আবরার হত্যা : কুষ্টিয়ায় গ্রামবাসীর তোপের মুখে বুয়েট ভিসি

কুষ্টিয়া : আবরার ফাহাদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে রায়ডাঙ্গা গ্রামে গিয়ে মানুষের তোপের মুখে পড়েন বুয়েট ভিসি।  বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে কুষ্টিয়া গেছেন বুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। ভিসির আসার খবরে এলাকাবাসী বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। তোপের মুখে পড়েন তিনি। পরে আবরারের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে পারেননি বুয়েটের ভিসি।

আজ বুধবার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে পৌঁছান তিনি। সেখান থেকে কুমারখালী উপজেলায় রায়ডাঙ্গা গ্রামে যান তিনি।

কথা ছিল বুয়েট উপাচার্যের আবরারের কবর জিয়ারত করবেন। এ খবরে আগে থেকেই আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল পরিমাণ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে রায়ডাঙ্গা গ্রামে। আবরারের বাড়ির পাশে ও কবরের আশেপাশের এলাকায় অসংখ্য র‌্যাব ও পুলিশ অবস্থান নিয়েছেন।

আবরারের মৃত্যুর পর থেকেই নিজের কর্মকাণ্ডের জন্য সমালোচিত হয়েছেন ভিসি সাইফুল। আবরার নিহত হওয়ার দিন ক্যাম্পাসে না যাওয়া এবং তার জানাজায় অংশ না নেয়ায় তার বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে। দাবি ওঠে ভিসির অপসারণের।

আবরার হত্যা: আরও ৩ জনকে ৫ দিনের রিমান্ড

ঢাকা অফিস : ডিবি পুলিশ ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।  বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার আরও ৩ জন শামসুল আরেফিন রাফাত (২১), মনিরুজ্জামান মনির (২১) ও আকাশ হোসেনকে (২১) পাঁচ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত।

আজ বুধবার (৯ অক্টোবর) আদালতে হাজির করে তাদের ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানায় ডিবি পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ৭ই অক্টোবর আবরার হত্যার ঘটনায় ১০ জনকে গ্রেপ্তার করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ-ডিএমপি। গ্রেপ্তার হওয়া ১০ জন হল- মেহেদী হাসান রাসেল, মুহতাসিম ফুয়াদ, মেহেদী হাসান রবিন, অনিক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মো. মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মুনতাসির আল্ম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মুজাহিদুর রহমান মুজাহিদ, ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না।

এদিকে, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়-বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় আটক ছাত্রলীগের ১০ জনকে ৫ দিন করে রিমান্ড দিয়েছেন আদালত।

ঢাকা মহানগর মূখ্য মহানগর হাকিম আদালতের ২১ নম্বর আদালতে শুনানি শেষে এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন মূখ্য মহানগর হাকিম সাদবির আহসান চৌধুরী। এর আগে, দুপুর ১টার দিকে ডিবি কার্যালয় থেকে আবরার হত্যার অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া ছাত্রলীগের ১০ জনকে ঢাকার মূখ্য মহানগর হাকিম আদালতে নেয়া হয়।

নোবেলজয়ী ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

ঢাকা অফিস : নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। বুধবার বিকেলে, ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান রহিবুল ইসলাম এই পরোয়ানা জারি করেন।

গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সে ইউনিয়ন গঠন করায় চাকরিচ্যুতের অভিযোগে দায়ের করা তিন মামলায় ড. ইউনূসের সমনের জবাব দেয়ার জন্য দিন ঠিক ছিলো বুধবার। কিন্তু তিনি আদালতে উপস্থিত হননি। মামলার বাদী বলেন, চাকরিচ্যুতের করায় তারা ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

 এদিকে, ড. ইউনূসের আইনজীবী রাজু আহম্মেদ আদালতকে বলেন, ব্যবসার কাজে তার মক্কেল বিদেশে অবস্থান করছেন।  এর আগে  তেসরা জুলাই ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে ড. ইউনূসসহ তিন জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন তার প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের সদ্য চাকরিচ্যুত সাবেক তিন কর্মচারী।  অপর দুই জন হলেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা ও উপ-মহাব্যবস্থাপক খন্দকার আবু আবেদীন।

তালায় ভাইয়ের সম্পত্তি দখল নিল অপর ভাই ও ভ্রাতুষ্পুত্ররা

তালা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা তালায় আপন ভাই ও ভ্রাতুষ্পুত্রদের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক বসতবাড়ির ২ শতাংশ জমির জবর দখলের অভিযোগ করেছেন অপর ভাই শফিকুল ইসলাম সানা। এঘটনায় স্থানীয় পাটকেলঘাটা থানায় এশটি লিখিত অভিযোগ হয়েছে।

লিখিত অভিযোগে জানাগেছে যে, তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা থানার দাদপুর গ্রামের মৃত রহিম বক্স সানার ছেলে সিরাজুল ইসলাম সানা তার ৩ ছেলে আশরাফুল আলম(২৫), শরিফুল ইসলাম(৩২) ও সাইফুল ইসলাম (২২) সহ অজ্ঞাতনামা আরো আরো ৫/৬ জনকে সাথে নিয়ে গত ৪ অক্টোবর সকাল আনুমানিক ৯ টার দিকে লোহার রড,কুড়াল,হাতুড়ী,হাতুড়ী,বাঁশের লাঠিসহ দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে আকষ্মিক রহিম বক্স’র অপর ছেলে শফিকুল সানার বাড়িতে হামলা চালিয়ে পাকা টয়লেট ও গোয়াল ঘর ভাংচুর,বিচালীর গাদায় আগুন লাগিয়ে দেয়। এসময় হামলাকারীরা পাকা প্রাচীর ভাংচুর ও বাড়ির মধ্যের ৫/৬ টি মেহগনি গাছ কর্তনফ’র্বক প্রায় দেড় লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিসাধন করে। এর আগে তারা পরিকল্পিতভাবে এশটি দুধ ওয়ালা গাভী মেরে ফেলে। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় দেড় লক্ষ টাকা। এসময় বাঁধা দিতে গেলে হামলাকারীরা শফিকুলের স্ত্রী ফেরদৌসি বেগম (৫০),কন্যা মোছা: জেসমিন খাতুন (২৫) ও ছেলে মেহেদী হাসান (২০) কে বেধড়ক মারপিট করে। সামগ্রিক ঘটনায় রীতিমত আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এসময় প্রতিবেশীদের অনেকেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকলেও ভয়ে তাদের রক্ষায় কেউ এগিয়ে আসেনি। এঘটনায় ঐদিনই পাটকেলঘাটা থানায় অভিযোগ করলে থানা পুলিশ শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের দখল কার্যক্রম বন্ধ করে উভয় পক্ষকে কাগজ-পত্রাদিসহ থানায় হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়ে আসেন। তাৎক্ষণিক দখল কার্যক্রম বন্ধ রাখলেও মঙ্গলবার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিজয়া দশমী থাকায় সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তা ছুটিতে থাকার সুযোগে দখলদাররা ফের প্রায় ২ শতাংশ জমির দখল নিয়ে নিয়েছে। এদিকে সর্বশেষ ঘটনায় শফিকুল ইসলাম সানা ফের পাটকেলঘাটা থানায় একটি অভিযোগ করেছেন।

এব্যাপারে পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ওয়াহিদ মোর্শেদের নিকট জানতে চাইলে তিনি এপ্রতিনিধিকে বলেন,ঘটনায় একটি অভিযোগ হয়েছে। বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এব্যাপারে ভূক্তভোগী শফিকুল ইসলাম সানা বলেন,তার প্রতিবেশী দাদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক সামছুর রহমান দীর্ঘ দিন যাবৎ তার বসত-বাড়ি ক্রয়ের জন্য পায়তারা চালিয়ে আসছে। তবে তিনি বিক্রি করতে রাজী না হওয়ায় ২০১৭ সাল থেকে অদ্যবধি তার বিরুদ্ধে একের পর এক পরিকল্পিত হামলাসহ নানা হয়রানী করে আসছে। সাম্প্রতিক বসত-বাড়ির জায়গা দখলের ঘটনাটিও তার মদদেই হয়েছে।
এব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষক তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেন।

অভিযুক্ত সিরাজুল ইসলাম সানার নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন,তিনি শফিকুলের বাড়ির মধ্যে জায়গা পাবেন,দীর্ঘ দিন যাবৎ তাকে জায়গা টুকু বের করে দেওয়ার জন্য বললেও তিনি তাতে কর্ণপাত না করায় তাদের প্রাপ্ত সম্পত্তি তারা দখলে নিয়েছেন।
সর্বশেষ ঘটনায় শফিকুল ইসলাম চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন বলেও সাংবাদিকদের নিকট অভিযোগ করেছেন। এব্যাপারে জরুরী ভিত্তিতে পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য তারা স্থানীয় প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

দাকোপে জীবন্ত ‘মা’ এর পূজা অনুষ্ঠিত

দাকোপ প্রতিনিধি : সদ্য সমপ্ত হওয়া শারদীয়া দুর্গাপূজায় দাকোপের লাউডোব বানীশান্তা সার্বজনীন দূর্গাপূজা মন্দিরের উদ্যোগে এ বছর দূর্গা প্রতিমার পাশাপাশি জীবন্ত প্রতিমা (নিজ মা) এর ব্যতিক্রম পূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুর্গা মন্দির সুত্রে জানাগেছে,গত সোমবার রাতে লাউডোব বানীশান্তা সার্বজনীন দূর্গাপূজা মন্দিরে মহানবমীর দূর্গাপুজায় স্থানীয় স্কল,কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীরা দূর্গা প্রতিমার পাশাপাশি নিজ “মা”এর চরণ ধুয়ে,মা’কে প্রনাম করে মায়ের মুখে মিষ্টি তুলে দিয়ে পূজা করায় এবং জীবন্ত মাও তাদের ছেলে মেয়েদের মুখে মুষ্টি তুলে তাদেরকে আশির্বাদ করায় এ মন্দিরে দূর্গা প্রতিমার পাশাপাশি জীবন্ত প্রতিমা (নিজ মা) এর ব্যতিক্রম পূজা অনুষ্ঠিত হওয়ায় এলাকায় বিশেষ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।স্থানীয়রা বলেন,প্রতি বছর এ ভাবে দূর্গা প্রতিমা মায়ের পাশাপাশি যদি জীবন্ত মা (নিজ মা)এর পূজা অনুষ্ঠিত হয় তা হলে মানুষের মাধ্যে মাতা পিতা প্রতি ভক্ত শ্রদ্ধা বৃদ্ধি পাবে। এ সময় এলাকার গন্যমান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিমলেন্দু বিশ্বাস, সুকল্যান রায়, সুরঞ্জন মন্ডল, মধুসুধন রায়, নির্মলেন্দু কয়াল, সূভাষ চন্দ্র মন্ডল, পরিমল বিশ্বাস,কাজল মন্ডল,লাবণী রায় প্রমুখ।

আবরার ছিল মেধাবী ও মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান

ঢাকা অফিস : বুয়েট চাইলে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে পারে। আমরা এতে হস্তক্ষেপ করবো না।  বুয়েটে নিহত শিক্ষার্থী আবরারকে প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আবরার খুবই ব্রিয়িলান্ট একজন ছাত্র ছিল, মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান ছিল। একটা বাচ্চা ছেলে, ২১ বছর বয়স। তাকে কী অমানবিকভাবে হত্যা করেছে। পিটিয়ে পিটিয়ে মেরেছে। আবরার হত্যাকে ‘অমানবিক’ বলে অভিহিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাত্র ২১ বছরের একটা ছেলেকে যারা মেরেছে তারা যতই মেধাবী হোক যে দলেরই হোক তাদের সবার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।দলীয় পরিচয়ের হলেও কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

বুধবার বিকেলে, গণভবনে জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনের অভিজ্ঞতা ও ভারত সফর নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

বক্তব্যের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ অধিবেশনের সফর নিয়ে ও ভারতের সফর নিয়ে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন। এরপর সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার হত্যাকাণ্ডে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। আমি ঘটনাটি শুনার সঙ্গে সঙ্গে ছাত্রলীগকে বলেছি তাদেরকে বহিষ্কার করতে।পুলিশকে বলেছি এরেস্ট করতে।

শেখ হাসিনা বলেন, বুয়েটের খবর জানার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে আলামত সংগ্রহের নির্দেশ দেই। যখন পুলিশ আলামত সংগ্রহ করে নিয়ে আসবে তাদের আটকে দেয়া হলো। তিন ঘণ্টা আটকে রাখা হলো, কেন? সেটা জানা দরকার। অন্য কোনো উদ্দেশ্য ছিল কিনা। পরে আইজিপি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করে।

তিনি বলেন, আমি তো সঙ্গে সঙ্গে আইজিপিকে নির্দেশ দিয়েছি কোন রুমে কারা ছিল সবগুলোকে ধরে অ্যারেস্ট করো। যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটাবে আমি মেনে নেবো না। ছাত্রলীগকে সঙ্গে সঙ্গে ডেকেছি, নির্দেশ দিয়েছি ব্যবস্থা নেয়ার।

ছাত্র রাজনীতি বন্ধ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটা ঘটনার জন্য ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করা যৌক্তিক নয়। রাজনীতি একটি প্রশিক্ষনের বিষয়, যেটা ছাত্র রাজনীতি থেকেই তৈরি হয়। বুয়েট চাইলে তাদের ক্যাম্পাসে রাজনীতি বন্ধ করতে পারে, এতে আমাদের কোন সমস্যা নেই।

এ সময় দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও হলে তল্লাশির নির্দেশও দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী দেশকে সবুজ বেষ্টনির আওতায় আনতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে : উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার

দাকোপ প্রতিনিধি : বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে সবুজ বেষ্টনির আওতায় আনতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের উপকুলীয় অঞ্চলকে দূর্যোগের কবল থেকে রক্ষায় সবুজ ্বনায়নের মাধ্যমে সবুজ বেষ্টনি গড়ে তোলার বিকল্প নেই।

বুধবার দাকোপে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচীর উদ্বোধনকালে পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রনালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার (এমপি) আরো বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করতে বৃক্ষ রোপন প্রত্যেকের জন্য অপরিহার্য্য। তিনি বলেন সমাজের অসহায় দারিদ্র মানুষের মাথা গোজার ঠাঁই করে দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বদ্ধপরিকর। শেখ হাসিনার সরকার অসহায় গরীব দুঃখি মানুষের সরকার। এ সরকার ক্ষমতায় থাকলে কাউকে না খেয়ে মরতে হবে না। তিনি বুধবার বেলা ১১ টায় দাকোপ উপজেলার দাকোপ ইউনিয়নে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গ্রীণ বেল্ট প্রকল্পের আওয়াতায় বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়নে বাস্তবায়িত বেড়িবাঁধের উপর সাড়ে ৪ লাখ বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষ রোপনের উদ্বোধনসহ পৃথক ৩ টি অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপরোক্ত কথা বলেন। এরপর তিনি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রকল্পের আওতায় (জমি আছে ঘর নেই) ঘূর্ণিঝড় ফণীর রাতে দাকোপে সাইক্লোন শেল্টারে জন্ম নেওয়া শিশু ফণী আকতারের পরিবারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে দেওয়া উপহার হিসেবে ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন। উপমন্ত্রী বেলা সাড়ে ১২ টায় পানখালী মমতাজ বেগম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নবনির্মিত হাইজিং কর্ণারের উদ্বোধন করেন। দাকোপ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের সভাপতিত্বে এ সকল অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য এড. গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান মুনসুর আলী খান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আবুল হোসেন, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বশির আল মামুন, পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আশরাফুল আলম, বিশ্ব ব্যাংকের প্রকৌশলী এস এম সাইফুল ইসলাম, সিইআইপির প্রকৌশলী ফেরদৌস রহমান, চালনা পৌর মেয়র সনত কুমার বিশ্বাস, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি তারিক হাসান, থানা অফিসার ইনচার্জ শফিকুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান গৌরপদ বাছাড়, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজা আকতার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শেখ আব্দুল কাদের, ইউপি চেয়ারম্যান রঘুনাথ রায়, শেখ আব্দুল কাদের, সরোজিত রায়, পঞ্চানন মন্ডল, দাকোপ প্রেসক্লাব সভাপতি শচীন্দ্রনাথ মন্ডল, উপজেলা সামাজিক বনায়ন কর্মকর্তা শোয়েবুর রহমান খানসহ সরকারী বেসরকারী কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিবৃন্দ।

খুলনায় অতিরিক্ত মদ্য পানে ৫ জনের মৃত্যু

খুলনা : খুলনায় প্রতিমা বির্সজনের পর অতিরিক্ত মদ্যপানে পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে।খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ দুপুরে তাদের মৃত্যু হয়। মৃতরা হচ্ছেন সোনাডাঙ্গা থানার গল্লামারী পুজাকমিটির সাধারন সম্পাদক প্রসেনজিৎ দাস , তার ভাই তাপস দাস। খুলনা সদর থানার গ্লাক্সো মোড়ের সুজনশীল ও খুলনা জেনারেল হাসপাতাল এলাকার রাহুল বিশ্বাস রাজু।অপর জন হলেন খুলনার রূপসা উপজেলার অজ্ঞাত নামা ব্যক্তি। পুলিশ জানায় মঙ্গলবার রাতে অতিরিক্ত মদপানে খুলনা নগরীতে চার জন অসুস্থ্য হয়ে পরলে তাদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়েছে।