কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বিদায়ী সংবর্ধনা

রাজীব চৌধুরী, কেশবপুরঃ যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোঃ মিজানুর রহমানকে ৩০ শে নভেম্বর ২০১৯ শনিবার, বিদায়ী সংবধনা জানান কেশবপুরের আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ । এসময়ে উপস্থিত ছিলেন কেশবপুর উপজেলার আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক মফিজুর রহমান , সহ-দপ্তর সম্পাদক মনোজ তরফদার, ০৬ নং সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক কবির হোসেন, কেশবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক খন্দকার আব্দুল আজিজ, কেশবপুর পৌরসভার ০৮ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মফিজুর রহমান, ১০ নং সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ নেতা আবু বক্কর সিদ্দিক সহ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ । কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোঃ মিজানুর রহমান কেশবপুরে যোগদান করার পর থেকে বাল্যবিবাহ, মাদক সহ নানাবিধ অপরাধমূলক কর্মকান্ড দমনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছিলেন । এছাড়া স্কুল, কলেজ সহ সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার মান উন্নয়নে তিনি কাজ করে আসছিলেন । কিন্তু তিনি বদলি হয়ে অন্যত্রে চলে যাচ্ছেন । একারনে তাঁকে বিদায়ী সংবর্ধনা দেন কেশবপুর উপজেলার আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ ।

তালায় স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতন ও মারপিটের অভিযোগে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

তালা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা তালার এক পাষন্ড স্বামী কর্তৃক নির্মম নির্যাতনের শিকার মোছাঃ রাজিয়া পারভীন (২৭) নামের দুই কন্যা সন্তানের জননী বিচারের দাবী জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার সকালে তালা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন তালা উপজেলার খেরশা ইউনিয়নের দক্ষিণ শাহাজাতপুর গ্রামের কাজী কামরুল ইসলামের মেয়ে রাজিয়া পারভীন।

তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, সামাজিক ভাবে একই গ্রামের মৃত আব্দুল মালেক মোড়লের বড় ছেলে আব্দুল হাকিমের সাথে ২০০৯ সালে বিবাহ হয়। এরই মধ্যে পর্যায়ক্রমে তাদের দাম্পত্য জীবনে দুইটি কন্যা সস্তানের জন্ম হয়। তার স্বামী বর্তমানে একটিবে-সরকারী চ্যানেলে চাকুরী করেন। সেই সুবাদে প্রথম থেকেই ঢাকায় বাসা বাড়া নিয়ে বসবাস করেন।

বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন তার উপর নির্যাতন চালাত। বিভিন্ন সময় স্বামী হাকিম রাজিয়ার পারভীন উপর ধারাবাহিক অমানবিক শারীরিক নির্যাতন চালাতে থাকে। এছাড়া তার স্বামীর চাকুরী চলে যাওয়ায় তার পিতার মাতার দেওয়া তিন ভরি স্বার্ণাংকার বিক্রয় করে নেয়।

তিনি আরও জানান, গত এক বছর পূর্বে তার স্বামীর চাহিদা অনুযায়ী যৌতুক না দেওয়ায় ঢাকা থেকে তার বাপের বাড়ীতে পাঠিয়ে দেয়। সেই থেকে দু’কন্যা সন্তান নিয়ে বাপের বাড়ীতে থাকে।

সর্বশেষ তার স্বামী আব্দুল হাকিম ঢাকা থেকে বাড়ীতে আসার খবর পেয়ে শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) সকালে আমার মা নাছিরন নাহার (৫৫) ও ছোট মেয়ে আরিষাকে নিয়ে গেলে দফায় দফায় মারপিট করে ।

নির্মম নির্যাতনের শিকার রাজিয়া পারভীন জানান, ঐ শুক্রবার সকাল বেলায় তার স্বামীর বাড়ীতে গেলে তার ছোট মেয়েকে কেড়ে নিয়ে তার স্বামী হাকিম গংরা আমাকে মেরে ফেলার জন্য গলাটিপে ধরে এবং বাঁশের লাঠি লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে সমস্ত শরীরে ফোলা ও জখম করে পুকুরে ফেলে দেয়।

এসময় তাদের আতœ চিৎকারে এলাকাবাসী তাদেরকে উদ্ধার করে তালা হাসপাতালে ভর্তি করে । রাজিয়া পারভীন ন্যায় বিচার পেতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

কেশবপুরে কুকুরের তাড়া খেয়ে আহত শিশুর মৃত্যু

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি : কেশবপুরে কুকুরের তাড়া খেয়ে দৌড়ে পালানোর সময় পড়ে গিয়ে আলিফ (৬) নামে একটি শিশু আহত হয়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। সে শিশু কল্যাণ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক প্রাথমিক শ্রেণীর শিক্ষার্থী।
জানাগেছে, কেশবপুর শহরের আলতাপোল মাছবাজার এলাকার সাগর খান ও আসমা বেগমের ছেলে আলিফ প্রতিদিনের মতো শুক্রবার বিকেলেও খেলা করতে যায়। সন্ধ্যার আগে বাড়ি ফেরার পথে কুকুর তার পিছু নিলে দৌড়ে বাড়ির উঠানে এসে সে পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হয়। পরিবারের লোকেরা উদ্ধার করে কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাক্তার আহসানুল মিজান রুমি জানান, আলিফকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। আর শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।
থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আবু সাঈদ জানান, এ ঘটনায় কেশবপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ না থাকায় আলিফের লাশ তার বাবার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
এদিকে শনিবার সকালে অত্যান্ত শোকাবাহ পরিবেশে মণিরামপুর উপজেলার বাঁকোশপোল গ্রামে নামাজে জানাজা শেষে ঐ গ্রামে তাঁদের পারিবারিক কবরস্থানে শিশু আলিফের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।
উল্লেখ্য কেশবপুর পৌর শহর-সহ উপজেলা ব্যাপী বে-অরিস কুকুরের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এসকল বে-অরিস কুকুর ক্ষুধার তাড়নায় প্রতিনিয়ত হাস, মুরগী, ছোট ছাগল খেয়ে ফেলছে। পাগলা কুকুরের কামড়ে প্রতিনিয়ত মানুষ-সহ বিভিন্ন প্রাণী আহত হচ্ছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞার কারণে কুকুর নিধন বন্ধ রায়েছে। অবিলম্বে আদালতের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে কুকুর নিধন কার্যক্রম শুরু করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগি উপজেলা বাসি।

যশোরে ভাইয়ে ধাক্কায় বোনের মৃত্যু

যশোর অফিস : যশোর সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর গ্রামের পোস্ট অফিস পাড়ার ভাইয়ের ধাক্কায় বোনের মৃত্যু হয়েছে।  নিহত মুক্তা (৩০) নড়াইল সদর উপজেলার আলোক দিয়া গ্রামের ইমদাদুল হকের স্ত্রী। স্বামী সৌদি আরব থাকা অবস্থায় পিতার বাড়িতে বসবাস করতেন মুক্তা। শুক্রবার বিকালে ভাই আজাদ তাকে ধাক্কা দিলে রাত সাড়ে ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়।
আজাদ ও মুক্তা এলাকার মৃত আমজাদ হোসেনের ছেলে মেয়ে। আজাদ এলাকা থেকে পালিয়েছে।
নিহতের স্বজনরা জানান, মুক্তা পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত জমির ধানের টাকা দাবি করলে আজাদ তাকে ধাক্কা দেয়। এসময় মুক্তা পড়ে গিয়ে গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা তাকে রূপদিয়া বাজারে এক পল্লী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যায়।
সেখান থেকে বাড়ি নিয়ে গেলে রাত সাড়ে ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়।
যশোর কোতয়ালি মডেল থানার পুলিশ সংবাদ পেয়ে লাশ উদ্ধার করে রাত ১১টার দিকে মর্গে প্রেরণ করে।
যশোর কোতোয়ালী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইফুল মালেক জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেনারেল হাসপাতালের মগে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে তার কি কারণে মৃত্যু হয়েছে তা জানা যাবে। তবে ঘটনাটি জিডি মূলে রাখা হয়েছে।

যশোরে আনসার সদস্যকে গুলি করে হত্যা

যশোর অফিস : যশোরে এক আনসার সদস্যকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টার দিকে যশোর সদর উপজেলার হাশিমপুর বাজারে একটি চায়ের দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ দাবি, পূর্বশত্রুতার জের এই ঘটতে পারে। নিহত হোসেন আলী তরফদার (৫৫) বাড়ি একই এলাকার তরফদারপাড়ায়।
স্থানীয়রা জানায়, হোসেন আলী চায়ের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে কারও সঙ্গে কথা বলছিলেন। এসময় কয়েকজন তাকে গুলি করে পালিয়ে যায়। এ সময় গুলি তার মাথায়, আরেকটি তার বুকের বামপাশে বিদ্ধ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। খবর পেয়ে যশোরের পুলিশ সুপার মঈনুল হকের নেতৃত্বে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছান।
নিহতের মেয়ে জুলি জানান, আনসার বাহিনীর সদস্য বাবা (হোসেন আলী তরফদার) ঢাকার মীরপুরে কর্মরত ছিলেন। তিনদিন আগে ছুটিতে তিনি বাড়ি এসেছেন। আজ শনিবার সকালে যশোর সদরের ভেকুটিয়া এলাকায় এক আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর তারা শুনতে পান হাশিমপুর বাজারে তিনি গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।
স্থানীয়রা জানায়, হোসেন আলী একসময় নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী দলের সদস্য ছিলেন। ১৯৯৯ সালে সরকারের সাধারণ ক্ষমার আওতায় অস্ত্র জমা দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসেন। এরপর সরকার তাকে আনসার বাহিনীতে চাকরি দেয়।

সাতক্ষীরা পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে দুই সন্ত্রাসী নিহত

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা শহরের বাইপাস সড়ক এলাকায় পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে দুই সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। শনিবার ভোর রাতে শহরের বাইপাস সড়ক সংলগ্ন কামাননগর এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।
এসময় সেখান দুটি বিদেশী পিস্তল, ৪ রাউন্ড গুলি, দুটি অত্যাধুনিক চাকু ও একটি নাম্বার প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়।  নিহতরা হলেন, সাতক্ষীরা শহরের মুনজিতপুরের ময়নুল ইসলামের ছেলে মামুনুল ইসলাম দ্বীপ (২৫) ও কালিগঞ্জ উপজেলার সাইহাটি গ্রামের আবদুস সবুর সরদারের ছেলে সাইফুল ইসলাম(৩৮)। তারা দুই জনই ছাত্রলীগের কর্মী বলে জানা গেছে।
সাতক্ষীরা গেয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহিদুল হক জানান, সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে গত ৩১ অক্টোবর বিকাশ কোম্পানীর তিন প্রতিনিধিদের কাছ থেকে ২৬ লাখ টাকা ছিনতাই হয়। এ ঘটনায় বিকাশের শ্যামনগর উপজেলা পরিবেশক আবু বক্কর সিদ্দীক বাদী হয়ে ওই দিনই কালিগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় শুক্রবার কালিগঞ্জ থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের যৌথ অভিযানে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এরপর উক্ত দুই শীর্ষ ছিনতাইকারী সন্ত্রাসীদের নিয়ে অস্ত্র উদ্ধারে শহরের বাইপাস সড়ক সংলগ্ন কামাননগর এলাকায় গেলে তাদের সহযোগী অন্য সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। এ সময় পুলিশও আতœরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়ে। এক পর্যায়ে তাদের সহযোগীরা পিছু হটলে পুলিশ সেখান থেকে অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী দ্বীপ ও সাইফুলের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে। এসময় সেখান থেকে দুটি বিদেশী পিস্তল, ১ রাউন্ড গুলি, দুটি অত্যাধুনিক চাকু ও একটি নাম্বার প্লেট বিহীন মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়। তিনি আরো জানান, নিহত দুই সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে হত্যা, চাঁদাবাজিসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

খুলনা বিভাগে এইচআইভি সংখ্যা বেড়েই চলেছে

খুমেক হাসপাতালে গত এক বছরে ৫৬ জন সনাক্ত : এরটি গ্রহন করছে ২৫০, যার মধ্যে খুলনায় ৮৬ জন

কামরুল হোসেন মনি : দিনকে দিন খুলনা জেলায় এইচআইভি/এইডস পজেটিভ সংখ্যা বেড়েই চলেছে। ২০১৮ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৯ সালের অক্টোবর পর্যন্ত খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে এন্ট্রিভাইরাল থেরাপি (এআরটি) সেন্টার থেকে{(Antiretroviral Therapy (ART) Center} ৬৪৮ জনকে এইচআইভি পরীক্ষা করা হয়। তার মধ্যে ৫১ জন এইচআইভি সংক্রমিত ব্যক্তি পাওয়া যায়। এর আগের বছর এইচআইভি সনাক্ত করা হয় শিশুসহ ৩৯ জনকে।
এদিকে আগামীকাল রোববার (১লা ডিসেম্বর) বিশ্ব এইডস দিবস। এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় হলো “এইডস নির্মুলে প্রয়োজন জনগনের অংশ গ্রহন” (COMMUNITES MAKE THE DIFFERENCE)| দিবসটি উপলক্ষে ওই দিন খুমেক হাসপাতাল ও খুলনা জেনারেল হাসপাতাল পৃথকভাবে র‌্যালী ও জনসচেতনতামুলক আলোচনা সভার আয়োজন করেছেন।
খুমেক হাসপাতালের স্টেনদেনিং অফ এইচআইভি সার্ভিসেস প্রকল্পের সূত্র মতে, ২০১৮ সালে খুলনা বিভাগে ৬৭ জন এইচআইভি সংক্রমিত রোগী চিহিৃত করা হয়। খুমেক হাসপাতালের (এআরটি) সেন্টার থেকে ২০১৮ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৯ সালের অক্টোবর পর্যন্ত ৬৪৮ জনকে এইচআইভি পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৫১ জন এইচআইভি সংক্রমিত ব্যক্তি পাওয়া যায়। পাশাপাশি ২০১৭ সালের ১৫ নভেম্বর থেকে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় আওতাধীন এইডস/এসটিডি প্রোগ্রাম এবং ইউনিসেফ এর কারিগরি ও আর্থিক সহযোগিতায় স্টেনদেনিং অফ এইচআইভি সার্ভিসেস প্রকল্পের আওতায় prevention of mother to child Transmission of HIV (PMTC) এ সেবা দেওয়া হচ্ছে। এই প্রকল্পে মূল উদ্দেশ্যে হলো এইচআইভি সংক্রমিত মা থেকে শিশুর এইচআইভি সংক্রামন প্রতিরোধ করা হয়। এ প্রকল্পের সেবার মাধ্যমে ২০১৮ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৯ সালের অক্টোবর পর্যন্ত মোট ৯ হাজার ৫০৫ গর্ভবতী/গর্ভত্তর মাকে এইচআইভি পরীক্ষা করা হয়। তার মধ্যে ৩ জন গর্ভবতী/গর্ভত্তর মা এবং ২ জন পাটনারের (স্বামী) মধ্যে এইচআইভি ভাইরাস পাওয়া যায়। সে হিসেবে খুমেক হাসপাতালে মোট ৫৬ জন এইচআইভি সংক্রমিত ব্যক্তি পাওয়া যায়। যার মধ্যে পুরুষ রয়েছে ২৬ জন, মহিলা ২৪ জন এবং ৬ জন শিশু রয়েছে। এই বছরে খুমেক হাসপাতালের চিকিৎসা আওতায় এইচআইভি/এইডস আক্রান্ত ১২ জন ব্যক্তি মারা গেছেন। এর মধ্যে পুরুষ ছিলো ৪ জন ও মহিলা রয়েছে ৮ জন।
বর্তমানে খুমেক হাসপাতালের এআরটি সেন্টার থেকে ২৫০ জন বিনামুল্যে এআরটি গ্রহন করছেন। এর মধ্যে খুলনা জেলার বাসিন্দা রয়েছে ৮৬ জন। এছাড়া যশোর ৬২ জন, সাতক্ষীরায় ৩৪ জন, নড়াইলে ২৫ জন, বাগেরহাটে ১২ জন, ঝিনাইদহে ১০ জন, মাগুরা ৪ জন, চুয়াডাঙ্গা ৩ জন, গোপালগঞ্জে ৬ জন, ফরিদপুরে ৪ জন, পিরোজপুরের ৩ জন, বড়গুনার ১ জন (হিজড়া) রয়েছে। এছাড়াPCR এবং Viral Load test করা হয় ৫২ জন এইচআইভি/এইডস আক্রান্ত রোগীদের।
ওই প্রকল্পের সূত্র মতে, ১৯৮৯ সালে বাংলাদেশে প্রথম এইচআইভি আক্রান্ত রোগী সনাক্ত হয়। তার পর থেকে এইচআইভি রোগীর সংখ্যা বাড়তেই থাকে। ২০১৮ সালে বাংলাদেশে এইচআইভি আক্রান্ত রোগী পাওয়া যায় মোট ৮৬৯ জন। যার মধ্যে রহিঙ্গা আছে ১৮৮ জন। ১৯৮৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশে মোট এইচআইভি/এইডস এর সংখ্যা ৬ হাজার ৪৫৫ জন। এর মধ্যে মারা যায় ১ হাজার ৭২ জন।
খুমেক হাসপাতালের পরিচালক ও প্রকল্পের পরিচালক ডা: এটিএম মঞ্জুর মোর্শেদ জানান, এইচআইভি/এইডস রোধে জনসচেতনতা সৃষ্টি ছাড়া কোনো উপায় নেই। এই বিষয়ে মানুষের নিজের উদ্যোগে সচেতন হতে হবে। তিনি বলেন, যদি এইচআইভি পরীক্ষার মাধ্যমে কোনো গর্ভবতী মায়ের রক্তে এইচআইভি সনাক্ত হয় তবে তাকে চিকিৎসা সেবার মাধ্যমে গর্ভের শিশুটির এইচআইভি প্রতিরোধ করা সম্ভব।
জানা গেছে, দিবসটি উপলক্ষে খুমেক হাসপাতালের কর্তৃক আলোচনা সভা ও র‌্যালী কর্মসূচির আয়োজন করেছেন। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিভাগীয় পরিচালক স্বাস্থ্য ডাঃ রাশেদা সুলতানা, খুলনা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডাঃ মোঃ আব্দুল আহাদ। এছাড়া হাসপাতালের বিভাগীয় প্রধান ও কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।
সিভিল সার্জন অফিসের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার আবুল কালাম আজাদ বলেন, দিবসটি উপলক্ষে কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। দিবসটি উপলক্ষে জেনারেল হাসপাতালের চত্বর থেকে সকাল ৯টায় একটি র‌্যালি বের হবে। র‌্যালিটি নগরীর শামসুর রহমান রোডস্থ স্কুল হেলথ ক্লিনিকে এসে শেষ হবে। সেখানে দিবসটি উপলক্ষে ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আতিয়ার রহমান শেখ সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

ফুলতলায় ছাত্রলীগের কর্মী সভা অনুষ্ঠিত

ফুলতলা অফিসঃ ফুলতলা উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে দামোদর ২নং ওয়ার্ডের এক কর্মী সভা শুক্রবার বিকালে কারিকরপাড়া মাধ্যমিক স্কুলে অনুষ্ঠিত হয়। দামোদর ইউনিয়ন সভাপতি সিহাব হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক তাসমির হাসানের পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মঈনুল হাসান নয়ন। প্রধান বক্তা ছিলেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস কে সাদ্দাম হোসেন। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম, এস কে আশিক, ইমদাদ আহসান ইমন, আক্তার হোসেন, মুরসালিন, আরিফুল ইসলাম, রোমান হোসেন প্রমুখ।

ফুলতলায় প্রয়াত আ’লীগ নেতা গাজী আব্দুল হাদীর মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

ফুলতলা অফিসঃ খুলনা জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান গাজী আব্দুল হাদীর দ্বিতীয় মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে শুক্রবার সন্ধ্যায় দলীয় কার্যালয়ে এক আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ আকরাম হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন জেলা কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আসলাম খান, উপজেলা সাধারণ সম্পাদক সরদার শাহাবুদ্দিন জিপ্পী, ওয়ার্কার্স পার্টি জেলা সম্পাদক কম. আনছার আলী মোল্যা, কাজী আশরাফ হোসেন আশু, মৃনাল হাজরা, মোশারফ হোসেন মোড়ল, শওকত আকুঞ্জী, কামরুজ্জামান নান্নু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কে এম জিয়া হাসান তুহিন, ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ মোহাম্মদ ভুইয়া শিপলু, প্রফুল্ল চক্রবর্তী, সাহিদা ইসলাম নয়ন, বেগম শামসুন্নাহার, শাপলা সুলতানা লিলি, সরদার আনিছুর রহমান, আঃ মান্নান সরদার, ইসমাইল হোসেন বাবলু, আলী আজম মোহন, সাহিদুল মোল্যা, এস কে আলী ইয়াছিন, এস কে মিজানুর রহমান, রবীন বসু, মঈনুল ইসলাম নয়ন, এস কে সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ।

আবারও নৌ ধর্মঘটের ডাক

ঢাকা অফিস : চট্টগ্রামসহ সারা দেশে আজ মধ্যরাত থেকে আবারও শুরু হচ্ছে নৌযান ধর্মঘট।  বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের আহ্বানে শতভাগ খোরাকি ভাতাসহ ১১ দফা দাবিতে নৌযান শ্রমিকরা এই কর্মবিরতির ডাক দিয়েছেন।

এর আগে, গত মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে ১৫ দফা দাবিতে লাগাতার কর্মবিরতি শুরু করে লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়ন। এতে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে লাইটারেজ জাহাজ চলাচল বিঘ্নিত ও কর্ণফুলী নদীর ১৬টি ঘাটে পণ্য খালাস বন্ধ হয়ে যায়। পরে বুধবার রাতে সরকারের সঙ্গে আলোচনার পর কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নিলে নৌযান চলাচল শুরু হয়।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আজ মধ্যরাত থেকে ডাকা কর্মবিরতির ফলে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরের কার্যক্রমসহ সব লাইটারেজ জাহাজ চলাচল পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যাবে। এতে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। একইসঙ্গে বন্দরের বহির্নোঙরে জাহাজজট পরিস্থিতির অবনতি ঘটারও আশংকা করা হচ্ছে।