কেশবপুরে  নিজ তুলার গোডাউনে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি  : কেশবপুরে ঋণের টাকা পরিশোধে ব্যার্থ হয়ে নিজ তুলার গোডাউনে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ভবন মালিক ভাড়াটিয়ার নিকট ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবী করেছেন।

কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের মৃত গেদুউর রহমানের পূত্র বাবুল হোসেন তাঁর কেশবপুর শহরের মেইন সড়কের বাবুল বেডিং নামক দ্বিতল ভবনটি অভয়নগর উপজেলার বেদভিটা গ্রামের মৃত লুৎফর রহমানের পূত্র মহসীন খানের নিকট ৭ বছর পূর্বে ভাড়া প্রদান করেন। মুহসীন খান নীচতলায় বেডিং ব্যবসা ও উপরের তলায় বিদ্যুত সংযোগ না থাকায় গুদাম ঘর হিসাবে ব্যবহার করে আসছে। বিভিন্ন সময়ে মুহসীন ব্যবসায়ীক প্রয়োজনে বিভিন্ন ব্যাংক ও এনজিও থেকে ঋণ গ্রহণ করে দিশেহারা হয়ে পড়েন। তিনি ঋণের টাকা পরিশেধে ব্যার্থ হয়ে উপায়ান্ত না পেয়ে ব্যাংক ও এনজিওর টাকা মওকুফ করার জন্য পরিকল্পিতভাবে গত ১২ ফেব্রুয়ারী সকাল সাড়ে ৯ টায় নিজে তুলার গোডাউনে আগুণ ধরাইয়া দিলে উক্ত ভবনটির ছাদ ও দেয়াল পুড়ে যায়। যার ফলেভবনটির ১৫ লাখ টাকার ক্ষতি সাধিত হয়। এব্যাপারে ভবন মালিক বাবুল হোসেন ভাড়াটিয়া মুহাসীন খানের নিকট থেকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতি পূরণ আদায়ের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকল লিখেত অভিযোগ করেছেন। এব্যাপরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিজনূর রহমান এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পেয়েছেন বলে জানান। অপরদিকে ভাড়াটিয়া মুহাসীন খান ঋণের টাকা পরিশোধে ব্যার্থ হয়ে নিজ তুলার গোডাউনে অগ্নিসংযোগের বিষয়টি অস্বিকার করে বলেন, ফাস্ট সিকিউরিটি ব্যাংকে তার একটি ছোট লোন ছাড়া আর কোথাও কোন লোন নাই।  ২য় তলায় একটি বাল্বের সংযোগ থেকে বৈদ্যুতিক সর্ক সর্কিটে অগ্নিকান্ড ঘটছে এবং তার প্রায় ৬/৭ লাখ টাকার তুলা পুড়ে গেছে।

আপনার মতামত জানানঃ