ফুলতলায় ৮টি গাছসহ গাঁজা চাষি ও ১ কেজি গাজাঁসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

ফুলতলা অফিসঃ থানা পুলিশ ফুলতলার শিকিরহাট এলাকা থেকে ৮টি গাঁজার গাছসহ শুকুর আলী (৪০) এবং জেলা গোয়েন্দা পুলিশ পায়গ্রাম কবসায় এলাকা থেকে ১ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গোলাম রসুল (৪৫) কে আটক করে। এ ব্যাপারে থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, শনিবার বেলা ২টায় শিকির হাটস্থ লুৎফর শেখের স’মিল এলাকায় অভিযান চালিয়ে মিলের তত্বাবধায়ক শুকুর আলীকে আটক এবং তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মিল সংলগ্ন বাগান থেকে ৮টি গাঁজার গাছ উদ্ধার করা হয়। আটককৃত শুকুর সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ থানার গোবিন্দপুর গ্রামের ধীরাজতুল্য সরদারের পুত্র। এ ব্যাপারে এসআই বোরহান উদ্দিন বাদি হয়ে মামলা করেন। এদিকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় ফুলতলার পায়গ্রাম কসবা মাধ্যমিক ্িবদ্যালয় এলাকা থেকে গোলাম রসুলকে নীল রং এর পলিথিনে মোড়ানো ১ কেজি গাঁজাসহ আটক করে। সে দাকোপ উপজেলার সুতারখালী গ্রামের মৃতঃ জুলমত আলী শেখের পুত্র। এ ব্যাপারে এসআই অর্জুন কুমার দাস বাদি হয়ে মামলা করেন।

তালায় মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে জখম

তালা প্রতিনিধি : জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সাতক্ষীরা তালায় বীর মুক্তিযোদ্ধা তাজ উদ্দীন মুন্সিকে (৭১) পিটিয়ে জখম করেছে একই এলাকার জামাল উদ্দীন গাজী। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার সন্ধ্যা ৭টার সময় উপজেলার ইসলামকাটি ইউনিয়নের মহনার বাজারে। আহত বীর মুক্তিযোদ্ধা তাজ উদ্দীন মুন্সি কাজী ডাঙ্গা গ্রামের মৃত হাবিবুল্লাহ মুন্সির ছেলে।
বীর মুক্তিযোদ্ধা তাজউদ্দীন মুন্সি জানান,দীর্ঘদিন ধরে কাজী ডাঙ্গা গ্রামের মৃত আছির উদ্দীন গাজীর ছেলে জামাল উদ্দীন গাজী (৪৫) এর সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। বুধবার (১০জুলাই) সন্ধ্যায় স্থানীয় মোহনা বাজারে জগনাথ ডাক্তারের দোকানে বসে ছিলাম। এমন সময় কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই আমাকে জামাল উদ্দীন গাজী এলোপাতাড়ি কিল,ঘুসি লাথি মারিয়া ফোলা জখম করে। আহত বীরমুক্তিযোদ্ধা তালা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্য্র থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন।
এ ঘটনায় তালা থানায় মুক্তিযোদ্ধা সুবিচার পাইবার জন্য লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
তালা থানার ওসি মেহেদী রাসেল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে শনিবার দুপুরে বলেন,একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

বটিয়াঘাটায় রক্ত দাতাদের উদ্বুদ্ধকরণে সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা

বিজ্ঞপ্তি : বটিয়াঘাটা উপজেলার ভান্ডারকোট ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে শুক্রবার ভান্ডারকোট ব্লাড ডোনার্স ক্লাব কর্তৃক আয়োজিত রক্তদানে রক্ত দাতাদের উদ্বুদ্ধকরণে সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা ভান্ডারকোট ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের সভাপতি মোঃ হাফিজুর রহমান শেখ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যশোর সরকারি এম এম সিটি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডক্টর খ ম রেজাউল করিম, বিশেষ অতিথি ছিলেন দাকোপ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসারডাক্তার নিপা রায়, বি কে ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশনের সহকারী শিক্ষক মোঃ আশিকুর রহমান, ফকিরহাট শুভদিয়া ইয়ং বয়েজ ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হাফেজ মাওলানা রবিউল ইসলাম, রামপাল গৌরম্ভা জি এস ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রাজু আহমেদ, ভান্ডারকোট ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক চিনময় দত্ত। অন্যান্যের বক্তব্য রাখেন জনাব মোঃ সবুজ বিশ্বাস, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, মোঃ আলামিন ইসলাম নাঈম, অর্থনীতি বিভাগ, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন এস এম রেজোয়নুর রহমান সাধারণ সম্পাদক, ভান্ডারকোট ব্লাড ডোনার্স ক্লাব।
উপস্থিত ছিলেন মিরাজ তাহসিন শিমুল, বিশ্বাস আমিনুল ইসলাম, মোঃ জাহাঙ্গীর গোলদার, মোঃ কামরুল ইসলাম, মোঃ আমিনুল ইসলাম পিয়াল,  মোঃ ওহিদুজ্জামান ডালিম।
এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ভান্ডারকোট ব্লাড ডোনার্স ক্লাব, শুভদিয়া ইয়ং বয়েজ ব্লাড ডোনার্স ক্লাব, জি এস ব্লাড ডোনার্স ক্লাব এর সকল সদস্যগণ।
উক্ত অনুষ্ঠানে সর্বমোট ৩১ জনকে ১০ বার বা তার বেশি রক্ত দেওয়ার জন্য ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা জানানো হয় এবং সকল রক্ত সৈনিককে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, যারা রক্ত দান করে তারা মহামানব। আর মহামানবরা মৃত্যুর পরও তাদের কর্ম দিয়ে এই পৃথিবীতে বেঁচে থাকে।আজকের এই যুবকরা তাদের কর্ম দিয়ে এ পৃথিবীতে নাম স্বর্ণাক্ষরে লিখে যাবে এই কামনা করি।

সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, ভালো ফলাফল করলে একজন ছাত্র কে সংবর্ধনা দেয়া হয় ভালো অর্জন করলে কোন বিশেষ ব্যক্তিকে সংবর্ধনা দেয়া হয় কিন্তু যারা নিজের রক্ত দিয়ে অন্য মানুষের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসে তাদের কেউ বিশেষভাবে সম্মান দেখায় না। আজ আমরা সেই সকল মহান ব্যক্তিদের ক্রেস্ট দিয়ে সম্মান জানাবো যারা নিজের রক্ত দান করে সেচ্ছায়। আগামীতে আমাদের এই রকম অনুষ্ঠান অব্যাহত থাকবে।

নওয়াপাড়ায় রূপসা ট্রেনের স্টপেজের দাবীতে সমাবেশ অনুষ্ঠিত

নওয়াপাড়া(যশোর) প্রতিনিধি : নওয়াপাড়ায় রূপসা ট্রেনের স্টপেজের দাবীতে শুক্রবার সকালে র‌্যালি ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।  নওয়াপাড়ার ওয়াকওয়ে থেকে শুরু হয়ে র‌্যালিটি নওয়াপাড়ার স্বাধীনতাস্মৃতিস্তম্ভের অদূরে গিয়ে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন,অভয়নগর উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সহসভাপতি-সাউদার্ণ স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো: মাহবুব হোসেন,উদীচীর সা: সম্পাদক ও মশিয়াহাটী ডিগ্রী কলেজের অধ্যাপক সুকুমার ঘোষ,রেনেসাাঁর সা: সম্পাদক পার্থ প্রতীম সুর,তরুণ সমাজসেবক শাহ নাসের, জাগ্রত নাগরিক সমাজ(জানাক সদস্য) ডা: ফেরদৌসী খাতুন,চন্দ্রা দাস। বক্তারা বলেন,নওয়াপাড়া শিল্প,বাণিজ্য ও বন্দর নগরী হওয়া সত্ত্বেও নওয়াপাড়া রেল স্টেসনে রূপসা ট্রেনের যাত্রাবিরতি নেই। সব ট্রেন এখানে দাঁড়ালেও রূপসা থামেনা। অসংখ্য ছাত্র,কর্মচারী,ব্যবসায়ীসহ সব পেশার অসংখ্য মানুষ এ দাবীতে নানা কর্মসূচী পালন করে আসছে। জনভোগান্তি হ্রাসে অবিলম্বে এখানে রূপসা ট্রেনের যাত্রা বিরতি দরকার। বক্তারা নওয়াপাড়ার গুরুত্ব বিবেচনা করে অবিলম্বে স্টপেজ দেওয়ার জন্য রেলমন্ত্রী,রেলওয়ের ডিজিসহ সংশ্লিষ্টদের সদয় হস্তক্ষেপ দাবী করেছেন।

ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে কলেজ অধ্যক্ষ গ্রেপ্তার

ঢাকা অফিস : ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে পাবনা সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সুজাউদ্দৌলাকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার দুপুরে, সদর থানায় মামলাটি করেন কলেজের এমএড কোর্সে অধ্যয়নরত সিরাজগঞ্জের এক ছাত্রী। পুলিশ মামলাটি গ্রহণ করে আসামিকে কারাগারে পাঠিয়েছে।

পুলিশ জানায়, প্রতি বৃহস্পতিবার সিরাজগঞ্জ থেকে এসে দুই দিন কলেজের ছাত্রী হোষ্টেলে থাকতেন ওই ছাত্রী। মাঝেমধ্যে অধ্যক্ষের কক্ষেও থাকতেন। বিষয়টি নিয়ে আবাসিক শিক্ষার্থীরা চরম বিব্রত ও ক্ষুব্ধ ছিলেন। গত বৃহস্পতিবার রাতে তাদের রুমের বাইরে থেকে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে বিক্ষোভ ও পুলিশে খবর দেয় তারা।

এ ব্যাপারে ওই শিক্ষার্থীর অভিযোগ, জরুরি প্রয়োজনের কথা বলে কলেজের আবাসিক হোস্টেলের গেস্ট রুমে ডেকে অধ্যক্ষ সুজাউদ্দৌলা তাকে শ্লীলতাহানি ও ধর্ষণের চেষ্টা করে।

বটিয়াঘাটায় বিনামূল্যে স্থানীয় জাতের আমন ধানবীজ বিতরণ

বিজ্ঞপ্তি : দেশীয় বীজ-বৈচিত্র্য সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বটিয়াঘাটায় আজ শনিবার ১৩ জুলাই ২০১৯ বিনামূল্যে স্থানীয় প্রজাতির আমন ধানবীজ বিতরণ করা হয়। গঙ্গারামপুর কৃষক সংগঠন ও লোকজের উদ্যোগে গঙ্গারামপুর স্টার ইউনিট ক্লাব চত্ত্বরে অনুষ্ঠিত ধানবীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গঙ্গারামপুর কৃষক সংগঠনের সভাপতি বিষ্ণুপদ রায়, সহসভাপতি নিকুঞ্জুবিহারী সরকার, নজরুল শেখ, লোকজের সমন্বয়কারী পলাশ দাশ, সিনিয়ার প্রোগ্রাম অফিসার মিলন কান্তি ম-ল, দিপংকর কবিরাজ প্রমুখ। বটিয়াঘাটা উপজেলার ভান্ডারকোট, গঙ্গারামপুর, সুরখালী ও বটিয়াঘাটা সদর ইউনিয়নের অর্ধশত কৃষক এবং বটিয়াঘাটা লবণাক্তা পরিবীক্ষণ ও গবেষণা কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ ৪৫ প্রজাতির স্থানীয় আমন ধানের বীজ সংগ্রহ করেন। বিতরণকৃত স্থানীয় প্রজাতির উল্লেখযোগ্য আমন ধানবীজগুলো হলো- বাঁশফুল বালাম, খেজুরছড়ি বালাম, কালোজিরা, মরিচশাইল, গোপালভোগ, পাটনাই বালাম, সাদামোটা, কার্ত্তিক বালাম, ডাকশাইল, তিলেকুচি, ভুটেস্যালট, দারশাইল, পঙ্খীরাজ, কুমড়াগোড়, মন্তেশর, নোনাকচি, লাল গোটাল, হরিধান, সাদা গোটাল, সাদা বাঁশফুল, সাদা চিনিকানাই, হোগলা, কাঁচড়া, সাহেবকচি, হাতিবজড়, মোহিনীস্যালট, রুপশাইল, খেজুরছড়ি, মালাগাথী, বৌসোহাগী, বজ্রমুড়ী, কলমীলতা, ক্যারাঙ্গাল, সাগরফনা, চিনিআতপ, লিলি, লালমোটা। এছাড়া ব্রিডিংকৃত এফ-৯ পর্যায়ের নতুন উদ্ভাবিত ৪টি জাতের আমন ধানের বীজ বিতরণ করা হয়েছে।
কৃষিতে বহুজাতিক কোম্পানীর বীজের আধিপাত্য ও আগ্রাসনের বিরুদ্ধে স্থানীয় জাতের বীজ স্বত্ত্বাকে টিকিয়ে রাখা ও তা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে লোকজ কৃষক নেতৃত্বে কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে বিনামূল্যে স্থানীয় প্রজাতির আমন ধানবীজ বিতরণ করেছে।

নতুন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর শপথ আজ

ঢাকা অফিস : বঙ্গভবনে আজ শনিবার সন্ধ্যায় শপথ নেবেন দুই মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ পূর্ণমন্ত্রী হচ্ছেন। নতুন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা।

বঙ্গভবনের দরবার হলে অনুষ্ঠিত হবে শপথ অনুষ্ঠান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চলতি মেয়াদে এটা মন্ত্রিসভায় দ্বিতীয় রদবদল।

মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ জানায়, রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বাংলাদেশের সংবিধানের ৫৬ অনুচ্ছেদের ধারা-২ অনুযায়ী ইমরান আহমদকে পূর্ণমন্ত্রী এবং ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরাকে প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন।

এ বছর ৭ জানুয়ারি টানা তৃতীয় দফায় আওয়ামী লীগ সরকারের মন্ত্রিসভা শপথ নেয়। প্রধানমন্ত্রীসহ ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী ও তিনজন উপমন্ত্রী নিয়ে নতুন মন্ত্রিসভা যাত্রা শুরু করে।

গত মে মাসে মন্ত্রিসভায় কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছিল। দুজন পূর্ণমন্ত্রীর দায়িত্ব কমানো হয়েছিল। একজন প্রতিমন্ত্রীর মন্ত্রণালয় পরিবর্তন করা হয়েছিল। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী তাজুল ইসলামকে শুধু স্থানীয় সরকারের মন্ত্রী করা হয়। স্বপন ভট্টাচার্যকে দেয়া হয় পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে দায়িত্বরত মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারকে শুধু ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী করা হয়। আর প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে দেয়া হয় তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের দায়িত্ব। এ ছাড়া স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী করা হয়।

দ্বিতীয় দফা পরীক্ষাতেও দুধের ১০টি নমুনায় এন্টিবায়োটিক

ঢাকা অফিস : দ্বিতীয় দফা পরীক্ষায় পাস্তুরিত ও অপাস্তুরিত দুধের ১০টি নমুনার দশটিতেই মানবদেহের চিকিৎসায় ব্যবহৃত এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ সেন্টারের সদ্য সাবেক পরিচালক একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানান।

গত ২৫শে জুন আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জাননো হয়েছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদ পাস্তুরিত ও অপাস্তুরিত দুধে এন্টিবায়োটিক ও ডিটারজেন্টের উপস্তিতি আছে কিনা তা মাঝে মাঝেই পরীক্ষা করা হবে। এরই ধারাবাহিকতায় গত সপ্তাহে এই পরীক্ষাটি আবারো করা হয়।

প্রথমবারের মতো এবারও ৫টি কোম্পানির ৭টি পাস্তুরিত প্যাকেটজাত দুধের নমুনা এবং খোলা দুধের ৩টি নমুনা একই জায়গা থেকে সংগ্রহ করা হয়। সবগুলো নমুনা উন্নত ল্যাবে একই নিয়মে পরীক্ষা করা হলে তাতে এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি পাওয়া যায়।

১০টি নমুনার তিনটিতে, চার ধরণের এন্টিবায়োটিক পাওয়া গেছে। এছাড়াও ৬টি নমুনাতে তিন ধরণের ও একটি নমুনাতে ২ ধরণের এন্টিবায়োটিকর উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

নুসরাত হত্যা: ১৩ জনের সাক্ষ্য গ্রহন

ঢাকা অফিস : ফেনীর সোনাগাজী মাদ্রাসার শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায়  ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৩ জনের সাক্ষ্য নেয়া হয়েছে- এমনটি জানিয়েছেন পিবিআই’র ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার। সকালে এফডিসিতে নারী নিপীড়ন প্রতিরোধে মূল্যবোধের চর্চা শীর্ষক বিতর্ক প্রতিযোগিতায় তিনি এ তথ্য জানান।

বনজ কুমার মজুমদার আরও বলেন,’এই ১৩ জনের সকলেই আমাদের গুরুত্বপূর্ন সাক্ষী। প্রথম সাত জন ছিল বেশি গুরুত্বপূর্ন। এখন গুরুত্বপূর্ন হলো ৮ থেকে ৩২ নাম্বার।

এদিকে, খুলনায় সাংবাদিককে হাতকড়া পড়ানো বিষয়ে তিনি বলেন, অসুস্থ সাংবাদিককে হাতকড়া পড়ানো সম্পূর্ণ অবিচার হয়েছে। এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘এটি একেবারেই অবিচার। যে পালিয়ে যাবে না। জোর করে অসুস্থ ব্যক্তিকে হাতকড়া পরানো আমাদের পুলিশ বিধানে স্পষ্ট করে বর্ণনা করা আছে।’

এরশাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক

ঢাকা অফিস : বিভিন্ন শারীরিক জটিলতায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদের। শনিবার দুপুরে বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

জিএম কাদের জানান, সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের লিভার ও কিডনি পুরোপুরি কাজ করছে না।

তিনি আরও বলেন, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসকরা আশাবাদী, তার সুস্থতার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। যতদিন পর্যন্ত চিকিৎসা চালানো সম্ভব চিকিৎকরা চেষ্টা চালিয়ে যাবেন। এরশাদের সুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেন তিনি। ফুসফুস, কিডনিসহ নানা জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের আইসিইউতে রয়েছেন এরশাদ।