পরিবেশ খাতে বিশেষ ভূমিকা রাখায় “গ্রীনম্যান অ্যাওয়ার্ড” পেলেন ফুলতলার মাহাদী সেকেন্দার

তাপস কুমার বিশ্বাস, ফুলতলা (খুলনা) // পরিবেশ খাতে বেসরকারিভাবে জাতীয় পুরস্কার “গ্রীনম্যান অ্যাওয়ার্ড” প্রদান করে আসছে পরিবেশবাদী সংগঠন সবুজ আন্দোলন। এ বছর পরিবেশ খাতে গবেষণা ও জনসচেতনতা তৈরিতে বিশেষ ভূমিকা রাখায় ১ সেপ্টেম্বর বুধবার সকাল ১০ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে রাষ্ট্রের ৮ বিশিষ্ট নাগরিককে সবুজ আন্দোলনের পক্ষ থেকে “গ্রীনম্যান অ্যাওয়ার্ড” প্রদান করা হয়।

পরিবেশ গবেষণা ও জনসচেতনতায় বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখায় মোঃ সাঈদ মাহাদী সেকেন্দার এবারের গ্রীনম্যান অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনিত হয়েছেন।সাম্প্রতিক সময়ে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে “করোনাকালীন সময়ে পরিবেশগত অবস্থা:একটি নৈতিক বিশ্লেষণ “এ শিরোনামে গবেষণা প্রবন্ধ বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্রফেশনান স্টাডিজ এর জার্নালে প্রকাশ করেন মাহাদী সেকেন্দার এবং তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় রোভার স্কাউট গ্রুপের সাবেক এসআরএম ও রোভার ইন কাউন্সিলের যুগ্ন-সাধরণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করায় পরিবেশ সচেতনতায় বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়ে প্রশংসিত হন। এছাড়া তিনি নিয়মিত বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে পরিবেশ নিয়ে কলাম লিখে থাকেন। মাহাদী সেকেন্দার দৈনিক অধিকারের ফিচার সম্পাদক হিসেবে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে পরিবেশ নিয়ে একাধিক প্রতিবেদন ও ফিচার করেছেন তার স্বীকৃতিস্বরূপ তার এ অর্জন।

জাতীয় পর্যায়ে তার এমন অর্জন প্রসঙ্গে মাহাদী সেকেন্দার বলেন, আমি মনে করি মানুষের পরিবেশের স্বতঃমূল্য নিশ্চিত করতে ভূমিকা রাখতে হবে। পরিবেশের স্বতঃমূল্য নিশ্চিত হলে সুন্দর বসবাসযোগ্য পৃথিবীতে আমাদের বসবাস হবে প্রাণবন্ত। সবুজ আন্দোলন পরিবারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি আমাকে মনোনীত করায়। আগামী দিনে পরিবেশ নিয়ে আরও বেশি কাজ করতে নিশ্চয় এ অর্জন আমাকে অনুপ্রেরণা যোগাবে। এ বছর “গ্রীনম্যান অ্যাওয়ার্ড” প্রাপ্ত অন্যরা হলেন, গাছের প্রজনন বৃদ্ধি ও মৃত্তিকা গবেষণায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ জসীম উদ্দীন, বায়ু দূষণ ও পরিবেশ সচেতনতায় প্রথম আলোর সিনিয়র রিপোর্টার গোলাম ইফতেখার মাহমুদ, নদী গবেষণা ও ঢাকা সিটির পরিবেশ সচেতনতায় রিভার এন্ড ডেল্টা রিসার্চ সেন্টার’র চেয়ারম্যান মোহাম্মদ এজাজ, সাংবাদিকতার মাধ্যমে পরিবেশ বিপর্যয় নিয়ে জনসচেতনতা তৈরিতে চ্যানেল ২৪ এর সিনিয়র রিপোর্টার মাকসুদ-উন-নবী, পরিবেশ সংক্রান্ত দুর্নীতি রিপোর্ট প্রকাশ ও পরিবেশ সচেতনতায় বাংলা ট্রিবিউনের সিনিয়র রিপোর্টার শাহেদ শফিক, ঢাকা সিটির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের জীবন বৃত্তান্ত গণমাধ্যমে তুলে ধরায় বাংলা টিভি স্টাফ রিপোর্টার মোঃ শাহারিয়ার আল মামুন, গবেষণাধর্মী প্রতিবেদন ও পরিবেশ সচেতনতায় মোহনা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার ঊষা ফেরদৌস।

উল্লেখ্য, খুলনা জেলার ফুলতালা উপজেলার গাড়াখোলা গ্রামে বেড়েওঠা সাঈদ মাহাদী সেকেন্দার স্কুল জীবন থেকেই সহ শিক্ষা কার্যক্রমে সক্রিয় ছিলেন,অর্জন ও রয়েছে কম নয়। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য- স্কুল পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ বক্তা,বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় খুলনা জেলায় দ্বিতীয় স্থান, উপস্থিত বক্তৃতায় খুলনা বিভাগে প্রথম স্থান।বাংলাদেশ স্কাউট কতৃক আয়োজিত ৭ মার্চের ভাষণ এর উপর নির্ধারিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্ব করে জাতীয় পর্যায়ে অর্জন করেন দ্বিতীয় স্থান। কয়েকবার একক অভিনয়ে সেরা হওয়া ছাড়াও লেখালেখি এবং সাংস্কৃতিক কার্যক্রমে রয়েছে তার উল্লেখযোগ্য একাধিক অর্জন।

মাহাদী সেকেন্দার সরকারী খুলনা মডেল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এসএসসিতে যশোর বোর্ড মেধাবৃত্তি বৃওি এবং নটর ডেম কলেজ থেকে এইচএসসিতে ঢাকা বোর্ড মেধাবৃত্তি লাভ করেন।তিনি মেধার স্বাক্ষর রেখে তারই ধারাবাহিকতায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগ থেকে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অর্জন করেন।

আপনার মতামত জানানঃ