হুমকির মুখে বটিয়াঘাটার আমন ধান উৎপাদন

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বটিয়াঘাটা উপজেলায় আমন মৌসুমে গত কয়েক দিনের ভারি বর্ষণে আমন ধানের ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। যে কারণে এ উপজেলায় আমন ধানের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হওয়ার আশংকাকরছে এলাকার কৃষকেরা। সূত্রে প্রকাশ, বঙ্গোপ সাগরে সৃষ্ঠ নি¤œচাপের প্রভাবে গত কয়েকদিনের ভারি বর্ষণে এলাকার হাজার হাজার হেক্টর জমির আমন ধান পানির নিচে তলিয়ে যায়। অপরদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্মিত পানি নিষ্কাষণের স্লুইচ গেটগুলো অধিকাংশ অকেজো হয়ে পড়ে আছে। যা পানি নিষ্কাষণে ব্যাপক ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে। খুলনা সহ দেশের বিভিন্ন জেলায় খ্যাতি লাভ করে আছে জলমার ভাটেল (আতপ) চাল। নানা কারণে জলমার ভাটেল অর্থাৎ আতপ চাল বিলুপ্তির পথে। উপজেলার জলমা ইউনিয়ন ভৌগলিক অবস্থা ও পরিবেশগত দিক থেকে বিবেচনা করলে এখানকার আতপ চাল অন্যতম। যা এতদিন যাবৎ ভাটেল চাল উৎপাদনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। এটি শহর সংলগ্ন ইউনিয়ন হলেও কৃষি কাজই এখানকার প্রধান জীবন জীবিকা। আর জীবন জীবিকার ক্ষেত্র হিসেবে চাষাবাদের জমিতে শিল্পপতি, ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক নেতা ও ভূমি দস্যুদের শ্যোণ দৃষ্টি এখানকার নিশ্চিত ভবিষ্যতকে অন্ধকারের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। ভূমি দস্যুরা অবৈধ ভাবে সরকারী ভরাটি খাস খাল দখল ও প্লটের রাস্তা নির্মাণ করায় কৃত্রিম জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। এতে একদিকে যেমন কৃত্রিম জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে, অন্যদিকে পরিবেশের ভারসাম্য হারিয়ে যাচ্ছে। যার কারণে আমন ধানের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। এতে জলমার ভাটেল চালের ঐতিহ্য হারিয়ে যেতে বসেছে। গত কয়েক দিনের ভারি বর্ষণে আমন ধান গলা সমান পানির নিচে তলিয়ে গেছে। পানি নিষ্কাষণ হলে আমন ধান মাটির সাথে মিশে অপুষ্টির কারণে ধান চিটা হয়ে যেতে পারে। যারফলে এ উপজেলায় আমন মৌসুমে আমন ধানের লক্ষ্যমাত্র অর্জিত না হবার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে বটিয়াঘাটা উপজেলা কৃষি অধিদপ্তরের কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মিসেস রুবায়েত আরা জানান, গত কয়েক দিনের ভারি বর্ষণে কিছু ক্ষতি হতে পারে। তবে আর কোন বড় ধরণের প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও পোকার আক্রমণ না হলে আমন ধানের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে।

আপনার মতামত জানানঃ