বঙ্গবন্ধু দিয়েছেন স্বাধীনতা আর শেখ হাসিনা দিয়েছেন অর্থনৈতিক মুক্তি : সাবেক ছাত্রলীগ ফোরামের ঈদ পুনর্মিলনীতে বাবুল রানা

ইউনিক প্রতিবেদক:

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সংগঠনটির দীর্ঘ পথচলায় রয়েছে দেশ ও জাতির জন্য গৌরবময় অসংখ্য অর্জন। সমৃদ্ধ সেসব অর্জন জাতিকে দিয়েছে নতুন পথের ঠিকানা। স্বাধীনতা শব্দটি আমাদের যেভাবে হলো, সে শব্দ প্রাপ্তিতে সংগঠনটির অবদান ইতিহাসের পাতায় আজও উজ্জ্বল হয়ে আছে। ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তৎকালীন দাবি ও প্রেক্ষাপটের আলোকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা করেন। বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা প্রতিষ্ঠিত করার দাবিতে; সর্বোপরি সাংগঠনিক প্রয়োজনীয়তা ও সংঘবদ্ধভাবে সফল আন্দোলন প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যেই জাতির পিতা ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা করেন। বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে ছাত্রলীগের রয়েছে অনন্য ভূমিকা। এ ছাত্র সংগঠনটিই হলো আওয়ামী লীগের প্রাণ।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর আমাদের দিয়েছেন স্বাধীনতা আর জননেত্রী শেখ হাসিনা দিয়েছেন অর্থনৈতিক মুক্তি। ১৯৮১ সালের ১৭ মে বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশে ফিরে পিতার পথ ধরে সারা বাংলাদেশে আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন। সরকার প্রধান হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি সুযোগ্য রাজনৈতিক নেতৃত্বের কারণে আজ বিশ্ব নেত্রীতে পরিণত হয়েছেন। ২০৪১ সালে বাংলাদেশকে একটি উন্নত সমৃদ্ধশালী রাষ্ট্রে পরিণত করতে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। আর একাজে ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতাকর্মীদের সবসময়ের মতো জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সহায়তা করতে হবে।

খুলনা সাবেক ছাত্রলীগ ফোরামের আয়োজনে নগরীর লিনিয়ার পার্কে সাবেক ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মিলন মেলা ও ঈদপুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কেডিএ‘র স্থায়াী সদস্য জামাল উদ্দিন বাচ্চু, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু। ছাত্রলীগের ফোরামের আহ্বায়ক ও মহানগর আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শেখ মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব আফরোজা জেসমিন বিথীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ১৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবিদ উল্লাহ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হক, ২৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জি এম রেজাউল ইসলাম, সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর, দিলীপ বর্মণ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আমিরুল ইসলাম লিটু, নুরে আলম ময়না, শাহিদা আক্তার রিনি, এ্যাড. মাহবুব রহমান, শহীদুল ইসলাম সবুজ সহ সাবেক ছাত্রলীগের নেতকর্মী, সমর্থক ও তাদের পরিবারবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

মিলনমেলায় সবার জন্য বিভিন্ন প্রতিযোগীতা, কৃতি শিক্ষার্থী সন্তানদের মাঝে সম্মাননা ক্রেস্ট, সকল বাচ্চাদের জন্য ক্রেস্ট প্রদান, ফানুস উড়ানো, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

আগামীকাল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে আসানি, প্রভাব পড়বে খুলনা-সাতক্ষীরায়

ইউনিক ডেস্কঃ সুনির্দিষ্ট লঘুচাপ থেকে নিম্নচাপ এবং পরে গভীর নিম্নচাপ থেকে রোববার (৮ মে) বিকেল নাগাদ দক্ষিণ আন্দামান সাগরে অবস্থানরত সুনির্দিষ্ট লঘুচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর ধারণা করছে, এটি ঘূর্ণিঝড় আসানিতে রূপ নেওয়ার পর উড়িষ্যা, পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের খুলনা ও সাতক্ষীরা উপকূলে আঘাত হানতে পারে।

শনিবার (৭ মে) বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো. তরিফুল নেওয়াজ কবির এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, ‘এখন পর্যন্ত এটি সুস্পষ্ট লঘুচাপেই আছে। লঘুচাপটি এখন দক্ষিণ আন্দামান সাগরের আশপাশেই অবস্থান করছে এবং সেখানে অবস্থান করেই আরও ঘণীভূত হচ্ছে। এখনও বঙ্গোপসাগরে আসেনি। বিষয়টি সার্বক্ষণিক আমাদের নজরদারিতে আছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তরিফুল নেওয়াজ কবির বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড়টি নিয়ে ভারত, শ্রীলঙ্কাসহ অন্যান্য দেশের আবহাওয়া অফিসের দেওয়া সব তথ্যগুলোই ধারণা। এটা আমরা নিবিড়ভাবে মনিটরিং করছি। নতুন কোনো পরিস্থিতি তৈরি হলেই আমরা আপডেট জানাতে পারব। ধারণা থেকে কিছু বলা ঠিক হবে না। তবে আগামী ১০ থেকে ১২ মের মধ্যে উপকূলে আঘাত হানবে এটা নিশ্চিত।’

লঘুচাপ থেকে নিম্নচাপ ও পরে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে কত সময় লাগবে, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আজ বিকেলে সুস্পষ্ট লঘুচাপটি নিম্নচাপে রূপ নিতে পারে। এরপর এটি গভীর নিম্নচাপ হয়ে আগামীকাল বিকেলের দিকে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে।’

ঘূর্ণিঝড়টির গতিপথের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত ধারণ করা হচ্ছে, উড়িষ্যা, পশ্চিমবঙ্গ এবং তৎসংলগ্ন বাংলাদেশ উপকূল দিয়ে যেতে পারে। এর মানে বাংলাদেশের নিকটবর্তী অঞ্চল দিয়ে যাবে। বর্তমান হিসেব অনুযায়ী বাংলাদেশের খুলনা ও সাতক্ষীরা অঞ্চলে এর প্রভাব পড়বে। যেহেতু এটি সাইক্লোন হবে, সেহেতু এর নিয়ম হচ্ছে এটা যেখানেই আঘাত করুক না কেন, তার ডানপাশের এলাকায় প্রভাব বেশি পড়বে। সেই হিসেবে উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গের ডান পাশে বাংলাদেশ। এটা একটা বড় বিষয়। তারপরও এর গতি ও দিক পরিবর্তন হতে পারে। এজন্য এখনই সুনির্দিষ্টভাবে কিছু বলা যাচ্ছে না।’

লঘুচাপটির এখনও সুনির্দিষ্ট সেন্টার তৈরি হয়নি উল্লেখ করে এ আবহাওয়াবিদ আরও বলেন, ‘সুনির্দিষ্ট সেন্টার তৈরি হলে আমরা সমুদ্র বন্দরগুলোতে বার্তা দিতে পারব। সেন্টারটা নির্ধারণ হলেই কোন বন্দর থেকে কত কিলোমিটার দূরে এটি অবস্থান করছে, সেটি পরিষ্কারভাবে বলতে পারব। তবে আমরা সমুদ্র বন্দরগুলোকে প্রাথমিক সতর্ক বার্তা দিয়ে দিয়েছি।’

আগামী ২৪ ঘণ্টায় দেশের আবহাওয়া পরিস্থিতির পূর্বাভাসে তিনি বলেন, ‘রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের দু’এক জায়গায় বৃষ্টি ও বর্জ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। কিন্তু দেশের দক্ষিণাঞ্চলে আবহাওয়া শুষ্ক থাকবে। দিনের এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে।’

মারা গেলেন ‘কেজিএফ’এর মোহন জুনেজা

আন্তর্জাতিকঃ ভারতের সিনে ইতিহাসে নতুন মাইলফলক সৃষ্টি করা সিনেমা ‘কেজিএফ’। এর দুটি পর্ব রেকর্ড পরিমাণ ব্যবসা করেছে। কেবল ভারতে নয়, অন্যান্য দেশেও সিনেমা দুটির জনপ্রিয়তা ছাড়িয়ে গেছে।

এই ‘কেজিএফ’-এর গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করা মোহন জুনেজা মারা গেছেন। শনিবার (৭ মে) সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বেঙ্গালুরুর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। একাধিক ভারতীয় গণমাধ্যম খবরটি নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, মোহন বেশ কিছুদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। কিন্তু চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছিলেন না তিনি। এক পর্যায়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন এ অভিনেতা।

মোহন জুনেজা কন্নড় সিনেমার জনপ্রিয় একজন অভিনেতা। পার্শ্বচরিত্রে তিনি শতাধিক সিনেমায় কাজ করেছেন। তবে তিনি বেশি পরিচিতি পেয়েছেন ‘কেজিএফ’ সিনেমায় কাজ করে। এই সিনেমা যারা দেখেছেন, তারা প্রত্যেকেই মোহনের চরিত্রটি সম্পর্কে অবগত।

সিনেমায় নায়ক রকির সম্পর্কে তথ্য জানতে এক সাংবাদিক আসেন মোহনের কাছে। তিনিই রকির সম্পর্কে তথ্যগুলো দেন। মোহনের একটি সংলাপ রয়েছে, ‘গ্যাং নিয়ে আসলে তাকে গ্যাংস্টার বলে। কিন্তু ও একা আসে, ও হচ্ছে মনস্টার’। এটি বিপুল জনপ্রিয়তা পেয়েছিল।

এদিকে মোহন জুনেজার মৃত্যুতে ‘কেজিএফ’ সিনেমার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান হোমবেল ফিল্মসের পক্ষ থেকে শোকপ্রকাশ করা হয়েছে। তাতে লেখা আছে, “কন্নড় বিখ্যাত কমেডিয়ান মোহন জুনজার আত্মার শান্তি কামনা করি। আমাদের ‘কেজিএফ’ ফিল্ম টিমের সঙ্গে তাদের অবিচ্ছেদ্য সম্পর্ক আমরা ভুলতে পারি না। অভিনেতা মোহন জুনেজার পরিবার, বন্ধু ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রতি আমাদের আন্তরিক সমবেদনা। তিনি কন্নড় চলচ্চিত্র এবং আমাদের কেজিএফ পরিবারের অন্যতম পরিচিত মুখ ছিলেন।”

ভারতে না যাওয়ার পরামর্শ সম্পূর্ন অপপ্রচার: ভারতীয় হাইকমিশন

ইউনিক ডেস্কঃ বর্তমান পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ থেকে ভারতে না যাওয়ার কোনো পরামর্শ দেননি ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার। কয়েক মাস আগের পুরনো একটি খবরকে সামনে এনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলমান অপপ্রচারের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনের মুখপাত্র শনিবার (৭ মে) এ কথা জানায়।

মুখপাত্র জানান, ওমিক্রন সংক্রমণ বৃদ্ধির কারণে ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী বাংলাদেশিদের ভারতে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের এমন একটি খবর ভারতীয় হাইকমিশনের নজরে এসেছে। এটি এ বছরের জানুয়ারি মাসের খবর।

সে সময় এ খবর সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল। ওই খবরটি ৬ মে আবারও ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। হাইকমিশনের মুখপাত্র জানান, বর্তমানে সব দেশের নাগরিকদের ভ্রমণের জন্য ভারত উন্মুক্ত রয়েছে। ভ্রমণের বিষয়ে ভারত সরকার কোনো পরামর্শ দেয়নি। ভারতীয় হাইকমিশনের মুখপাত্র বলেন, বাংলাদেশিদের ভারত ভ্রমণে সুবিধার জন্য বাংলাদেশে ভারতের ১৬টি ভিসা আবেদন কেন্দ্র এ সপ্তাহেও নির্দিষ্ট সময়ের চেয়ে বেশি সময় খোলা ছিল। এমনকি ঈদের আগে ভিসা আবেদনকারীদের সুবিধার্থে বন্ধের দিনও খোলা ছিল।

পাসওয়ার্ড ছাড়াই লগিন হবে ফেসবুক !

প্রযুক্তিঃ প্রত্যেকেই কোনও না কোনও সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন। এবং তারজন্য প্রতিটি অ্যাপের জন্য ব্যবহার করেন আলাদা আলাদা পাসওয়ার্ড। মনে রাখার ঝামেলা থাকে। আর সেকারণে অনেকেই থার্ড পার্টি পাসওয়ার্ড ম্যানেজার ব্যবহার করেন। এবার সেই সমস্যা থেকে সমাধান পাওয়া যাবে।
এবার থেকে Facebook,Instagram-এর ক্ষেত্রে কোনও পাসওয়ার্ড প্রয়োজন হবে না। শুধু এই দুটি অ্যাপ নয় আরও বেশ কয়েকটি অ্যাপের ক্ষেত্রেও এই সুবিধা চালু হতে চলেছে।

গত 5 May ছিল আন্তর্জাতিক পাসওয়ার্ড দিবস। ওইদিনই Google, Apple এবং Microsoft-এর তরফে একযোগে ঘোষণা করা হয় Passwordless Sign-in পদ্ধতি। এর অর্থ ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম সহ বিভিন্ন অ্যাপে লগইন করার জন্য কোনও পাসওয়ার্ড দেওয়ার প্রয়োজন নেই। প্রাথমিকভাবে সব বড় বড় প্ল্যাটফর্মে Passwordless Authentication পদ্ধতি নিয়ে আসা হবে। এবং পরবর্তীতে বাকি অ্যাপের Sign-in এর ক্ষেত্রেও এই পদ্ধতি চালু করা হবে।

যাঁরা Android,iOS-OS ব্যবহার করেন তাঁদের ক্ষেত্রে এবং অন্যদিকে Chrome, Edge, Safari ব্রাউজ়ারের ক্ষেত্রে এবং macOS এর ক্ষেত্রেও এই সুবিধা পাওয়া যাবে।
কীভাবে পাসওয়ার্ডলেস লগইন (Passwordless Log in) প্রসেস কাজ করবে?
এক্ষেত্রে ব্যবহারকারীদের ফোনটিই হবে আসল অথন্টিকেশন ডিভাইস। হবে সেক্ষেত্রে তা ডিফাল্ট হবে না। ব্যবহারকারীদের নিজেরা পছন্দ করলে তবেই এই সিস্টেম চালু হবে। এক্ষেত্রে ফোনের ডিভাইস লক হবে ম্যান্ডেটরি। অর্থাৎ প্যাটার্ন, পিন, ফিঙ্গার প্রিন্ট এবং ফেস অথন্টিকেশন-ই হবে প্রধান অথন্টিকেশন। ফলে সেই ফোন থেকে Facebook, Instagram এর মতো অ্যাপগুলি ব্যবহার করা হয় তাহলে সেক্ষেত্রে ওই অ্যাপগুলিতে ঢুকতে আলাদা করে পাসওয়ার্ড দিতে হবে না। এই পুরো প্রযুক্তির নাম Passkey। যা unique cryptographic token-সিস্টেমের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছে। Public Key Cryptography-র মাধ্যমেই পুরো কাজটি হবে বলে জানিয়েন বিভিন্ন সংস্থার সাইবার সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞরা।

মূলত ব্যবহারকারীদের Password মনে রাখতে বেশ সমস্যা হয়। সেই সমস্যা থেকে মুক্তি দেওয়ার জন্যই এই ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। এছাড়াও এই প্রযুক্তির মাধ্যমে আরও সুরক্ষিত থাকবে সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল। হ্যাকারদের ক্ষেত্রে আরও কঠিন হবে কোনও প্রোফাইল হ্যাকিং।

বাড়িতে ভাইয়ের মৃতদেহ আগলে রয়েছেন দাদা ও বৌদি

আর্ন্তজাতিকঃ কলকাতার রবিনসন স্ট্রিট (Robinson Street) কাণ্ডের ছায়া এবার বাঁকুড়ায় (Bankura)। বাড়িতে ভাইয়ের মৃতদেহ আগলে রয়েছেন দাদা ও বৌদি। পরে প্রতিবেশীদের তৎপরতাতেই ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে। শুক্রবার রাতে মৃতদেহ উদ্ধার হলেও ঘটনাটি শনিবার সকালে প্রকাশ্যে আসতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।পুলিশ জানায়, মৃতের নাম সনৎ কর্মকার (৫৬) বাঁকুড়া শহরের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দোলতলা এলাকার বাসিন্দা সনৎ অবিবাহিত। দাদা, বৌদির সঙ্গেই থাকতেন তিনি। শুক্রবার রাতে তাঁদের বাড়ি থেকেই সনতের দুর্গন্ধময় দেহ উদ্ধার হয়। দিন দুয়েক আগেই সনৎ কর্মকারের মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে অনুমান। যদিও তাঁর দাদা অশোক কর্মকারের দাবি, শুক্রবার সকালেই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। তবে কীভাবে তাঁর মৃত্যু হল তা স্পষ্ট নয়। দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশ।
স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, অশোক কর্মকার ও তাঁর পরিবারের সঙ্গে সনৎ কর্মকার বাঁকুড়ার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দোলতলা এলাকায় নিজেদের বাড়িতেই থাকতেন। দুই ভাই মিলে রেডিয়ো ও টেপ রেকর্ডার মেরামতির দোকান চালাতেন। তাঁরা প্রতিবেশীদের সঙ্গে বিশেষ কথাবার্তা বলতেন না। গত কয়েকদিন ধরেই সনৎ কর্মকারকে দেখা যাচ্ছিল না বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন। এরপর শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে পচা দুর্গন্ধে ভরে যায় গোটা দোলতলা এলাকা। দুর্গন্ধের উৎস খুঁজতে-খুঁজতে এলাকাবাসী অশোক কর্মকারের বাড়িতে পৌঁছলে তিনি জানান, ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে এবং মৃতদেহ বাড়িতেই পড়ে রয়েছে। এরপর স্থানীয় বাসিন্দারাই পুলিশে খবর দেন। তারপর বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশ এসে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।
মৃতদেহ দেখে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, অন্তত দু-দিন আগে সনৎ কর্মকারের মৃত্যু হয়েছে। তবে কীভাবে মৃত্যু হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। যদিও অশোক কর্মকারের দাবি, শুক্রবার দুপুরেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু একবেলার মধ্যে কীভাবে দেহটি পচে যাবে, দুর্গন্ধ ছড়াবে তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন এলাকাবাসী। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে এবং ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলেই ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসবে বলে জানিয়েছে বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশ।
উল্লেখ্য, চলতি মাসের শুরুতেই উত্তর ২৪ পরগনার নিউ টাউনে এরকমই একটি ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। নিউ টাউনের CD ব্লকের একটি বহুতলে চার-পাঁচ দিন ধরে ছেলে ও মেয়ের মৃতদেহ আগলে বসেছিলেন বৃদ্ধা মা মালা কুঞ্জ।

সূত্রঃ এই সময়