কেএমপির অভিযানে মাদকসহ আটক ৯

খুলনা অফিস : খুলনা মহানগর পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে গত ২৪ ঘন্টায় মাদকসহ ৯ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ৫৩ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ৭০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় ০৯ টি মাদক মামলা রুজু করা হয়েছে।

কেএমপি সূত্রে জানা যায়, আটককৃতরা হলেন খালিশপুর থানার হাউজিং পুরাতন কলোনী এন/ডি-৬১, রোড নং-২৬৪ এর মোঃ নুরুল ইসলামের ছেলে রাজীবুল ইসলাম স্বপন(২৫), খালিশপুর থানার ক্রিসেন্ট সেমী পাঁকা কলোনীর মৃত আব্দুর রবের ছেলে মোঃ পলাশ(২৪), একই থানার পিপলস্ গেট স্বর্ণপট্টি বিআইডিসি রোডের ইউনুস সরদারের ছেলে মোঃ জুয়েল হাসান(২৫), সোনাডাঙ্গা মডেল থানার শশ্মানঘাট পূজা খোলার পশ্চিমপার্শ্বে সুশান্ত ঘোষের ছেলে আর্জু ঘোষ(২৫), একই এলাকার মৃত হরিদাস মিস্ত্রীর ছেলে হিরন কুমার মিস্ত্রী(৩২), খালিশপুর থানার জলিল স্বরনী রোড পিএমজি অফিসের বিপরীতে মৃত ইলিয়াছ হোসেনের ছেলে শেখ ইফতেখার হোসেন সুজন(৩৮), খুলনা জেলার ফুলতলা থানার দক্ষিণ ডিহির আহম্মদ শেখের ছেলে আলামিন শেখ(২৬), বাগেরহাট জেলার শরণখোলা থানার দক্ষিণ রাজাপুরের মৃত রাজ্জাক হাওলাদারের ছেলে মোঃ আব্দুল হালিম(২৯), এবং খুলনা সদর থানার ০৫নং মাছঘাট, সি-ব্লক গ্রীনল্যান্ড আবাসন রেলওয়ের মোঃ লতিফ হাওলাদারের ছেলে মোঃ নুর ইসলাম হাওলাদার(২৫)।

কেশবপুরের পাঁজিয়ায় বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত

রাজীব চৌধুরী,কেশবপুরঃ যশোরের কেশবপুরে ০৭ নং বিট (পাঁজিয়া) পুলিশিং ইউনিট এর আয়োজনে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার কেশবপুর উপজেলার ০৭ নং পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের সভাকক্ষে ব্যাপক জনসমাগমের উপস্থিতিতে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মুকুল এর সভাপতিত্বে ও কেশবপুর থানার সাব ইন্সপেক্টর তাপস কুমার রায়ের সঞ্চালনায় সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশ, খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (এ্যাডমিন এন্ড ফিন্যান্স) মোঃ হাবিবুর রহমান বিপিএম।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( মিডিয়া সেল) মোঃশরফুদ্দীন,সহকারী পুলিশ সুপার ( মনিরামপুর সার্কেল ) সোয়েব আহম্মেদ খাঁন,কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জসীমউদ্দীন।এছাড়া উপস্থিত ছিলেন পাঁজিয়া ইউনিয়নের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ,স্কুল,কলেজে পড়ুয়া ছাত্র- ছাত্রী ও শিক্ষক- শিক্ষিকা সহ সর্বস্তরের জনগণ।উল্লেখ্য সমগ্র বাংলাদেশে ৬৯১২ টি বিট পুলিশিং ইউনিট রয়েছে যার মধ্যে খুলনা রেঞ্জের অন্তর্গত ১০ টি জেলায় ৬৯৩ টি বিট পুলিশিং ইউনিট রয়েছে।

ফুলতলায় বিট পুলিশিং কমিটির সমাবেশ অনুষ্ঠিত

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ ফুলতলার ২নং দামোদর বিট পুলিশিং এর উদ্যোগে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, ইভটিজিং, বাল্য বিবাহ, নারী ও শিশু নির্যাতন সংক্রান্ত এক সমাবেশ শনিবার বেলা ১১টায় পরিষদ চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়। কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম দামোদর ইউনিয়নের সভাপতি ক্যাপ্টেন আবুল কাশেম এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক নূর হোসেনর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন ওসি মাহাতাব উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন দামোদর ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ মোহম্মদ শিপলু ভ‚ঁইয়া, প্রধান শিক্ষক তাপস কুমার বিশ্বাস, মোশারফ হোসেন মোড়ল।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন বিট কর্মকর্তা এসআই মধুসূধন পান্ডে, বিট ইনচার্জ মেসবা উদ্দিন ও শফিকুল ইসলাম, ইউপি সদস্য মিসেস কেয়া, বেগম শামছুন নাহার, মাসুদ পারভেজ মুক্ত, মোঃ আলম গাজী, মোঃ নজরুল ইসলাম, মোঃ ইব্রাহীম গাজী, মোঃ কবির মহলদার, প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা, পুলিশিং ফোরাম নেতা অজয় নন্দী, মোহায়মিন সরদার মবি, আমিনুল ইসলাম, সরদার ইদ্রিস আলী, প্রনব কুমার বসু, মোঃ মাহাবুব আলম খোকন, আঃ গনি গাজী, প্রদ্যুৎ বিশ্বাস, বিজয় কৃষ্ণ হালদার, কায়েশ উজ্জামান পিকলু, আঃ জব্বার, আবু মুসা সোহেল, আঃ জলিল শেখ, মোঃ নজরুল ইসলাম, তাসমির হাসান, সুজন শীল প্রমুখ। সমাবেশে নেতৃবৃন্দ ধর্ষনের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড ঘোষনা করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানানো হয়।

মোংলায় ‘নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ’ অনুষ্ঠিত

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : মোংলায় ‘নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মোংলা থানা পুলিশের আয়োজনে শনিবার সকালে টি,এ ফারুক স্কুল এন্ড কলেজে প্রথম এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: ইকবাল বাহার চৌধুরী। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ইসরাত জাহান, টি,এ ফারুক স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আবু সাইদ খান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আ: রহমান, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিম, যুবলীগ নেতা কবির হোসেন, সাংবাদিক জসিম উদ্দিন ও আবু হোসাইন সুমন। সমাবেশে আগতরাও ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন রোধে করণীয় নানা মতামত তুলে ধরেন। সমাবেশে বিপুল সংখ্যক নারী-পুরুষ ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। এরপর পর্যায়ক্রমে দিগন্ত সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সেন্ট পলস উচ্চ বিদ্যালয়সহ ১০টি ভেন্যুতে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশে পুরুষের পাশাপাশি নারীদের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মত। মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, সারাদেশের মানুষ এখন উত্তাল অবস্থায় আছে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিরোধীতায়। ধর্ষণ ও নির্যাতনকারী মানুষরুপী যে সব পশু রয়েছে তাদের বিরুদ্ধেই এখন সকল মানুষ অবস্থান নিয়েছে। এ কারণেই সমাজের সকল শ্রেণী পেশার মানুষকে সজাগ ও সচেতন করতে এবং পুলিশকে সহায়তা করার জন্যই এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তালায় নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ

তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : সাতক্ষীরার তালা থানা পুলিশের তালা সদর ইউনিয়নের ২নং বিটের উদ্যোগে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং র‌্যালী ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ১১টায় তালা সদর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে এ সমাবেশ আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আসাদুরজ্জামান।
তালা থানার ওসি মেহেদী রাসেলের সভাপতিত্বে ও ওসি তদন্ত আবুল কালামের সঞ্চালণায় বক্তব্য রাখেন তালা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি সরদার জাকির হোসেন, তালা মহিলা ডিগ্রী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আব্দুর রহমান,ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম,তালা প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রভাষক প্রণাব ঘোষ বাবলু, তালা থানার ২নং বিট ইনচার্চ প্রীতিশ রায়,তালা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাবুদ্দীন বিশ্বাস প্রমুখ।
সমাবেশে সংশ্লিষ্ট বিট এলাকার নারীদের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধি,শিক্ষক,শিক্ষার্থী,সাংবাদিকসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষও উপস্থিত ছিলেন।
অনুরূপভাবে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে জনসচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে উপজেলার ১২টি বিটে নারী ও শিশু ধর্ষণ, নির্যাতন-নিপীড়ন বিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এবার শোভাযাত্রা ছাড়াই প্রতিমা বিসর্জন : প্রসাদ বিতরণে বিধিনিষেধ

ঢাকা অফিস : এবার সারা দেশে ৩০ হাজার ২১৩টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। যা গত বছরের তুলনায় ১ হাজার ১৮৫টি কম।  করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার শোভাযাত্রা ছাড়াই স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিমা বিসর্জন হবে। প্রসাদ বিতরণেও বিধি নিষেধ রয়েছে। শনিবার (১৭ অক্টোবর) সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, জনসমাগম পরিহার করতে ভোগের প্রসাদ ছাড়া মন্ডপ বা মন্দির কর্তৃপক্ষ খিচুড়ি বা এই জাতীয় প্রসাদও বিতরণ করতে পারবে না। অঞ্জলি প্রদানের ক্ষেত্রে ভার্চুয়াল মাধ্যমের সহযোগীতা নেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে সংবাদ সম্মেলনে। এছাড়া এবার কোথাও কুমারী পূজা হবে না বলেও জানানো হয়েছে।

তবে রাজধানীর ছোট বড় মণ্ডপগুলোতে চলছে দারুণ ব্যস্ততা। প্রতিমা নির্মাণ, প্যান্ডেল মঞ্চ স্থাপন আর সাজসজ্জা প্রস্তুতি চলছে পুরোদমে। দেবীর প্রতিমায় অবয়ব গড়ার শেষে প্রতিমা শিল্পীরা ব্যস্ত সৌন্দর্য বাড়িয়ে তোলার কাজে। ভক্তদের প্রত্যাশা মা আসবেন আশীর্বাদ হয়ে৷ রোগমুক্ত পৃথিবীর প্রার্থনাই ভক্তদের কণ্ঠে।

“প্রাক্তনকে ক্ষমা করার দিন” আজ

ইউনিক ডেস্ক : প্রচলিত দিবসের সঙ্গে দিন দিন উদ্ভব হচ্ছে বিচিত্র কিছু দিবস। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং এর যুগে যা ছড়িয়ে পড়ছে প্রতিনিয়তই।  ২০১৮ সাল থেকে যাত্রা শুরু। আন্তর্জাতিকভাবে সব দেশে স্বীকৃত না হলেও সাম্প্রতিক সময়ে ১৭ অক্টোবর-এ দিবসটি এলে আলোচনায় থাকে। যার চর্চা বেশি লক্ষ্য করা যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। প্রাক্তনকে ক্ষমা করার দিন (Forgive an Ex Day) আজ।

প্রেমের সম্পর্ক নানা কারণেই ভেঙে যায়। অনেকেরই তাদের সাবেক প্রেমিক/প্রেমিকার প্রতি রাগ, ক্ষোভ, অভিমান অথবা প্রতিহিংসা রয়ে যায়। এই অভিযোগ ও ঘৃণাকে মুছে ফেলে দেয়ার জন্য এ দিবসের আবির্ভাব। প্রাক্তনকে ক্ষমা করে দেয়ার দিন- এর উদ্দেশ্য  চলে যাওয়া বা হারিয়ে যাওয়া পছন্দের মানুষের প্রতি যেন ক্ষমাশীল হওয়া যায় এবং সবাই যেন সকল অভিযোগ ভুলে সম্মানের চোখে তাকে দেখে। আর সুন্দর ভবিষ্যত কামনা করে।

অতীততে ভুলে সামনে যাওয়ার পথে দিনটি এক শুভ বার্তা। সবাই যেন দিনটিতে প্রাক্তন প্রিয় মানুষটাকে জানাতে পারে, ‘ক্ষমা করে দিলাম।’

ডুমুরিয়ায় সাংবাদিক জাহাঙ্গীরের মতবিনিময়

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি : ডুমুরিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার এস এম জাহাঙ্গীর আলম গতকাল শুক্রবার আসর বাদ উপজেলা কোর্ট মসজিদে অনুষ্ঠিত আরাজি সাজিয়াড়া গ্রামের নুরুল ইসলাম বিশ্বাসের জানাজা নামাজে অংশ গ্রহন করেন। এর আগে আরাজি ডুমুরিয়া গ্রামের শফিক ও রফিক এর মায়ের মৃত্যুর খবর শুনে নিহতের বাড়িতে ছুটে যান। হাজিডাঙ্গা জামে মসজিদে জুম্মাবাদ মরহুম শেখ সিদ্দিকের দোয়া অনুষ্ঠানে শরিক হন। দুপুর ২ টায় ডুমুরিয়া দাসপাড়ায় বিকাশ ও মেঘনাথ দাসের মায়ের শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে যোগ দেন। সন্ধ্যায় আরাজি ডুমুরিয়া গ্রামের মধুমঙ্গল ও মাষ্টার অসিত বিশ্বানের মায়ের শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে যান। রাত ৮ টায় আশ্বাবপাড়া জামে মসজিদে রফি-সফিরর মায়ের জানাজায় অংশ গ্রহন করেন। বিকেলে ডুমুরিয়া হাটে আগতদের সাথে কুশল বিনিময় করেন। রাত ১০ টায় মির্জাপুর মাষ্টার রামপদ মন্ডলের বাড়িতে অনুষ্ঠিত সত্যধর্মের অনুষ্ঠানে ধর্মীয় আলোচনায় অংশ গ্রহন করেন। এছাড়া সকাল ৬ টা থেকে খলশী ও খাজুরা গ্রামের বিভিন্ন পাড়ায় গনসংযোগ করে। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান, আরিজ মোল্লা, মোজাম্মেল হক মোহন, মামুনুর রশিদ, শ্যামপদ মন্ডল প্রমুখ।

ধর্ষণ বিরোধী লংমার্চে হামলা, আহত ১০

ঢাকা অফিস : দেশব্যাপী ধর্ষণ, নারী নিপীড়ন ও ‍বিচারহীনতার প্রতিবাদে শাহবাগ থেকে নোয়াখালীর একলাশপুরগামী লংমার্চে হামলার ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) সাড়ে ১১টার দিকে, সমাবেশ শেষে বিক্ষোভ করার সময় ফেনী শহরের কুমিল্লা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। এর আগে শহরের শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে লংমার্চ কারীরা সমাবেশ করেন।

লংমার্চকারীরা জানান, ধর্ষণের বিরুদ্ধে সমাবেশ ও প্রচারাভিযান করে ফেনী জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের দিকে লংমার্চ যাওয়ার সময় কুমিল্লা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গেলে বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী লাঠি নিয়ে হামলা করে। এসময় লংমার্চ কারীদের মধ্যে হৃদয়, শাহাদাত, অনিক, যাওয়াদ ও পথচারীসহ ১০ জন আহত হয়। তাদের দাবি, সমাবেশে সরকার ও ক্ষমতাসীনদের সমালোচনা করে বক্তব্য দেয়ায় তারা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের ওপর পুলিশি পাহারায় হামলা করা হয়েছে।

এর আগে, শহরের শহীদ মিনারের পাশে দোয়েল চত্ত্বরে সমাবেশ চলাকালে স্থানীয় সংসদের ছবির ওপর লাল রঙ লাগিয়ে নেতিবাচক বক্তব্য লেখাকে কেন্দ্র করে পুলিশের সঙ্গে লংমার্চকারীদের বাক বিতণ্ডার ঘটনা ঘটে। এসময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

দেশে ধর্ষণ-নিপীড়ন বন্ধসহ নয় দফা দাবিতে তারা শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) সকাল সোয়া ১০টার দিকে রাজধানী ঢাকার শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে এক সমাবেশ করে। সে সমাবেশ থেকে ধর্ষণবিরোধী একগুচ্ছ কর্মসূচি ঘোষণা দিয়ে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ অভিমুখে লংমার্চ শুরু করে। শুক্রবার ১৬ অক্টোবর সকাল সোয়া ১০টার দিকে লংমার্চটি ঢাকার শাহবাগ থেকে মিছিল নিয়ে গুলিস্তান আসে। এরপর বাসে করে নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়া ও সোনারগাঁও, কুমিল্লার চান্দিনা ও শহর, ফেনী আসে। ফেনী থেকে দাগনভূঞা, নোয়াখালীর চৌমুহনী ও একলাশপুরে যাবে। পথে কয়েকটি সমাবেশ হবে। শনিবার বিকেলে নোয়াখালীর মাইজদীতে সমাবেশের মধ্য দিয়ে লংমার্চ শেষ হবে। ছয়টি বাস ও একটি পিকআপে প্রায় ৪০০ মানুষ এই লংমার্চে অংশ নিচ্ছেন নিচ্ছে।এতে স্থানীয় ছাত্র যুবকসহ ভিবিন্নি সংগঠনের কর্মীরা অংশ গ্রহন করে।

‘ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’–এর নয় দফা দাবির মধ্যে আরও রয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের পদত্যাগ, উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানে নারী নির্যাতনবিরোধী সেল কার্যকর করা, সিডো সনদে স্বাক্ষর ও তার পূর্ণ বাস্তবায়ন এবং নারীর প্রতি বৈষম্যমূলক সব আইন ও প্রথা বিলোপ; ধর্মীয়সহ সব ধরনের সভা-সমাবেশে নারীবিরোধী বক্তব্য শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য করা, সাহিত্য-নাটক-সিনেমা-বিজ্ঞাপনে নারীকে পণ্য হিসেবে উপস্থাপন বন্ধ করা, পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণে বিটিসিএলের কার্যকর ভূমিকা এবং সুস্থ ধারার সাংস্কৃতিক চর্চাকে সরকারিভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করা; তদন্তের সময়ে ভুক্তভোগীকে মানসিক নিপীড়ন-হয়রানি বন্ধ করতে হবে এবং তার আইনগত ও সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং অপরাধবিজ্ঞান ও জেন্ডার বিশেষজ্ঞদের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে অন্তর্ভুক্ত করা, ট্রাইব্যুনালের সংখ্যা বাড়িয়ে অনিষ্পন্ন সব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করা।

বটিয়াঘাটার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বিধান বিশ্বাস এর সুস্থ্যতা কামনা

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বটিয়াঘাটা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক সভাপতি চয়ন বিশ্বাসের পিতা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক অর্থ বিষয়ক সম্পাদক প্রবীন আওয়ামীলীগনেতা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বিধান বিশ্বাস গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে মহানগরীর শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় তাঁর সুস্হ্যতা কামনা করে বিবৃতি প্রদান করেছেন বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ। প্রদত্ত বিবৃতি দাতারা হলেন, খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান,জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক বিরোধীদলীয় হুইপ আলহাজ্ব শেখ হারুনুর রশীদ,জাতীয় সংসদের সরকার দলীয় হুইপ ও জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি পঞ্চানন বিশ্বাস এমপি,বটিয়াঘাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আশরাফুল আলম খান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য দিলীপ হালদার।