ফুলতলায় জেলা আওয়ামীলীগ নেতা জামালের উপর হামলার প্রতিবাদ

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামালের উপর সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন জেলা সহসভাপতি বি এম এ সালাম, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আসলাম খান, আওয়ামীলীগ নেতা কাজী আশরাফ হোসেন আশু, এস মৃনাল হাজরা, আবু তাহের রিপন, কামরুজ্জামান নান্নু, সাইদুল মোল্যা, বি এম সাহাদাৎ হোসেন, এস কে আলী ইয়াছিন, শহিদুল্লাহ প্রিন্স, এস কে মিজানুর রহমান, এস রবীন বসু, আঃ সাত্তার মামুন, রেজাউল করিম, আঃ রাজ্জাক মল্লিক, আশরাফুল আলম মোড়ল, খুরশিদ মোড়ল প্রমুখ। অপরদিকে জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামালের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ফুলতলা উপজেলা শাখা ও এম এম কলেজ শাখার যৌথ উদ্যোগে শনিবার সকালে কলেজ চত্ত্বরে এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আক্তারের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন উপজেলা সাধারণ সম্পাদক এস কে সাদ্দাম হোসেন, সহসভাপতি নাজমুল হাসান মিঠু, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান, সোহেল রানা, ইমদাদুল ইসলাম, সাজ্জাদ হোসেন বাবু, সাজু আহম্মেদ, শেখ আবু হাসনাত, আলী আকবর, রায়হান সুলতান প্রমুখ।

অল্প বৃষ্টিতে তলিয়ে যাচ্ছে একতা প্রতিবন্ধি স্কুল ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের মাঠ

জয় মহন্ত অলোক, ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আরাজী ঝারগাঁওয়ে চারশতাধিক প্রতিবন্ধি নিয়ে চলছে একতা প্রতিবন্ধি স্কুল ও পুনর্বাসন কেন্দ্র।বর্ষা আসলে তলিয়ে যায় প্রতিষ্ঠানটির মাঠটি।এতে বীপাকে পরে প্রতিষ্ঠানের সকল প্রতিবন্ধি শিশুরা ।অল্প পনিতে মাঠটি তলিয়ে যাওয়ায় চলাচলে বীঘ্ন ঘটছে তাদের ।পার হতে পারছেনা তারা। একতা প্রতিবন্ধি স্কুল ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের পরিচালক আমিরুল ইসলাম জানান,আমার একার পক্ষে ৪ শ প্রতিবন্ধি শিশুর সকল সুযোগ সুবিধা প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে না ।যদি সরকারি অথবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান প্রতিবন্ধি শিশুদের পাশে দাড়ায় তাহলে প্রতিবন্ধি শিশুরা তাদের মেধাকে আরোও বিকশিত করতে পারবে । তিনি আরো জানান,একতা প্রতিবন্ধি স্কুল ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের মাঠ অল্প বৃষ্টিতে তলিয়ে যাওয়ার কারনে সকল প্রতিবন্ধি শিশুদের একসাথে পুনর্বাসন কেন্দ্রে রাখা সম্ভব হচ্ছে না ।তারা বাড়িতে চলে যেতে বাধ্য হচ্ছে । এ অবস্থায় সকলের সাহায্য কামনা করেন ।

ঝিনাইদহের সংসদ সদস্য আনারের বিরুদ্ধে যশোরে সংবাদ সম্মেলন

গোলাম মোস্তফা মুন্না, যশোর : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের আওয়ামীলীগের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন এক নারী শিক্ষক। শনিবার দুপুরে প্রেসক্লাব যশোরে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে সংসদ সদস্য আনারকে মাদক ব্যবসায়ী বলে অভিযোগ করেছেন। একই সাথে শিক্ষকের ছেলে অমিত সিকদার বিশুকে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে মাদক ব্যবসায়ি সাজিয়ে পুলিশ দিয়ে আটক করেছেন।
কালীগঞ্জ উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের মৃত নন্দ কুমার সিকদারের স্ত্রী স্কুল শিক্ষক ইতি সিকদার সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করেছেন, তার ছেলে অমিত সিকদার বিশু স্কুল জীবন থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়ে। নবম শ্রেণিতে পড়ার সময় সে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়। সেই থেকে সে আওয়ামীলীগের নেতা আনোয়ারুল আজীম আনারের সাথে জড়িয়ে পড়ে। বিশুকে দিয়ে সে অনেক ভাল এবং মন্দ কাজ করিয়ে নিয়েছেন। সম্প্রতি দলের পদ নিয়ে তাদের মধ্যে মতবিরোধ সৃষ্টি হয়। এমপির ভাগ্নে আশরাফ হোসেনসহ অন্যান্যরা বিশুর বিরুদ্ধে অপপ্রচার শুরু করে। এ নিয়ে বিশুকে মারপিট করে। বিষয়টি স্থানীয় পুলিশসহ পুলিশের ডিআইজিকে পর্যন্ত জানানো হয়।
এর মধ্যে গত ৬ জুন সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বিশুকে যশোরের পুলিশ বাড়ি থেকে আটক করে। পরে তাকে ইয়াবা দিয়ে পুলিশ চালান দেয়।
এরপর মিথ্যা ও ভিত্তি অভিযোগ তুলে এমপি আনারের নির্দেশে কিছু মহিলা তাদের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে। এমপি আনার, তার ভাগ্নে আশরাফ, তাদের সহযোগী পিএস রউফ, শিবলী নোমানী, সুব্রত নন্দী মাদক ব্যবসা করে।
তার ছেলে বিশু নির্দোষ। তাকে পরিকল্পিত ভাবে ফাঁসিয়েছে এমপি আনার। প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

যশোরের মটরসাইকেলের ধাক্কায় ভ্যান চালকের মৃত্যু

যশোর: মটরসাইকেলের ধাক্কায় আহত ভ্যান চালক রবিউল ইসলাম (৬৫) মারা গেছেন। তিনি যশোরের চৌগাছার ধুলিয়ানি এলাকার বিনদা সরকারের ছেলে।
নিহতের স্বজন জাহিদ জানান, শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে ভ্যান নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন রবিউল ইসলাম। পথিমধ্যে সিংহঝুলি মোল্যাবাড়ি মোড়ে পৌছুলে পিছনে থেকে মটরসাইকেলে ধাক্কা লাগে। এতে তিনি ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হলে তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসেন। প্রাথমিক চিকিৎসার পরে তাকে বাড়িতে নিয়ে গেলে রাত ৮টার দিকে মাথা দিয়ে অতিরিক্ত ক্ষরণ হয়। এসময় তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে বলেন হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

যশোরে যুবলীগের নেতা ‘বন্দুক’ যুদ্ধে নিহত

যশোর: ঝিকরগাছা পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ২৭ মামলার আসামি টোকন ওরফে জাহিদ হাসান (৩০) বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে। তিনি ঝিকরগাছার ৪নং ওয়ার্ডের মাস্টার আসলামের ছেলে।
ঝিকরগাছার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) ফকির আজিজুল ইসলাম বলেন, পুলিশ শুক্রবার রাতে যশোর শহর থেকে আটক করে জাহিদ হাসান টোকনকে। তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক রাত ১১ টার দিকে ঝিকরগাছা উপজেলার কায়েমকোলা এলাকার বাগমারা মাঠে অস্ত্র উদ্ধার অভিযানে গেলে তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি করে। পুলিশ গুলিবিদ্ধ সন্ত্রাসী জাহিদকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি, মাদক ব্যবসা করে।
পুলিশ কর্মকর্তা ফকির আজিজুল ইসলাম জাহিদ হাসান টোকনের বিরুদ্ধে ঝিকরগাছা থানায় ২৭টি মামলা রয়েছে। অন্যান্য থানায় রয়েছে কয়েকটি মামলা।
নিহতের পিতা মাস্টার আলী আসলাম জানান, শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে টোকন বাড়ি থেকে বের হয়। রাত ১১টার দিকে টোকনকে কে বা কারা যশোর শহর থেকে ধরে নিয়ে গেছে। শনিবার সকালে যশোর জেনারেল হাসপাতালে তার গুলিবিদ্ধ লাশ দেখতে পাই।
চাচাত ভাই শরিফুল ইসলাম জানান, ঝিকরগাছার আওয়ামীলীগের গ্রুপিং এবং রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন।
নিহতের প্রথম স্ত্রী সীমা জানায়, টোকের দ্বিতীয় স্ত্রী তামান্না জাহান তানিয়া পুলিশকে দিয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছে ।

কালাবগী ষ্টেশন কর্মকর্তা জেলেকে অফিসে আটকে রেখে বেদম মারপিট

দাকোপ প্রতিনিধি : দাকোপের কালাবগী ষ্টেশন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অফিসে ডেকে নিয়ে মারপিট ও অর্থ আদায়ের অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভিকটিমের স্ত্রী রাফেজা বেগম। এ ঘটনায় জড়িত সরকারী কর্মকর্তা এবং তাদের সহযোগীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনে প্রশাসনের উপর মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে। অভিযুক্ত ষ্টেশন কর্মকর্তা অভিযোগ অস্বীকার করে বিষয়টি বনদস্যু কানেক্টেড বলে আখ্যা দিয়েছেন।
আজ শনিবার সকাল ১০ টায় কালাবগী নিজ এলাকায় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তৃতায় রাফেজা বেগম বলেন, আমার স্বামী কালাবগী গ্রামের মৃঃ আবুল কাশেম গাজীর পুত্র আঃ সালাম গাজী একজন পেশাদার জেলে। বৈধ পাশ পারমিট নিয়ে সুন্দরবনে মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করে। ঘটনার দিন গত ২৩ জুন বিকালে কালাবগী ষ্টেশনের বনরক্ষি মিঠু অফিসের দালাল শফিকুলের সহযোগীতায় বিশেষ কথা আছে বলে আামার স্বামীকে কালাবগী বৃহস্পতি বাজার পল্টনে দেখা করতে বলে। তাদের কথায় সরল বিশ্বাসে সেখানে গেলে কালাবগী ষ্টেশন কর্মকর্তা শ্যামাপদ রায়, মিঠু ও শফিকুল তাকে ট্রলারে তুলে অফিসে নিয়ে যায়। এ সময় আমার স্বামীর কাছে থাকা একটি মোবাইলের মেমোরী কার্ডের দাবী করে বলে সরকারী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে কথা বলিশ শুয়ারের বাচ্চা তোর এত বড় সাহস তোকে বনদস্যু বাহিনীর সদস্য হিসেবে চালান দেব এ কথা বলে বেদম মারপিট শুরু করে। তারা ঘাট থেকে আমাদের জেলে নৌকা নিয়ে যায়। এভাবে বিকাল থেকে রাত ৪ টা পর্যন্ত তাকে মারপিট ও অমানুষিক নির্যাতন করে। আমার স্বামী মারাতœক অসুস্থ হয়ে পড়লে এক পর্যায়ে ইউপি সদস্য মোন্তাজ সানা কওসার সানার সহযোগীতায় পরের দিন সন্ধ্যায় ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে মুচলেকার দিয়ে ছাড়িয়ে দিয়ে এনে দাকোপ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেই থেকে তিনি গুরুত্বর অসুস্থ অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছে। এ সময় নানা প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, আমার স্বামীকে গোন চুক্তিতে মাছ মারার সুযোগ দিয়ে আসছিলো এস ও শ্যামাপদ রায়। কিন্তু সম্প্রতি সেটি প্রকাশ পাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি এ কাজ করেছে। মেমোরী কার্ডে চুক্তির সকল তথ্য থাকায় সেটি হেফাজাতে নিতে মরিয়া হয়ে আমার স্বামীকে মারপিট করেছে। তিনি বলেন বাড়ী থেকে মোবাইলের মাধ্যমে ডেকে নিয়ে যাওয়ার সকল তথ্য প্রমান আমাদের কাছে আছে। বিষয়টি নিয়ে কোন অভিযোগ না করার জন্য তারা বন ও ডাকাতির মামলায় জড়ানোসহ প্রতিনিয়ত হুমকি ধামকি অব্যহত রেখেছে, এমনকি আমার ভাই বিল্লালকে অফিসে নিয়ে জোর করে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়েছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ষ্টেশন কর্মকর্তার নিকট জানতে চাইলে তিনি সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ঘটনার ২ দিন আগে বনে সাত্তার বাহিনীর সাথে রক্ষিদের ব্যাপক গুলি বিনিময়সহ অস্ত্র উর্দ্ধার হয়। সালাম বনে তাদের সহযোগী হিসাবে কাজ করে এমন তথ্যের ভিত্তিতে তাকে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জনপ্রতিনিধির জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সোবহান গাজী, তাসলিমা বেগম, ওসমান গনি, আবুল গাজী, অলি গাজী, আসমা বেগম, ময়না বেগম, জরিনা বেগম, সখিনা বেগম, আমিন সানা, জামেলা বেগম, রেশমা বেগম, নাসরিন বেগম প্রমুখ।

ফুলতলায় স্ত্রীর মরদেহ হাসপাতালে ফেলে পালিয়ে গেল স্বামী

ফুলতলা প্রতিনিধিঃ স্ত্রী জোহরা খাতুন (৩৮) এর মরদেহ হাসপাতালে ফেলে রেখে পালিয়ে গেল স্বামী বাবুল হাওলাদার (৪০)। এ ঘটনা ঘটেছে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১০টায় খুলনার ফুলতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লক্সে।
পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, ফুলতলা বাজারের মৃতঃ প্রফেসর আঃ জলিলের বাড়ির ভাড়াটিয়া ও চা বিক্রেতা বাবুল হাওলাদার বৃহস্পতিবার রাতে তার অচেতন স্ত্রীকে নিয়ে ফুলতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লক্সের জরুরী বিভাগে রেখে পালিয়ে যায়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরিক্ষার করে গৃহবধুর আগেই মৃত্যু হয়েছে বলে জানান। পরে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে শুক্রবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। এ ব্যাপারে ফুলতলা থানায় অপমৃত্যু মামলা (৪/১৮, তারিখ-২৮/০৬/১৮) দায়ের হয়েছে। অপরদিকে স্বামী বাবুল আক্তারের রহস্যজনক পলায়ন ও গৃহবধুর মৃত্যু হত্যা না আত্মহত্যা সেটি নিয়ে সংশয় সৃষ্টি হয়েছে। থানার এসআই মাহমুদ হোসেন বলেন, ময়নাতদন্তের রিপোর্টে গৃহবধুর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

ফুলতলায় কলেজ ছাত্র’র অকাল মৃত্যু

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ ফুলতলা এম এম কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের মেধাবী ছাত্র ফারদিন আলম রিসান (১৭) রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার দিবাগত রাতে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহে—-রাজেউন)। ফুলতলার দামোদর গ্রামের বাসিন্দা মোঃ শাহীন আলম মোড়লের একমাত্র পুত্র রিসান গত কয়েকমাস ধরে ব্রেইন টিউমার রোগে ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার বাদ জোহর দামোদর পূর্বপাড়া সরকারি প্রাইমারী স্কুল মাঠে জানাযা শেষে উপজেলা সরকারি গোরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ আকরাম হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান গাওসুল আযম হাদী, ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ মোহাম্মদ ভুইয়া শিপলু, শিল্পপতি ফেরদৌস ভুইয়া, ব্যবসায়ী গণি সরদার, কম. আনছার আলী মোল্যা, আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ আসলাম খান, সরদার শাহাবুদ্দিন জিপ্পী, আবু তাহের রিপন, এস কে আলী ইয়াছিন, সাহিদুল ইসলাম মোল্যা, বিএনপি নেতা হাসনাত রেজভী মার্শাল, বণিক নেতা মনির হাসান টিটো, রবীন বসু, এস কে মিজানুর রহমান, উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি শামসুল আলম খোকন, প্রেসক্লাব ফুলতলা সভাপতি তাপস কুমার বিশ্বাস, অধ্যাপক মোঃ নেছার উদ্দিন, আশরাফুল আলম কচি, ছাত্রলীগ নেতা মঈনুল ইসলাম নয়ন, এস কে সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ।

ফুলতলায় কৈশোর-বান্ধব স্বাস্থ্যসেবা এ্যাডভোকেসী সভা

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ ফুলতলা উপজেলা পরিবার পরিকল্পা কার্যালয় আয়োজিত কৈশোর-বান্ধব স্বাস্থ্যসেবা সংক্রান্ত এ্যাডভোকেসী সভা ও আলোচনা অনুষ্ঠান বুধবার বেলা ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স অডিটরিয়ামে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ আঃ মজিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সেলিনা খাতুন। অতিথির মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকৌশলী শেখ শামসুল আলম, কৃষিবিদ মোছাঃ রীনা খাতুন, সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ শাহীন আলম, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চায়না রানী দত্ত। আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমানের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সমবায় কর্মকর্তা খন্দকার জহিরুল ইসলাম, গণস্বাস্থ্য প্রকৌশলী মোঃ এনায়েত হোসেন, উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি শামসুল আলম খোকন, সহকারী যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ জাকির হোসেন, রাজিয়া সুলতানা, জিল্লুর রহমান, মঞ্জুরুল আলম, জাহানারা বেগম প্রমুখ।

ফুলতলায় বিদ্যুৎ ও জ্বালানী সপ্তাহ পালিত

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ বিদ্যুৎ ও জ্বালানী সপ্তাহ-২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে স্কুল ও কলেজ শিক্ষার্থীদের বক্তৃতা প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান বুধবার বেলা ১১টায় উপজেলা অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। ওজোপাডিকো ফুলতলা অফিস আয়োজনে ইউএনও মাশরুবা ফেরদৌসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ আকরাম হোসেন। স্বাগত বক্তৃতা করেন আবাসিক প্রকৌশলী খান আবুল হাসান। মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফারহানা ইয়াসমিনের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অধ্যক্ষ সমীর কুমার ব্রক্ষ্ম, প্রধান শিক্ষক সালমা খাতুন, সহকারী শিক্ষা অফিসার জান্নাতুল ফেরদৌস, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ তোবারক আহম্মদ, মোঃ মামুন উর রশিদ, মোঃ জাকির হোসেন প্রমুখ। উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৫ শিক্ষার্থী প্রতিযোগি এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। পরে বিজয়ী ছাড়াও অংশ গ্রহণকারী সকল প্রতিযোগিকে পুরস্কৃত করা হয়।