সারাদেশে ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে ডেঙ্গু

ঢাকা অফিস : রাজধানীসহ সারাদেশে ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে ডেঙ্গু। প্রতিদিনই রেকর্ড হারে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৫ হাজার ৮শ’ ৩৮ জন।  বৃহস্পতিবার ঢাকা ও সলিমুল্লাহ মেডিকেল এবং হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত তিনজন মারা গেছেন।

রাজধানীর হাসপাতালগুলোয় প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। সেই সাথে বাড়ছে ডেঙ্গু নিয়ে মানুষের মনে ভীতি। সামাণ্য জ্বরেই সবাই ছুটছেন হাসপাতালে।

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেলো, ডেঙ্গু সনাক্তের পরীক্ষা ও রিপোর্ট তুলতে গিয়ে তীব্র ভোগান্তিতে পড়ছেন মানুষ। অনেক বেসরকারি ক্লিনিক ও হাসপাতালের বিরুদ্ধে রিএজেন্ট সংকটের অজুহাতে পরীক্ষা বন্ধ রাখার অভিযোগ করেছেন রোগীর স্বজনরা।

এসব অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, ডেঙ্গু সনাক্তের পরীক্ষায় সরকারি হাসপাতালে যে হারে রোগী আসছে, এমন চলতে থাকলে আগামী দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে তাদেরও রিএজেন্ট সংকট দেখা দেবে।

সলিমুল্লাহ মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩২৮ ডেঙ্গু রোগী। রোগীদের বাড়তি চাপ সামাল দিতে একশ’ শয্যার ডেঙ্গু ইউনিট উদ্বোধন করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়েও চালু রয়েছে ১৫০ বেডের ডেঙ্গু ওয়ার্ড।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার সাতশো বারো জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত সারা দেশে আক্রান্ত হয়েছে ১৯ হাজার ৫শ’ ১৩ জন। বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৫ হাজার ৮শ’ ৩৮ জন।

এদিকে, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী বিভাগের ৮জেলায় এ পর্যন্ত হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা নিয়েছেন ৩৪৭ জন। এর মধ্যে ৯৪ জন চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরে গেছেন। হাসপাতালে এখনো চিকিৎসা নিচ্ছেন ২৫৩ জন।

রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দনাথ আচার্য জানান, ডেঙ্গুতে আক্রান্তদের কেউই মারা যাননি। তবে আব্দুল ওয়াহেদ (৭৫) নামের  আত্রাইয়ের এক ব্যক্তি আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। তার স্ত্রী আকিকুন নাহার (৬৫) আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন।

তিনি আরো জানান, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৯২জন, চাঁপােইনবাবগঞ্জ হাসপাতালে ২০জন, নওগাঁ হাসপাতালে ১৫ জন, নাটোর হাসপাতালে ৭জন, জয়পুরহাট হাসপাতালে ৪জন, বগুড়া হাসপাতালে ১৫২জন এবং সিরাজগঞ্জ হাসপাতালে ৫৭ ভর্তি হয়েছিলেন। এদের মধ্যে ৯৪ জন সুস্থ্য হয়েছে। তবে কেউই মারা যাননি।

পরীক্ষা-নিরিক্ষার মাধ্যমে সব সরকারি জেলা হাসপাতালেই ডেঙ্গু সনাক্তের ব্যবস্থা রয়েছে। সিটি করপোরেশন, পৌরসভা ও জেলা প্রশাসন মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি ডেঙ্গু মশা নিধনে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে।

এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রাম বিভাগে ৯৪ জন, খুলনায় ৭৬ জন, রংপুরে ৩৩ জন, বরিশালে ৬৩ জন, সিলেটে ৩১ জন, ময়মনসিংহে ৬২ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন।

আপনার মতামত জানানঃ