কেশবপুরে কন্যা শিশু দিবস ও বাল্যবিবাহ নিরোধ দিবস পালিত

এস আর সাঈদ, কেশবপুর : যশোরের কেশবপুরে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী ও উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস ও বাল্যবিবাহ নিরোধ দিবস ১৩ অক্টোবর পালিত হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিজানূর রহমানের সভাপতিত্বে শিশু সমাবেশ, মানববন্ধন, বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন-২০১৭ লিফলেড বিতরণ, চিত্রাংকন ও দেশাত্ববোধন গানের প্রতিযোগিতা এবং প্রতিবন্ধী, অটিস্টিক, সুবিধা বঞ্চিত ও প্রাক-প্রাথমিক শিশুদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কেশবপুর পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম,  উপজেলা প্রেসকাবের সভাপতি এস আর সাঈদ, প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নান, সহকারী প্রধান শিক্ষক প্রবীর দত্ত, শিশু একাডেমীর প্রশিক্ষক  উজ্জ্বল ব্যানার্জী, অলোক বসু বাপী প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন শিশু একাডেমীর ইকরামূল ইসলাম।

সাতক্ষীরায় মাচা পদ্ধতিতে সবজি চাষ করে বিপ্লব 

সেলিম হায়দার : সাতক্ষীরায় মৎস্য ঘেরে মাচা পদ্ধতিতে সবজি চাষ করে বিপ্লব ঘটেছে। এ পদ্ধতিতে লাউ, কুমড়া ও করোলার (উচ্ছে) বাম্পার ফলনে সম্ভাবনার নবদিগন্ত দেখা দিয়েছে। এতে একই জমির বহু ব্যবহারে কৃষকের আয় যেমন কয়েক গুণ বাড়ছে, তেমনি দেশে সবজির চাহিদা মেটাতেও রাখছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।

সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়ক সংলগ্ন তালা উপজেলার নগরঘাটা ইউনিয়নের মিঠাবাড়ি বিলে গিয়ে দেখা গেছে, শত শত বিঘা জমির মৎস্য ঘেরে মাচা পদ্ধতিতে লাউ, কুমড়া ও করলার চাষাবাদ করা হয়েছে। মাচায় ঝুলছে হাজার হাজার করলা, শত শত লাউ ও কুমড়া। একই সাথে ঘেরের বেড়িতে লাগানো হয়েছে পুঁইশাক ও ঢেড়স।

তালা উপজেলার মিঠাবাড়ির কৃষক মমিনুর রহমান জানান, তিনি তার ছয় বিঘা জমির ঘেরে মাচা পদ্ধতিতে লাউ, কুমড়া ও করলার চাষাবাদ করেছেন। মাঘ মাস পর্যন্ত এভাবেই মাছের পাশাপাশি সবজি উৎপাদন চলবে। তারপর পানি শুকিয়ে গেলে রোপন করা হবে ধান।

তিনি বলেন, তার ছয় বিঘা ঘেরে নেট, বাশ ও কট সুতা দিয়ে মাচা তৈরিতে আট হাজার টাকা খরচ হয়েছে। কিন্তু বাম্পার ফলনে ইতোমধ্যে লাখ টাকা ছাড়িয়েছে আয়। আরও হবে।

১০ বছর যাবৎ মাচা পদ্ধতিতে ফসল উৎপাদনকারী মমিনুর রহমান আরও বলেন, মাচা তৈরির খরচ প্রতিবছর হয় না। দুই-তিন বছর পরপর মাচা তৈরি করতে হয়। এতে লাভের পরিমান বাড়ে। শুধু মমিনুর রহমানের ঘের নয়, পার্শ্ববর্তী কৃষক বাক্কার সরদার, আজিবার মোড়ল, জাহিদ হোসেনের ঘেরসহ যতদূর চোখ যায় শুধু সবুজ আর সবুজ। প্রত্যেকের ঘেরের মাচায় ঝুলছে করলা, লাউ ও কুমড়া। এ যেন সম্ভাবনার নব দিগন্ত। তবে, শুধু তালা উপজেলা নয়, জেলার কালিগঞ্জ, কলারোয়া, দেবহাটা ও সাতক্ষীরা সদর উপজেলায়ও ঘেরে মাচা পদ্ধতিতে চাষাবাদ কৃষিতে বিপ্লব সৃষ্টি করেছে।

এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কাজী আব্দুল মান্নান জানান, সাতক্ষীরায় যে পরিমাণ সবজি উৎপাদন হয়ে থাকে তার ৩০ শতাংশ উৎপাদিত হয় মৎস্য ঘেরের আইলে অথবা মৎস্য ঘেরে মাচা পদ্ধতিতে। যা জেলার চাহিদা মিটিয়ে দেশের অন্যান্য জেলায় সরবরাহ করা হয়। এছাড়া মাচা পদ্ধতিতে সবজি চাষ লাভজনক হওয়ায় জেলার এই পদ্ধতিতে চাষাবাদ দিন দিন বাড়ছে।

কেশবপুরে মসজিদ-মন্দিরে অনুদানের চেক বিতরণ

এস আর সাঈদ, কেশবপুর  : যশোরের কেশবপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রনালয় হতে মসজিদ-মন্দিরে বরাদ্দকৃত অর্থের চেক শুক্রবার সকালে উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে বিতরণ করা হয়েছে।  উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিজানূর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে ৩২টি মসজিদ-মন্দিরে ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকার আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণ করেন জনপ্রাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক। বিতরণকালে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ কবীর হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ রানা, ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক, থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম আনোয়ার হোসেন প্রমুখ। এর পূর্ব প্রধান অতিথি জনপ্রাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক সরকারী কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন এবং বিকালে শহরের আবু শারাফ সাদেক অডিটোরিয়ামে প্রধান অতিথি হিসাবে তিনি বন্যা দূর্গতদের মাঝে বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করেন।

খুলনায় আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস পালিত

খুলনা : বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আজ খুলনায় পালিত হয় আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস-২০১৭। খুলনা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে কর্মসূচির মধ্যে ছিল র‌্যালি, আলোচনা সভা, মহড়া ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা। এ উপলক্ষে শুক্রবার সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় । এ বারে দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘দুর্যোগ সহনীয় আবাস গড়ি, নিরাপদে বাস করি’। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক মোঃ আমিন উল আহসান বলেন, দুর্যোগকে ভয় নয়, সাহস নিয়ে মোকাবেলা করতে হবে। বাংলাদেশ দুর্যোগ প্রবণ দেশ। সময় মতো প্রস্তÍতি গ্রহণ করা হলে যে কোন দুর্যোগে জীবন ও সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি সহনীয় পর্যায়ে রাখা সম্ভব। ভৌগোলিক অবস্থানগত কারণে বাংলাদেশ ভ‚মিকম্পের ঝুঁকিতে রয়েছে। ভ‚মিকম্প জীবনহানীসহ ঘরবাড়ি ও অবকাঠামোর ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে। তাই ভ‚মিকম্প মোকাবেলায় জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে নিয়মিত প্রচার-প্রচারনা, বিভিন্ন অফিস আদালত এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভ‚মিকম্প মহড়া অত্যন্ত জরুরী। সভায় স্বাগত বক্তৃতা করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন।  অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ নূর-ই আলম এবং খুলনা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপপরিচালক মোঃ আবুল হোসেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আজিজুল হক জোয়ার্দ্দার। সভায় সরকারি কর্মকর্তা, বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধি ও কর্মী, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

সাংবাদিক কনকের মেয়ের মৃর্ত্যুতে কেইউজের শোক

বিজ্ঞপ্তি: যমুনা টেলিভিশনের খুলনা ব্যুরো প্রধান কনক রহমান এর একমাত্র মেয়ে সালেহা তাসনিম রহমান অনন্যার অকাল মৃত্যুতে (ইন্নালিল্লাহে……. রাজিউন) গভীর শোক প্রকাশ ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের (কেইউজে) নেতৃবৃন্দ।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ, মহান আল্লাহ রব্বুল আলামিনের কাছে মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। বিবৃতিদাতারা হলেন, সংগঠনের সভাপতি এসএম জাহিদ হোসেন, সহ-সভাপতি মল্লিক সুধাংশু ও কৌশিক দে, সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম, কোষাধ্যক্ষ দেবব্রত রায়, সাংস্কৃতিক সম্পাদক কামরুল আহসান, দপ্তর সম্পাদক রাশিদুল হাসান বাবলু, কার্যনির্বাহী সদস্য অভিজিত পাল, নেয়ামুল হোসেন কচি ও সুমন আহমেদ।

অনুরুপ বিবৃতি জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) যুগ্ম মহাসচিব মোজাম্মেল হক হাওলাদার, কার্য্যনির্বাহী সদস্য আসাদুজ্জামান রিয়াজ ও গৌরাঙ্গ নন্দী।

পার্বতীপুরে আন্তর্জাতিক দূর্যোগ প্রশমন দিবস পালিত

আব্দুল্লাহ আল মামুন, পার্বতীপুর(দিনাজপুর): “দূর্যোগ সহনীয় আবাস গড়ী, নিরাপদে বাস করি” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারাদেশের ন্যায় দিনাজপুরের পার্বতীপুরে আন্তর্জাতিক দূর্যোগ প্রশমন দিবস-২০১৭ উর্দযাপন উপলক্ষে বর্ণার্ঢ র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও গ্রাম বিকাশ কেন্দ্রের সহযোগীতায় ১৩ অক্টোবর সকাল সাড়ে ৯টায় একটি র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে উপজেলা পরিষদ চত্তরে এসে শেষ হয়। দূর্যোগের সময় কিভাবে মানুষকে উদ্ধার করা হয় এ বিষয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা একটি মহড়া প্রদর্শন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার তরফদার মাহমুদুর রহমান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফাহমিদা ইসলাম, সমবায় কর্মকর্তা শারমিন আক্তার, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পার্বতীপুর স্টেশন কমান্ডার সাইফুল ইসলাম, পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহফুজুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা গ্রাম বিকাশ কেন্দ্রর প্রতিনিধিগণ। পরে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

লামায় আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস পালিত

লামা, (বান্দরবান) প্রতিনিধি: বান্দরবান লামায় নানা কর্মসূচি মধ্যে দিয়ে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস পালিত হয়েছে। “দুর্যোগ সহনীয় আবাস গড়ি, নিরাপদে বাস করি” এবারের প্রতিপাদ্যের তাৎপর্য অনুধাবন করে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আজ শুক্রবার সকাল ১০টায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সায়েদ ইকবাল নেতৃত্বে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীটি বাজারে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে লামা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।
এরপর লামা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী মিলনায়তন হলরুমে প্রধান শিক্ষক বিথী তঞ্চঙ্গ্যা সভাপতিত্বে দিবসটির উপর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লামা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সায়েদ ইকবাল। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, লামা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মোজাম্মেল হোসেন, লামা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্মকর্তা শফিউল আলম, লামা থানা ইনচার্জ প্রতিনিধি ও সাংবাদিক সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, সরকারি-বেসরকারি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারিগণ র‌্যালি ও আলোচনা সভায় অংশ গ্রহন করেন।
এ সময় প্রধান অতিথি বলেন, পাহাড়ে গাছ না কেঁটে সমতল জায়গা বা অন্যত্র স্থানে আমাদের সকলের আবাস গড়ে তুলতে হবে। প্রাক দুর্যোগ, দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য আমাদের সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। বিভিন্ন দুর্যোগের বৈশিষ্ট্য, ক্ষয়ক্ষতি ও এর প্রভাব সম্পর্কে আমাদের সম্যক জ্ঞান রাখতে হবে এবং সে মোতাবেক জীবনযাত্রায় পরিবর্তন ও প্রতিফলন ঘটাতে হবে।
আলোচনা সভা শেষে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস উপলক্ষে চিত্রাংকন প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। সবশেষে লামায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা অগ্নিনির্বাপণসহ দুর্যোগ প্রতিরোধে মহড়া প্রদর্শনী করে দিবসটির গুরুত্ব তুলে ধরে। সার্বিক সহযোগিতায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর ও স্পেলিং প্রকল্প।

ভাগা থেকে দিগরাজ পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

আবু হোসাইন সুমন, মোংলা : খুলনা-মোংলা রেল লাইন প্রকল্পের ভাগা থেকে দিগরাজ পর্যন্ত সোয়া ১১ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে মোংলার বিদ্যারবাহন সংলগ্ন কবিরাজ বাড়ী এলাকায় এ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ তালুকদার আব্দুল খালেক। প্রায় ৪১ কোটি টাকা ব্যয়ে রেল লাইন স্থাপেনর মুল রাস্তা নির্মাণ কাজ শুরু করছেন সহযোগী নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ক্যান এন্টারপ্রাইজ। রাস্তা নির্মাণ সম্পন্ন হলে রেল লাইন স্থাপনের কাজ করবেন মুল নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ভারতের ইরকন ইন্টারন্যাশনাল লি:। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সহযোগী নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ক্যান এন্টারপ্রাইজ’র চেয়ারম্যান খশরুল আলম চৌধুরী, নির্বাহী পরিচালক মিজানুল হক হিমেল, প্রজেক্ট ম্যানেজার মো: রবিউল আলম রনি, প্রজেক্ট কোঅডিনেটর আবুল বাশার আঙ্গুর, মোংলা উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আ: রহমান, পৌর যুবলীগের সভাপতি শেখ কামরুজ্জামান জসিম, বুড়িরডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান নিখিল চন্দ্র রায়, বুড়িরডাঙ্গা ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড মেম্বর বিশ্বজিৎ রায় সহ স্থানীয় লোকজন উপস্থিত ছিলেন। এর আগে স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ তালুকদার আব্দুল খালেক ও ক্যান এন্টারপ্রাইজ’র চেয়ারম্যান খশরুল আলম চৌধুরী রেল লাইন নির্মাণ এলাকা ঘুরে দেখেন।

ফুলতলায় এক সপ্তাহ ধরে মানসিক প্রতিবন্ধী দাউদ শেখ নিখোঁজ

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ দাউদ শেখ (৪৭) নামে মানসিক ভারসম্যহীন এক ব্যক্তি গত এক সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ রয়েছে। তিনি ফুলতলার দামোদর শীতপাশাডাঙ্গা গ্রামের আতিয়ার শেখের পুত্র। পারিবারিক সূত্র জানায়, নিখোঁজ দাউদ শেখ মানসিক প্রতিবন্ধী। গত ৬ অক্টোবর সকালে কাউকে কিছু না বলে আনুমানিক সাড়ে ৫ফুট উচ্চতা কালো বর্ণের দাউদ শেখ সাদা চেকের লুঙ্গি, হাফহাতা সাদা চেকের শার্ট, বার্মিজ সাদা সেন্ডেল পায়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। নিখোঁজ দাউদ শেখের ভাই মোঃ রেজাউল শেখ তার সন্ধানের দাবি জানিয়ে ফুলতলা থানায় জিডি (নং৯৭/১৭)এন্ট্রি করেন। কেউ তার সন্ধান পেলে মোবাইল নং ০১৯১৪-৬৩৪৯৬৫ এ যোগাযোগের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

ফুলতলায় ওমমএস’র আতপ চালের ব্যাপক চাহিদা

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ খুলনার ফুলতলার বাজারে চালের মূল্য অস্বাভাবিক ভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকার প্রদত্ত ওমমএস (খোলা বাজারে বিক্রি) এর চাহিদা বেড়েছে। খোজ খবর নিয়ে জানা যায়, উপজেলার ফুলতলা বাজার কেন্দ্রীক ৫জন ওমমএস ডিলার রয়েছে। এদের মধ্যে জামিরা রোডে মোঃ রবিউল ইসলাম মোল্যা, দুধ বাজারে মৃনাল হাজরা, তরকারী বাজারের শাহীন ফকিরের দোকানে আবু তাহের রিপন মোল্যা, গোডাউন এলাকায় আনোয়ার সিদ্দিকী এবং ইষ্টার্ণগেট এলাকায় এস এম লাভলু। পর্যায়ক্রমে প্রতিদিন ডিলার প্রতি ১ হাজার কেজি করে চাল ৩জন ডিলারকে বরাদ্ধ দেয়া হয়। একজন ভোক্তা প্রতিদিন ৩০টাকা দরে ৫ কেজি করে আতপ চাল ক্রয় করতে পারবেন। তবে ফুলতলা সংলগ্ন অভয়ননগর উপজেলা ধুলগ্রাম, নাউলী, শুভরাড়া, সিদ্দিপাশা গ্রামের কোন ওমমএস ডিলার না থাকায় ঐ সব গ্রামের অসংখ্যা ক্রেতা ফুলতলার ডিলারদের কাছে এসে ভিড় জমায়। ফলে চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম থাকায় প্রতিদিন অনেক ভোক্তা চাল না পেয়ে ফিরে যায়। সম্প্রতি বিদেশ থেকে আমদানীকৃত ওমমএস এ প্রদত্ত আতপ চালের এ এলাকায় ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। এ এলাকাবাসির চাহিদার বিষয়টি মাথায় রেখে ওমমএস ডিলার বৃদ্ধি ও ডিলারদের প্রতিদিন বরাদ্ধ দেয়া দরকার বলে ভুক্তভোগি মহলের দাবি।