হিন্দু যুবকদের হাতে অস্ত্র তুলে নিতে হবে: TMC

আর্ন্তজাতিকঃ আগে প্রতিশোধ নিতে হবে, তারপর থানায় যেতে হবে।’ মহিলাদের সম্মান রক্ষার জন্য এবার হিন্দু যুবকদের হাতে অস্ত্র তুলে নেওয়ার নিদান দিলেন বিজেপির (BJP) রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। তিনি বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ হল মাতৃপূজার দেশ। এখানকার মানুষ ভেবেছিলেন, মহিলাকে মুখ্যমন্ত্রী করে দেখা যাক, হয়তো মা-বোনের সম্মান সুরক্ষিত হবে। হল কি! তিনি মহিলাদের বলছেন চরিত্র খারাপ। ইজ্জতের দাম লিখে দিচ্ছেন। ধর্ষিতার ক্ষতিপূরণ দিচ্ছেন। মহিলাদের সম্মান বিক্রি করার অধিকার কে দিয়েছে?’ তৃণমূল কংগ্রেসের (TMC) জেলা সভাপতির পাল্টা হুঁশিয়ারি, ‘যদি ভেবে থাকেন, তৃণমূলের লোকের হাতে চুরি পরে বসে আছে, তাহলে ভুল ভাবছেন।’
দলের কর্মসূচি নয়, বুধবার হিন্দু জাগরণ মঞ্চের সভা ছিল পশ্চিম মেদিনীপুরের গড়বেতায়। সেই সভায় ভাষণ দিতে গিয়ে ফের বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। বললেন, ‘মা-বোনেদের সম্মান রক্ষার্থে হিন্দু যুবকদের এক হতে হবে। প্রয়োজনে হলে অস্ত্র ধরতে হবে। সংবিধান আমাদের সেই অধিকার দিয়েছে। ধর্ম রক্ষার্থে,সম্মান রক্ষার্থে, প্রাণ রক্ষার্থে অস্ত্র ধরাটা আইনের চোখের কোনও অপরাধ নয়। আমরা সেটাই করব।’ কেন রাজ্যে মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধ বাড়ছে, তারও ব্যাখ্যা দিয়েছেন বিজেপির (BJP) রাজ্য সভাপতি। তাঁর মতে, ‘হাতের পেশি নরম হয়ে গিয়েছে। তাই তলোয়ার ধরতে পারছি না, বন্দুক ধরতে পারছি না। চোখে সামনে মা-বোনেদের টেনে নিয়ে যাচ্ছে, ধর্ষণ করছে। আর আমরা মে মে করে থানায় যাচ্ছি। আগে প্রতিশোধ নিতে হবে, তারপর থানায় যেতে হবে।’
দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের পাল্টা দিয়েছেন তৃণমূলের (TMC) পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি অজিত মাইতি। তাঁর হুঁশিয়ারি, ‘এমন বেআইনি কথা বিজেপি নেতাদের মুখেই শোভা পায়। বেআইনি কথা বলে লাভ নেই। কেউ অস্ত্র নিলে পুলিস ব্যবস্থা নেবে। আমরা বুঝে নেব। ঊনি যদি ভেবে থাকে, তৃণমূলের লোকের হাতে চুরি পরে বসে আছে, তাহলে ভুল করছে। একটা নয়, হাজারটা দিলীপ ঘোষকে সামলানোর ক্ষমতা তৃণমূলের আছে।

আপনার মতামত জানানঃ