বটিয়াঘাটার হাটবাড়িয়ায় বুজরত খতিয়ান খোলার সিদ্ধান্ত

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বটিয়াঘাটা উপজেলার ১২ নং হাটবাড়িয়া (বড়) ও ১৬ নং হাঁতালবুনিয়া মৌজার ভূমি জরিপের নতুন করে বুজরত খতিয়ান খোলার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে উপজেলা সহকারী সেটেলমেন্ট অধিদপ্তর। উক্ত জরিপ কার্যক্রমকে গতিশীল করতে আগামী ১৭ জুন সোমবার সকাল ১০ টায় স্থানীয় বটিয়াঘাটা সদর ইউনিয়ন পরিষদ সম্মেলন কক্ষে সকল জমির মালিকগনদের নিয়ে এক গনসচেতনা মূলক সভার আহব্বান করেছে। এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, উক্ত মৌজা ২টির নতুন জরিপ কার্যক্রম গতবছর থেকে শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে মৌজা ২টির জিও ডেটিক সীমানা পিলার স্থাপন, মৌজার বাউন্ডারী নির্ধারণ ও প্লট মাপের কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। আগামীতে মৌজা দুইটির ভূমির মালিকগনের বুজরত খতিয়ান খোলার কার্যক্রম শুরু হবে। সে লক্ষ্যে আগামী ১৭ জুন ভূমির সকল মালিকগনকে উক্ত সভায় উপস্থিত থাকার জন্য আহব্বন জানানো হয়েছে।

বটিয়াঘাটায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বটিয়াঘাটা উপজেলার হেতালবুনিয়া খৈয়াতলা এলাকায়  শনিবার বেলা ১২ টায় উভয় পক্ষের হামলায় গুরুচাঁদ রায়(২৪) ও দীপ্ত বাছাড়(২৮) গুরুতর জখম হয়ে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। তবে গুরুচাঁদের অবস্থা আশাংঙ্খা জনক বলে জানা গেছে। সূত্রে প্রকাশ, হাটবাটি এলেকার কৃষ্ণপদ রায়ের পুত্র গুরুচাঁদ রায় ও একই এলাকার দীপক বাছাড়ের পুত্র দিপ্ত বাছাড় এর মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে গাজা সেবন এবং মাদক ব্যবসা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল । ঘটনার সময়ে এ নিয়ে উভয় পক্ষ বিবাদে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষে গুরুচাঁদ ও দিপ্ত বাছাড় রক্তাক্ত জখম হয়। এলাকাবাসি তাদেরকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। খবর পেয়ে থানা পুলিশের এস,আই আহম্মেদ কবীরের নেতৃত্বে এস,আই সুপ্রভাত,এস,আই প্রকাশ সহ অন্যান্য সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে হাজির হয়। এর মধ্যে গুরুচাঁদের অবস্থা আশাংঙ্খা জনক হওয়ায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে স্থানন্তর করে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন পক্ষের থেকে মামলা দায়ের হয়নি।