পরীক্ষামূলক ভাবে ১২-১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের করোনা টিকা দেয়া শুরু

ইউনিক প্রতিবেদক: ১৪ অক্টোবর, আজ বৃহস্পতিবার, সকাল থেকে শুরু হয়েছে ১২-১৭ বছরের শিশু-কিশোরদের পরীক্ষামূলকভাবে করোনার টিকাদান কর্মসূচী। এই কর্মসূচি উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তার নিজ নির্বাচনী এলাকা মানিকগঞ্জ থেকে টেস্ট রান হিসেবে দুটি স্কুলের শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া হয়।

শিক্ষার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে উৎপাদিত ভালো মানের টিকা দেয়া হবে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশের শিশুদের এই টিকা দেয়া হচ্ছে। এটি খুবই নিরাপদ, শিশুদের নিরাপদে রাখতে চাই আমরা। সেজন্যই শিশুদের টিকাদানের আওতায় আনা হচ্ছে।

প্রথম দিনেই মানিকগঞ্জের ৪টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১২০ শিক্ষার্থীকে ফাইজারের টিকা দেয়া হয় আজ। টিকা নেয়ার পর তাদের শরীরে কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায় কিনা, সেটি পর্যবেক্ষণ করা হয়। এ জন্য টিকা দেয়ার পর শিশুদের ঘণ্টাখানেক পৃথক একটি কক্ষে থাকতে হয়।

এরপর দেশের ২১টি স্থানে শিশুদের টিকা দেয়া হবে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ঢাকায় বিশাল অনুষ্ঠান করে কর্মসূচি শুরুর ঘোষণা দেয়া হবে। দেশে থাকা এক কোটির বেশি শিশুকে পর্যায়ক্রমে টিকা দেয়া হবে। বর্তমানে সরকারের হাতে যে ৬০ লাখ টিকা রয়েছে, তা ৩০ লাখ শিশুকে দেয়া যাবে।

প্রায় ৫ কোটি ডোজ টিকা দেয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আগামী জানুয়ারির মধ্যে ৫০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেয়া যাবে। টিকা পেলে এপ্রিলের মধ্যে ৭০-৮০ শতাংশ মানুষকে টিকা প্রয়োগ করা হবে। পর্যায়ক্রমে সারা দেশের মানুষকে টিকা দেয়া হবে।

কেশবপুরে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর পুজা মন্দির পরিদর্শন

রাজীব চৌধুরী, কেশবপুরঃ যশোরের কেশবপুরে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ১০ নং সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ইউনিয়ন বাসির পরিচিত মুখ শামছুন নাহার লিলি।তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব দফাদারের কন্যা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা ইব্রাহীম গাজীর স্ত্রী ও বিশিষ্ট আওয়ামী লীগ নেতা মশিয়ার রহমান দফাদারের বোন।তিনি আগে থেকেই প্রচার প্রচারণায় লেগে পড়েছেন। তিনি ১০ নং সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত প্রত্যেকটি পুজা মন্দির পরিদর্শন করেন এবং নগদ অনুদান প্রদান করেন। জাহানপুর দক্ষিণ দাস পাড়া পুজা মন্দির পরিদর্শনে গেলে সকলে তাকে ফুলের মালা দিয়ে শুভ কামনা জানান।পুজা পরিদর্শন করাকালীন সময়ে তিনি বলেন আমি দীর্ঘদিন যাবত আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় তাহলে আমি জাতি,ধর্ম,বর্ণ নির্বিশেষে ইউনিয়ন বাসির সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখিব।আর যদি মনোনয়ন না দেয় তাহলে যিনি মনোনয়ন পাবেন তার পক্ষে মানে নৌক প্রতীকের পক্ষে কাজ করবো এবং ইউনিয়ন বাসির জীবন যাত্রার মানোন্নয়নে কাজ করবো। পুজা পরিদর্শন করাকালীন সময়ে তার সাথে ছিলেন সাতবাড়িয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা মশিয়ার রহমান দফাদার সহ আরো অনেকে।

জল্পনা কল্পনা শেষে ঘোষণা হলো মাধ্যমিক পর্যায়ের বার্ষিক পরীক্ষার তারিখ

ইউনিক প্রতিবেদনক : মহামারি করোনার কারণে এক বছরেরও বেশি সময় বন্ধ ছিল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ১২ সেপ্টেম্বর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হলেও বার্ষিক পরীক্ষা নিয়ে সংশয়ে ছিল শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকেরা।

সব জল্পনা কল্পনা শেষে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণীর বার্ষিক পরীক্ষা শুরুর তারিখ জানিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর- মাউশি। দশম শ্রেণির নির্বাচনি পরীক্ষা নেয়ার নির্দেশও দেয়া হয়েছে।

ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণিতে পরীক্ষা হবে কেবল তিন বিষয়ে- বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ গণিত। ৫০ নম্বরের পরীক্ষা নেয়া হবে দেড় ঘণ্টায়।

তিনটি বিষয়ের মধ্যে বাংলা ও সাধারণ গণিতে ৩৫ নম্বর থাকবে লিখিত পরীক্ষায়, ১৫ থাকবে এমসিকিউতে। তবে ইংরেজিতে প্রথম পত্রে ৩০ নম্বর ও দ্বিতীয় পত্রে থাকবে ২০ নম্বর। প্রতিটি পরীক্ষার সময় দেড় ঘণ্টা।

এর সঙ্গে অ্যাসাইনমেন্টে ৪০ ও স্বাস্থ্যবিধিতে থাকবে আরও ১০ নম্বর।

আগামী ২৪ নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে পরীক্ষা চলবে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত। দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদেরও নির্বাচনি পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে বলে জানানো হয়েছে।

বুধবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুকের সই করা অফিস আদেশে এই বিষয়টি জানানো হয়েছে। এতে বেশ কিছু শর্তের উল্লেখ হয়েছে।

তবে দশম শ্রেণিতে নির্বাচনি পরীক্ষার বিষয়ে আলাদা কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়নি এই আদেশে।

অধিদপ্তরের পরিচালক (বিদ্যালয়) বেলাল হোসাইন নিউজবাংলা বলেন, ‘করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমায় বার্ষিক পরীক্ষা নেয়ার তারিখ দেয়া হয়েছে।’

যেসব অধ্যায় থেকে অ্যাসাইনমেন্ট (বাংলা, ইংরেজি ও সাধারণ গণিত বিষয়) দেয়া হয়েছে, সেসব অধ্যায় এবং গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে শ্রেণিকক্ষে যেসব অধ্যায় পড়ানো হয়েছে, তার ওপরই নেওয়া হবে এই পরীক্ষা।

প্রত্যেক শিক্ষার্থীর বার্ষিক পরীক্ষার নম্বরের সঙ্গে চলমান সকল বিষয়ের অ্যাসাইনমেন্টের ওপর ৪০ নম্বর যোগ করতে হবে।

বার্ষিক পরীক্ষায় সপ্তম থেকে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর আরও ১০ নম্বর যোগ করতে হবে।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়। দেড় বছর পর এ বছরের ১২ সেপ্টেম্বর খুলে দেয়া হয় প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও ধীরে ধীরে খুলে দেয়ার ঘোষণা আসছে।

গত বছর করোনার কারণে স্কুলে বার্ষিক পরীক্ষা না নিয়ে সবাইকে ওপরের শ্রেণিতে উত্তীর্ণ করা হয়েছে। এবারও প্রাথমিক সমাপনী ও অষ্টম শ্রেণি সমাপনী জেএসসি পরীক্ষা না নিয়ে অটোপাস দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।