কঠিন অধ্যাবসায় ছাড়া জীবনে সাফল্য লাভ করা সম্ভব নয় -ক্রিকেটার মিরাজ

তাপস কুমার বিশ্বাস, ফুলতলা অফিসঃ জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার মেহেদী হাসান মিরাজ বলেছেন, কঠিন অধ্যাবসায় ছাড়া জীবনে সাফল্য লাভ করা সম্ভব নয়। লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা ও শরীর চর্চার মাধ্যমে শারীরিক ও মানষিক বিকাশ ঘটাতে হবে। মেধার বিকাশ ঘটিয়ে পরিবার সমাজ ও দেশের কাজে আত্ম নিয়োগ করতে হবে।
রোববার বিকালে খুলনার ফুলতলায় আইকন একাডেমির আয়োজনে মেহেদী মিরাজ কম্পিউটার অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। মোঃ জামান সরদারের সভাপতিত্বে ও আইকন পরিচালক মোঃ সাইফুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অতিথির মধ্যে বক্তৃতা করেন উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি শামসুল আলম খোকন, শিক্ষক এম এম ওহিদুর রহমান মিলু, সবুজ রতন মন্ডল, প্রীতিশ মন্ডল, রামপ্রসাদ দাস, আশরাফুল ইসলাম, নাসিম আহমেদ নয়ন, গোলাম হোসেন রাজু প্রমুখ। পরে সদ্য সমাপ্ত আইপিএল ক্রিকেটে চৌকস খেলোয়াড় মেহেদী হাসান মিরাজকে সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।

মণিরামপুরে পরকীয়ার জেরে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা

যশোর প্রতিনিধি : যশোরের মণিরামপুরে লিপিকা দাস (২৩) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার রাত ১১টার দিকে থানার এসআই জহির রায়হান উপজেলার মাঝিয়ালী গ্রামে স্বামী বিজয় দাসের বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করে। যৌতুক ও নিজের পরকীয়ার জেরে বিজয় দাস স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ লিপিকার স্বজনদের। পুলিশ বিজয় দাসকে আটক করেছে। বিজয় দাস মাঝিয়ালী গ্রামের ধীরেন দাসের ছেলে। তিনি জুতা সিলাই করে সংসার চালান। আর লিপিকা কেশবপুর উপজেলার খতিয়াখালি গ্রামের পাগল দাসের মেয়ে। ৬-৭ বছর আগে বিজয় দাসের সাথে তার বিয়ে হয়। ওই দম্পতির প্রীতি (৪) ও প্রিতম (২) দুটি সন্তান রয়েছে।
লিপিকার ভাই সাধন দাস জানান, বিয়ের পর থেকে লিপিকাকে ঘরে নিতে চাইত না বিজয়। টাকার জন্য বিভিন্ন সময়ে বিজয় তাকে মারধর করত। কয়েকদিন আগে বিজয় জমি কিনবে বলে দুই লাখ টাকা দাবি করে। সেই টাকা দিতে না পারায় লিপিকাকে পিটিয়ে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রেখেছে সে। সাধন বলেন, শনিবার সন্ধ্যার পরপরই লিপিকাকে হত্যা করে গলায় লুঙি জড়িয়ে তার লাশ ঝুলিয়ে রাখে বিজয়। লিপিকার মরার খবর বিজয় আমাদের জানায়নি। লিপিকা আত্মহত্যা করেছে, এমন খবর প্রচার করে তারা তাকে দাহ্য করার জন্য শ্মশানে নেওয়ার কাজ শুরু করে। পরে বিজয়ের পাশের বাড়ি থেকে মোবাইল পেয়ে আমরা দ্রুত চলে আসি। লিপিকার ভাবি শোভা দাস বলেন, বিজয় আগের স্ত্রী ও চার সন্তান থাকার বিষয়টি গোপন করে লিপিকাকে বিয়ে করে। বিয়ের পর থেকে এক বছরও ভালভাবে সংসার করতে পারেনি লিপিকা। বিজয় ঢাকায় ও চট্টগ্রামে জুতা সিলাইয়ের কাজ করত। লিপিকাও তার সাথে থাকত। চট্টগ্রামে এক নারীর সাথে বিজয়ের পরকীয়া আছে। এই কারণে লিপিকাকে পিটিয়ে ঘর থেকে বের করে দেয় বিজয়। পরে কেশবপুরে আমাদের বাড়িতে আশ্রয় নেয় লিপিকা। এই নিয়ে আমরা কেশবপুর থানায় অভিযোগ করি। গত ২২ ডিসেম্বর থানায় মুসলেকা দিয়ে লিপিকাকে নিয়ে আসে বিজয়। এরপর শনিবার রাতে তাকে পিটিয়ে হত্যা করে।মণিরামপুর থানার উপ-পিিরদর্শক( এসআই) জহির রায়হান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, লিপিকা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। স্বজনদের অভিযোগের ভিত্তিতে বিজয়কে হেফাজতে নিয়েছি।
মণিরামপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান বলেন, এই ঘটনায় লিপিকার স্বজনরা আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে বিজয়ের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিয়েছেন।

যশোরে ইয়াবাসহ যুবক গ্রেফতার

যশোর প্রতিনিধি : র‌্যাব-৬ যশোর ক্যাম্পের সদস্যরা শনিবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার হামিদপুর নুড়িতলার এলাকা থেকে ১শ’ পিস ইয়াবাসহ ওয়াসিম আকরাম নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। সে হামিদপুর গ্রামের শাহজাহান মোল্লার ছেলে।
র‌্যাব-৬ যশোর ক্যাম্প সূত্রে জানাগেছে, শনিবার সন্ধ্যা আনুমানিক ৬ টার পর গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সদর উপজেলার হামিদপুর নুড়িতলা এলাকার আতাউর রহমান এর ইলেকট্রনিক্স দোকানের সামনে থেকে ওয়াসিম আকরাম নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে। পরে তার দখল হতে ১শ’ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। পরে তাকে কোতয়ালি মডেল থানায় সোপর্দ করে মাদক আইনে মামলা দায়ের করেন। রোববার কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশ আকট ওয়াসিম আকরামকে আদালতে সোপর্দ করে।

ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করে দলকে শক্তিশালী করা হবে : শেখ হারুনুর রশীদ

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধিঃ খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক বিরোধী দলীয় হুইপ বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শেখ হারুনুর রশীদ বলেছেন, যে মাঠে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর মতো নেতার পদার্পণ হয়েছিল সে অঞ্চলে কোন মাদকাসক্ত, ভূমিদস্যূ, ঘুষখোর ব্যক্তির স্থান হতে পারে না। জামাত বিএনপি পরিবারের সাথে সংশ্লিষ্ট কোন ব্যক্তিকে দল পরিচালনার দায়িত্বে রাখা হবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও দলের সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশনা মোতাবেক এদেরকে বিতাড়িত করে দলের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করে দলকে শক্তিশালী করা হবে। তিনি শনিবার বিকাল ৩ টায় বটিয়াঘাটার জলমা চক্রাখালী ময়দানে শহীদ শেখ আবু নাসের স্মৃতি সংসদ ও আর্ন্তজাতিক মানবাধিকার দূর্নীতি বিরোধী সোসাইটি খুলনা কর্তৃক আয়োজিত জেলা আওয়ামীলীগের নব-নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে দেওয়া গণ সংবর্ধনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। জেলা সৈনিকলীগের সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা এস এম ফরিদ রানা ও জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আমেরুল মোমেন রানা এর যৌথ সঞ্চলনায় এবং মানবাধিকার দূর্নীতি বিরোধী সোসাইটির খুলনা বিভাগীয় চেয়ারম্যান মোঃ কামাল পারভেজ মিলন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সংবর্ধিত বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ সুজিত কুমার অধিকারী। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগ নেতা এ্যাডঃ কাজী বাদশা মিয়া, সরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ কামরুজ্জামান জামাল, এ্যাডঃ নিমাই চন্দ্র রায়, এ্যাডঃ নবকুমার চক্রবর্তী, এ্যাডঃ ফরিদ আহমেদ ও ড. প্রশান্ত কুমার রায়। উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য শোভা রানী হালদার, জয়ন্তী রানী, হোসনে আরা চম্পা, ইউপি চেয়ারম্যান মনোরঞ্জন মন্ডল, ইউপি চেয়ারম্যান শেখ হাদী উজ জামান, ইউপি চেয়ারম্যান ইসমাইল হোসেন বাবু, খলিলুর রহমান, যুবলীগ নেতা সরদার জাকির হোসেন, রাসেল কবির, জামিল খান, এসএম সোহাগ, রেজাউল ইসলাম, রাফেল হোসেন, বীরমুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন, বীরমুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন, আ’লীগ নেতা মোশারফ হোসেন মুশা, গোলাম মোস্তফা মুন্সি, নারায়ণ সরকার, মুশিবুর রহমান, বিপ্লব মল্লিক, সুবির মল্লিক, আঃ গফুর মোল্লা, প্রদীপ দত্ত, ছাত্রলীগ নেতা দ্বীপ পান্ডে বিশ্ব, চিশতী মাহফুজ, অনুপম মুন্না প্রমূখ। পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

কেশবপুরের সাংসদ ইসমাত আরা সাদেকের পক্ষে কম্বল বিতরণ

রাজীব চৌধুরী,কেশবপুর : কেশবপুরের গণমানুষের নেত্রী সাবেক সফল জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বর্তমান কেশবপুরের সাংসদ জনাব ইসমাত আরা সাদেক মহোদয়ের এর পক্ষে ১৮ই জানুয়ারি রোজ শনিবার কেশবপুর উপজেলার ১০নং সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন এর ২নং,৬নং,৮নংও ৯ নং ওয়ার্ডের হতদরিদ্র, অসহায় শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করেছেন সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের বিশিষ্ট সমাজসেবক, ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ৮নংওয়ার্ডের সাবেক সভাপতি আনোয়ার হোসেন,আওয়ামীলীগ নেতা কালু মোল্ল্যা , নান্টু মোল্ল্যা, কামরুল ইসলাম,ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক মাসুম বিল্লাহ,শামীম রেজা,মিজানুর রহমান, ছাত্রলীগ নেতা শাহীন রেজা লিখন, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতা সাংবাদিক রাজীব চৌধুরী, সহ প্রমুখ।