সুন্দরবনের শুকরের হামলায় দুই কৃষক গুরুতর জখম

বাগেরহাট অফিস: সুন্দরবন সংলগ্ন বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে সুন্দরবনের শুকরের হামলায় দুই কৃষক গুরুতর জখম হয়েছেন। শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে আমরবুনিয়া গ্রামে এ ঘটন ঘটে। আহত কৃষক মোতালেব শেখের ছেলে প্রতিবন্ধী খোকন শেখ(২৫) ও হাসান শেখকে(২২) রাত ২টায় মোরেলগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

মোরেলগঞ্জ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. কামাল হোসেন মুফতি বলেন, শুকরের কামড়ে খোকনের শরীরের গভীর ক্ষত হয়েছে। তাই দ্রæত খুলনায় পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, মধ্যরাতে সুন্দরবনের শতাধীক শুকর দলবেধে খাবারের সন্ধানে বন থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার লোকালয় আমরবুনিয়া গ্রামে ঢুকে পড়ে। দলটি মোতালেব শেখের আলু খেতে হানা দেয়। এসময় পাহারায় থাকা খোকন ও তার ভাই বাঁধা দিলে শুকরগুলো তাদের ওপর চড়াও হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, আমরবুনিয়া টহল ফাঁড়ি এলাকাটি আদৌ সংরক্ষিত নয়। ভোলা নদী ভরাট হয়ে গেছে। বন সীমানায় গড়া-বেড়া নেই। তাই প্রতিদিন বাঘ, শুকরসহ নানা ভয়ংকর বন্যপ্রাণী লোকালয়ে ঢুকে জান-মালের ক্ষতি করছে।

এ বিষয়ে গুলিশাখালী টহল ফাঁড়ির স্টেশন কর্মকর্তা(এসও) মো. মনিরুল হক বলেন, শুকরের হামলায় দু’জন আহত হবার ঘটনা উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদেরকে জানানো হয়েছে। তারা ব্যবস্থা নিবেন।

এ সম্পর্কে পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. মাহমুদুল হাসান বলেন, গুলিশাখালী টহল ফাঁড়ি এলাকায় নিরাপত্তা বেষ্টনী স্থাপনের জন্য একটি প্রকল্প প্রস্তাব করা হয়েছে। এটি অগ্রাধীকার ভিত্তিতে বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে। ওই এলাকায় বন্য প্রানীর হামলায় এ পর্যন্ত যারা আহত হয়েছে তাদেরকে আর্থিক সহযোগীতা করা হবে বলেও এ কর্মকর্তা জানান।

প্রসংগত, গত ২৩ জানুয়ারি একটি বাঘ এই একই ফাড়ি এলাকা থেকে লোকালয়ে ঢুকে ৫জনকে আহত করে। আত্মরক্ষার্থে এদিন স্থানীয়রা বাঘটিকে পিটিয়ে হত্যা করেন।

আপনার মতামত জানানঃ