গণপিটুনিতে রেনু হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি হৃদয় গ্রেপ্তার

ঢাকা অফিস : বাড্ডায় গণপিটুনিতে নিহত রেনু হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি হৃদয় গ্রেপ্তার হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে, গোলাপ শাহ মাজারের সামনে থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

 

কলারোয়ায় ছেলের হাতে বৃদ্ধ পিতাসহ জখম ৩

জুলফিকার আলী, কলারোয়া(সাতক্ষীরা) : সাতক্ষীরার কলারোয়ায় জমি ভাগবাটোয়ারে নিয়ে ৮০বছরের বৃদ্ধ পিতাকে পিটালেন এক ছেলে। আহত ওই বৃদ্ধকে কলারোয়া সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার (২৩জুলাই) বেলা ১টার দিকে উপজেলার বদ্দিপুর গ্রামে। জানা গেছে-উপজেলার বদ্দিপুর গ্রামের বৃদ্ধ আয়ছোদ্দী সরদার (৮০)এর জমি তার ছেলেরা ভাগবাটোয়ারা করে নিচ্ছেন। এনিয়ে বৃদ্ধ পিতার সাথে কথা হয় ছেলে এরশাদ আলীর। কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে ছেলে এরশাদ আলী ক্ষিপ্ত হয়ে বৃদ্ধ পিতা আয়ছোদ্দীকে ধরে এলোপাতাড়ী ভাবে পিটিয়ে জখম করে। বাধা দিতে গিয়ে মমতাজ বেগম, রিপন, সুমন, ফিরোজা খাতুন ও অমেলা খাতুনের হাতে জখম হন আব্বাস সরদার (৪০) ও শাহিদা খাতুন (৩০)। আহতদের এলাকাবাসী উদ্ধার করে কলারোয়া সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

গনপিটুনিতে নিহত মা হত্যার বিচার চেয়ে অবুঝ শিশু তুবা

প্রকাশ্য দিবালোকে রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত মা তাসলিমা বেগম রেনু হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে রাজপথে দাঁড়িয়েছে নিহতের চার বছরের অবুঝ শিশু তাসনিম তুবা।

মঙ্গলবার দুপুরে লক্ষীপুরে রায়পুর পৌর শহরে রেনু হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে স্থানীয় সর্বস্তরের জনতা। এসময় সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে মা হত্যার বিচার চেয়ে অবুঝ শিশু তুবাও রাজপথে দাঁড়ায়।

মানববন্ধন কর্মসুচিতে অংশ নেয় বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এ হত্যাকারীদের দ্রুত চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবী জানান তারা। এসময় পরিবারের লোকজন গুজব ছড়িয়ে মানুষ হত্যার বিচারের দাবী জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

উল্লেখ্য, গত ২০ জুলাই শনিবার সকালে ঢাকার উত্তর পূর্ব বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে তাসলিমা বেগম রেনুকে প্রকাশে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। মেয়েকে ভর্তির জন্য ওই স্কুলে খোঁজ নিতে গিয়ে কথাবার্তায় সন্দেহ হলে গুজবেই লোকজন জড়ো হয়ে ছেলে ধরা বলে গণপিটুনি দিলে তার মৃত্যু হয়। লক্ষীপুরের রায়পুর উপজেলার উত্তর সোনাপুর গ্রামে রেনুর বাড়ি। তুবা এখন খালাদের সঙ্গে রয়েছে। রোববার রাতে রেনুর নামাজের জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

গুজবে কান না দেয়ার আহ্বান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

ঢাকা অফিস : আইন নিজের হাতে তুলে না নিতে এবং গুজবে কান না দিতে দেশবাসীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। মঙ্গলবার দুপুরে, সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি দাবি করেন, মানুষের মনে আতঙ্ক তৈরি করার জন্যই একটি মহল উদ্দেশ্যমূলকভাবে এসব গুজব ছড়াচ্ছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কারা, কী উদ্দেশ্যে এসব করছে তা খুঁজে বের করে ব্যবস্থা নিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ভিডিও ফুটেজ দেখে গণপিটুনিতে জড়িতদের শনাক্ত করা হচ্ছে এবং এসব ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এ পর্যন্ত ৮১ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

এছাড়া, সারা দেশে গণপিটুনির ঘটনায় ৬ জন নিহত ও ১৫ জন আহত হয়েছে। এসব ঘটনায় ৯টি হত্যা মামলা এবং ১৫টি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

সুন্দরবনে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই বনদস্যু নিহত

খুলনা অফিস : সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই বনদস্যু নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে, পূর্ব সুন্দরবনের জোংড়া খালে এই ঘটনা ঘটে।
ঘটনাস্থল থেকে বেশ কয়েকটি আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়, নিয়মিত টহলে বের হলে বনদস্যু খালেক বাহিনী তাদের লক্ষ্য করে গুলি করে। এ সময়, র‌্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালালে দস্যুরা পালিয়ে যায়। পরে, ঘটনাস্থল থেকে দুই বনদস্যুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এদিকে, মেহেরপুর সদরে মাদক ব্যবসায়ীদের গোলাগুলিতে একজন নিহত হয়েছে। পুলিশ জানায়, রাত তিনটার দিকে সদর উপজেলার গোভিপুর এলাকায় দুই দল মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে গোলাগুলি হয়। পরে, হামিদুল ইসলাম নামে একজনের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

মাদক ভাগাভাগি নিয়ে দু’পক্ষের মধ্য এই সংঘর্ষ হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।

বটিয়াঘাটা থানায় ওপেন হাউজ ডে উদযাপন

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : “পুলিশ জনতা হাতে হাত,অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ” এই শ্লোগান কে সামনে রেখে বটিয়াঘাটা থানা পুলিশের আয়োজনে মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় স্থানীয় থানা চত্ত্বরে “ওপেন হাউজ ডে” উদযাপন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা বটিয়াঘাটা থানা পুলিশের পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মোঃ মোস্তফা হাবিবুল্লাহ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ আব্দুল্লাহ বিন কালাম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যান মনোরঞ্জন মন্ডল, উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, কোষাধ্যক্ষ মনিরুজ্জমান, সাংবাদিক মহিদুল ইসলাম শাহীন, সাংবাদিক এস,এম ভুট্টো, সাংবাদিক শাহীন বিশ্বাস,পরিতোষ রায়, সদর ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মানস পাল, ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম খাঁন সহ পুলিশিং কমিটির সদস্যবৃনন্দ, থানা পুলিশের এস,আই, এ এস,আই ও পুলিশসহ ইউনিয়ন চৌকিদার ও দফাদারবৃন্দ, এবং গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

বটিয়াঘাটায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে জীবন নাশের হুমকি

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বটিয়াঘাটা উপজেলা শৈলমারী এলাকার জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও জীবন নাশের হুমকি অভিযোগ উঠেছে এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী গত ১৩ জুন থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছে। যার ডায়েরী নম্বর ৫৩০। অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার শৈলমারী এলাকার দিপংকর বৈরাগী গত ১১জুন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে থেকে জমিজমা সংক্রান্ত একখানা নোটিশ প্রাপ্তে হই এবং পরের দিন ১২ জুন বেলা ১১ টায় উপস্থিত হয়ে নোটিশের জবাব দেয়ার জন্য বলা হয়। আমি উক্ত তারিখে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যলয়ের সামনে হাজির হলে তাকে একা পাইয়া অভিযুক্তকারী পিযুষ কান্তি মল্লিকের এর সহযোগীতায় বাবুল মহলদার, হরিচাঁদ ঢাকইদার, আনোয়ার হোসেন মিলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ সহ জীবন নাশের হুমকী প্রদর্শন করে। তিনি জানান শৈলমারী মৌজার সি,এস ১০২ এস,এ ১১৪ ও আর,এস ৩৫৩ নং খতিয়ানে ০.৪২৮০ একর জমি দিপংঙ্ক, বিধান এবং দেবরানী ভোগদখলে আছে। কিন্তু পিযুষ কান্তি মন্ডল ঐ জমি থেকে ০.০৫ একর জমি সুশীলা বালা বৈরাগীর নামে একটি ভূয়া দলিল দেখিয়ে অত্র জমি দাবী করে আসলে তার নামে কোন রেকর্ড নেই। তিনি আরো জানন বিবাদীরা তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে হয়রানী করার পায়তারা করছে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী আইন প্রয়োগকারী সংস্থার উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

মোংলা বন্দর জাহাজ সংকটে সক্ষমতা কাজে লাগাতে পারছেনা

মনিরুল হক মনি, বাগেরহাট : বাগেরহাটের মোংলা দেশের দ্বিতীয় সমুদ্র বন্দর। প্রতিষ্ঠার পর গত অর্থবছরে বেশী রাজস্ব আয় করলেও এখনো জাহাজ সংকটের কারনে কন্টেইনার হ্যান্ডলিংয়ে সর্বোচ্চ সক্ষমতা কাজে লাগাতে পারছেনা। এই বন্দরের সক্ষমতা বাড়াতে নতুন -নতুন উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন সরঞ্জামাদি সংযুক্ত করা হলেও বন্দরের পশুর চ্যানেলের নাব্যতা সংকট, সিঙ্গাপুরসহ অন্যন্য বন্দরের সাথে সরাসরি কন্টিনারবাহী ফিডার জাহাজ চলাচল না থাকা ও পদ্মা নদীর কারনে কন্টিনারবাহী লড়ি সড়ক পথে না আসতে পারায় মোংলা বন্দর কন্টেইনার হ্যান্ডলিংয়ে এখনো কাংখিত অগ্রগতি অর্জন করতে পারেনি। এই অবস্থায় একদিকে ফাঁকা পড়ে থাকছে মোংলা বন্দরের কন্টেইনার ইয়ার্ড, অন্যদিকে কন্টেইনার জট লেগেই রয়েছে চট্রগ্রাম বন্দর ও ঢাকার কমলাপুর আইসিডি কন্টিইনার ইয়ার্ডে।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ জানায়, সরকার মোংলা বন্দরের সক্ষমতা কাজে লাগাতে ও এই বন্দর ব্যবহারকারীদের দীর্ঘ দিনের বিড়াম্বনা দূর করতে গত ১ জুলাই থেকে মোংলা কাস্টম হাউজের পূর্নাঙ্গ কার্যক্রম শুরু করেছে। দেশের অন্য বন্দরগুলোর তুলনায় মোংলা বন্দরে ব্যবসায়ীদের কনটেইনার প্রতি সর্বনি¤œ ১ হাজর ৪ শত পঞ্চাশ ডলার ভাড়া ধার্য করার পরও বাড়েনি এই বন্দরে কন্টেনারবাহী জাহাজের সংখ্যা। এই বন্দরে মাসে দুই একটি কন্টেইনারবাহী জাহাজ আসলেও তার প্রায় ৯৬ ভাগই থাকে এলপিজি সিলিন্ডার ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল পন্য। তবে, গত অর্থবছরে মোংলা বন্দরে ১৭ হাজার মেট্রিক টন কন্টেইনারবাহী পন্য আমদানী বেড়ে দাড়িয়েছে ৬০ হাজার মেট্রিক টনে। গত অর্থবছরে ১৭ হাজার মেট্রিক টন কন্টেইনারবাহী পন্য আমদানী বাড়লেও কন্টেইনার হ্যান্ডলিংয়ে সর্বোচ্চ সক্ষমতা অর্ধেকেও বেশী কাজে লাগানো যাচ্ছেনা। কন্টেইনার ইয়ার্ডের অধিক্ংশ স্থান এখন খালি পড়ে রয়েছে। চট্রগ্রাম বন্দরে কন্টেনার ইয়ার্ডে কন্টেইনার রাখার যায়গা না থাকা ও ঢাকার কমলাপুর আইসিডি কন্টেইনার ইয়ার্ডে কন্টেইনার প্রতি ভাড়া বাড়িয়ে ২ হাজার ৯ শত ডলার করা হয়েছে। অন্যদিকে কন্টেইনার প্রতি বাড়া কম মোংলা বন্দরে কন্টেইনারবাহী জাহাজ না থাকায় ব্যাবসায়িদের দ্বিগুন ভাড়া গুনতে হচ্ছে। এতে করে আর্থিক ভাবে ক্ষতির সম্মুখিন হতে হচ্ছে ব্যাবসায়ীদের।

এবিষয়ে বাগেরহাট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ও বন্দর ব্যবহারকারী শেখ লিয়াকত হোসেন লিটন বলেন মোংলা বন্দরে আমদানীÑ রপ্তানীকারকরা যাতে বেশী আগ্রহী হয় সেজন্য বন্দর কর্তৃপক্ষ ও বাগেরহাট চেম্বার সচেষ্ট রয়েছে। ইতিমধ্যে আমরা চেম্বার নেতা ও ব্যবসায়ীরা দেশের আমদানী-রপ্তানী বানিজ্যে আরো গতি আনতে রাজধানীর সব থেকে কাছের মোংলা বন্দরের সক্ষমতা কাজে লাগাতে সরকারের শীর্ষ মহলের কাছে দাবী জানিয়েছি। পাশাপাশি দ্রুত সিঙ্গাপুর থেকে চট্রগ্রাম বন্দর হয়ে মোংলা বন্দর পর্যন্ত কন্টেইনারবাহী ফিডার জাহাজ চলাচল চালু করা গেলে মোংলা কন্টেইনার হ্যান্ডলিংয়ে সক্ষমতা কাজে লাগানো যাবে। এতে করে আমদানী-রপ্তানী বানিজ্যেও জড়িত ব্যবসায়ীরা চট্রগ্রাম বন্দরে কন্টেনার ইয়ার্ডে কন্টইনার জট ও ঢাকার কমলাপুর আইসিডি কন্টেইনার ইয়ার্ডে কন্টেইনার প্রতি ব্যবসায়ীরা অতিরিক্ত ১৫ শত ডলার বেশী ভাড়ার হাত থেকে রক্ষা পাবে।এছাড়া এখানের কাস্টম কমিশনার ব্যাবসায়ী বান্ধব হওয়ায় অনেক বিড়ম্বনার হাত থেকে রক্ষাপাচ্ছে আমদানী কারকরা ।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমোডর একেএম ফারুক হাসান বলেন, রাজধানী ঢাকার সাথে মোংলা বন্দরের দূরত্ব কম হলেও পদ্মা নদীর কারনে কন্টিনারবাহী লড়ি সরসরি সড়ক পথে মোংলা বন্দরে আসতে পারেনা। একারনে মোংলা বন্দর ব্যাহারে ব্যাসায়ীদের আগ্রহ কম। বন্দরের পশুর চ্যানেলের নাব্যতা সংকট সমাধানে ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ের কাজ দ্রুত করা গেলে সরাসরি বন্দর জেটিতে ৮ থেকে ১০ মিটার ড্রাফটের মাদার ভেসেল সহজে আসতে পারবে। পাশাপাশি আগামী বছরের মধ্যে পদ্মাসেতু চালু হবে। এসময়ে সিঙ্গাপুর থেকে চট্রগ্রাম বন্দর হয়ে মোংলা বন্দর পর্যন্ত কন্টেইনারবাহী ফিডার জাহাজ চলাচল চালু করা গেলে এই বন্দর ব্যবহারে ব্যবসাীরা বেশী করে আগ্রহী হবে। এতকরে মোংলা বন্দরের কন্টেইনারবাহী জাহাজ আগমেনে সংখ্যা কয়েকগুন বাড়বে। তবেই মোংলা কন্টেইনার হ্যান্ডলিংয়ে সর্বোচ্চ সক্ষমতা কাজে লাগানো যাবে।

পাস্তুরিত দুধ: হাইকোর্টে ৩টি প্রতিবেদন

ঢাকা অফিস : বাজারে থাকা পাস্তুরিত দুধে মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর অ্যান্টিবায়োটিক ও ডিটারজেন্টের উপস্থিতির বিষয়ে সাতটি পরীক্ষার প্রতিবেদন হাইকোর্টে জমা দিয়েছে আইসিডিডিআরবি, বিসিএসআইআর ও বাংলাদেশ প্রাণী সম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট। তবে প্রতিবেদন জমা দেয়নি জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট।

বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের বেঞ্চে এই প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের গবেষণা প্রতিবেদন হাইকোর্টে উপস্থাপন করা হলে, আদালত এই চারটি প্রতিষ্ঠানকে পরীক্ষার জন্য নির্দেশ দেয়। বাজারে থাকা পাস্তুরিত দুধে অ্যান্টিবায়োটিক, ডিটারজেন্ট, ফরমালিন, অ্যাসিডিটি মাত্রাতিরিক্ত রয়েছে বলে গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক।

রওশনের চিঠির সত্যতা নেই: জি এম কাদের

ঢাকা অফিস : রওশন এরশাদের বিবৃতির সত্যতা নেই জানিয়ে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব প্রসঙ্গে রওশন এরশাদের বিবৃতিকে ‘উড়ো চিঠি’ বলে মন্তব্য করেছেন পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

তিনি বলেন, ‘যেহেতু অফিসিয়ালি এ ধরনের কোনো চিঠি আমরা পাইনি, তাই এ বিষয়ে এখনই কোনো প্রতিক্রিয়া জানাতে চাচ্ছি না। কোনো প্রতিক্রিয়া থাকলে মিডিয়া ডেকে জানানো হবে।’

এর আগে, গণমাধ্যমে সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতার প্যাডে হাতে লেখা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠান রওশন এরশাদ। বিবৃতিতে পার্টির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী পরবর্তী চেয়ারম্যান না হওয়া পর্যন্ত জিএম কাদেরকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান রওশন। এতে তাকে সমর্থন জানিয়েছেন সাত জন সংসদ সদস্যসহ দু’জন প্রেসিডিয়াম সদস্য।

বিবৃতিতে জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদ লিখেছেন, “সম্প্রতি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের মারফত আমরা জানতে পেরেছি জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদেরকে চেয়ারম্যান হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে, যা আদৌ কোনও যথাযথ ফোরামে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি।

ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দায়িত্বপালনকালে জাতীয় পার্টির গঠনতন্ত্র ধারা ২০ (২) এর খ-এ দেয়া ক্ষমতা প্রয়োগ করতে পারবেন। যথা−মনোনীত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রেসিডিয়ামের সংখ্যাগরিষ্ঠদের মতামতের ভিত্তিতে দায়িত্ব পালন করবেন। চেয়ারম্যানের অবর্তমানে ধারা ২০ (২) এর ‘ক’ কে উপেক্ষা করা যাবে না।

আশা করি বর্তমানে যিনি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি পার্টির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী পরবর্তী চেয়ারম্যান না হওয়া পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন।’’

জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা হিসেবে বর্তমানে দায়িত্ব পালন করছেন জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদ। দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ১৪ই জুলাই মারা যান জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। এর আগে গত জুনে শারীরিক অসুস্থতাজনিত কারণে পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে জিএম কাদেরকে দায়িত্বভার অর্পণ করেন তিনি। ওই সময় বিষয়টি মেনে নিলেও এরশাদের মৃত্যুর চার দিনের মাথায় গত ১৮ই জুলাই জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিএম কাদেরকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান থেকে চেয়ারম্যান হিসেবে গণমাধ্যমের সামনে পরিচয় করিয়ে দেন। কিন্তু এর পাঁচ দিন পরেই তাকে চেয়ারম্যান পদে মানতে আপত্তি জানালেন রওশন এরশাদ ও তার অনুসারীরা।