ঝিনাইদহে প্যানেল মেয়রকে মারধর করে ত্রাণের টাকা ছিনতাই

আলিফ আবেদীন গুঞ্জন, ঝিনাইদহ : ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু পৌরসভার প্যানেল মেয়র খাইরুল ইসলামকে মারধর করে ত্রাণের টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে শুক্রবার মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। দুপুরে হরিণাকুন্ডু পৌরসভার সামনে এ কর্মসূচী পালিত হয়। এতে ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে পৌরসভার মেয়র শাহিনুর রহমান রিন্টুসহ অন্যানারা অংশ নেয়।
এসময় বক্তারা অভিযোগ করেন, করোনার কারণে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের ত্রান দেওয়ার জন্য হরিণাকুন্ডু পৌরসভার পক্ষ থেকে সাড়ে ৫ লাখ টাকা বরাদ্ধ করা হয়। বৃহস্পতিবার রাতে টাকা নিয়ে পৌরসভায় যাচ্ছিল প্যানেল মেয়র খাইরুল ইসলাম। এসময় হরিণাকুন্ডু পৌর এলাকার সাইফুল ইসলাম টিপু মল্লিক ও কামাল মল্লিকসহ আরও কয়েক জন খাইরুলের উপর হামলা চালিয়ে মারধর করে ও তার কাছে থাকা টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে হরিণাকুন্ডু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। মানববন্ধন থেকে টাকা উদ্ধার ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবী জানানো হয়।
এ ব্যাপারে হরিণাকুন্ডু থানার ওসি আসাদুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় পৌর মেয়র শাহিনুর রহমান রিন্টু বাদি হয়ে কয়েকজেনর নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

ঝালকাঠির ছয়জনের নমুনা আইইডিসিআরে প্রেরণ

মো:নজরুল ইসলাম, ঝালকাঠি : ঝালকাঠিতে করোনাভাইরাস সন্দেহে ছয়জনের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। জ্বর, সর্দি ও কাশি থাকায় আজ শুক্রবার সকালে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে স্বাস্থ্য বিভাগ।

এই ছয় ব্যক্তি ছিলেন হোম কোয়ারেন্টিনে। এর পরও জ্বর, সর্দি ও কাশি ভালো না হওয়ায় তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডা. শ্যামল কৃষ্ণ হাওলাদার।

বটিয়াঘাটায় ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা

খুলনা অফিস : খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার খারাবাদ বাইনতলা বাজারে গতকাল বৃহস্পতিবার ১ টি জুয়েলার্স দোকান ও ১টি পোশাকের দোকানে ভ্রাম্যমান আদালত মাধ্যমে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে । ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো: রাশেদুজ্জামান। এছাড়া জয়পুর, ভান্ডারকোট সহ অন্যান্য বাজার এলাকার জনসাধারণ হোম কোয়ারেন্টাইন মেনে চলছে কিনা তার তদারকি, জনগণের চলাচল সীমিতকরণ, বাজার মনিটরিং করা হয় । ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনায় সার্বিক সহোযোগীতা করেন ক্যাপ্টেন সাকিব ও তার দল। অপরদিকে আজ শুক্রবার গল্লামারী এলাকায় যৌক্তিক কারণ ছাড়া অহেতুক বাজারে ঘোরাঘুরি করায় বাংলাদেশ দন্ডবিধির ২৬৯ ধারায় এবং বেশি দামে পণ্য বিক্রয় করায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন,২০০৯ এ ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

ঠাকুরগাঁওয়ে কর্মহীন পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার শুখানপুকুরী ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি জীবন কুমার ঘোষ ও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি সামসুল এবং সা: সম্পাদক হরিশংকর রায় এর উদ্যোগে ১২ নং তেওয়ারীগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শুখানপুকুরী ইউনিয়ন আ’লীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে ওই ইউনিয়নের দেড় শতাধিক দুস্থ, অস্বচ্ছল ও কর্মহীন পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী হিসেবে ৫ কেজি করে চাল, তিন কেজি আলু, ডাল, লবন ও সাবান বিতরণ করা হয়েছে।
এসময় জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি নাজমুল হুদা শাহ্ এ্যাপোলো, শুখানপুকুরী ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আখতার হোসেন, সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মুজাহিদুর রহমান শুভ, সা: সম্পাদক আব্দুল ওয়াফু তপু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ কমান্ড এর আইন বিষয়ক সম্পাদক মো: আজাদ আলীসহ ইউনিয়ন আ’লীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

পাবনায় ১৫ হাজার দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

ফারুক হোসেন, পাবনা : দেশের দরিদ্র অসহায় দিনমুজুর সাধারন মানুষদের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করনের লক্ষ্যে সরকারের পাশাপাশি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন দেশের স্বনামধণ্য শিল্প প্রতিষ্ঠান স্কয়ার গ্রুপ। গত বুধবার থেকে শুরু হয়ে সপ্তাহব্যাপী বিভিন্ন সংগঠনের মাধ্যমে তারা পাবনা সদর এবং আটঘরিয়া উপজেলায় ১৫ হাজার পরিবারের হাতে তুলে দেন নিত্যা প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী।
পাবনা আটঘোড়িয়া উপজেলা পরিষদ ও পৌরসভার মাধ্যমে ১০ হাজার পরিবারের মধ্যে এবং পাবনা পৌর এলাকায় জেলা যুবলীগের মাধ্যমে আরো ৫ হাজার পরিবারের মাঝে এই খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
সামাজিক দূরত্ব বজায়ে রেখে সাড়িবদ্ধ ভাবে প্রতিটি পরিবারের সদস্যদের তালিকার মাধ্যমে পাঁচ দিনের সমসপরিমান খাদ্য সামগ্রী তুলে দেয়া হয় তাদের হাতে।
এই কার্যক্রম সঠিক ভাবে সম্পন্ন করতে সহযোগিতা করেন পাবনার আটঘাড়িয়া পৌরসভার মেয়র শহিদুল ইসলাম রতন, আটঘরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান তানভীর ইসলাম, জেলা যুবলীগের আহবায়ক আলী মুর্তজো বিশ^াস সনি ও যুগ্ন আহবায়ক শিবলী সাদিক, আটঘরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিক, পাবনা প্রেসক্লাবের সাবেক সম্পাদক উৎপল মীর্জা, আটঘরিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি খাইরুল ইসলাম বাসিদ, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান রানা, সাংবাদিক মুস্তাফিজুর রহমান রাসেল, আফ্রিদী মিঠুন প্রমুখ।
স্কয়ার গ্রুপের পরিচালক অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু বলেন, দেশের শ্রমিক শ্রেণীর মানুষকে সহায়তা করতে দেশের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে সহায়তার আহবান জানানো হয়েছে। সেই আহবানে সারা দিয়ে স্কয়ার গ্রুপ পাবনা জেলার কয়েকটি উপজেলার প্রায় ৩০ হাজার পরিবারের মধ্যে খাদ্য সহায়তা প্রদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এই সহযোগিতা প্রকৃত প্রাপ্যদের হাতে পৌছানো হচ্ছে।

পাবনায় শিলাবৃষ্টি ও ঝড়ে ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

ফারুক হোসেন,পাবনা : পাবনার কয়েকটি উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া মৌসুমের প্রথম কাল বৈশাখি ঝড় ও শিলা বৃষ্টির কারণে আমের মুকুল ও উঠতি ফসলের ক্ষতি বেশ ক্ষতি হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে পাবনা সদর, সাঁথিয়া,আটঘরিয়া, সুজানগর ও বেড়া উপজেলার অন্তত ৩০টি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের উপর দিয়ে এই ঝড় বৃষ্টি বয়ে যায়। এতে ফসলের ব্যপক ক্ষয় ক্ষতিহয়।
আটঘরিয়া উপজেলার একদন্ত ইউনিয়নের বাসিন্দা কৃষক আল আমিন জানান, বৃহষ্পতিবার বিকেলে হঠাৎ করে আকাশ অন্ধকার করে পুরো এলাকা এক ধরনের ভূতুরে পরিস্থিতি সৃষ্টিহয়। এর অল্প সময়ের মধ্যে ব্যপক ভাবে ঝড়সহ শিলা বৃষ্টি শুরু হয়। আধা ঘন্টা ধরে চলা ঝড় বৃষ্টির কারণে আমের মুকুল, পিয়াজ, বোরো ধান, লাউ, কুমড়া সহ উঠতি ফসলের ক্ষতি হয়।
পাবনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আজাহার উদ্দিন বলেন, ঝড় ও শিলা বৃষ্টির কারণে প্রায় ৫০০ হেক্টর বোরো ধান, ২০০ হেক্টর পেয়াজসহ বিভিন্ন উঠতি ফসলের ক্ষতি হয়েছে। তবে তাৎক্ষনিক ভাবে ক্ষতির সঠিক পরিসংখ্যান তৈরী করা সম্ভব হয়নি। মাঠ পর্যায়ে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা কাজ করছেন। ক্ষয়ক্ষতির বিস্তাারিত তথ্য পেতে আরো দুই-তিন দিন সময় লাগবে।

পাবনায় ক ৬১ ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

ফারুক হোসেন, পাবনা : করোনা ভাইরাস সতর্কতায় পাবনায় সরকারী আদেশ অমান্য করায় ৫৩ টি মামলা দায়ের এবং ৬১ ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে জরিমানা আদায় করা হয়েছে।
জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্র জানায়, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকার সবাইকে বাড়িতে থাকা এবং বিনা প্রয়োজন বাড়ি থেকে বেড় না হওয়ার অনুরোধ জানান এবং জরুরী সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ছাড়া সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়। শুরুতে এই আদেশ মান্য করলেও গত কয়েক দিন ধরে এই আদেশ অমান্য করে বিনা প্রয়োজনে বাড়ি থেকে বেড় হয়ে রাস্তায় ঘোরাফেরা করতে থাকে সাধারনর মানুষ। এ অবস্থায় বৃহস্পতিবার থেকে প্রশাসন কঠোর ভূমিকা পালন শুরু করে। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত পাবনা সদর, আটঘরিয়া,চাটমোহর,সাঁথিয়া,বেড়া ও সুজানগর উপজেলায় ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে সরকারী আদেশ অমান্য করে রাস্তায় বিনা প্রয়োজনে ঘোরাফেরা করা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখায় ৫৩ টি মামলা দায়ের এবং ৬১ ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠান থেকে ৪৪ হাজার ৬’শ টাকা জরিমানা আদায় করে।
এ ব্যাপারে পাবনা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জয়নাল আবেদিন জানান, করোনা ভাইরাস সচেতনতায় মানুষ যেন বিনা প্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বের না হয় সেই জন্য এ অভিযান চলছে এবং আগামীতে চলবে।

বাংলাদেশে আরও ৫ জন করোনায় আক্রান্ত

ঢাকা অফিস : বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৫ জন। এখন পর্যন্ত দেশে কোভিড-১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা ৬১ জন।

তবে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘন্টায় কারও মৃত্যু হয়নি। ফলে, এখন পর্যন্ত দেশে মৃতের সংখ্যা ৬ জনই থাকলো।

শুক্রবার (৩রা এপ্রিল) দুপুরে, করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে আইইডিসিআরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এসময় তিনি বলেন, দেশে যথেষ্ট পিপিই আছে। ইতিমধ্যেই সব হাসপাতালে পিপিই সরবরাহ করা হয়েছে। এখন ১৪-১৫টি জায়গায় করোনার পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষার পর জানা যাবে কতজন সামাজিকভাবে সংক্রমিত হচ্ছে।

এরপরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ জানান, গত ২৪ ঘন্টায় করোনা সন্দেহে ৫১৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৫ জনের দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। আইইডিসিআরের এর বাইরে ৩ জন শনাক্ত হয়েছেন করোনায়। আক্রান্ত ২২ জন হাসপাতালে ও ৭ জন বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এছাড়া, গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ১৪ জনকে আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে। আর, ১০ জন রোগীকে আইসোলেশন থেকে মুক্ত করা হয়েছে। বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন ৮২ জন। তাছাড়া, প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ২৪৮ জন। বর্তমানে ১৬ হাজার ৪৫০ জন হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়েছেন ২৬ জন।

আবুল কালাম আজাদ আরও জানান, সারা দেশে এপ্রিলের মধ্যে মোট ২৮টি পিসিআর ল্যাব প্রস্তুত করা হবে। এখন পর্যন্ত ঢাকায় ৯টি কেন্দ্র ও বাইরে ৫টি পিসিআর কেন্দ্র করোনা শনাক্তের পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত।

গত ৮ই মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর সংক্রমণ দিন দিন বাড়ছে। প্রথমে ২৬শে মার্চ থেকে ৪ঠা এপ্রিল পর্যন্ত করোনার বিস্তার ঠেকাতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। পরে এই ছুটি ১১ই এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়। অফিস-আদালত থেকে শুরু করে গণপরিবহন সবই বন্ধ রয়েছে। তবে কাঁচাবাজার, খাবার, ওষুধের দোকান, হাসপাতালসহ জরুরি সেবা এই বন্ধের বাইরে রয়েছে। আর, সামাজিক দূরত্ব ও হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে সক্রিয় রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এদিকে, বিশ্বজুড়ে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ৫৩ হাজার ২৪১ জন ব্যক্তি। সারা বিশ্বে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ লক্ষ ১৬ হাজার ৫২১ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ লক্ষ ১৩ হাজার ১৪১ জন।

বর্তমানে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৭ লক্ষ ৫০ হাজার ১৩৯ জন। যাদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় রয়েছেন ৩৭ হাজার ৬৬৪ জন।

করোনাভাইরাস: ঘড়ির কাঁটার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা

আন্তর্জাতিক : প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে মৃত্যুর মিছিল বেড়েই চলছে। মৃতের সংখ্যা অর্ধ লক্ষাধিক এবং আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১০ লক্ষ।

বিশ্বজুড়ে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ৫৩ হাজার ১৬৬ জন ব্যক্তি। গত ২৪ ঘন্টায় কোভিড-১৯ এর সংক্রমণে মারা গেছেন ৫,৯৭৪ জন। সারা বিশ্বে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লক্ষ ১৪ হাজার ৭৪৭ জন। গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭৯ হাজার ৫৫১ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ লক্ষ ১২ হাজার ১৮ জন।

বর্তমানে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৭ লক্ষ ৪৯ হাজার ৫৬৩ জন। যাদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় রয়েছেন ৩৭ হাজার ৬৯৮ জন।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৬০৭০ জনের। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ৯৬৮ জনের। সেখানে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২ লক্ষ ৪৪ হাজার ৬৮১ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ১০ হাজার ৪০৩ জন। গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৯ হাজার ৬৭৮ জন।

এদিকে, ইতালিতে এ পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১৩ হাজার ৯১৫ জনের। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ৭৬০ জনের। সেখানে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ লক্ষ ১৫ হাজার ২৪২ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ১৮ হাজার ২৭৮ জন। গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ৬৬৮ জন।

অন্যদিকে, ফ্রান্সে গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে রেকর্ড ১৩৫৫ জনের। সেখানে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে মোট ৫ হাজার ৩৮৭ জনের। আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫৯ হাজার ১০৫ জন। গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ১১৬ জন।

এছাড়া, স্পেনে এ পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১০ হাজার ৩৪৮ জনের। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ৯৬১ জনের। সেখানে এ পর্যন্ত আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ লক্ষ ১২ হাজার ৬৫ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ২৬ হাজার ৭৪৩ জন। গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৯৪৭ জন।

তাছাড়া, এ পর্যন্ত করোনায় যুক্তরাজ্যে ২৯২১ জন, ইরানে ৩১৬০ জন, চীনে ৩৩১৮ জন, জার্মানি ১১০৭ জন, নেদারল্যান্ডসে ১৩৩৯ জন ও বেলজিয়ামে ১০১১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

দাকোপে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত আনোয়ারের ৬ দিনে জ্ঞান ফেরেনি

আজগর হোসেন ছাব্বিরঃ দাকোপে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’দফা হামলা মারপিট অগ্নি সংযোগ। আশংকাজনক অবস্থায় ১ জনকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে। করোনার প্রভাবে আড়াল হয়ে যাওয়া ঘটনায় ঢাকা মেডিকেলের নিবিড় পর্যবেক্ষনে থাকা ব্যক্তির গত ৬ দিনেও জ্ঞান ফেরেনি। এ ঘটনায় ১৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আর ৭ জনের নামে দাকোপ থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।
দাকোপ থানায় দায়েরকৃত এজাহার ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, গত ২৯ মার্চ গরুতে ক্ষেতের তরমুজ খাওয়াকে কেন্দ্র করে ঘটনার সুত্রপাত। জানা যায় উপজেলা সদর আনন্দ নগর গ্রামের মৃঃ কোরবান খানের পুত্র বোরহান খানের ক্ষেতের তরমুজ প্রতিবেশী মৃঃ বসির শেখের পুত্র ইকতার শেখের গরুতে খায়। ক্ষেত মালিক বোরহান গরুটি ধরে নিয়ে নিজ বাড়ীতে আটকে রাখে। ওই দিন বেলা ১২ টার দিকে ইকতার গরু আনতে গেলে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আহত হয়ে ক্ষেত মালিক বোরহান দাকোপ হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরবর্তীতে ইকতারের ভাই মুক্তার শেখ এ ঘটনার মামলার আসামীদের সাথে নিয়ে বোরহানকে দেখতে হাসপাতালে আসে। এ সময় মুক্তারকে দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে বোরহান আসামীদের হুকুম দেয় “আমি হাসপাতালে থাকা অবস্থায় ইকতারকে হাসপাতালে পাঠাবি”। পরিস্থিতি বুঝে মুক্তার হাসপাতাল থেকে সরে পড়ে। এরপর ওই দিন বিকাল ৫ টার দিকে আসামী মোহেদী মোল্যা, মেসকাত মোল্যা, মেজবা মোল্যা, সফিক মোল্যা, আইয়ুব মোল্যা, আলমগীর মোল্যা, সোলাইমান মোল্যা, ইমরান মোল্যা, ইউনুস মোল্যা, জাকার গাজী, আনিস মোল্যা, ও হাসান মোল্যার নেতৃত্বে ১৮/২০ জন সশস্ত্র অবস্থায় গিয়ে ইকতার শেখের বাড়ীতে হামলা ও ঘরে অগ্নি সংযোগ করে। আগুন নিভাতে এবং হামলাকারীদের নিবৃত করতে গেলে ইকতার শেখ, তার ভাই মুক্তার শেখ, আনোয়ার শেখ, মোস্তফা, ভাইপো আব্দুল্লাহ, ওসমান, ভাগনে রফিকুল, গৃহবধু পারভীন, রকি, কন্যা আয়েশাসহ পরিবারের সদস্যরা বেধড়ক মারপিট ও দায়ের কোপে রক্তাত্ব জখম হয়। পরবর্তীতে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে তাদেরকে উর্দ্ধার করে দাকোপ উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। এরমধ্যে আনোয়ারের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে রেফার্ড করে খুলনা মেডিকেলে পাঠানো হয়। কিন্তু সেখানেও পরিস্থিতি খারাপের দিকে যেতে থাকলে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানে সঙ্গাহীন অবস্থায় আইসিইউতে ডাক্তারদের নিবিড় পর্যবেক্ষনে আছে। এ ঘটনায় ইকতারের ভাই মুক্তার শেখ বাদী হয়ে উল্লেখিত ১৩ জনসহ অজ্ঞাতনামা ৭ জনকে আসামী করে দাকোপ থানায় ১৪৩, ৪৪৭, ৩২৩, ৩২৪, ৩২৫, ৩০৭, ৪৩৫, ৪২৭, ৩৫৪, ৩৭৯, ১০৯, ১১৪ ও ৫০৬ ধারায় মামলা দায়ের করে। যা দাকোপ থানার মামলা নং ১ তাং ০১/০৪/২০২০। উল্লেখ্য সদ্য মাষ্টার্স পাস করে যশোরে একটি এনজিওতে চাকুরীরত আনোয়ার করোনা পরিস্থিতির কারনে ছুটিতে বাড়ীতে এসে এই হামলার শিকার হয়।