বটিয়াঘাটার শৈলমারী নদীতে নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত

ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, বটিয়াঘাটা : বটিয়াঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহমেদ জিয়াউর রহমান বলেছেন, আহবমান কাল ধরে চলে আসা গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী লোকজ সংস্কৃতিকে লালন করতে না পারলে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে দায়বদ্ধ থাকতে হবে। কারণ দিনে দিনে গ্রামবাংলা থেকে প্রাচীন লোক সংস্কৃতি ও খেলাধূলা বিলুপ্ত হতে চলেছে। আমরা সকলে মিলে যদি হারিয়ে যাওয়া সংস্কৃতি ধরে রাখতে পারি তাহলেই আগামী প্রজন্ম বাঙ্গালীর ঐতিহ্যকে চিরাচারিত টেনে নিয়ে যেতে পারবে। তিনি বুধবার বিকাল ৩ টায় শ্রী শ্রী শ্যামা পূজা উপলক্ষ্যে উপজেলার হাটবাটি সৎসঙ্গ মঠ মন্দির কমিটির আয়োজনে শৈলমারী নদীতে অনুুষ্ঠিত এক বিশাল নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। বাইচ কমিটির সভাপতি হিমাদ্রী বিশ্বাস হিমুর সভাপতিত্বে ও উপজেলা আ’লীগনেতা বিবেক বিশ্বাস এবং সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ রায়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বিতরণী সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন থানার ওসি মোঃ রবিউল কবীর, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রতাপ ঘোষ শিল্পপতি ও সমাজসেবক শ্রীমন্ত অধিকারী রাহুল ও আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ বাপি রায়। বক্তৃতা করেন উপজেলা আ’লীগ নেতা রবীন্দ্র নাথ ঢালী, মৃন্ময় পাল, অধ্যাঃ মনোরঞ্জন মন্ডল, চয়ন বিশ্বাস, উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অনুপম বিশ্বাস, প্রধান শিক্ষক শুভংকর মন্ডল, সহকারী শিক্ষক লিটন রায়, আ’লীগ নেতা পলাশ সরকার, সনেট মল্লিক, সাবেক ছাত্রনেতা মিঠুন রায়, অলোক মল্লিক, অনিমেষ মল্লিক, মিলন মল্লিক, কমলেশ সরকার, সাংবাদিক শাহীন বিশ্বাস, বীরমুক্তিযোদ্ধা, আবুল হাশেম মলঙ্গী প্রমূখ। প্রতিযোগীতায় ৪টি নৌকার মধ্যে ১ম স্থান অধিকার করে একটি ফ্রিজ জিতে নেন সাতক্ষীরা তালার আবুল হোসেনের নৌকা, ২য় স্থান অধিকার করে রঙিন টেলিভিশন অর্জন করেন উপজেলার হাটবাটি পবিত্র বাবুর নৌকা, ৩য় স্থান অধিকার করে রঙিন টেলিভিশন জিতে নেন মশিয়ার ডাঙ্গার সুরঞ্জনের নৌকা এবং ৪র্থ স্থান অর্জন করে সাতক্ষীরার ষষ্ঠগ্রামের মনিন্দ্রনাথের নৌকা। অতিথিবৃন্দ সকল বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন। বাইচে নদীর দু’কূল দিয়ে প্রায় লক্ষাধিক লোকের সমাগম ঘটে। পরবর্তীতে রাতে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

ডোপ টেস্টে মাদক সেবন সনাক্ত : আটক ৩

স্টাফ রিপোর্টার : খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে মাদক বিরোধী বিশেষ টাস্কফোর্স অভিযানকালে মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারীসহ ৩ জনকে আটক করেছেন। আটককৃতরা হচ্ছে ইয়াবা বিক্রেতা জোসনা বেগম (৫৫), এবং ইয়াবা সেবনকারী রেখা বেগম (৩২) ও শেখ আব্দুর রশিদ (৪৬) কে আটক করেছেন। এর মধ্যে গাজা  বিক্রেতা জোসনা বেগমকে ১ দিনের কারাদ- এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং ডোপ টেস্টের মাধ্যমে ইয়াবা সেবন প্রমানিত হওয়ায় রেখাকে ২০ দিনের কারাদ- এবং দেড় হাজার টাকা জরিামানা এবং আঃ রশিদকে ২ দিনের কারাদ- ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করা হয়।
গতকাল মঙ্গলবার দিনব্যাপী খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরসহ বিভাগের ৪ জেলার মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের নিয়ে একটি যৌথ টিম নগরীর খালিশপুর থানাধীন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়। জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ইমরান খান ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন।
খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সূত্র মতে, সংস্থার অতিরিক্ত পরিচালক মোঃ আবুল হোসেনের নেতৃত্বে এবং উপ-পরিচালক মোঃ রাশেদুজ্জামানের তত্ত্বাবধানে খুলনাসহ ৪ জেলার মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের নিয়ে যৌথ একটি মাদক বিরোধী টাস্কফোর্স অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে নগরীর খালিশপুর উত্তরকাশিপুর এলাকার বাসিন্দা মৃত ইউসুফ সরদারের স্ত্রী জোসনা বেগমকে ৫ গ্রাম গাজাসহ আটক করেন। অপরদিকে একই এলাকায় মৃত আব্দুর রাজ্জাকের কন্যা রেখা বেগম ও মৃত ইউসুফ সরদারের কন্যা রেখা বেগম এবং মৃত সাহামুতুল্যার পুত্র শেখ আব্দুর রশীদকে ইয়াবা সেবনের অপরাধে তাদেরকে আটক করা হয়। পরবর্তীতে তাদেরকে একটি প্রাইভেট ডায়াগণস্টিক সেন্টারের ডোপ টেস্টের মাধ্যমে ইয়াবা সেবনের প্রমানিত হয়। এ সময় আটকৃতদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ও অর্থদ- করা হয়।
খুলনা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ রাশেদুজ্জামান বলেন, খুলনা বিভাগের ৪ জেলার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সমন্বয়ে একটি যৌথ টিম মঙ্গলবার দিনব্যাপী নগরীর বিভিন্ন স্থানে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়। ইয়াবা সেবন অবস্থায় দুইজনকে আটক করে তাদেরকে ডোপ টেস্ট করানো হয়।
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের গোয়েন্দা বিভাগের পরিদর্শক পারভীন আক্তার বলেন, সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নগরীর খালিশপুরথানাধীন বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে সংস্থার অতিরিক্ত পরিচালক মোঃ আবুল হোসেনসহ উদ্ধর্তন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। আটককৃতদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ও অর্থদ- প্রদান করা হয়েছে। জেল ও জরিমানা উভয়দ- দন্ডিত করা হয়।

খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘন্টায় ৪০ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত

স্টাফ রিপোর্টার : সরকারি হিসাব অনুযায়ী গত সোমবার সকাল ১১টা থেকে  মঙ্গলবার সকাল ১১টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৪০ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত ডেঙ্গু মোট আক্রান্ত সংখ্যা দাড়ালো ১০ হাজার ৪৯২ জন। বর্তমানে ১৫৪ জন ভর্তি রয়েছে। খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও খুলনা সিভিল সার্জন দপ্তর থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়।
সূত্র মতে, গত ২৪ ঘন্টায় খুলনা বিভাগের ৪০ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে খুলনায় ১ জন,  সাতক্ষীরায় ৩ জন, যশোরে ১৮ জন, ঝিনাইদহে ৩ জন, মাগুরায় ৪ জন, নড়াইলে ১ জন, কুষ্টিয়ায় ৫ জন, চুয়াডাঙ্গায় ১জন এবং খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৪ জন ভর্তি রয়েছে।