বড়পুকুরিয়া খনি এলাকায় নতুন করে বাড়ী ঘরে ফাটল: আতঙ্কে ৫ গ্রামের মানুষ

মেহেদী হাসান উজ্জ্বল ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির অধিগ্রহনকৃত এলাকার বাইরে ৫ টি গ্রামে নতুন করে ঘরবাড়ীতে ফাটল দেখা দিয়েছে।এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে গ্রামবাসীরা। গতবুধবার ২ আগস্ট দেয়াল ধসের ঘটনা ঘটছে। দেয়াল ধসের হাত থেকে রক্ষা পেতে, এখন পরিবার পরিজন নিয়ে ঘর ছেড়ে বাড়ীর আঙ্গিনায় বাস করছেন অনেকে।
এদিকে খনির কারনে ৫ টি গ্রাম পাতরাপাড়া, বাশঁপুকুর, কাজীপাড়া ্ৈবদ্যনাথপুর এবং পাতিগ্রামে নতুন করে ভুমি অবনমন হতে শুরু করেছে । ইতিমধ্যে ফুলবাড়ী-বড়পুকুরিয়া রাস্তাটি কয়েক দফা উচু করলেও এখন তা আবারো তলিয়ে গেছে পানির নিচে। যে কোন সময় রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়তে পারে।
জীবন সম্পদ ও পরিবেশ রক্ষা কমিটির যুগ্ম আহবায়ক মামুনুর রশিদ বলেন খনি থেকে কয়লা উত্তোলনের সময় যে ঝাকুনির সৃষ্টি হয়, তাতে অধিগ্রহনকৃত এলাকার বাইরে বাড়ী ঘরে ফাটল দেখা দিয়েছে, একই কথা বলেন পাতরাপাড়া গ্রামের হিটলার ও সাবেক ইউপি সদস্য সাইদুর রহমান। গ্রামবাসীরা জানায়,গত বুধবার সন্ধায় কাপুনি শুরু হলে বাশঁপুকুর গ্রামের মেহেদুলের বাড়ীর ইটের প্রাচির ভেঙ্গেপড়ে। এতে তার কয়েকটি গবাদিপশু আহত হয়। দেয়াল ধসে চাপা পড়ে যে কোন সময় প্রানহানীর ঘটনা ঘটতে পারে বলেও তারা আশংকা করছেন। গ্রামবাসীরা এখন এই সম্যসা উত্তোরনের জন্য সরকারের উর্দ্ধতন মহলের দিকে তাকিয়ে আছে।
বড়পুকুরিয়া কোলমাইনিং কোম্পানী লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিব উদ্দিন আহম্মেদ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, গ্রামবাসীদের ক্ষতিপুরন প্রদানের জন্য ইতিমধ্যে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন, তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সেই তদন্ত কমিটি ক্ষতি পুরনের প্রতিবেদন জমা দিলেই গ্রামবাসীদের মাঝে ক্ষতিপুরন প্রদান করা হবে।

ঢালাইয়ের এক ঘন্টার মধ্যে ভেঙ্গে পড়েছে সেতু

সেলিম হায়দার ,তালা : সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় নির্মানাধীন সেতু ঢালাইয়ের কাজ শেষ হওয়ার এক ঘন্টার মধ্যে ভেঙ্গে পড়েছে। বৃহস্পতিবার (৩ আগষ্ট) বিকাল ৪ টার দিকে সেতুটি ভেঙ্গে পড়ে। এতে স্থানীদের মাঝে নানা ধরণের প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।
তাদের অভিযোগ, নিয়ম অনুযায়ী কাজ করা হয়নি। কাজ তদরকি কর্মকর্তারাও ঠিক মতো তদারকি করেন না। শ্রমিকরা যে ভাবে পারে সেই ভাবে কাজ শেষ করার চেষ্টা করছে। সে কারণে ভেঙ্গে পড়েছে। কাজের নিয়ম অনুযায়ী, ঢালাই কাজ করার আগে তদারকি কর্মকর্তাকে নিয়ে কাজ দেখাতে হবে। এরপর তার উপস্থিতিতে ঢালাইয়ের কাজ করতে হবে। অথচ এ নিয়ম মানেনি ঠিকাদার। তিনি নিজের মতো কাজ কাজ ঢালাই দিয়েছে। তালা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তত্বাবধায়নে প্রায় ১৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা ব্যয়ে উপজেলার শাহাপুর বাজারের উপর দিয়ে প্রবাহিত খালের উপর এ ব্রিজটি নির্মিত হচ্ছে। পাইকগাছার ঠিকাদারী প্রতিষ্টান চাঁদনি এন্টারপ্রাইজ কাজ বাস্তবায়ন করছিলেন।
স্থানীয় শাহাপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম, আমেনা বেগম, আনোয়ারা বেগমসহ কয়েকজন জানান, সকাল থেকে ঢালাই দেওয়ার প্রস্তুতি চলছিল। সকাল ১০ টার দিকে ঢালাই শুরু করে ঠিকাদারের লোকজন। বেলা সাড়ে তিন টার দিকে সেতুর ছাদ ঢালাইয়ের কাজ শেষ হয়। এর কিছু সময়ের মধ্যে নিচে পানির মধ্যে সেতুর ছাদ ভেঙ্গে পড়ে। ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের অংশীদার (পার্টনার) জাহাঙ্গীর আলম জানান, সাটারিং সরে যাওয়ায় ভেঙ্গে পড়েছে। এতে কাজে কোন অনিয়ম হয়নি। সেখানে কর্মকর্তরা সবাই উপস্থিত ছিলেন।
তালা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. মাহাফুজুর রহমান জানান, কাজের জন্য সাটারিং করছিল। সেই সাটারিং ভেঙ্গে পড়েছে বলে দাবী করেন তিনি। তবে স্থানীয়রা জানান, ঢালাই কাজ শেষ হওয়ার এক ঘন্টার মধ্যে ছাদ ভেঙ্গে পড়েছে। তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফরিদ হোসেন বলেন,‘ঢালাইয়ের বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। ভেঙ্গে যাওয়ার পর বিষয়টি তিনি শুনেছেন।’

 

আন্তঃস্কুল ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ফুটবলে ফুলতলা রি-ইউনিয়ন স্কুল খুলনা জেলা চ্যাম্পিয়ান

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ফুলতলা রি-ইউনিয়ন মডেল স্কুল এন্ড কলেজ ফুটবলে খুলনা জেলা চ্যাম্পিয়ান হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে জেলা স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতামুলক এ খেলায় ফুলতলা রি-ইউনিয়ন মডেল স্কুল এন্ড কলেজ ১-০ গোলের ব্যবধানে ডুমুরিয়া এনজিসি এন্ড এনজিকে স্কুলকে পরাজিত করে। খেলার প্রথমার্ধে বিজয়ী দলের নাঈম একমাত্র গোলটি করে। খেলা শেষে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা জেলা প্রশাসক মোঃ আমিন-উল-আহসান। বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (আইসিটি) মোঃ গিয়াস উদ্দিন। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আরিফুর রহমান, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শেখ মতিউর রহমান, নারায়ণ চন্দ্র মন্ডল, মোঃ সোহেল হোসেন, অধ্যক্ষ প্রফুল্ল কুমার চক্রবর্তী, প্রধান শিক্ষক আয়ুব আলী।