যুদ্ধজাহাজসহ নৌবাহিনীর ৫টি আধুনিক জাহাজ কমিশনিং করলেন প্রধানমন্ত্রী

ইউনিক ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজসহ নতুন পাঁচটি আধুনিক জাহাজ কমিশনিং করেছেন। এ সময় তিনি বলেছেন, ‘আজ বাংলাদেশ নৌবাহিনী তার ক্রমাগত অগ্রযাত্রায় আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল। দিনটি শুধু বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জন্য নয়, সমগ্র দেশ ও জাতির জন্য অত্যন্ত গৌরবের।’ এই কমিশনিংয়ের ফলে বাংলাদেশের জলসীমা সুরক্ষায় এবং নৌবাহিনীর সক্ষমতা বৃদ্ধি করে অপারেশনাল কার্যক্রম শুরু করল।

নতুন দুটি আধুনিক ফ্রিগেট বানৌজা ওমর ফারুক, আবু উবাইদাহ ও একটি করভেট যুদ্ধজাহাজ প্রত্যাশা এবং দুটি জরিপ জাহাজ বানৌজা দর্শক ও তল্লাশি। প্রধানমন্ত্রী বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জাহাজগুলোকে নৌবাহিনীতে কমিশনিং করেন।

এর আগে চট্টগ্রামে বানৌজা ঈসা খাঁ নৌ-জেটিতে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে নৌবাহিনীপ্রধান অ্যাডমিরাল এম শাহীন ইকবাল জাহাজসমূহের অধিনায়কগণের হাতে কমিশনিং ফরমান তুলে দেন। পরে প্রধানমন্ত্রী নৌবাহিনীর রীতি অনুযায়ী আনুষ্ঠানিকভাবে নামফলক উন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে নৌবাহিনীর একটি সুসজ্জিত চৌকষ দল গার্ড অব অনারও প্রদান করেন।

প্রধানমন্ত্রী এ সময় তার ভাষণে বলেন, ‘আধুনিক সমরাস্ত্র সজ্জ্বিত দুটি ফ্রিগেট ও একটি অত্যাধুনিক করভেট এবং আমাদের নিজস্ব খুলনা শিপইয়ার্ডে তৈরি দুটি আধুনিক জরিপ জাহাজ বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় নৌবাহিনীর ক্ষমতাকে আরও জোরদার করবে এটিই আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস।’ ‘ফোর্সেস গোল ২০৩০-এর আলোকে নৌবাহিনীর উন্নয়ন কার্যক্রমে বর্তমান সরকার সবসময় আন্তরিক ও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ’, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

সদ্য সংযোজিত হওয়া নৌবাহিনীর দুটি ফ্রিগেট ‘ওমর ফারুক’ ও ‘আবু উবাইদাহ’র দৈর্ঘ্য প্রতিটির ১১২ মিটার ও প্রস্থ ১২ দশমিক ৪ মিটার এবং করভেট যুদ্ধজাহাজ বানৌজা প্রত্যাশার দৈর্ঘ্য ৯০ মিটার ও প্রস্থ ১১ দশমিক ১৪ মিটার।

যুদ্ধজাহাজগুলো ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৫ নটিক্যাল মাইল বেগে চলতে সক্ষম এবং এতে শত্রু বিমান, জাহাজ এবং স্থাপনায় আঘাত হানতে সক্ষম আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন কামান, ভূমি থেকে আকাশে এবং ভূমি থেকে ভূমিতে উৎক্ষেপণযোগ্য মিসাইল, অত্যাধুনিক থ্রিডি রাডার, ফায়ার কন্ট্রোল সিস্টেম, রাডার জ্যামিং সিস্টেমসহ বিভিন্ন ধরনের যুদ্ধ সরঞ্জামাদিতে সুসজ্জিত।

বটিয়াঘাটায় পোকা দমন ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বটিয়াঘাটা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে  বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় স্থানীয় হাটবাটী হোগলবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে পরিবেশ বান্ধব কৌশলের মাধ্যমে নিরাপদ ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্পের আওতায় পোকা দমন ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ রবিউল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আশরাফুল আলম খান। মূখ্য আলোচক খুলনা দৌলতপুর কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ ড. এস, এম ফেরদৌস। বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তরের প্রাত্তান উপ-পরিচালক পংকোজ কুমার মজুমদার, ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই গাইন ও চঞ্চলা মন্ডল, ইউপি চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মনোরঞ্জন মন্ডল। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আবু বকর সিদ্দিক, উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, হাটবাটী হোগলবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি মানস পাল, উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ ঈমান আলী, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সরদার আব্দুল মান্নান, দীপন কুমার হালদার, জীবনানন্দ রায়, দীপংকর মন্ডল, আব্দুল হাই, মিহির কুমার বৈরাগী, রমেন্দ্রনাথ গাইন, বিষাদ সিন্ধু, মোস্তাফিজুর রহমান, শিউলি বিশ্বাস, ইলোর আক্তার, কৃষ্ণ পদ বিশ্বাস, পিন্টু মল্লিক, প্রতাপ বালা, রাজীব বিশ্বাস, ইউপি সদস্য মোঃ আলম ভূঁইয়া, ইউপি সদস্যা বিউটি মন্ডল, রমা মন্ডল সহ শত শত কৃষক ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

রূপসায় পুলিশ সদস্যকে মারধর ঘটনায় মামলা ডিবিতে হস্তান্তর : বিউটির রিমা- মঞ্জুর

স্টাফ রিপোর্টার : খুলনার রূপসায় পুলিশ সদস্যকে মারধরের অভিযোগে রূপসা উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি মফিজুল ইসলামের স্ত্রী ফাতেমা আক্তার বিউটিকে গ্রেপ্তার হলেও অন্য আসামিরা এখন আটক করতে পারেনি। গ্রেফতারকৃত বিউটির ভাতিজা আহমদ আলী শেখ ও মোহাম্মদ আলী শেখসহ অন্যান্য আসামিরা ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছে। এদিকে ঘটনার ৫দিন রূপসায় পুলিশ সদস্যকে মারধর ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা জেলা ডিবিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। বুধবার রূপসা থানা পুলিশ জেলা ডিবি’র কাছে মামলাটি হস্তান্তর করেন বলে মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা রূপসা থানার এসআই বাবলা দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এসআই রাজিউল আলম বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ প্রতিবেদককে বলেন, বুধবার আদালতের মাধ্যমে রূপসায় পুলিশ সদস্য মারধরের ঘটনায় আটককৃত আসামি ফাতেমা আক্তার বিউটিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড আবেদন করা হয়েছিলো। সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞ বিচারক একদিনের রিমা- মঞ্জুর করেছেন। আজ বিউটিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে। এছাড়া এজাহারভূক্ত আসামি বিউটির ভাতিজা আহমদ আলী শেখ ও মোহাম্মদ আলী শেখ এবং গাড়ি চালক মনি গাজীসহ অন্যা আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহতি রয়েছে।
অপরদিকে গ্রেফতারকৃত বিউটি স্বামী রূপসা উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি ও রূপসা টেম্পু অটোটেম্পু মাহেন্দ্র শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম, তার বড় ভাই মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক নৈহাটী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও রূপসা-বাগেরহাট বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এবং মফিজুলের সালা রূপসা চিংড়ি বনিক সমিতির সভাপতি ও মাইক্রোবাস মালিত সমিরি বিরুদ্ধে চাদা বাজিসহ নানা অপকর্মের কথা তুলে ধরে এলাকায় লিফলেট বিতরন করা হয়। লিফলেটের উল্লেখ করা হয়, মফিজুল চরমপন্থী দলেল এক সময়ে চাদা বাজ সদস্য ছিলেন। চিঠি দিয়ে চাদা আদায় করা ছিলো তার কাজ। তৎকালীণ পুলিশের ভয়ে দীর্ঘদিন পালিয়ে থেকে সে জীবন যাপন করতো। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর স্থানীয় প্রভাবশালী আওয়ামী লীগে এক নেতার মাধ্যমে পুলিশের খাতা থেকে নাম কাটিয়ে হয়ে যায় রূপসা উপজেলার শ্রমীকলীগের সভাপতি। শুরু হয় নতুন আঙ্গিকে চাদাবাজির ঘটনা। ওরা তিনজনে মিলে তিন সেক্টর থেকে হাতিয়ে নেয় শতকোটি টাকা। ওই সব সম্পত্তি ও টাকা পয়সা নিজের নামে না করে তাদের আত্মীয় স্বজনদের নামে রাখা হয়েছে।
রূপসা-বাগেরহাট বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এর বিরুদ্ধে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই গাড়ি প্রতি ৪০ টাকা চাদা আদায়ের পরিবর্তে ৩০০-৪০০ টাকা করে চাদায় আদায় শুরু করেন। এছাড়া প্রতি মাসে বাস মালিকদের কাছ থেকে ৪-৫ হাজার টাকা আদায় করতেন। চাদা বাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে অনেক বাস মালিকরা বাস বিক্রি করে দিতে বাধ্যহন।
মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তক নৈহাটী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও রূপসা-বাগেরহাট বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর ) রাতে এ প্রতিবেদককে বলেন, লিফলেট বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি। আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে ক্রসফায়ারে নিহত মিনা কামালের বাহিনীরা। তাদের ধারনা মিনা কামাল ক্রয় ফায়ার বিষয়টি আমার হাত ছিলো। কিন্তু এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। আমাকে হেয়পন্ন করার জন্য এ সব অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবার ( ৩০ অক্টোবর) দুপুর ১২টা ৩৫ মিনিটে ফাতেমা আক্তার বিউটি চারটি হাইয়েস, দুটি প্রাইভেটকার ও ৩/৪টি মোটরসাইকেল যোগে প্রায় ৫০-৬০ জনের একটি বহর নিয়ে খুলনা শহরে তার মেয়ের বউভাতের অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন। টোল প্লাজার ৬ নম্বর লেন দিয়ে তারা সিরিয়াল ভঙ্গ ও টোলে কোনো টাকা না দিয়ে পার হতে চাচ্ছিলেন। এ সময় টোল আদায়কারীরা তাদের বাধা দিলে বিউটি, তার দুই ভাতিজা আহমদ আলী শেখ ও মোহাম্মদ আলী শেখ এবং মনি গাজী নামে এক যুবক গাড়ি থেকে নেমে সিকিউরিটি গার্ডদের সঙ্গে বাকবিতন্ডা শুরু করেন। একপর্যায়ে বিউটি সিকিউরিটি গার্ড রবিউলের গায়ে ধাক্কা দেন। এ সময় অপর সিকিউরিটি গার্ড কামাল পুলিশদের ডাকেন। পুলিশ তখন ঘটনা শুনতে গেলে পুলিশ সদস্য সাইদুর রহমানকে আঘাত করেন বিউটি। টোলপ্লাজা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই জাকির বলেন, টোলপ্লাজায় তিনজন পুলিশ দায়িত্বে ছিলেন। গাড়ি বহর নিয়ে সিরিয়াল ভঙ্গ করে যাওয়ার জন্য সিকিউরিটি গার্ডদের সঙ্গে এক নারীর বাকবিত-া হচ্ছে দেখে পুলিশ এগিয়ে যায়। এ সময় বিউটি পুলিশ কনস্টেবল সাইদুর রহমানকে আঘাত করেন। এতে তার পোশাকের বোতাম ছিঁড়ে যায়। পরে টোলপ্লাজায় দায়িত্বরত অন্য পুলিশ সদস্যরা এগিয়ে গিয়ে বিউটিকে আটক করেন।

ইস্পাহানি গ্রুপের বিরুদ্ধে দেড় কোটি টাকা ভ্যাট ফাঁকি দেওয়ার মামলা

রিটন দে, চট্টগ্রাম :চট্টগ্রামের অন্যতম ও বেশ প্রাচীন শিল্পপ্রতিষ্ঠান গুলোর মধ্যে একটি ইস্পাহানী গ্রুপ। দিনে দিনে ব্যবসার পরিধি বেড়ে টেক্সটাইল, সিকিউরিটিজ, রিয়েল এস্টেট, ক্রিস্পস, পোল্ট্রি, শিপিং, বেকারি পণ্যসহ বিভিন্ন খাতে এই শিল্পগ্রুপের আছে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান। এই গ্রুপের চারটি প্রতিষ্ঠান প্রায় দেড় কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে। ভ্যাট ফাঁকি দিতে ইস্পাহানী গ্রুপ ১৮ কোটি ২৭ লাখ টাকার পণ্য বিক্রির তথ্য গোপন রেখেছিল। ভ্যাট নিরীক্ষা গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর এ ঘটনায় ওই চার প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে মামলা করেছে। ইস্পাহানী গ্রুপের সদরদপ্তর চট্টগ্রামে হলেও ঢাকা এবং খুলনায় তাদের কর্পোরেট অফিস রয়েছে।

ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান জানান, বিক্রির প্রকৃত তথ্য গোপন করে ভ্যাট ফাঁকি দেওয়ায় ইস্পাহানী গ্রুপের চারটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

ভ্যাট ফাঁকি দেওয়া প্রতিষ্ঠান চারটি হচ্ছে— চট্টগ্রাম নগরীর লালখানবাজার মোড়ের দি অ্যাভিনিউ হোটেল অ্যান্ড স্যুটস (ভ্যাট নিবন্ধন নং-১৯০৯৮৭৪-০৫০৩) ও পিটস্টপ সুইটস অ্যান্ড বেকারি (ভ্যাট নিবন্ধন নং-০০০০১৮৪৮৮-০৫০৩), পিটস্টপ শো-রুম (ভ্যাট নিবন্ধন নং-০০১৯০৯৮৩৮-০৫০৩) এবং পিটস্টপ সুপার স্টোর (ভ্যাট নিবন্ধন নং- ০০১৯০৯৮৩৮-০৫০৩)।

এর আগে গত ৭ সেপ্টেম্বর ভ্যাট ফাঁকির সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে ভ্যাট গোয়েন্দা উপ-পরিচালক তানভীর আহমেদ ও সহকারী পরিচালক মো. মহিউদ্দীনের নেতৃত্বে ভ্যাট গোয়েন্দারা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অভিযান চালায়।

ভ্যাট গোয়েন্দাদের অনুসন্ধানে চট্টগ্রামভিত্তিক শিল্পগ্রুপ ইস্পাহানী গ্রুপের চারটি প্রতিষ্ঠানে ১৮ কোটি ২৭ লাখ টাকার পণ্য বিক্রির হিসাব গোপন করার তথ্য উদঘাটন করা হয়। এ হিসেবে সুদসহ প্রায় ১ কোটি ৫০ লাখ টাকার ভ্যাট ফাঁকি দেওয়া হয়েছে।

অনুসন্ধানে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ইস্পাহানী গ্রুপের মালিকানাধীন দি এভিনিউ হোটেল অ্যান্ড স্যুটস ২০১৫-১৬ ও ২০১৬-১৭ অর্থবছরে দাখিলপত্রে বিক্রয়মূল্য দেখিয়েছে ৮৭ লাখ ৭২ হাজার ১৪৬ টাকা। কিন্তু জব্দ করা কম্পিউটার থেকে প্রকৃত বিক্রয়মূল্য পাওয়া গেছে ১ কোটি ২৯ লাখ ৯৩ হাজার ৮১৪ টাকা। এক্ষেত্রে ৪২ লাখ ২১ হাজার ৬৬৮ টাকার তথ্য গোপনের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি ৬ লাখ ৩৩ হাজার ২৫০ টাকা ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে। ভ্যাট আইন অনুযায়ী এর সুদ দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৯৯ হাজার ৫৬৯ টাকা।

একইভাবে পিটস্টপ সুইটস অ্যান্ড বেকারি ২০১৩-১৪ থেকে ২০১৯-২০ অর্থবছরে ৬ লাখ ৩৮ হাজার টাকা ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে। সেখানে সুদ এসেছে আরও ৭ লাখ ২১ হাজার ১২৬ টাকা।

অন্যদিকে পিটস্টপ শো-রুম ২০১৩-১৪ থেকে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৪৪ লাখ ৩২ হাজার ৪২১ টাকা ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে। মাসিক ২ শতাংশ হারে সেখানে সুদ এসেছে আরও ৪১ লাখ ৭১ হাজার ৯১৪ টাকা।

এছাড়া পিটস্টপ সুপার স্টোর ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে চলতি বছরের আগস্ট পর্যন্ত ৩২ লাখ ৭৫ হাজার ১০১ টাকা ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে। ভ্যাট আইন অনুযায়ী এর সুদ দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ১৪ হাজার টাকা।

চট্টগ্রামের সাংবাদিক গোলাম সরোয়ার অপহরণের ঘটনায় মামলা দায়ের

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামের সাংবাদিক গোলাম সরোয়ারকে অপহরণের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বুধবার (৪ নভেম্বর) বিকেল ৪টার দিকে মামলাটি দায়ের করা হয়। অপহরণের শিকার সাংবাদিক গোলাম সারোয়ার নিজেই বাদী হয়ে কোতোয়ালী থানায় মামলাটি করেছেন।

মামলায় আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাতনামা ছয়জনকে। এর মধ্যে ২৭ ও ২৮ বছর বয়সী দুজনের কথা উল্লেখ করেছেন তিনি। যাদের একজন মোটরসাইকেল চালক ও অপরজন মোটরসাইকেলের পেছনে ছিলেন।

মামলার এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন, নিউজ করার কারণে তাকে অপহরণ করে নিয়ে গিয়ে মারধর করেন এবং ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণও দাবি করেন। এর আগে, দুপুর দুইটায় চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে গোলাম সরোয়ার সংবাদ সম্মেলন করেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কারা আমাকে অপহরণ করেছে তা বলতে পারছি না, তবে অপহরণের আগে আমি পাঁচ-সাতটা নিউজ করেছি। ঘটনার কয়েক দিন আগে একটা অপরিচিত নম্বর থেকে ফোন করে বলে, ওয়া নিউজগান গরি ভালা ন গরো।

অপরিচিত নম্বরের কথা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, আমার মোবাইলের কল লিস্ট সঠিকভাবে চেক করে ও তদন্তের দাবি জানাচ্ছি প্রশাসনকে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই। অপহরণকারীরা আমাকে ভীষণ মারধর করে কাপড় মুড়িয়ে দিয়ে, তাদের মধ্যকার ফোনে কথা-বার্তায় বলে আমি নাকি ‘ত্যানাফাটা’ সাংবাদিক, আমাকে মেরে ফেলে লাভ নাই শুধু যেন মারধর করে।

সাংবাদিক গোলাম সরোয়ারের মামলায় সর্বাত্মক সমর্থন ও সহযোগিতা করছেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন’র (সিউজে) নেতারা।

এ বিষয়ে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন গণমাধ্যমকে বলেন, সাংবাদিক গোলাম সরোয়ার অপহরণের ঘটনায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে, যেটির ভিত্তিতে এখন তদন্ত চলছে। তদন্ত করে দেখা হচ্ছে, কে বা কারা বা কিভাবে কি হয়েছিল তার সবকিছুই। বেশ কিছু আলামত পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। তদন্তের আরও বেশি অগ্রগতির জন্য অপহরণ থেকে মুক্তি পাওয়া সাংবাদিক গোলাম সরোয়ারের লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। সেটি পাওয়ার পর তদন্তকাজ অনেক বেশি সহজ হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি রতন কান্তি দেবাশিষ গণমাধ্যমকে বলেন, গোলাম সরোয়ারকে উদ্ধারের বিষয়ে কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে। এবং অজ্ঞাত ৬ জনকে আসামী করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) সকালে নগরীর ব্যাটারি গলির বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন সাংবাদিক গোলাম সরোয়ার। এরপর গত ১ নভেম্বর রাত ৮টায় চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে মহাসড়কের পাশে অজ্ঞান অবস্থায় পরে থাকা নিখোঁজ সাংবাদিক গোলাম সরোয়ারকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরবর্তীতে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

বটিয়াঘাটায় অপরাজিতা নেটওয়ার্কের মানববন্ধন

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বটিয়াঘাটা অপরাজিতা নেটওয়ার্কের উদ্যোগে রাজনৈতিক দল নিবন্ধন আইন-২০২০ এ কমিটিতে এক-তৃতীয়াংশ নারীকে সম্পৃক্তকরনের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করেছে সংগঠনটি। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টায় বাজার চত্তরে মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে মহান জাতীয় সংসদের হুইপ পঞ্চানন বিশ্বাস (এমপি) এর বাশভবনস্ত কার্যালয়ে স্মারকলিপি প্রদান করেন। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আশরাফুল আলম খান, বিএনপি, জাতীয় পার্টি,সিপিবি নেতাদের কাছে ও উক্ত স্মারকলিপি প্রদান করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বুলু রায় গাঙ্গুলী,ভগবতী গোলদার, ইউপি সদস্যা ফিরোজা বেগম, তপতী রানী বিশ্বাস, মলিনা রায় ,দিপ্তী মল্লিক, মর্জিনা বেগম, নারী নেত্রী মমতা বিশ্বাস, আশালতা ঢালী প্রমূখ।

চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলীতে ৮ প্রতিষ্ঠানকে চসিকের জরিমানা

চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রাম নগরীর পাহাড়তলী থানাধীন সাগরিকা রোডের উভয় পার্শ্বের ফুটপাত ও নালা অবৈধভাবে দখল করে লোহার দোকানের মালামাল স্তুপ করে রাখা এবং অবৈধভাবে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করায় স্থাপনাসহ সাগরিকা রোডের অবৈধ কাচাঁবাজার উচ্ছেদ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার (৪ নভেম্বর) স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ) জাহানারা ফেরদৌস ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারুফা বেগম নেলী এ অভিয়ানের নেতৃত্ব দেন।

এ সময় ফুটপাত ও নালার জায়গা অবৈধভাবে দখল করে লোহার পাইপসহ বিভিন্ন পণ্য স্তুপ করার দায়ে আট ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানকে ৭২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

একই অভিযানে বাকলিয়া থানাধীন বির্জা খালের ওপর অবৈধভাবে নির্মিত ব্রীজের অংশ বিশেষ অপসারণ করা হয়।

অভিযানে করপোরেশনের সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ সহায়তা করেন।

পাইকগাছায় জয়যাত্রা টেলিভিশনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

মোঃ আসাদুল ইসলাম, পাইকগাছা : খুলনার পাইকগাছায় বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যেদিয়ে জয়যাত্রা টেলিভিশনের ২য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে।

জয়যাত্রা টেলিভিশন পাইকগাছা কার্যালয় চত্তরে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আয়োজনে বর্ণঢ্য শোভাযাত্রা, কেক কাঁটা, আলোচনা সভা মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জয়যাত্রা টেলিভিশনের পাইকগাছা প্রতিনিধি আসাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও স্টাফ রিপোর্টার রাবিদ মাহমুদ চঞ্চলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পাইকগাছা উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার ইকবাল মন্টু, অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন পাইকগাছা থানার ওসি (তদন্ত) আশরাফুল আলম, অধ্যাপক মনঞ্জুরুল আমিন শেখর, অধ্যক্ষ হরেকৃষ্ণ দাশ, আ’লীগ নেতা আনন্দ মোহন বিশ্বাস, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গোলাম কিবরিয়া রিপন , আ’লীগ নেতা জি এম ইকরামুল ইসলাম, প্রভাষক ময়নুল ইসলাম, গাজী শফিকুল ইসলাম, বিভূতি ভুসন সানা,পৌর ওয়ার্ড কাউন্সিলর এস এম তৈয়েবুর রহমান, কবিতা রানী দাশ, কাজী সাখাওয়াত হোসেন পাপ্পু, মিজানুর রহমান মিজান, জি মোরশেদ ইয়াসিন, সিরাজুল ইসলাম, চম্পক সাধু, এম আর মুকুল, আশাসুনি প্রতিনিধি শেখ বাদশা, ইয়াউর রহমান, মোঃ ফসিয়ার রহমান, পাইকগাছা প্রেস ক্লাবের কর্মরত বিভিন্ন সাংবাদিক বৃন্দ, রায়হান পারভেজ রনি,সহ এলাকার গর্ণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

মোংলায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সিসি ক্যামেরা প্রদাণ

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : ইভটিজিং বন্ধসহ সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিতের স্বার্থে বিভিন্ন স্কুল-কলেজে স্থাপনের জন্য সিসি ক্যামেরা দিয়েছেন মোংলা পোর্ট পৌর কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার দুপুরে পৌর মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক অনুষ্ঠানে পৌর মেয়র আলহাজ্ব মো: জুলফিকার আলী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর (৮টি) প্রধানদের হাতে এ সিসি ক্যামেরা তুলে দেন। এ সময় প্রতিটি স্কুল ও কলেজের জন্য ৮টি করে সিসি ক্যামেরা দেয়া হয়েছে। এর আগে তিনি নব নির্মিত পৌর কমপ্লেক্স মার্কেটের দোকান বরাদ্দ পাওয়া ব্যবসায়ীদের হাতে পৌর কর্তৃপক্ষের চুক্তিপত্র তুলে দেন। অনুষ্ঠানে পৌর মেয়র জুলফিকার আলী ছাড়াও পৌর সচিব অমল কৃঞ্চ সাহা, প্রেসক্লাব সভাপতি এইচ এম দুলাল, কাউন্সিলর আলাউদ্দিন, আ: রাজ্জাক, পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষক এবং ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

রূপসায় আমন ধানের ক্ষেতে আলোক ফাঁদ স্থাপন

খুলনা অফিস : রূপসা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে ধানের ক্ষতিকর ও উপকারী পোকামাকড়ের উপস্থিতি শনাক্তকরণের লক্ষ্যে এবছর রোপা আমন ধানে আলোক ফাঁদ স্থাপনের এক কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। এর অংশ হিসেবে আজ ৪ নভেম্বর সন্ধ্যায় নিকলাপুর ব্লকের দেবিপুর সুতালের বটতলার সন্নিকটে আলোক ফাঁদ স্থাপন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড. এস এম ফেরদৌস, অধ্যক্ষ, কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট, দৌলতপুর, খুলনা। তিনি বলেন, আলোক ফাঁদের মাধ্যমে উপকারী পোকা সংরক্ষণ এবং ক্ষতিকর পোকামাকড়ের উপস্থিতি শনাক্ত করে তা দমনের ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য কৃষকদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। এটি পোকা দমনের একটি সহজ পদ্ধতি এবং পরিবেশ বান্ধব। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শেখ মোঃ শহীদুজ্জামান,উপাধ্যক্ষ,কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট, দৌলতপুর, খুলনা, মোঃ নুরুল ইসলাম,উপ- পরিচালক, ডিএই, সাতক্ষীরা, মোঃ নজরুল ইসলাম, অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (উদ্যান), ডিএই, খুলনা, মোতাহার হোসেন, অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (পিপি), ডিএই, খুলনা, মোঃ খালিদ সাইফুল্লাহ, অতিরিক্ত উপপরিচালক (পিপি), ডিএই, সাতক্ষীরা, মোঃ ফরিদুজ্জামান, উপজেলা কৃষি অফিসার ও শেখ সাখাওয়াত হোসেন, কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার, রূপসা, খুলনা। এ কার্যক্রম পরিচালনা করেন উক্ত ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জাহাঙ্গীর মোল্যা। তিনি জানান, আলোক ফাঁদে উপকারী পোকার মধ্যে ড্যামসেল ফ্লাই ও বোলতা এবং ক্ষতিকর পোকার মধ্যে বিপিএইচ (কারেন্ট পোকা), চুঙ্গি পোকা, সবুজ পাতা ফড়িং এর উপস্থিতি পাওয়া যায়।৷ রূপসা উপজেলা কৃষি অফিসার জনাব মোঃ ফরিদুজ্জামান জানান, ক্ষতিকর পোকামাকড় বিশেষ করে বিপিএইচ বা কারেন্ট পোকা যাতে রোপা আমন ধানের ক্ষতি সাধন করতে না পারে সেজন্য এই উপজেলার ১৫টি ব্লকে একযোগে প্রতি বুধবার সন্ধ্যায় আলোক ফাঁদ স্থাপনের এই কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে এবং ধান পাকা পর্যন্ত তা চলবে। এ আলোক ফাঁদে উক্ত এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ প্রায় অর্ধশতাধিক কৃষক উপস্থিত ছিলেন।