ভ্যাট প্রত্যাহার হয়েছে, তবুও কমেনি ভোজ্যতেলের দাম

ঢাকা অফিস :

নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের ঊর্ধ্বমুখী বাজারে অতিষ্ঠ সাধারণ জনগণ। বিশেষ করে ভৈজ্যতেলের। তাই ভোজ্যতেল, বিশেষত সয়াবিন তেলের দাম নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার শেষ নেই। এই ভৈজ্যতেরে দাম কমিয়ে কিছুটা হলেও ক্রেতার নাগালে নিয়ে আসার জন্য আমদানির ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহার করেছে সরকার। কিন্তু এখনো বাজার থেকে সেই আগের দামেই সয়াবিন তেল কিনতে হচ্ছে ভোক্তাকে। অবশ্য কিছুটা দাম কমেছে পাঁচ লিটারের বোতলে।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর কিছু বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ১ লিটারের সয়াবিন তেলের বোতল বিক্রি হচ্ছে ১৬৮ টাকায়। তবে ৫ লিটারের বোতলে ৫ থেকে ১০ টাকা কমেছে। আগে ৫ লিটারের বোতল বিক্রি হতো ৮০০ টাকা দরে। এখন বিক্রি হচ্ছে ৭৯০-৯৫ টাকায়। ক্ষুব্ধ ক্রেতারা বলছেন, শুধু আমদানি শুল্ক কমালেই হবে না, বাজার মনিটরিংও বিশেষ প্রয়োজন।

ভোজ্যতেলের দাম বাড়ার অব্যাহত সমালোচনার পর দিনকয়েক আগে সয়াবিন ও পাম তেলের আমদানি পর্যায়ে ১৫ শতাংশ ভ্যাট কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে। এরপরও দামের তেমন কোনো হেরফের নেই। মিরপুর-১১ নম্বর বাজারের তেল বিক্রেতা মো. জাবেদ বলেন, আমরা আগের তেলগুলোই বিক্রি করছি, সুতরাং দাম কমানোর কোনো সুযোগ নেই।

তিনি আরও বলেন, আমি যে দামে কিনেছি, ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে হলে আমাকে তারচেয়ে কিছুটা বেশি দামে বিক্রি করতে হবেই। এরপর যদি নতুন দামে অর্থাৎ বর্তমানের চেয়ে কম দামে কিনতে পারি, তাহলে আমিও ক্রেতাকে কম দামে দিতে পারবো।