বটিয়াঘাটায় জি গ্যাস সিলিন্ডার ভর্তি ট্রাক উেল্টে খাদে

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : খুলনা- চালনা সড়কের বটিয়াঘাটার প্রেমকানন রোড় সংলগ্ন এলাকায় আজ শনিবার দুপুর ১২টায় জি গ্যাস কোম্পানির সিলিন্ডার ভর্তি লোডবাহী একটি ট্রাক নির্মিতব্য কালভার্টের বাইপাস সড়কের কাঁচা রাস্তায় বসে গিয়ে উল্টে গেছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী সূত্রে প্রকাশ, চালনা থেকে জি গ্যাস কোম্পানির ঢাকা মেট্রো ট ১৩৫৫৯৬ নাম্বারের ট্রাকটি গ্যাস সিলিন্ডার ভরে খুলনা যাওয়ার পথে বটিয়াঘাটা উপজেলার প্রেম কানন নামক স্থানে নির্মানাধীন কালভার্টের অস্থায়ী রাস্তা অতিক্রমের সময় মাত্রাতিরিক্ত লোডবাহী ট্রাকটি সম্পূর্ন উল্টে যায়। এ সময় ট্রাকে থাকা ট্রাক চালক সিটের কাঁচ ভেঙ্গে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হলেও শরীরের বিভিন্ন অংশ কেঁটে নীলাফোঁলা জখম হয়।তবে সিলিন্ডারের বিস্ফোরণের কোন ঘটনা ঘটেনি। বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা ছিলো বলে তাঁরা জানায়।এলাকাবাসী আরও জানায়, দীর্ঘদিন যাবৎ উক্ত রুটে সড়কটি হাইওয়ে রোডে রুপান্তরিত না হওয়া স্বত্বেও সড়কটির উপর দিয়ে দশ থেকে ষোল চাকার মাত্রাতিরিক্ত লোডবাহী গাড়ি স্বজোরে টেনে যাওয়ায় মহানগরীর প্রবেশদ্বার দাকোপ- বটিয়াঘাটা দুই উপজেলার একমাত্র সড়ক যোগাযোগ মাধ্যম রুটটি ক্ষণে ক্ষণে বন্ধ হয়ে জনভোগান্তির সৃষ্টি হচ্ছে। বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখতে ও কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে এলাকাবাসী জরুরী ভিত্তিতে স্হানীয় প্রশাসন,সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী সহ আইনশৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

রোববারের পৌরসভা ভোট উৎসবমুখর হওয়ার আশাবাদ : ইসি সচিব

ঢাকা : আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি (রোববার) অনুষ্ঠেয় ২৯টি পৌরসভায় সাধারণ নির্বাচন ও চারটি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন উৎসমুখর পরিবেশে সম্পন্ন হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার।

তিনি বলেন, শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার জন্য সমস্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

আমরা আশা করি একটা ফ্রি, ফেয়ার, পার্টিসিপিটারি ও উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ইসি সচিব এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

হুমায়ুন কবীর বলেন, ‘যেখানেই কোনো ধরনের সমস্যা হচ্ছে। সেখানেই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। যেসব বিষয়গুলো আমরা জানতে পারছি, সেগুলো মাঠে আমাদের আইন-শৃঙ্খলায় দায়িত্বে যারা আছেন তাদের ব্যবস্থা নিতে বলে দিচ্ছি। ‘

তিনি বলেন, ‘নির্বাচনে সহিংসতায় মারা যাওয়া এটা অবশ্যই দুঃখজনক। তবে আমরা আশা করছি আগামী দিনে এ রকম ঘটনা আর না ঘটে। এটাই আমাদের আশা, এটাই আমাদের প্রত্যাশা। আমরা ওয়েট করি, দেখি। ‘

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে হুমায়ুন কবীর বলেন, ‘আপনারা জানেন আমাদের নীতিমালা অনুযায়ী কোথায় কতজন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হবে, কীভাবে হবে এটির একটি গাইড লাইন আছে। সেটা অনুযায়ী আমরা হোম মিনিস্ট্রিকে বলেছি। সেটা অনুযায়ী উনারা নিয়োগ দিয়েছেন। আমরা আশা করছি, আগামী নির্বাচন ভালো হবে। ‘

ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে আসার মতো পরিবেশ তৈরি করা গেছে কিনা জানতে চাইলে ইসি সচিব বলেন, ‘আমরা আশা করি সেই পরিবেশ তৈরি করা হয়ে গেছে। আমরা কিছুক্ষণ আগেও রিটার্নিং অফিসারদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা জানিয়েছেন যে সিচুয়েশন ভালো। যেহেতু আমরা এবার সব পৌরসভায় ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করছি সুতরাং ব্যালট পেপার ছেঁড়াছিড়ির কোনো বিষয় নেই। এবার ইভিএমের মাধ্যমে ভোট হবে। যার ভোট শুধু তিনি দিতে পারবেন। ‘

গত ১৯ জানুয়ারি পঞ্চম ধাপে নির্বাচনের জন্য ৩১ পৌরসভার তফসিল ঘোষণা করে ইসি। পরে অন্য ধাপ থেকে পঞ্চম ধাপে যুক্ত হয় সৈয়দপুর পৌরসভা। অপরদিকে উচ্চ আদালতের রায়ের কারণে যশোর পৌরসভার ভোট স্থগিত করা হয়। আইনি জটিলতায় শেষ মুহূর্তে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে ইসি। আর চট্টগ্রামের রাউজান পৌরসভায় মেয়র ও কাউন্সিলরসহ সব পদে প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পান। এ হিসেবে আগামী রোববার যে ২৯ পৌরসভায় ভোট হবে সেগুলো হলো- যশোরের কেশবপুর, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ ও মহেশপুর, চট্টগ্রামের মিরসরাই, বারইয়ারহাট ও রাঙ্গুনিয়া, কিশোরগঞ্জের ভৈরব, জামালপুর সদর, মাদারগঞ্জ ও ইসলামপুর, ময়মনসিংহের নান্দাইল, মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর, গাজীপুরের কালীগঞ্জ, রংপুরের হারাগাছ।

এছাড়া রাজশাহীর দুর্গাপুর ও চারঘাট, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল, বগুড়া সদর, জয়পুরহাট সদর, মাদারীপুর সদর ও শিবচর, ভোলা সদর ও চরফ্যাশন, হবিগঞ্জ সদর, চাঁদপুরের শাহরাস্তি ও মতলব, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, লক্ষ্মীপুরের রায়পুর ও রংপুরের সৈয়দপুর পৌরসভার সাধারণ নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হবে।

এসব পৌরসভায় ২৯১টি সাধারণ ওয়ার্ডে ১ হাজার ২৭০ জন, ৯৭টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৩৪২ জন ও ২৯টি মেয়র পদে ১০০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ৬২৫টি ভোটকেন্দ্রের ৪ হাজার ২২৯ ভোট কক্ষে ১৩ লাখ ৮৪ হাজার ১৬৫ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এরমধ্যে পুরুষ ৬ লাখ ৯৩ হাজার ৯০ ও নারী ভোটার ৭ লাখ ১১ হাজার ৮৫০ জন।

এদিন ঝিনাইদহের শৈলকুপা, ফরিদপুরের মধুখালী, রাজশাহীর পবা ও কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন হবে। আবার আগে অনুষ্ঠিত সাতটি পৌরসভায় বন্ধ ঘোষিত ভোটকেন্দ্রগুলোতে এবং মৃত্যুজনিত কারণে চট্টগ্রাম সিটির ৩১ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে, ঝিনাইদহের শৈলকুপা পৌরসভার ৮ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে, পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি পৌরসভার ৮ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ও সিরাজগঞ্জ পৌরসভর ৬ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদেও ভোট হবে এদিন। এর মধ্যে চট্টগ্রাম সিটির ওই ওয়ার্ড ও শৈলকুপায় ভোট হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)।

প্লাস্টিকের কাপে চা, ক‌্যানসারের ঝুঁকি বাড়ছে

ইউনিত ডেস্ক : সারাদেশে ফুটপাত থেকে শুরু করে পাড়ার ছোট-বড় চা-দোকান—সব জায়গায় বেড়েছে প্লাস্টিকের কাপের ব‌্যবহার। দোকানিরা কাচের কাপের পরিবর্তে গ্রাহকদের সামনে এগিয়ে দিচ্ছেন গরম চা-ভর্তি এসব কাপ। আর ব‌্যবহার শেষে সেগুলো ছুড়ে ফেলা হচ্ছে রাস্তা, ফুটপাত ও ড্রেনে। চিকিৎসকরা বলছেন, এসব কাপের কারণে স্বাস্থ‌্যহানি ঘটতে পারে, আছে ক‌্যানসারের ঝুঁকিও। আর পরিবেশবাদীরা বলছেন, প্লাস্টিকের কাপ ও পলিথিনে পরিবেশের ভারসাম‌্য নষ্ট হচ্ছে।

প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতে প্লাস্টিকমুক্ত দেশ গড়ার লক্ষ‌্যে ২০২০ সালের অক্টোবর থেকেই ছয়টি প্লাস্টিকজাত পণ্যের ব্যবহার ও আমদানি সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করার খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল। পাশাপাশি ২০২২ সালের মধ্যে প্লাস্টিকমুক্ত দেশ গড়ার পরিকল্পনাও করেছে দেশটি।

বিপরীতে বাংলাদেশে ওয়ান টাইম ব‌্যবহারের প্লাস্টিক জাতীয় পণ্যের জয়জয়কার। বিয়ে, জন্মদিনসহ যেকোনো অনুষ্ঠানে এসব পণ্যের অবাধ ব্যবহার বেড়েছে। আর ব্যবহারের পর সেগুলো ছুড়ে ফেলা হচ্ছে যেখানে-সেখানে। প্রায় দেড় যুগ আগে নিষিদ্ধ হলেও আজও এখনো পলিথিন দৈনন্দিন কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। পরন্তু বেড়েছে ওয়ান টাইম ব‌্যবহারের প্লাস্টিকের কাপ-প্লেট-গ্লাসও। আইন প্রয়োগের শিথিলতা ও পরিবেশ রক্ষার প্রতি চরম উদাসীনতাই এর প্রধান কারণ বলে মনে করছেন পরিবেশবাদীরা।

সচেতন মহল বলছে, পলিথিন ব্যাগ ও ওয়ান টাইম প্লাস্টিক পণ্যের পাশাপাশি করোনাকালে আরেকটি পণ্য ক্রমে স্বাস্থ্যের জন্য ভয়াবহ হুমকি হয়ে দাঁড়াচ্ছে। চা খাওয়ার ওয়ান টাইম প্লাস্টিক গ্লাস। করোনার ভয়ে কাচের কাপ নিতে চায় না অনেকেই। তারা প্লাস্টিক কাপে চা খেতে চান। বাধ্য হয়ে দোকানিও এসব গ্লাসে চা দেন। তাতে চায়ের দামের সঙ্গে গ্লাসের দাম এক টাকা যোগ করে দেন দোকানি।

প্লাস্টিকের অবাধ ব্যবহার প্রসঙ্গে গণমাধ্যমকর্মী গিয়াস আহমেদ বলেন, ‘প্লাস্টিক ক্ষতিকর জানার পরও আমরা ব্যবহার করছি। পরিবেশদূষণের তোয়াক্কা না করে ছুড়ে ফেলছি রাস্তায়, ড্রেনে, নদীতে, পার্কে, সাগরে। আমাদের উচিত, নিজে থেকেই এসবের ব্যবহার বন্ধ করে দেওয়া। অভ্যস্ত হতে হবে পাটের ব্যাগ, কাগজের ব্যাগ ব‌্যবহারে।’

প্লাস্টিকের গ্লাস প্রসঙ্গে কাকরাইলের চা-দোকানি মোতালেব মিয়া বলেন, ‘আমার দোকানে দুই ডজনের মতো কাচের কাপ আছে। কিন্তু কাস্টমাররা বেশিরভাগই প্লাস্টিকের কাপে চা চান। আমিও বাধ্য হয়ে দেই। এই কাপে চা খাওয়া শরীরের জন্য খারাপ, তারপরও কাস্টমার চাইলে কী করবো? কাস্টমারের চাহিদা মতো বাধ্য হয়ে প্লাস্টিকের কাপে চা দেই।’

ওয়ান টাইম প্লাস্টিক কাপসহ বিভিন্ন রকমের প্লাস্টিক পণ্য বিক্রেতা কারওয়ান বাজারের ভাই ভাই স্টোরের মালিক হানিফ বলেন, ‘প্লাস্টিকের বিভিন্ন আকারের ১০০ কাপের দাম ৫০ থেকে ৭০ টাকা। কাগজের কাপের ১০০ টির দাম ৯০ থেকে ১২০ টাকা। তবে প্লাস্টিকের কাপের চাহিদা বেশি। আর এসব প্লাস্টিক কাপের ক্রেতা চা-দোকানিরা।’

প্রতিদিন ৫-৭ হাজার প্লাস্টিক চায়ের কাপ বিক্রি করেন বলেও জানান হানিফ। তিনি বলেন, ‘মাঝে মাঝে মোবাইল কোর্ট এসে জরিমানা করেন।’

এই প্রসঙ্গে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের আবু নাসের খান বলেন, ‘ঢাকায় গড়ে প্রতিদিন পলিথিন ব্যবহারের পরিমাণ ২ কোটি পিস। এসব পলিথিন ব্যবহারের পর যাচ্ছে কোথায়? অধিকাংশই ফেলা হচ্ছে ড্রেনে। ফলে ড্রেনেজ সিস্টেমে মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। শিগগিরই পলিথিনের ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। আর এজন্য যারা পলিথিন উৎপাদনের সঙ্গে জড়িত, তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে। পলিথিনের উৎপাদন বন্ধ করতে হবে সম্পূর্ণভাবে।’

পরিবেশ অধিদপ্তর থেকে পলিথিনের ব্যবহার রোধে বহু উদ্যোগ নেওয়া হলেও তেমন সুফল আসেনি বলে জানালেন সংস্থাটির পরিচালক (প্রশাসন) ড. মো. মোকছেদ আলী। তিনি বলেন, ‘পলিথিন ও প্লাস্টিক পণ্য স্বাস্থ্য ও পরিবেশের জন্য মারাত্মক হুমকি। তবু দিন-দিন এর ব্যবহার বেড়েই চলছে। আমরা এসব কারখানার বিরুদ্ধে অভিযান চালাই। এরপরও নির্মূল করা যাচ্ছে না। কারণ মানুষের কাছে এসব পণ্যের চাহিদা বেশি। আর এই সুযোগটাই নিচ্ছেন কারখানা-মালিকরা।’

ড. মো. মোকছেদ আলী আরও বলেন, ‘২০০২ সালে পরিবেশ সংরক্ষণ আইনে পলিথিন উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সে আইনে বলা আছে, সরকার নির্ধারিত পলিথিন সামগ্রী উৎপাদন, আমদানি ও বাজারজাতকরণে প্রথম অপরাধের দায়ে অনধিক দুই বছরের কারাদণ্ড বা অনধিক দুই লাখ টাক অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা যাবে।’

এই কর্মকর্তা বলেন, ‘পরিবেশ সংরক্ষণ সংশোধিত ২০১০ সালের আইনের ৭(১) ধারায় বলা আছে, কোনো ব্যক্তির কারণে পরিবেশ বা প্রতিবেশের ক্ষতি হলে সেই ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে তা পরিশোধ করতে হবে। সংশোধনমূলক ব্যবস্থা নেওয়া বা উভয় ধরনের ব্যবস্থা নিতে হবে।’

প্লাস্টিক কাপে করে গরম চা শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক বলে জানালেন অধ্যাপক ডা. ফরহাদ মঞ্জুর। তিনি বলেন, ‘সাধারণত চা-দোকানে যে প্লাস্টিকের কাপ ব্যবহার করা হয়, সেগুলো ফুড গ্রেডেড নয়। ফলে এই কাপে চা পান করলে শরীরে বিভিন্ন রকমের ক্যামিক্যাল রি-অ্যাকশন হয়। পরবর্তী সময়ে যা ক্যান্সারে রূপ নেয়। তাই প্লাস্টিকের কাপে শুধু চা নয়, কোনো গরম খাবারই খাওয়া উচিত নয়।’

এই বিষয়ে প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান বলেন, ‘পরিবেশ বাঁচাতে পলিথিন-প্লাস্টিক বর্জনের বিকল্প নেই। নিজে সচেতন হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অন্যদেরও সচেতন হতে হবে। পলিথিন-প্লাস্টিক উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ কঠোর হাতে দমন করা গেলে এসবের ব্যবহার কমে আসবে। ’ এই ব্যাপারে বিদ‌্যমান আইনের কঠোর প্রয়োগেরও আহ্বান জানান তিনি।

দশম শ্রেণির শিক্ষাথীর গলা কেটে হত্যা করল ‌‍মা

রংপুর : রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলায় নিজের মেয়েকে গলা কেটে হত্যা করেছেন মা নুরনাহার বেগম।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার আমলি আদালত-৪ বিচারক আল-মেহবুবেব আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দেন তিনি।

এর আগে শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাত ৮টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে মাহবুবা আক্তার মেরি নামে দশম শ্রেণির এক শিক্ষাথীর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
মেরি একই উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের বুজরুক হাজিপুর এলাকার মেনহাজুল হকের মেয়ে এবং স্থানীয় ওয়ারেসিয়া দাখিল মাদরাসার শিক্ষার্থী ছিল।

মেরির বাবা মেনজাজুল হক স্থানীয় রামনাথপুর বি ইউ দাখিল মাদরাসার সুপারিটেনডেন্ট।

ঘটনার পর শনিবার সকালে মেনজাজুল হক ও নুরনাহারকে আটক করে পুলিশ। এরপর সকাল ১১টার দিকে মেরির চাচা জিয়াউর রহমান বদরগঞ্জ থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। পরে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন নুরনাহার।

আদালতের জিআরও আব্দুল লতিফ বাংলানিউজকে জানান, নুরনাহার আদালতে স্বীকার করেছেন, মেরি যখন এশার নামাজ পড়ছিল, তখন পেছন থেকে এসে গলায় ছুরির আঘাতে মেয়েকে খুন করেন তিনি।

মাগুরায় ছুরিকাঘাতে বৃদ্ধ নিহত

মাগুরা : মাগুরা শহরতলীর বরুনাতৈল পশ্চিমপাড়ায় ছুরিকাঘাতে আকামত মোল্লা (৬০) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে প্রতিবেশি এশা শেখ নামে এক যুবকের ছুরিকাঘাতে তিনি নিহত হন। নিহত আকামত মোল্লা বরুনাতৈল গ্রামের মৃত মোবারক মোল্লার ছেলে। তিনি মাগুরা পুরাতন বাজারে শ্রমিকের কাজ করতেন। নিহতের ছেলে নাসিরুল হোসেন মোল্লা জানান, সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে তার বাবা বাড়ির সামনে আলাউদ্দিনের দোকানে চা খেতে যান। এ সময় প্রতিবেশি জালাল শেখের ছেলে এশা শেখ হঠাৎ করে সেখানে উপস্থিত হয়। এরপর তার বাবা আকামতের বুকের ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে উপস্থিত লোকজন তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মাগুরা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নাসিরুল আরো জানান, তার বাবা কিংবা তাদের পরিবারের কারোর সাথে এশা নামে ওই যুবকের বা এলাকাবাসীর কোন পূর্ব বিরোধ নেই। কিন্তু কি কারণে তার বাবাকে নির্মমভবে হত্যা করা হলো তারা তা জানেন না। মাগুরা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে জরুরী বিভাগে চিকিৎসক আরিফুর রহমান জানান, হাসাপাতালে আনার আগেই আকামত মারা যান। নিহতের বুকের বাম পাশে ধারালো অস্ত্রের একাধিক কোপের চিহ্ন রয়েছে। মাগুরা সদর থানার ওসি জয়নাল আবেদিন জানান, পুলিশ সুপারসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। অভিযুক্তকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

নাইজেরিয়ায় ৩ শতাধিক স্কুলছাত্রী নিখোঁজ

আন্তর্জাতিক : উত্তর-পশ্চিম নাইজেরিয়ার একটি স্কুল থেকে তিন শতাধিক স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করেছে অজ্ঞাতপরিচয় বন্দুকধারীরা।
শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিবিসি জানায়, পুলিশের ধারণা, শুক্রবার সকালে জামফারা রাজ্যের জাঙ্গেবে শহরের ওই বোর্ডিং স্কুল থেকে মেয়েদের অপহরণ করার পর বন্দুকধারীরা তাদের একটি বনে নিয়ে গেছে।

সম্প্রতি কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এবারই সবচেয়ে বেশি স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করা হয়েছে। মুক্তিপণ পাওয়ার জন্যই দুর্বৃত্তরা এই ঘৃণ্য কাজ করছে বলে বিবিসির খবরে বলা হয়েছে।

এদিকে, দেশটির রাষ্ট্রপতি মুহাম্মদু বুহারি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান । তিনি বলেন , নির্দোষ স্কুলছাত্রীদের টাকার জন‌্য অপহরণ করা খুবই অমানবিক ও অপ্রীতিকর একটা কাজ। এভাবে ছাত্রীদের ব্ল‌্যাকমেইল করলেই ডাকাতরা ছাড় পেয়ে যাবে না। তাদের বিরুদ্ধে জরুরিভাবে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে নাইজেরিয়ার নাইজার রাজ্য থেকে ২৭ জন শিক্ষার্থীকে অপহরণ করা হয়েছিল। এখনো তাদের মুক্তি মেলেনি। ২০১৪ সালে নাইজেরিয়ার চিবক শহরের উত্তর-পূর্বে বোকো হারাম ২৭৬ জন স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করেছিল।

চৌগাছায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দিন মজুরের মৃত্যু

যশোর : যশোরের চৌগাছায় গাছ কাটতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে বাবু মন্ডল (৩২) নামে এক দিন মজুরের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে সিংহঝুলী ইউনিয়নের মাঝালি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। মৃত বাবু মন্ডল উপজেলার ঝাউতলা পূর্বপাড়ার আব্দুস শুকুর মন্ডলের ছেলে। স্থানীয়রা জানান, বাবু মন্ডল দিন মজুর ভিত্তিতে অন্যদের সাথে গাছ কাটার কাজ করতেন। প্রতিদিনের ন্যায় শুক্রবার তিনি পার্শ্ববর্তী মাঝালী গ্রামের কামাল হোসেন নামে এক ব্যক্তির গাছ কাটতে যান। সেখানে গাছ কাটতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। সহকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার নিশাত তারান্নুম তনু বলেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই বাবু মন্ডলের মৃত্যু হয়েছে। চৌগাছা থানার ওসি (তদন্ত) গোলাম কিবরিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দুপুরে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হবে।

সাতক্ষীরায় কলেজ শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরা নিজের অমতে বিয়ে দেওয়ায় আত্মহত্যা করেছেন নবনীতা মন্ডল নামের এক শিক্ষার্থী। নবমিতা মন্ডল(২০)সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ধুলিহর ইউনিয়নে তেঁতুলডাঙ্গা গ্রামের স্বরজিত মন্ডলের কন্যা ও সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের এইচএসসি ১ম বর্ষের ছাত্রী। গত ২৬ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার গভীর রাতে পরিবারের চোখ ফাঁকি দিয়ে ঘরের আড়ার সাথে গলাই ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যার করে নবমিতা।

জানা গেছে, খুলনা জেলার কয়রা থানার শ্রীহমিতলা গ্রামের হিরময় বর্মার পুত্র পরিমল বর্মার সাথে কিছু দিন আগে নবমিতার পরিবারের লোকজন কোট রেজিস্ট্রী করে বিয়ে দেন। শ্বশুর বাড়ির লোকজন আগামী ইং( ১লা মার্চ) সোমবার তাকে বাড়িতে তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। কিন্তু তার আগে নববধূ নবমিতা মন্ডল পরিবারের উপর অভিমান করে শুক্রবার গভীর রাতে সকলের অগোচরে ঘরের আড়ার সাথে ওড়না পেঁচিয়ে নিজে আত্মহত্যার পথ বেচে নেয় ।

এ ব্যাপারে স্বামী পরিমল বর্মা জানান, বিয়ের পর থেকে সে আমার সাথে কোন যোগাযোগ করতো না। আমি মোবাইলে ম্যাসেজ বা রিং দিলে কোন উত্তর দিতো না। আমাকে এড়িয়ে চলতো।

এ ব্যাপারে ব্রহ্মরাজপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শরিয়াতুল্লাহ জানান, তার সাথে কারও প্রেমের সম্পর্কে ছিলো বলে মনে হয়। কেননা নবমিতা মন্লেডর ঘর থেকে তার হাতের লেখা কয়েক খন্ডের একটি চিরকুট ইটের ফাঁকে পাওয়া গেছে। একাধিক টুকরো থাকার কারণে সবটুকু ভাল ভাবে বুঝা না গেলোও রুদ্র নামে একটি কথা খুবই স্পষ্টভাবে লেখা ছিলো।

একাধিক সূত্র জানায়, কলেজ ছাত্রীর অমতে পরিবারের লোকজন বিয়ে দেওয়ায় এমন আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।
এ ঘটনায় সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি আসাদুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন ধুলিহর ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাবু, ইউপি সদস্য বিপ্লব বিশ্বাস,আনিছুর রহমান, ইউপি সদস্যা আনঞ্জুয়ারা বেগম প্রমুখ। পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় লাশ দাহ করার অনুমতি দেওয়া হয় বলে থানা সুত্রে জানা যায়।

কারিগরি শিক্ষা বস্তির শিশুদের ঝরে পড়া রোধের মোক্ষম হাতিয়ার : প্রতিমন্ত্রী

ইউনিক প্রতিনিধি : প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো: জাকির হোসেন বলেছেন, বস্তির সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষার মূল ধারায় আনতে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই। কারিগরি শিক্ষার মাধ্যমে দক্ষ হয়ে আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ পেলে ঝরে পড়ার হার অনেক কমে যাবে। তিনি বৃহস্পতিবার রাতে নগরীর একটি অভিজাত হোটেলে খুলনায় আরবান স্লাম চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রামের সমাপনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তৃতায় বলেন, সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) কে সামনে রেখে সরকার শতভাগ অন্তর্ভূক্তিমূলক এবং মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে নানমুখী কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই পৌঁছে যাচ্ছে, উপবৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। একইসাথে গ্রামীণ ও শহরের বস্তি এলাকায় অতি দরিদ্র পরিবারের শিশুরা যেন শিক্ষা কার্যক্রম থেকে ঝরে না পড়ে সেজন্য রিচিং আউট অব-স্কুল চিলড্রেন (রস্ক) প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এই রস্ক প্রকল্পের আওতায় গ্রামীণ পর্যারে ১৪৮টি উপজেলায় আনন্দ স্কুল কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে প্রায় সাত লক্ষ শিশুকে এবং ১০টি সিটি কর্পোরেশনের বস্তি এলাকায় ১, ৫২৮টি আনন্দ স্কুলের মাধ্যমে ৪৬, ৫৪৭ জন শিশুকে প্রাথমিক শিক্ষার আওতায় আনা হয়েছে। এটি প্রকল্পের অন্যতম সাফল্য। তিনি এই প্রকল্প চলমান রাখার মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের শিক্ষা নিশ্চিত করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোঃ সাদিকুর রহমান খান, খুলনা বিভাগীয় প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের উপপরিচাক মাহবুব এলাহী, সেভ দ্যা চিলড্রেনের ডেপুটি কান্ট্রি ডিরেক্টর বন্দনা রিসাল। এতে সভাপতিত্ব করেন রস্ক ফেইজ-২ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো: মাহবুব হাসান শাহীন।

বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে খুলনা প্রেসক্লাবের শ্রদ্ধা নিবেদন

ইউনিক প্রতিনিধি : খুলনা প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী কমিটির পক্ষ থেকে শুক্রবার সকালে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়। এ সময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তাঁর সহধর্মিনী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে ঘাতকের গুলিতে নৃশংসভাবে নিহত পরিবারের সদস্য ও নিহত সকলের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাসহ তাঁর পরিবারের জীবিত সকল সদস্যদের দীর্ঘায়ু ও মঙ্গল কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, খুলনা প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত সভাপতি এস এম জাহিদ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক হাসান আহমেদ মোল্লা, ক্লাবের সাবেক সভাপতি আহমদ আলী খান, এ কে হিরু ও শেখ আবু হাসান, সাবেক সভাপতি ও নির্বাহী সদস্য এস এম নজরুল ইসলাম, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, সহ-সভাপতি মোঃ তরিকুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও নির্বাহী সদস্য মামুন রেজা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মল্লিক সুধাংশু, কোষাধ্যক্ষ বিমল সাহা, সহকারী সম্পাদক মোঃ মাকসুদুর রহমান (মাকসুদ), এস এম নূর হাসান জনি ও মাহবুবুর রহমান মুন্না, নির্বাহী সদস্য মো: হাবিবুর রহমান, মোঃ মোজাম্মেল হক হাওলাদার, মোঃ আনিসউদ্দিন, শেখ মাহমুদ হাসান সোহেল ও মো: আমিরুল ইসলাম, সদস্য মুহাম্মদ আবু তৈয়ব, খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটের সভাপতি সুনিল দাস প্রমুখ।