প্রয়োজনীয় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন ফুলতলার ৪ ইউনিয়নে প্রতিনিধি নির্বাচন করবে আজ

তাপস কুমার বিশ্বাস, ফুলতলা (খুলনা)// খুলনার ফুলতলা উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোট আজ (বৃহস্পতিবার)। উপজেলার ৪টি ইউনিয়ে ১ লাখ ৭ হাজার ৭শ’ ৩১ ভোটার তাদের পছন্দের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন। সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহন চলবে। উপজেলার ৪৮টি কেন্দ্র্ েভোটগ্রহনের জন্য ২৮৯টি বুথ প্রস্তুত। নিরাপত্তার জন্য কেন্দ্র প্রতি দায়িত্বে থাকছে আইন শৃংখলা রক্ষা বাহিনীর ২৮ সদস্য। এছাড়া থাকছে চারজন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট, মনিটরিং সেল, স্ট্রাকিং ফোর্স। এদিকে কড়া নিরাপত্তায় ভোটের সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে কেন্দ্রে কেন্দ্রে।

দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিন জানান, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট নেওয়ার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন। উপজেলার ৪ ইউনিয়নে ৪৮টি কেন্দ্রের মধ্যে ১৮টি কেন্দ্রকে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। নিরাপত্তার জন্য কেন্দ্র প্রতি থাকছে পুলিশ ৫, র‌্যাব ২, কোষ্টগার্ড ২, বিজিবি ২ এবং আনসার বাহিনীর ১৭ সদস্য। এছাড়া থাকছে ৪ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট, ভিজিলেন্স টিম থাকছে মনিটরিং সেল এবং ইউনিয়ন প্রতি একজন করে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট এবং স্ট্রাকিং ফোর্স। সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণের জন্য ২৮৯ টি বুথ প্রস্তুত। ভোট গ্রহণের সরঞ্জামাদি ইতোমধ্যে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে।

উপজেলার আটরা গিলাতলা ইউনিয়নে ১৮ হাজার ৫শ’ ৭৩ পুরুষ ও ১৮ হাজার ৬শ’ ৭৭ মহিলাসহ মোট ৩৭ হাজার ২শ’ ৫০ ভোটার রয়েছে। ভোটের জন্য ১৭টি কেন্দ্রে ১শ’ ৬টি বুথ। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান ৩ জন, সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১০ জন এবং সাধারণ সদস্য ৪৪ প্রার্থী।

দামোদর ইউনিয়নে ১৫ হাজার ১শ’ ৯৩ পুরুষ ও ১৬ হাজার ১৫ মহিলাসহ মোট ৩১ হাজার ২শ’ ৮ ভোটার রয়েছে। এখানে ১১টি কেন্দ্রে ৮৫টি বুথের ব্যবস্থা থাকছে। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান ৫ জন, সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১৫ এবং সাধারণ সদস্য ৫৬ প্রার্থী।

জামিরা ইউনিয়নে ৭হাজার ৮শ’ ৬২ পুরুষ ও ৮ হাজার ১শ’২৭ মহিলাসহ মোট ১৫ হাজার ৯শ’ ৮৯ ভোটারের জন্য ৯টি কেন্দ্রে ৪৮টি বুথ। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান ৫ জন, সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১৩ এবং সাধারণ সদস্য ৩৫ প্রার্থী।

ফুলতলা ইউনিয়নে ১১ হাজার ৩শ’ ৮২ পুরুষ ও ১১ হাজার ৯শ’ ২ মহিলাসহ মোট ২৩ হাজার ২শ’ ৮৪ ভোটার রয়েছে। ১১টি কেন্দ্রে ৬৯টি বুথের ব্যবস্থা রয়েছে। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান ৩ জন, সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১৪ এবং সাধারণ সদস্য ৩৯ প্রার্থী।

ফুলতলার থানার অফিসার ইনচার্জ ইলিয়াস তালুকদার বলেন, সুষ্ঠু ভোট গ্রহণে কোন ধরনের অনিয়ম, কারচুপি বা আইন শৃঙ্খলা পরিপন্থি কোন কর্মকান্ড হতে দেয়া হবে না। আইন শৃঙ্খলা ভঙ্গ করার চেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

আ.লীগ চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

ইউনিক প্রতিবেদক, নড়াইল :
নড়াইল সদর উপজেলার ভদ্রবিলা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী সৈয়দ আবিদুল ইসলাম ও তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) মামলা হয়েছে। সোমবার বিকেলে দুদকের যশোর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে ওই মামলা হয়। আগামীকাল বৃহস্পতিবার নড়াইল সদর উপজেলায় ইউপি নির্বাচন হবে।
সৈয়দ আবিদুল ইসলামের (৫০) বিরুদ্ধে ৫ কোটি ৪৫ লাখ ৫৬ হাজার ৬২২ টাকা এবং তাঁর স্ত্রী ইসরাত জাহানের (৫০) বিরুদ্ধে ৮০ লাখ ৯৬ হাজার ২৭১ টাকা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা হয়েছে। দুদকের সহকারী পরিচালক মো. মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে তাঁদের বিরুদ্ধে পৃথক মামলা করেন।
দুদক সূত্রে জানা গেছে, একটি অভিযোগের ভিত্তিতে দুদক ২০১০ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত এই দম্পতির সম্পদের অনুসন্ধান করে। এতে দেখা যায়, আবিদুল ইসলামের ঢাকার গুলশানে একটি বাড়ি, মিরপুরে একটি ফ্ল্যাট ও আরেকটি প্লট আছে। এ ছাড়া ওই সময়ের মধ্যে তাঁর ৪ কোটি ৮২ লাখ ৩০ হাজার ১৬৩ টাকার অস্থাবর সম্পদের তথ্য পাওয়া যায়, যার মধ্যে রয়েছে গাড়ি, পিস্তল, গুলি, আসবাব ও গৃহস্থালির অন্য মালামাল। তিনি দুদকে যে সম্পদ বিবরণী দাখিল করেছেন, তা যাচাই করে ৫ কোটি ৪৫ লাখ ৫৬ হাজার ৬২২ টাকা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের তথ্য পাওয়া গেছে। তাঁর স্ত্রী ইসরাত জাহানের ৮০ লাখ ৯৬ হাজার ২৭১ টাকা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের তথ্য পাওয়া গেছে।
দুদকের যশোর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে উপপরিচালক মো. নাজমুচ্ছায়াদাত মামলার খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেন।
আবিদুল ইসলাম গতকাল বুধবার রাতে মুঠোফোনে বলেন, ‘দুদকের মামলার বিষয়টি আমার জানা নেই।’ তিনি বলেন, তিনি নড়াইল সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। তিনি ঢাকায় ব্যবসা করেন। গতবারও তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেছিলেন। দলের বিদ্রোহী প্রার্থী শহিদুর রহমানের কাছে তিনি পরাজিত হন। তবে এবার জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।