থাকে মটর সাইকেল ও মাইক্রোবাসের বহর। কার নেতা বড় ও কত শক্তিশালী এ নিয়ে কর্মীদের মধ্যে বাহাস ও উত্তেজনা লক্ষ্য করা যায়। সাধারন জনগনের ভাষ্য সামনের নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য এটি আ’লীগের দুই নেতার মাঠ পর্যায়ে শক্তির মহড়া। তবে এখন পর্যন্ত বড় ধরনের কোন সংঘর্ষ হয়নি। অধ্যাপক সাঈয়িদ অভিযোগ করেন প্রশাসনের পূর্বানুমতি নেয়া সত্ত্বেও ধুলাউড়ি বাজারে, জোড়গাছা ঈদগাহ মাঠে ও সাঁথিয়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে সভা করতে পারেনী। তিনি বলেন, আমার সভা ভন্ডুল করার জন্য ৮মে দুপুরে প্রতিপক্ষ ধুলাউড়ি বাজারে আমার নির্ধারিত জায়গায় পরিকল্পিত ভাবে সভা করেছে। ১০ মে বিকেলে জোড়গাছায় ১৪৪ধারা জারি করা হয়েছে । পরের দিন ১১ মে আবারও ১৪৪ধারা জারি করে সাঁথিয়া পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে আমাকে জনসভা করতে দেয়া হয়নি। আ’লীগের দু’গ্রুপের এই পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি পালন কালে জামাতের সাবেক আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর ছেলে ব্যারিস্টার মাওলানা নজিবুর রহমান মোমেনের ছবি সম্বলিত পোস্টারে সারা উপজেলা ছেয়ে গেছে । এতে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা ও সালাম জানানো হয়েছে। আ’লীগের দু’গ্রুপের এই কাঁদা ছোঁড়াছুঁড়িতে জামাত বেশ খোশ মেজাজে আছে। এ নিয়েই সুধীমহল থেকে শুরু করে চায়ের টেবিলে দোকানে বাজারে চলছে নানামুখী সমীকরণ।

আপনার মতামত জানানঃ