শরণখোলায় ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগে শিক্ষক গ্রেপ্তার

শরণখোলা প্রতিনিধি : বাগেরহাটের শরণখোলায় পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে (১১) যৌন হয়রানীর অভিযোগে শহিদুল হাওলাদার (৪৫) নামে এক প্রধান শিক্ষক নামে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার (৮জুন) সকালে ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। পরে ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।
উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের বগী-চালিতাবুনিয়া গ্রামের মৃত আ. কাদের হাওলাদারের ছেলে অভিযুক্ত শহিদুল হাওলাদার ওই ইউনিয়নের ৪৭নম্বর শরণখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পদে কর্মরত। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৩জুন সকাল পৌনে ১০টার দিকে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের অফিস কক্ষে।
ভিকটিমের বাড়িও একই ইউনিয়নের সোনাতলা গ্রামে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ঘটনারদিন সকালে ফোন করে প্রধান শিক্ষক শহিদুল হাওলাদার পঞ্চম শ্রেণির রেজিষ্ট্রেশনের জন্য জন্ম নিবন্ধন সনদ ও মা-বাবার জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি নিয়ে স্কুলে যেতে বলেন ছাত্রীকে। তখন ওই ছাত্রী কাগজপত্র নিয়ে বিদ্যালয়ে গেলে প্রধান শিক্ষক তার কক্ষে বসে মেয়েটিকে একা পেয়ে যৌন হয়রানী করেন। পরে মেয়েটি বাড়িতে গিয়ে ঘটনাটি তার মা-বাবাকে জানায়।
এর পর অভিযুক্ত শিক্ষকের পরিবার বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা করে। কিন্তু ভিকটিমের পরিবার তাতে রাজি না হওয়ায় ঘটনার পাঁচদিন পর মামলা দায়ের হয়।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শরণখোলা থানার উপপরিদর্শক স্বপন কুমার সরকার জানান, যৌন হয়রানীর অভিযোগে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ২০০০ (সংশোধনী ২০০৩) সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে।
শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইদুর রহমান জানান, অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক শহিদুল হাওলাদারকে প্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এছাড়া, জবানবন্দির জন্য আভিকটিমকেও জেলা ম্যাজিষ্ট্রেটের আদালতে পঠানো হয়েছে।

আপনার মতামত জানানঃ