বটিয়াঘাটায় সচেতনতা মূলক উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বটিয়াঘাটা উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে মঙ্গলবার বেলা ৩ টায় সুরখালী ইউনিয়নের গাওঘরা গ্ৰামের হাবিবুর রহমানের বাড়িতে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ এবং তৃনমুল পর্যায়ে মাস্ক ব্যবহারে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে এক উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় । মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হাসি রাণী রায় এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উঠান বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম । বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান চঞ্চলা মন্ডল, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাদী সরদার, উপজেলা প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ মোঃ মনিরুজ্জামান । অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য বিএম মাসুদ রানা, মোঃ নাজমুল সাকিব, মোঃ কামাল হাওলাদার, মোঃ বাবুল শেখ, মিসেস সাহারা রফিক,রুনা লায়লা, মুক্তিযোদ্ধা বৃহস্পতি রায় । ইউপি সচিব ধীমান মল্লিক, বুলবুল হোসেন বিপ্লব, জিয়াউর রহমান ।

মানবিক বাংলাদেশ সোসাইটি’র ইউনিয়ন কমিটি গঠন

দাকোপ প্রতিনিধি : সামাজিক সংগঠন মানবিক বাংলাদেশ সোসাইটির সুতারখালী ইউনিয়নে ১১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।
সংগঠনটির দাকোপ উপজেলা শাখার আহবায়ক শেখ জাহিদুর রহমান মিল্টন এবং যুগ্ম আহবায়ক গাজী নাজমুল হাসান স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়েছে দাকোপ উপজেলার ৫ নং সুতারখালী ইউনিয়নে উজ্জল ঢালীকে আহবায়ক, মাহমুদুল হাসান বাবুকে যুগ্ম আহবায়ক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট ইউনিয়ন আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন হাসানুর জামান মাসুদ, রাজিব সানা, অমিত হাসান রিয়াদ, সানজিদা সুলতানা আখি, মেহেদী হাসান শাকিল, তানজিল রাতুল, ফয়সাল মোল্যা, বাবু ফকির, জিয়াউর আহম্মেদ।

চট্টগ্রাম ডিএনসি’র পৃথক অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি)’র পৃথক মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে গাজা ও ইয়াবাসহ মোট ১৮ জনকে আটক করেছেন। এদের মধ্যে ১৬ জনকে ভ্রম্যামান আদালতের মাধামে  বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ও অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। ভ্রম্যামান আদালত পরিচালনা করেন বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট গালিব চৌধুরী। এছাড়া বাকি দুই জন মাদক ব্যবসায়ী মোঃ আয়াজ (১৮) এবং মাঃ আমান উল্লাহ (২২) বিরুদ্ধে মাদকের আইনে মামলা দায়ের করা হয়। অভিযানের সময় ৩ কেজি ২শ গ্রাম গাজা ও ২ হাজার ১৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। বুধবার (১১ নভেম্বর ) চট্টগ্রাম বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করেন।
চট্টগ্রাম মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি)’র সূত্র মতে, বুধবার দিনব্যাপী মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মেট্রো কার্যালয়ের উপ পরিচালক মোঃ রাশেদুজ্জামান এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে সহকারী পরিচালক মোঃ এমদাদুল হক এর সমন্বয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট গালিব চৌধুরী  এর নেতৃত্বে চট্টগ্রাম মেট্রো কার্যালয়ের সকল সার্কেলর সমন্বয়ে মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ১৬ জন মাদক ব্যবসায়ী ও সেবন কারীকে গ্রেফতার করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৩ কেজি ২শ গ্রাম গাজা উদ্ধার করা হয়।  বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট গালিব চৌধুরী  ধৃত আসামীদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড ও অর্থ দন্ড প্রদান করেন। অপর দিকে পাঁচলাইশ সার্কেল পরিদর্শক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান গোপন সংবাদের ভিত্তিতে  সকালে কোতয়ালী ও চকবাজার থানাধীন  অভিযান পরিচালনা করে মোঃ ইউসুফ এর পুত্র মোঃ আয়াজ কে ১ হাজার ৬৫০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে কোতোয়ালি  থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ অনুযায়ী  একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করেন। অপরদিকে অভিযানে মোজাহার এর পুত্র মোঃ আমান উল্লাহকে ৫শ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে পরিদর্শক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান  বাদী হয়ে  চকবাজার থানায় একটি নিয়মিত মামলা দায়ের করেন।

ফুলতলায় সন্ত্রাসী বাহিনী কর্তৃক ব্যবসায়ীর জমি দখলের চেষ্টায় থানায় অভিযোগ

ডেক্স রিপোর্টঃ ফুলতলায় একজন সাবেক মহিলা ইউপি সদস্যর বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে ব্যবসায়ীর জমি দখল, সাইনবোর্ড উপড়ে ফেলা ও নির্মান শ্রমিকদের মারপিট এবং জীবন নাশের হুমকী দেয়ায় ভুক্তভোগি স্বপন কুমার কর ফুলতলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। এ ঘটনা ঘটে মঙ্গলবার দুপুরে ফুলতলার দক্ষিণডিহি গ্রামে।

থানায় দায়েরকৃত অভিযোগে জানা যায়, দক্ষিণডিহি গ্রামের মৃতঃ বলাই চন্দ্র করের পুত্র ব্যবসায়ী স্বপন কুমার কর একই এলাকার মৃতঃ শংকর কুন্ডুর পুত্র দেবাশীষ কুন্ডুর নিকট থেকে গত ৭ জুলাই ২০২০ইং তারিখ ফুলতলা সাব রেজিষ্টার অফিসে ৮৪৩নং দলিলে উপজেলার তরতিবপুর মৌজার ৩৯৪ খতিয়ানের ১৩৪ ও ১৩৫ নং দাগে ৬৩ শতাংশ জমি তিনি ও তার স্ত্রী লিপি করের নামে খরিদ ও কবলা গ্রহণ করেন। দাতা দেবাশীষ কুন্ডুর পৈত্রিক জমি সঠিক ও নিষ্কন্টক থাকায় গত ২৮ জুলাই ফুলতলা ভ‚মি অফিস থেকে গ্রহিতার নামে রিকর্ড সম্পন্ন, খাজনা প্রদান করা হয়। খরিদকৃত জমিতে বাউন্ডারী ওয়াল নির্মানের কাজ চলতে থাকে। গত মঙ্গলবার বেলা আনুমানিক দেড়টার দিকে দামোদর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সাবেক মহিলা ইউপি সদস্য এবং তার ভাইয়ের নেতৃত্বে ৪/৫ জন দুর্বৃত্ত ঐ জমিতে গিয়ে জমি দখলের উদ্দেশ্যে সাইনবোর্ড উপড়ে ফেলে গালিগালাজ, নির্মান শ্রমিকদের মারপিট ও হত্যার হুমকী প্রদান করে। এ সময় ইলিয়াজ (৪০), পিপুল (৪২) ও ইমরুল (৫০) তাদের হামলায় আহত হন। থানার এসআই শরিফুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

দাকোপে মাঠ দিবসের অনুষ্ঠানে ধান গভেষনার মহাপরিচালক

উপকুলিয় অঞ্চলে ব্রী ৭৬ ও ৮৭ জাতের ধান চাষে ফলন কয়েক গুন বেশী পাওয়া যাচ্ছে

দাকোপ প্রতিনিধি : দেশের উপকুলিয় এলাকা গুলোতে বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। লবনাক্ত এ সব উপকুলিয় অঞ্চলে ধানের উৎপাদন বাড়াতে গতানুগতিক আমন চাষের বাইরে এসে আমাদের গভেষনায় তৈরী করা উন্নত জাতের ব্রী ৭৬ এবং ব্রী ৮৭ জাতের ধান চাষে ফলন যেমন কয়েক গুন বেশী পাওয়া যাচ্ছে, তেমনি অল্প সময়ের ব্যবধানে কৃষকরা এ ধান ঘরে তুলতে পারছে। বর্তমান সরকারের যে উদ্দেশ্য দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ন করা সেই লক্ষ্য পূরনে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি।
বুধবার সকালে খুলনার দাকোপ উপজেলার পানখালী গ্রামে ফসলের নিবিড়তা বৃদ্ধিকরন প্রকল্পের উদ্যোগে আয়োজিত মাঠ দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশ ধান গভেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মোঃ শাহজাহান কবীর এ কথা বলেন। স্থানীয় মমতাজ বেগম মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে ব্রী’র সেচ ও পানি ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মোঃ মনিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের খুলনার অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ কাজী আঃ মান্নান, উপপরিচালক মোঃ হাফিজুর রহমান, দাকোপ উপজেলা চেয়ারম্যান মুনসুর আলী খান, চালনা পৌরসভার মেয়র সনত কুমার বিশ্বাস, পানখালী ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল কাদের। বক্তৃতা করেন ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ, কৃষক প্রতিনিধি মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক, সুরঞ্জন সরদার, দাকোপের সফল কৃষক অখিল হালদার, হরিদাস বর্মন প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন প্রকল্পের সিনিয়র গভেষণা কর্মকর্তা বেলাল হোসেন এবং সমন্বয় করেন ব্রী’র দাকোপের সহকারী কর্মকর্তা মোঃ শরিফুল ইসলাম। উল্লেখ্য ফসলের উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি কল্পে এসিআইএআর, অষ্ট্রেলিয়া এবং কেজিএফ বাংলাদেশের অর্থায়নে সিএসআইআরও এবং মারডক বিশ্ববিদ্যালয় অষ্ট্রেলিয়ার তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ ধান গভেষণা ইনিস্টিটিউট বাংলাদেশ ও ভারতের উপকুলিয় এলাকায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। এর আগে তারা সরাসরি মাঠে গিয়ে ধান কাটার উদ্বোধন এবং ফসলের মাঠ ঘুরে দেখেন।