দাকোপ প্রেসক্লাবের বিবৃতি

দাকোপ প্রতিনিধি: দাকোপ প্রেসক্লাবের অন্যতম সদস্য ও সাংবাদিক মোঃ মজনু ফকিরের নামে খুলনা কোর্টে উদ্দেশ্য ও হয়রানি মূলক মিথ্যা মামলা দায়ের হওয়ায় উক্ত মামলাটি পুলিশের মাধ্যমে তাহা সরজমিনে দ্রুত তদন্ত পূর্বক প্রকৃত ঘটনা উৎঘটনের দাবী জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছেন দাকোপ প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ। বিবৃতি দাতারা হলেন দাকোপ প্রেসক্লাবের সভাপতি শচীন্দ্র নাথ মন্ডল, সাধারণ সম্পাদক জি এম রেজা সহ-সভাপতি স্বপন কুমার রায়, মোঃ জুবায়ের রহমান লিংকন, কোষাধ্যক্ষ বিধান চন্দ্র ঘোষ, যুগ্ম- সাধারণ সম্পাদক গাজী আবুল বাশার, দপ্তর সম্পাদক জি এম আজম, সদস্য জয়ন্ত রায়, পারুল বেগম, সাবেক সভাপতি মহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া (শিপন), সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজগর হোসেন ছাব্বির, শেখ মোজাফ্ফার হোসেন, সদস্য গোবিন্দ বিশ্বাস, জি.এম জাকির হোসেন, তুষার দাস, দীপক রায়, মোঃ শামীম হাসান, দীপক সরদার, রুহুল আমীন, মনিরুল ইসলাম মনি, সোহাগ আহমেদ, এস এম, মামুনুর রশিদ, গাজী সরোয়ার হোসেন, কুমারেশ বিশ্বাস, প্রবীর রায় বাপ্পী।

দাকোপে ভদ্রা নদীতে নেট পাটা অপসারণের দাবীতে সমাবেশ ও মানববন্ধন

দাকোপ প্রতিনিধি : দাকোপের ভদ্রা নদীতে ইজারারনামে লবন পানি উত্তোলন এবং আড়া-আড়ি নেট পাটা দিয়ে পানি সরবরাহের প্রতিবন্ধকতার প্রতিবাদে পানখালী ও তিলডাঙ্গা ইউনিয়ন বাসীর যৌথ উদ্যোগে খোনা জাইকা ব্রীজ এলাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার সকাল ১০ টায় জাইকা ব্রীজ এলাকায় পানখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তৃতা করেন দাকোপ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ আবুল হোসেন। অন্যান্যদে বক্তৃতা করেন খুলনা জেলা পরিষদ সদস্য জয়ন্তী রানী সরদার, তিলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রনজিত কুমার মন্ডল, কামারখোলা ইউপি চেয়ারম্যান পঞ্চানন মন্ডল, আওয়ামী লীগ নেতা স্বপন কুমার সরকার, আব্দুর রহিম মোল্ল্যা,মোস্তাক ফকির,সাংবাদিক শেখ মোজাফফার হোসেন, গ্রাম উন্নয়ন কমিটি সভাপতি আব্দুল রাজ্জাক শেখ, আফজাল শেখ, সমাজ সেবক শহিদুল ইসলাম শেখ,শ্রমিকলীগ নেতা জাহান আলী শেখ, মোঃ আলমগীর শেখ, নিয়ামত শেখ, শরিফুল শেখ, জাহিদুর রহমানসহ পানখালী ও তিলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের সকল সদস্য-সদস্যা বৃন্দ,পানখালী ইউপির সকল গ্রাম উন্নয়ন কমিটির সভাপতি ও সম্পাদকসহ সদস্যবৃন্দ এবং বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধি। সভায় বক্তৃতারা বলেন,ভদ্রা নদী ২টি ইউনিয়নের হাজার হাজার কৃষক ও বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ নদীর উপর নির্ভর করে জীবন জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। এ নদী থেকে মৎস্য আহরণ করে অনেক মৎস্য জীবি জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। বিগত বছরগুলোতে যারা ইজারা নিয়েছে তারা কখনো নেট পাটা এ নদীতে ব্যবহার করেনি। নদীতে ২টি স্লইসগেট থাকায় নদীটি খোলা জলশায় হিসাবে পরিচিত। বর্তমান বছরে খুলনা ও পাইকগাছার বহিরাগত প্রভাবশালীরা পানখালী মৎস্য জীবি সমবয় সমিতির নামে ইজারা নিয়ে নদীতে লবন পানি ঢুকিয়ে ও আড়া-আড়ী ভাবে নেট পাটা ব্যবহার করে মৎস্য চাষ করছে। ফলে স্থানীয় ছোট ছোট জলশায় গুলোতে লবন পানি ঢুকায় গবাদী পশুসহ চাষবাদে বিঘœ সৃষ্টি করছে। ইজারাদাররা জলমহল নীতিমালাকে বৃদ্ধাগুল দেখিয়ে বৈ-আইনী ভাবে জনগনের ক্ষতি সাধন করছে। নদী থেকে আড়া-আড়ী নেট পাটা অপসারণসহ ইজারাদারদের উচ্ছেদের দাবী করেন সমাবেশে বক্তৃরা।

ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেপ্তার

ঢাকা অফিস : নুসরাত জাহান রাফির জবানবন্দি ধারণ করে তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়ানোর মামলায় আসামি সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির ২০ দিন পর আজ রবিবার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়ে বলে জানান পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি, মিডিয়া) সোহেল রানা।

গত ২৭শে মার্চ নুসরাত জাহান রাফিকে মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলা শ্রেণিকক্ষে নিয়ে যৌন নিপীড়ন করেন। এমন অভিযোগ উঠলে দুজনকে থানায় নিয়ে যান ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন। ওসি নিয়ম ভেঙে জেরা করতে নুসরাতের বক্তব্য ভিডিও করেন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। মৌখিক অভিযোগ নেয়ার সময় দুই পুরুষের কণ্ঠ শোনা গেলেও সেখানে নুসরাত ছাড়া অন্য কোনো নারী বা তার আইনজীবী ছিলেন না। ভিডিওটি প্রকাশ হলে অধ্যক্ষ ও তার সহযোগীদের সঙ্গে ওসির সখ্যতার বিষয়টি স্পষ্ট হয়।

ভিডিও ছড়ানোর ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হলে আদালতের নির্দেশে সেটি তদন্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পিবিআই গত ২৭ মে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিলে ওই দিনই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। পরোয়ানা জারির দুই দিন পর মোয়াজ্জেম হোসেন হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন।

ক্ষমা চাইলেন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান

ঢাকা অফিস : নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ায় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে হাইকোর্ট। রবিবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চে হাজির হয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করলে আদালত তার আবেদন মঞ্জুর করেন।

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশনের (বিএসটিআই) পরীক্ষায় মানহীন ৫২টি পণ্য বাজার থেকে তুলে নিতে ও জব্দে হাইকোর্টের দেয়া নির্দেশনা প্রতিপালন না করায় গত ২৩ মে মাহফুজুল হককে তলব করেছিলেন হাইকোর্ট।

এছাড়া তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুলও জারি করেছিলেন হাইকোর্ট।

গত ১২ই মে হাইকোর্ট এক আদেশে রুল দিয়ে মানহীন পণ্য অবিলম্বে সরাতে ও জব্দে ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালককে নির্দেশ দিয়েছিলেন। সেই সঙ্গে নির্দেশনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি জানিয়ে ওই দুই কর্তাব্যক্তিকে আদালতে প্রতিবেদন দিতেও বলা হয়। ২৩ মে অগ্রগতিবিষয়ক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল।

সম্প্রতি বিএসটিআই ২৭ ধরনের ৪০৬টি খাদ্যপণ্যের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করে, যার মধ্যে ৩১৩টি পণ্যের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৫২টি নিম্নমানের পণ্য রয়েছে। গত ২ মে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে বিএসটিআই।

৫২টি পণ্য হলো- ১. সিটি অয়েলের সরিষার তেল (তীর), ২. গ্রিন ব্লিচিংয়ের সরিষার তেল (জিনি), ৩. শমনমের সরিষার তেল (পুষ্টি), ৪. বাংলাদেশ এডিবল অয়েলের সরিষার তেল (রূপচাঁদা), ৫. কাশেম ফুডের চিপস (সান), ৬. আররা ফুডের ড্রিংকিং ওয়াটার (আরা), ৭. আল সাফির ড্রিংকিং ওয়াটার (আল সাফি), ৮. মিজানের ড্রিংকিং ওয়াটার, ৯. মর্ন ডিউয়ের ড্রিংকিং ওয়াটার, ১০. ডানকানের ন্যাচারাল মিনারেল ওয়াটার, ১১. আরার ডিউ ড্রিংকিং ওয়াটার, ১২. দীঘির ড্রিংকিং ওয়াটার, ১৩. প্রাণের লাচ্ছা সেমাই, ১৪. ডুডলি নুডুলস, ১৫. শান্ত ফুডের সফট ড্রিংক পাউডার (টেস্টি, তানি, তাসকিয়া), ১৬. জাহাঙ্গীর ফুড সফট ড্রিংক পাউডার, ১৭. ড্যানিশের হলুদের গুঁড়া, ১৮. প্রাণ এগ্রো লিমিটেডের হলুদের গুঁড়া (প্রাণ), ১৯. তানভীর ফুড লিমিটেডের হলুদের গুঁড়া ফ্রেশ, ২০. এসিআইয়ের ধনিয়ার গুঁড়া, ২১. কারি পাউডার (প্রাণ), ২২. কারি পাউডার ড্যানিস, ২৩. বনলতার ঘি, পিওর হাটহাজারী মরিচ গুঁড়া, ২৪. মিষ্টিমেলার লাচ্ছা সেমাই, ২৫. মধুবনের লাচ্ছা সেমাই, ২৬. মিঠাইয়ের লাচ্ছা সেমাই, ২৭. ওয়েল ফুডের লাচ্ছা সেমাই, ২৮. এসিআইয়ের আয়োডিনযুক্ত লবণ, ২৯. কিংয়ের ময়দা, ৩০. রূপসার দই, ৩১. মক্কার চানাচুর, ৩২. মেহেদীর বিস্কুট, ৩৩.বাঘাবাড়ীর স্পেশাল ঘি, ৩৪. নিশিতা ফুডসের সুজি, ৩৫. মধুবনের লাচ্ছা সেমাই, ৩৬. মঞ্জিলের হলুদ গুঁড়া, ৩৭. মধুমতির আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৩৮. সান ফুডের হলুদ গুঁড়া, ৩৯. গ্রিন লেনের মধু, ৪০. কিরণের লাচ্ছা সেমাই, ৪১. ডলফিনের মরিচের গুঁড়া, ৪২. ডলফিনের হলুদের গুঁড়া, ৪৩. সূর্যের মরিচের গুঁড়া, ৪৪. জেদ্দার লাচ্ছা সেমাই, ৪৫. অমৃতের লাচ্ছা সেমাই, ৪৭. দাদা সুপারের আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৪৮. তিন তীরের আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৪৯. মদিনা স্টারশিপ আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৫০. তাজ আয়োডিনযুক্ত লবণ, ৫১. নুরের আয়োডিনযুক্ত লবণ ও ৫২. মোল্লা সল্ট।

এরপর ৯ মে ৫২টি পণ্য বাজার থেকে প্রত্যাহার বা জব্দ চেয়ে কনসাস কনজ্যুমার সোসাইটির (সিসিএস) পক্ষে সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক রিট করেন।

সারা বছরই ভেজালবিরোধী অভিযানের নির্দেশ

ঢাকা অফিস : শুধু বিশেষ মাস বা সময় নয়, সারা বছরই সারা দেশে ভেজালবিরোধী অভিযান অব্যাহত রাখতে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। রবিবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের বেঞ্চ আজ এই আদেশ দিয়েছেন।

ভেজালবিরোধী অভিযান শুধু শহরে নয়, ইউনিয়ন পর্যায়ে অভিযান চালাতে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরকে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। দুই মাসের মধ্যে চব্বিশ ঘন্টা সেবা দেয়ার জন্য হটলাইন নাম্বার চালু করারও নির্দেশ দেয়া হয়।

এর আগে, আজ সকালে ৫২টি নিম্নমানের পণ্য বাজার থেকে সরাতে ব্যর্থ হওয়ায় হাইকোর্টের তলবে ব্যাখ্যা দিতে হাজির হন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহফুজুল হক। এ সময় তিনি নিঃশর্ত ক্ষমা চাইলে তাকে আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেয় হাইকোর্ট।

ডিআইজি মিজানকে কেন গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না?

ঢাকা অফিস : ডিআইজি মিজানুর রহমানকে কেন এখনো গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না দুদকের কাছে জানতে চেয়েছে হাই কোর্টের আপিল বিভাগ।

রবিবার দুপুরে, আপিল বিভাগে দুর্নীতির একটি মামলার শুনানিতে দুদকের আইনজীবীকে প্রশ্ন করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। প্রধান বিচারপতি আরো বলেন, ‘ডিআইজি মিজানের ঘটনা রাষ্ট্রের জন্য উদ্বেগজনক’।

অবৈধভাবে সম্পদ অর্জন নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ায় গত বছরের ২৫ এপ্রিল ডিআইজি মিজানকে তলব করে দুদক। তার বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ রয়েছে যে তিনি ২০১৭ সালের জুলাইয়ে ২৫ বছর বয়সী এক নারীকে তুলে নিয়ে গিয়ে জোর করে বিয়ে করেন। এছাড়াও, একই বছরের ডিসেম্বরে অস্ত্রের মুখে এক টেলিভিশন চ্যানেলের সংবাদ পাঠককেও তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

সম্প্রতি, দুদকের এক পরিচালকের সাথে ঘুষ লেনদেনের বিষয়েও আলোচনায় ডিআইজি মিজান।

সেনা পদোন্নতিতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জোর প্রধানমন্ত্রীর

ঢাকা অফিস : সেনাবাহিনীর কর্তকর্তাদের পদোন্নতিতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস, পেশাগত দক্ষতা-শৃঙ্খলা ও আনুগত্য বিবেচনায় রাখতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রবিবার সকালে, সেনা সদর দপ্তরে পাঁচ দিনের সেনা সদর নির্বাচনি পর্ষদ-২০১৯ এর উদ্বোধন করে এ নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী। এই পর্ষদের মাধ্যমে কর্নেল থেকে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এবং লেফটেন্যান্ট কর্নেল থেকে কর্নেল পদে পদোন্নতির সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। যোগ্য ও দক্ষদের পদোন্নতি দেবে শীর্ষ সেনা কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত নির্বাচনি পর্ষদ। সরকারের অনুমোদন সাপেক্ষে পদোন্নতি পাবেন এসব কর্মকর্তা।

আড়াইশো বছরের নিয়ম ভাঙলো কারাগার

ঢাকা অফিস : বন্দিদের যুগোপযোগী ও স্বাস্থ্যসম্মত খাবার দিতে কারাগারে সকালের নাস্তায় পরিবর্তন আনা হয়েছে। রবিবার সকালে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

দীর্ঘ আড়াইশো বছর ধরে সকালের নাস্তায় বন্দিদের গুড় আর এক পিস আটার রুটি দেয়া হতো। এখন সপ্তাহে চারদিন সবজি-রুটি, একদিন হালুয়া-রুটি এবং দুইদিন সবজি খিচুড়ি দেয়া হবে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার কারাগারকে সংশোধনাগার করার পরিকল্পনা নেয়ায় বন্দিদের বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে’। তিনি জানান, বন্দিদের আত্মীয়দের সাথে যোগাযোগের জন্য পাইলট প্রকল্প হিসেবে টাঙ্গাইল জেলা কারাগারে ‘স্বজন’ নামে একটি অ্যাপস চালু করা হয়েছে।

চিকিৎসা শেষে বিএনপি’র চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হবে কি-না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত কারাবিধি অনুযায়ী নেয়া হবে।