খুলনায় ওসিসহ ৫ পুলিশের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের ঘটনায় তদন্ত কমিটি

খুলনা অফিস : খুলনার জিআরপি (রেলওয়ে) থানায় তিন সন্তানের জননীকে (৩০) গণধর্ষণের ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সোমবার (০৫ আগস্ট) দুপুরে পাকশী রেলওয়ে জেলা পুলিশের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের নির্দেশে এ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

তদন্ত কমিটির প্রধান হলেন কুষ্টিয়া রেলওয়ে সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার ফিরোজ আহমেদ এবং সদস্যরা হলেন কুষ্টিয়া রেলওয়ে সার্কেলের ডিআইও-১ পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) শ.ম. কামাল হোসেইন ও দর্শনা রেলওয়ে ইমিগ্রেশন ক্যাম্পের পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো. বাহারুল ইসলাম।

এদিকে, ধর্ষণের শিকার ওই নারীর ডাক্তারী পরীক্ষা সোমবার দুপুরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে সম্পন্ন হয়েছে। পরীক্ষা শেষে ওই নারীকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

পাকশী রেলওয়ে জেলা পুলিশের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে উল্লেখ করা হয়, খুলনা রেলওয়ে থানা হাজতে রেখে ৬/৭জন পুলিশ তাকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ ও মারপিট করে- মর্মে খুলনার অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দরখাস্ত করেন। আদালত তার জবানবন্দি গ্রহণ করেন এবং তাকে ডাক্তারী পরীক্ষা করানোর জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনার সঠিক তথ্য উদঘাটনের লক্ষে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটি ঘটনাটি সরেজমিন অনুসন্ধান পূর্বক সুস্পষ্ট মতামতসহ বিস্তারিত প্রতিবেদন আগামী ৭ দিনের মধ্যে দাখিল করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. অঞ্জন কুমার চক্রবর্তী জানান, ওই নারীর ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের গাইনী চিকিৎসকরা পরীক্ষা সম্পন্ন করেছেন। তার বিভিন্ন আলামত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। তবে, রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত এ বিষয়ে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

এদিকে অনুসন্ধানে জানা গেছে, ২ আগষ্ট ঘটনার রাতে খুলনা রেলওয়ে জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওসমান গনি পাঠান, এসআই গৌতম কুমার পাল, এসআই নাজমুল হাসান, কনস্টেবল মিজান, হারুন, মফিজ, আব্দুল কুদ্দুস, আলাউদ্দিন, কাজলসহ বেশ কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন। তবে, ওই নারী ওসি ওসমান গনি পাঠানসহ ৫ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে তাকে ধর্ষণ ও মারপিটের অভিযোগ করেছেন।

ভুক্তভোগীর বড় বোন জানান, তার বোনের শ্বশুড় বাড়ি সিলেটে। বাপের বাড়ি ফুলবাড়িগেট এলাকায়। তাদের মা খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি থাকায় তাকে দেখতে খুলনায় এসেছে বোন। বোন নিজে অসুস্থ থাকায় বৃহস্পতিবার যশোরে ডাক্তার দেখাতে গেছিল। শুক্রবার আসার সময় ফুলতলা এলাকায় জিআরপি পুলিশ প্রথমে তাকে মোবাইল চুরির অপরাধে থানায় ধরে নিয়ে যায়। পরে গভীর রাতে জিআরপি পুলিশের ওসি ওসমান গনি পাঠান তাকে ধর্ষণ করে। এরপর আরও ৪ জন পুলিশ সদস্য পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরদিন শনিবার ৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ ওকে মামলা দিয়ে আদালতে সোপর্দ করে।

তিনি আরও জানান, আদালতে বিচারকের সামনে নেয়ার পর তার বোন জিআরপি থানায় তাকে গণধর্ষনের বিষয়টি আদালতের সামনে তুলে ধরেন। এরপর আদালতের বিচারক জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট তার ডাক্তারী পরীক্ষার নির্দেশ দেন।

ওসি ওসমান গনি ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ওই মহিলাকে ৫ বোতল ফেনসিডিলসহ ২ আগস্ট আটক করা হয়। সেই মামলায় তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়। কিন্তু আদালতে গিয়ে সে ধর্ষণের অভিযোগ করেছে। ফেসডিলের মামলা থেকে রক্ষা পেতে সে এ ধরণের মিথ্যা অভিযোগ করেছে বলেও দাবি করেন তিনি।

ডুমুরিয়ায় ঘের ব্যবসায়ী হত্যার ঘটনায় নারীসহ আটক ৫

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি : ডুমুরিয়ায় ঘের ব্যবসায়ী ছগির হাওলাদার সেলিম হত্যার ক্লু উদ্ধারে মাঠে নেমেছে পুলিশ। মামলা দায়েরের পরেই তদন্তকারি অফিসার দুই মহিলাসহ ৫জনকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রেখেছেন। অতি দ্রুতই বেরিয়ে আসতে পারে ক্লু, দিয়েছেন এমনি আভাস।
পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার রংপুর ইউনিয়নের ঘোনা মাদারডাঙ্গা বিলে একটি মৎস্য ঘের থেকে গত রোববার সকালে ছগির হাওলদার সেলিম (৩৫) নামের এক ঘের ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার হয়। সে দাকোপ উপজেলার হাবিব হাওলদারের ছেলে। নিহত সেলিম ৭/৮ বছর ধরে ওই এলাকায় দৌলতপুর এলাকার ঠিকাদার টুটুলের নিকট থেকে হারিতে জমি নিয়ে ঘের ব্যবসা করে আসছিল। থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশের সুরোতহাল রির্পোট শেষে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় ওই রাতেই নিহতের চাচা দেলোয়ার হোসেন বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামী করে ডুমুরিয়া থানায় একটি মামলা রুজু করেন। এরপরেই মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এস আই নুর ইসলাম জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই এলাকার ঘের ব্যবসায়ী ব্রজেন মন্ডল (৩৫), সোহাগ (২৭) এবং নিহত সেলিমের সাথে সাখ্যতা থাকা একই পরিবারের তিন সদস্য প্রফুল্ল্য রায় (৫২) তার স্ত্রী মালতি (৪৫) মেয়ে দোলন রানীকে (২২) হেফাজতে নিয়েছেন।
এ প্রসঙ্গে মামলার তদন্তকারি অফিসার এস আই নুর ইসলাম জানান, নিহত ঘের ব্যবসায়ী ছগিরের সুরোত হাল রির্পোটে তার মুখে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। এছাড়াও শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত ও ফোলা জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে। আমরা নিশ্চিত তাকে আঘাত করে হত্যার পর পানিতে ফেলে রাখা হয়েছে। এখন তার হত্যার ক্লু উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। ইতোমধ্যে কিছু আলামত উদ্ধার হয়েছে। সেই আলামত ও কিছু তথ্যের ভিত্তিতে তদন্ত করা হচ্ছে। আমরা মুটামুটি একটি অবস্থানে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছি। তবে মামলার স্বার্থে এখনি সব তথ্য প্রকাশ করা যাচ্ছে না। অতি দ্রুত হয়তঃ ক্লু’টা পেয়ে যেতে পারি।
ডুমুরিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম বিপ্লব জানান, হত্যার ঘটনাটি নিয়ে গোপনীয়তার সাথে তদন্ত অভিযান চলছে।
খুলনা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বি-সার্কেল সজীব খান জানান, হত্যাকান্ডের মোটিভ উদ্ধারে আমি সঙ্গীয় র্ফোস নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে তদন্তের স্বার্থে বিস্তারিত বলা সম্ভব হচ্ছে না।

ডুমুরিয়ায় ৬ গাঁজা ব্যবসায়ী আটক

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি : ডুমুরিয়া পুলিশ মাদক বিরোধি অভিযান চালিয়ে ৬ গাঁজা ব্যবসায়ীকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করেছে।
ডুমুরিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম বিপ্লব জানান, ডুমুরিয়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মাদক বিরোধি অভিযান চালিয়ে ৫০ গ্রাম গাজাসহ ৬ গাজা ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। এরমধ্যে ৫ গ্রাম গাঁজাসহ ওসির উদ্দিন গাজীর ছেলে ইউসুফ গাজী (৩০), সালাম হাওলদারের ছেলে ছামসুর রহমানের (৩৫) নিকট থেকে ৫ গ্রাম, ইসমাইল গাজীর ছেলে মিন্টু গাজীর (২০) নিকট থেকে ১০ গ্রাম, গৌর দাসের ছেলে রণজিৎ দাসের (২৪) নিকট থেকে ১০ গ্রাম, মুনসুর শেখের ছেলে আরিফুল ইসলামের (২৮) নিকট থেকে ১০ গ্রাম ও আবুল কাশেমের (২৫) নিকট থেকে ১০ গ্রাম গাজা উদ্ধার করা হয়। এদের বিরুদ্ধে গাজা বিক্রির অভিযোগ রয়েছে এবং এদের বিরুদ্ধে ডুমুরিয়া থানায় মাদক আইনে পৃথক পৃথক ভাবে মামলা দায়েরের পর আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

খুলনায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে নারীর মৃত্যু

খুলনা অফিস : খুলনায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে খাদিজা বেগম নামে এক নারীর মৃত্যু  হয়েছে। তিনি খুলনা সিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এ নিয়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে আজ অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ চারজনের মৃত্যু হল।

এর আগে, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যালে মারা যান আবহাওয়াবিদের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী শারমিন আক্তার। ঢাকা মেডিক্যালে মারা গেছে হাসান নামের ১৩ বছরের এক কিশোর। এছাড়া মাদারীপুরে এক পোশাক শ্রমিক মারা গেছেন।  গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে দুই হাজার ৬৫ জন।  ডেঙ্গু আক্রান্তদের বড় অংশই শিশু।

এর আগে, আজ সোমবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত একজন অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যু হয়েছে। ওই নারীর গ্রামের বাড়ি জয়পুরহাট। এদিকে মাদারিপুরের শিবচরে ডেঙ্গু আক্রান্ত আরও একজন মারা গেছেন।

এর আগে, ৩১শে জুলাই বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে মারা যান অন্তঃসত্ত্বা মালিহা মাহফুজ অন্যা (২৭)। তার বাড়ি নারায়ণগঞ্জে। ২২শে জুলাই তাকে উত্তরার লুভানা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে পরীক্ষার পর ডেঙ্গু ধরা পড়লে সেখানে ভর্তি করা হয়। ২৩শে জুলাই অন্যাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু সেখানে অন্যার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকলে ২৫শে জুলাই বিএসএমএমইউতে নেয়া হয়।

সারা দেশে রেকর্ড হারে বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা। প্রতিদিন বাড়ছে মৃত্যু। গতকাল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন এক হাজার ৮৭০ জন। হাসপাতালগুলোতে এ মুহূর্তে সারা দেশে চিকিৎসাধীন প্রায় সাড়ে সাত হাজার। জানুয়ারী মাস থেকে এ পর্যন্ত সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২৪ হাজার ৮শ চারজন ।

উল্টোপথে ভিআইপিদের গাড়ি পেলে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

ঢাকা অফিস : উল্টোপথে ভিআইপিদের গাড়ি পেলে সংশ্লিষ্টদের তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন, সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। দুপুরে সচিবালয়ে ঈদযাত্রা নিয়ে নিজ দপ্তরে ব্রিফিংয়ে তিনি এই নির্দেশ দেন।

মন্ত্রী বলেন, উল্টোপথে গাড়ি চালানোর প্রবণতা কমলেও ঈদে তা বেড়ে যায়। মহাসড়কে পশুবাহী গাড়ি যাতে ধীরগতিতে না চলে এবং থেমে না থাকে, সেজন্য সংশ্লিষ্টদের বিশেষ নজর দিতে বলেন ওবায়দুল কাদের।

এছাড়া দুর্ঘটনা এড়াতে চালক হেলপারদের জন্য কাউন্সিলিংয়ের ব্যবস্থা করতে পরিবহণ মালিকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। ঈদযাত্রার সময় সড়ক উন্নয়ন কাজ বন্ধ রাখারও নির্দেশ দেন তিনি।

বন্যায় মহাসড়কের ক্ষতি হয়নি জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, জেলা সড়কগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ফলে ঈদযাত্রায় ভোগান্তি হবে না।

গাইবান্ধায় দুই ট্রাকের সংঘর্ষে চালক নিহত

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধায় ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে দুটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ট্রাক চালক নিহত হয়েছেন। আজ ৫ আগস্ট সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কালীতলা বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
হাইওয়ে পুলিশ জানায়, রংপুরগামী একটি পাথর বোঝায় ট্রাক উপজেলার কালীতলা বাজার এলাকায় আসলে বিপরীত দিক থেকে আসা অন্য একটি মালবাহী ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই ট্রাক চালক নিহত হয়। নিহত ট্রাক চালকের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
এ দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করে গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশন অফিসার রতন শর্মা সাংবাদিকদেন জানান- সড়ক দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ট্রাক চালকের লাশ উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

জামিন চেয়ে হাইকোর্টে মিন্নির আবেদন

ঢাকা অফিস : রগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় গ্রেফতার তার স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়েছে। সোমবার (৫ আগস্ট) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় মিন্নির পক্ষে জামিন আবেদন করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জেডআই খান পান্না।

এ আবেদনের ওপরে বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে শুনানি হতে পারে বলে জানিয়েছেন মিন্নির আইনজীবী।

এর আগে, গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে রিফাত শরীফকে। গুরুতর আহত রিফাতকে ওইদিন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ ও পাঁচ-ছয় জনকে অজ্ঞাত আসামি করে বরগুনা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলায় পুলিশ এ পর্যন্ত ১৪ জনকে গ্রেফতার করেছে। গত ২ জুলাই ভোরে মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়।

পরে ১৬ জুলাই সকাল পৌনে ১০টার দিকে মিন্নিকে তার বাবার বাড়ি বরগুনা পৌর শহরের নয়াকাটা-মাইঠা এলাকা থেকে পুলিশ লাইনে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসা হয়। এরপর দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাত ৯টায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

ডেঙ্গু: আজ গেলো ৪ প্রাণ, ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত ২০৬৫

ঢাকা অফিস : ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে আজও অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে দুই হাজার ৬৫ জন। ডেঙ্গু আক্রান্তদের বড় অংশই শিশু।

আজ সোমবার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যালে মারা যান আবহাওয়াবিদের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী শারমিন আক্তার। ঢাকা মেডিক্যালে মারা গেছে হাসান নামের ১৩ বছরের এক কিশোর। খুলনা সিটি মেডিক্যালে এক নারী মারা গেছেন। এছাড়া মাদারীপুরে এক পোশাক শ্রমিক মারা গেছে।

শুক্রবার জ্বর নিয়ে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি হন আবহাওয়া অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক নাজমুল হকের সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী শারমিন আক্তার। পরীক্ষায় তার ডেঙ্গু ধরা পড়ে। রক্তের প্লাটিলেট না বাড়ায়, শনিবার শারমিনকে ঢাকায় শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় আইসিইউতে নেয়ার পর, সোমবার ভোরে শারমীনের মৃত্যু হয়।

একটি প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশ নিতে তিন দিন আগে দক্ষিণ কোরিয়া যান শারমীনের স্বামী নাজমুল। স্ত্রী ও ছেলেকে জয়পুরহাটের বাড়িতে রেখে যান তিনি।  শারমীনের এমন মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না স্বজনরা।

এদিকে, কয়েকদিন আগে জ্বর নিয়ে ঢাকা থেকে মাদারীপুর যান পোশাক শ্রমিক রিপন হাওলাদার। ডেঙ্গু শনাক্তের পর তাকে ফরিদপুর মেডিক্যালে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দেয় শিবচর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু চিকিৎসা না নিয়ে বাড়ি ফিরলে অবস্থার অবনতি হয় তার। পরে, শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মারা যায় রিপন।

এদিকে, সাতক্ষীরায় প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী। প্রতিদিন গড়ে ৫ থেকে ৭ জন করে ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হচ্ছে সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে। আর প্রতিদিন ডেঙ্গু পরীক্ষা করছেন গড়ে ২০/২৫ জন। জেলা সদর হাসপাতালে খোলা হয়েছে ডেঙ্গু কর্ণার।

নোয়াখালীতেও ডেঙ্গুর প্রকোপ। আক্রান্তদের অভিযোগ, সরকারি হাসপাতালে পরীক্ষা করাতে না পেরে বেসরকারি হাসপাতালে পরীক্ষা করাতে হয়েছে তাদের।

অন্যদিকে, ডেঙ্গু চিকিৎসায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলার অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন নোয়াখালী জেলার সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ মমিনুর রহমান।

এ পরিস্থিতিতে ডেঙ্গু রোগীতে ভরে গেছে রাজধানীর প্রায় সব সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল। তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, সরকারি হাসপাতালে আরো ৫ হাজার ডেঙ্গু রোগীকে জায়গা দেয়ার ব্যবস্থা আছে।  আর দু’একদিনের মধ্যে মশার নতুন ওষুধ আসবে বলে জানিয়েছেন, ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম। ডেঙ্গু আক্রান্ত দুঃস্থ রোগীদের আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন, সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ।

ক্ষমা চাইলেন সানি লিওন

বিনোদন ডেস্ক : ভারতে অভিনেত্রী সানি লিওনের কারণে দিল্লির পুনিত আগরওয়াল নামে এক ব্যাক্তির বিড়ম্বনায় পড়ার ঘটনায় ক্ষমা চেয়েছেন সানি লিওন। বলিউডে সম্প্রতি মুক্তিপ্রাপ্ত ‘অর্জুন পাতিয়ালা’ ছবির একটি দৃশ্যে দেখা যায় অভিনেত্রী ও পর্ন তারকা সানি লিওন তার নিজের একটি ফোন নাম্বার পড়ছেন। অনেকেই ধরে নেন এটি সানি লিওনের নিজস্ব ফোন নাম্বার এবং মি. আগরওয়াল ভারতের নানা জায়গা থেকে ফোন কল পেতে শুরু করেন।

কিন্তু, আসলে এই নাম্বারটির মালিক ২৬ বছর বয়সী পুনিত আগরওয়াল। পুনিত বলেন, গত ২৬শে জুলাই ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর থেকে তিনি প্রতিদিন গড়ে ১০০টি করে কল পাচ্ছেন। ভোর চারটা পর্যন্ত একটার পর এটা কল আসতে থাকে, তিনি কাজ করতে পারছেন না, ঘুমাতে পারছেন না, এমনকি শান্তিতে খেতেও পারছেন না, বলে জানান তিনি। এই ঘটনায় ,তিনি চেষ্টা করছেন আইনগত পথে সিনেমায় তার নাম্বারটিকে শব্দ দিয়ে ঢেকে দিতে। হেনস্থার অভিযোগ জানিয়ে থানায় একটি ডায়েরিও করেছেন তিনি।

এ ঘটনায়, ক্ষমা চেয়েছেন সানি লিওন। তিনি বলেন, আমি ক্ষমা চাইছি। এরকম কিছু হতে পারে ভাবিনি আমি। তবে, এ ছবির পরিচালক রোহিত যুগরাজ চৌহান এই বিষয় নিয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

রূপসায় ডিবি’র অভিযানে ফেনন্সিডিল ও পিকআপসহ আটক ১

রূপসা প্রতিনিধি : পুলিশের অভিযানে রূপসা থানার জাবুসা চৌরাস্তা মোড়ে বিশেষ অভিযান চালিয়ে ৫০৫ বোতল ফেন্সিডিল ও একটি মাহিন্দ্র বোলারো পিকআপসহ মো. আব্দুল হামিদ সরদার (২৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। আজ ৪ আগস্ট ভোর সাড়ে ৪টায় ডিবি পুলিশ এ অভিযান চালায়। গ্রেফতারকৃত হামিদ সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া থানার ব্রজবাকসা গ্রামের ময়জদ্দিন এর ছেলে।

পুলিশ জানায়, খুলনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ইনচার্জ তোফায়েল আহমেদ এর নেতৃত্বে মাদক ও অস্ত্র গুলি উদ্ধারসহ বিশেষ অভিযানের অংশ হিসেবে এসআই (নিঃ) অর্জুন কুমার দাস সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্স নিয়ে রূপসা থানাধীন জাবুসা চৌরাস্তা মোড়ে চেকপোস্ট ডিউটি করতে থাকে। এমতাবস্থায় গোপন সংবাদের তারা জানতে পারে একটি সাদা রংয়ের পিকাআপে মাদক ব্যবসায়ীরা অবৈধ মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল নিয়ে বাগেরহাট এর দিকে যাচ্ছে। প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে ভোর সাড়ে ৪টায় জাবুসা চৌরাস্তা মোড়ের দিকে সাদা রংয়ের দেড় টন পিকআপ আসতে থাকলে স্থানীয় উপস্থিত জনতার সহায়তায় ডিবি’র অফিসার ও সদস্যরা রাস্তায় বেরিকেড দিয়ে উক্ত গাড়িটি আটকের চেষ্টা চালায়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ী মো, মিন্টু ওরফে বড় মিন্টু (৪০) সুকৌশলে গাড়ী হতে নেমে পালিয়ে যায়। পলাতক মিন্টু যশোরের বেনাপোল থানার পোড়াবাড়ি (নারায়নপুর) গ্রামের মৃত আলাউদ্দিন এর ছেলে।

পরে ভোর ৫.১০টায় ডিবি’র অভিযানিক দল মো আব্দুল হামিদ সরদারকে আটক করে। এসময় তার সাথে থাকা সাদা রংয়ের দেড় টন পিকআপে (রেজিঃ নং-যশোর-ন-১১-১০৯২) তল্লাসী করে গাড়ির পিছনে থাকা ২ টি নীল রংয়ের বড় প্লাষ্টিক ড্রাম এর ভিতর থেকে ৫০৫ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল উদ্ধার করে।

গ্রেফতারকৃত মোঃ আব্দুল হামিদ সরদার দীর্ঘদিন যাবৎ উক্ত গাড়ী ব্যবহার করে সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া থানাধীন বিভিন্ন এলাকা হতে অবৈধ মাদকদ্রব্য আমদানী নিষিদ্ধ ফেন্সিডিল পলাতক আসামী মিন্টুর মাধ্যমে এনো বাগেরহাট, গোপালগঞ্জ, ফরিদপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করে আসছে। এ ঘটনায় জেলা গোয়েন্দা শাখা, খুলনার এসআই(নিঃ) অর্জুন কুমার দাশ বাদী হয়ে রূপসা থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করেছেন।