মোংলায় ইউপি চেয়ারম্যান উৎপল কুমার মন্ডলের অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ মোংলায় গরীব, অসহায় ও দুস্থ মানুষের পূর্বের ওএমএস’র কার্ডের নাম কেটে নিজ পরিবারসহ পছন্দের স্বচ্ছল লোকদের সেই কার্ড দেয়া ও ইউনিয়ের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবাদে মিঠাখালী ইউপি চেয়ারম্যানের অপসারণ চেয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন ও মানববন্ধন করেছেন গ্রামবাসী। বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে মিঠাখালী ইউপি চেয়ারম্যান উৎপল কুমার মন্ডলের বিরুদ্ধে এ বিক্ষাভ সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে মিঠাখালী ইউনিয়নের ভুক্তভোগী কয়েকশো নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধন ও বিক্ষোভ প্রদর্শনকালে গ্রামবাসীরা ইউপি চেয়ারম্যান উৎপল কুমার মন্ডলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি তুলে ধরে শ্লোগান দিতে থাকেন।
এ সময় বক্তারা অযোগ্য ও দুর্নীতিবাজ উল্লেখ করে ইউপি চেয়ারম্যান উৎপল মন্ডলের অপসারণসহ তার সকল অনিয়মের সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানান। বক্তারা বলেন, ওএমএস’র তালিকায় থাকা পূর্বের গবীরদের নাম কেটে চেয়ারম্যান উৎপল তার পছন্দের স্বচ্ছল লোকদের নাম দিয়েছেন, যারা এ ওএমএস’র কার্ড পাওয়া যোগ্য নয়। এছাড়া চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে এ ইউনিয়নে যত উন্নয়ন প্রকল্প এসেছে তার সবগুলোতে তিনি চরম অনিয়ম ও দুর্নীতি করেছেন। এছাড়া সর্বশেষ গত মাসের শেষে ও চলতি মাসের শুরুতে তিনি সরকারের দেয়া গরীবের সহায়তার সিদ্ধ মিনিকেট চালের পরবর্তী নষ্ট কম দামের আতপ চাল দিয়েছেন গ্রামবাসীকে। সিদ্ধ চালের দাম বেশি হওয়ায় তা বিক্রি করে কম দামের খাবার অযোগ্য আতপ চাল দিয়ে কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন চেয়ারম্যান। এছাড়া কাবিখা, কাবিটা প্রকল্পেও ব্যাপক অনিয়ম করেছেন তিনি। এ সব প্রকল্প দিয়ে তিনি তার পরিবার, আত্মীয় স্বজনদেরসহ নিজ বাড়ীতে মাটির কাজ করিয়ে চরম অনিয়ম ও অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। বক্তারা বলেন, আমরা তার এ সকল কর্মকান্ডের সঠিক বিচারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের কাছে তার অপসারণের জোর দাবী জানাচ্ছি। সাম্প্রতিক সময়ে উন্নয়ন প্রকল্পের দেখভালকারী এক কর্মকর্তাকে (ট্যাগ অফিসার) তার আপন ভাই লাঞ্ছিত করাসহ তার দুর্নীতি ও অনিয়মের বিষয়টিও বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের নির্দেশ মোংলা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কাছে তদন্তানাধীন রয়েছে।

এদিকে এ বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিক্ষোভকারী ও মানববন্ধন অংশ নেয়া ভুক্তভোগীদের আশ্বস্ত করে বলেন, এ বিষয়গুলো সম্পর্কে আমি ইতিমধ্যেই অবগত হয়েছি, তাই বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আশ্বাসের প্রেক্ষিতে মিঠাখালী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা লোকজন তাদের বাড়ীঘরে ফিরে যান।

উল্লেখ্য, উৎপল কুমার মন্ডল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। ২০২১ সালের ২০ সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ও বিনা ভোটে মিঠাখালী ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন তিনি।

বটিয়াঘাটায় গৃহবধূ ঝুমুর হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি: বটিয়াঘাটায় গৃহবধূ ঝুমুর হত্যার আসামিদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে বৃহষ্পতিবার বেলা ১২ টায় এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। মানববন্ধন কর্মসূচিতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অনুপ গোলদার, ইউপি সদস্য দেবব্রত মল্লিক দেবু, ঠাকুর ঠাকুর দাস মন্ডল, সুকেস রায়, বিউটি রায়, নমিতা রায়, রমেশ রাজ সহ শত শত নারী-পুরুষ । উল্লেখ্য গত ৩১ আগস্ট দুপুরে আসামি দেবকুমার রায়(৪৫), বিধান রায় (৫৫), প্রান্ত রায়(২৫), পারুল রায়(৪৭), বিউটি রায়(৪২), দিপিকা রায়(৩০), ও শংকর রায় মিলে ভিকটিমের স্বামী দেবকুমার রায়ের নির্যাতনে গৃহবধূ ঝুমুর রায়(২৫)কে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যা করে । এব্যাপারে ভিকটিমের পিতা রিপন রায় বাদী হয়ে বটিয়াঘাটা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালত খুলনায় সি,আর ২৫৩/২২ নং হত্যা মামলা দায়ের করেন । বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে পবিআই পুলিশের উপর তদন্তের নির্দেশ দেন । বৃহস্পতিবার মানববন্ধন শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে আয়োজনের মাধ্যমে আসামিদের গ্রেফতার পূর্বক শাস্তির দাবিতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ।

বটিয়াঘাটায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবি

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি: বটিয়াঘাটার ভান্ডরকোট ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগের সদস্য ওবায়দুল্লাহ শেখ সহ ২৯ জন আ’লীগ নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলা প্রত্যাহার এবং নিঃশর্ত মুক্তি দাবি জানিয়ে এলাকাবাসীর পক্ষে বিবৃতি প্রদান করেছেন ওই ইউনিয়নের ইউপি সদস্যবৃন্দ। প্রদত্ত বিবৃতি দাতারা হলেন, ইউপি সদস্য যথাক্রমে মোঃ মুরাদ হোসেন মলঙ্গী, মোঃ আজিম উদ্দিন শেখ, মোঃ মোফাজ্জেল শেখ, এস এম হানজালা, মোঃ কবির আকঞ্জী, মোঃ মোহসীন শেখ, কৌশিক মহালদার, মোঃ নজরুল ইসলাম শেখ, শরিফা বেগম প্রমূখ ।

পশ্চিম বানিয়াখামার মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের কেরানা টিকা প্রদান

বিজ্ঞপ্তি : সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক খুলনার পশ্চিম বানিয়াখামার দারুল কুরআন বহুমুখী মাদ্রাসার ৫-১১বছর (৩৬৪দিন) বয়সের শিক্ষার্থীদের কোভিড-১৯ টিকাদান কর্মসূচির প্রথম ডোজ সম্পন্ন হয়েছে। ৮ই সেপ্টেম্বর, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টা থেকে বিকাল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত সু-শৃঙ্খল ও মনোরম পরিবেশে প্রায় চার শতাধিক শিক্ষার্থীদের কোভিড-১৯ ভ্যাক্সিন প্রদান করা হয়েছে।টিকা গ্রহণের পর কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মুখে হাসি ফোটাতে ও উৎসাহিত করতে মাদ্রাসার পক্ষ থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে কেক, চকলেট, বেলুনসহ বিভিন্ন উপঢৌকন প্রদান করা হয়।টিকা প্রদান কাজে নিয়োজিত ছিলেন কেসিসির আরবান প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সার্ভিস ডেলিভারি প্রজেক্ট-২ এর প্যারামেডিক বিভা মন্ডল,লিজা আক্তার মুন্নী,জলিমা খাতুন,রসুলুন নেশা, আইরিন আক্তার,পোর্টাল হেলাল খান।কোভিড-১৯ভ্যাক্সিন প্রদানকালে টিকাকেন্দ্র পরিদর্শন করেন মাদ্রাসার মোতাওয়াল্লি বিশিষ্ট সমাজসেবক ও শিক্ষানুরাগী আলহাজ্ব মুনীর আহমেদ, পরিচালক শিক্ষা এস এম আলী ইমাম, কোষাধ্যক্ষ আলহাজ্ব হাফিজুর রহমানসহ পরিচালনা পরিষদের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক মাওলানা রফিকুল ইসলাম, সহকারী প্রধান শিক্ষক মাওলানা ফজলুর রহমান, উপ-সহকারী প্রধান শিক্ষক মাওলানা হেলাল উদ্দিনসহ দায়িত্বরত অন্যান্য সকল বিভাগের শিক্ষক, কর্মচারীবৃন্দ। টিকাদান কার্যক্রম সম্পন্ন করে দায়িত্বরত প্যারিমেডিক ও স্বাস্থ্যকর্মীবৃন্দ সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন বিগত দিনের অন্যান্য কেন্দ্রের চেয়ে পশ্চিম বানিয়াখামার দারুল কুরআন বহুমুখী মাদ্রাসার কেন্দ্রের পরিবেশটা অনেক সুন্দর ও মনোরম পরিবেশ ছিল, এজন্য তারা মাদ্রাসার কতৃপক্ষ কে ধন্যবাদ জানান।

মোংলায় ইউপি চেয়ারম্যান উৎপলের দুর্নীতির প্রতিবাদে বিক্ষোভ

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : মোংলায় গরীব, অসহায় ও দুস্থ মানুষের পূর্বের ওএমএস’র কার্ডের নাম কেটে নিজ পরিবারসহ পছন্দের স্বচ্ছল লোকদের সেই কার্ড দেয়া ও ইউনিয়ের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবাদে মিঠাখালী ইউপি চেয়ারম্যানের অপসারণ চেয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন ও মানববন্ধন করেছেন গ্রামবাসী। বৃহস্পতিবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে মিঠাখালী ইউপি চেয়ারম্যান উৎপল কুমার মন্ডলের বিরুদ্ধে এ বিক্ষাভ সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে মিঠাখালী ইউনিয়নের ভুক্তভোগী কয়েকশো নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধন ও বিক্ষোভ প্রদর্শনকালে গ্রামবাসীরা ইউপি চেয়ারম্যান উৎপল কুমার মন্ডলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতি তুলে ধরে শ্লোগান দিতে থাকেন।
এ সময় বক্তারা অযোগ্য ও দুর্নীতিবাজ উল্লেখ করে ইউপি চেয়ারম্যান উৎপল মন্ডলের অপসারণসহ তার সকল অনিয়মের সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানান। বক্তারা বলেন, ওএমএস’র তালিকায় থাকা পূর্বের গবীরদের নাম কেটে চেয়ারম্যান উৎপল তার পছন্দের স্বচ্ছল লোকদের নাম দিয়েছেন, যারা এ ওএমএস’র কার্ড পাওয়া যোগ্য নয়। এছাড়া চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে এ ইউনিয়নে যত উন্নয়ন প্রকল্প এসেছে তার সবগুলোতে তিনি চরম অনিয়ম ও দুর্নীতি করেছেন। এছাড়া সর্বশেষ গত মাসের শেষে ও চলতি মাসের শুরুতে তিনি সরকারের দেয়া গরীবের সহায়তার সিদ্ধ মিনিকেট চালের পরবর্তী নষ্ট কম দামের আতপ চাল দিয়েছেন গ্রামবাসীকে। সিদ্ধ চালের দাম বেশি হওয়ায় তা বিক্রি করে কম দামের খাবার অযোগ্য আতপ চাল দিয়ে কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন চেয়ারম্যান। এছাড়া কাবিখা, কাবিটা প্রকল্পেও ব্যাপক অনিয়ম করেছেন তিনি। এ সব প্রকল্প দিয়ে তিনি তার পরিবার, আত্মীয় স্বজনদেরসহ নিজ বাড়ীতে মাটির কাজ করিয়ে চরম অনিয়ম ও অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। বক্তারা বলেন, আমরা তার এ সকল কর্মকান্ডের সঠিক বিচারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের কাছে তার অপসারণের জোর দাবী জানাচ্ছি। সাম্প্রতিক সময়ে উন্নয়ন প্রকল্পের দেখভালকারী এক কর্মকর্তাকে (ট্যাগ অফিসার) তার আপন ভাই লাঞ্ছিত করাসহ তার দুর্নীতি ও অনিয়মের বিষয়টিও বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের নির্দেশ মোংলা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কাছে তদন্তানাধীন রয়েছে।

এদিকে এ বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিক্ষোভকারী ও মানববন্ধন অংশ নেয়া ভুক্তভোগীদের আশ্বস্ত করে বলেন, এ বিষয়গুলো সম্পর্কে আমি ইতিমধ্যেই অবগত হয়েছি, তাই বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আশ্বাসের প্রেক্ষিতে মিঠাখালী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা লোকজন তাদের বাড়ীঘরে ফিরে যান।

উল্লেখ্য, উৎপল কুমার মন্ডল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। ২০২১ সালের ২০ সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ও বিনা ভোটে মিঠাখালী ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন তিনি।

কেশবপুরে ২০২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার

রাজীব চৌধুরী, কেশবপুরঃ যশোর জেলার কেশবপুর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২০২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার এবং একটি মোটরসাইকেল জব্দ করেছে।বুধবার(৭ই সেপ্টেম্বর ২০২২) রাতে কেশবপুর উপজেলার বরণডালি কপোতাক্ষ সম্মিলনী ডিগ্রি কলেজ মোড় এলাকা থেকে ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। মোটরসাইকেল ফেলে পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তবে মাদকের উদ্ধারের ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে।কেশবপুর থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভালুকঘর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপ-পুলিশ পরিদর্শক আজিজুর রহমান, সহকারী উপ-পুলিশ পরিদর্শক ওবায়দুল্লাহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে বুধবার রাতে বরণডালাী এলাকায় মাদক উদ্ধার ও বিশেষ অভিযান পরিচালনাকালে কলারোয়ার দিক থেকে একটি মোটরসাইকেল দ্রুত গতিতে আসতে দেখে সন্দেহজনক হওয়ায় চালককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গতিরোধ করে। চালক পুলিশের বাধা নিষেধ অমান্য করে মোটরসাইকেল না থামিয়ে চলে যায়। বিষয়টি দেখে পুলিশের আরো বেশি সন্দেহ হওয়ায় তার পিছনে ধাওয়া করলে বরণডালী কপোতাক্ষ সম্মিলনী ডিগ্রি কলেজের সামনে কেশবপুর টু কলারোয়া সড়কের উপর সাতক্ষীরা-ল ১২-০৬০৭ নম্বরের লাল রংয়ের ১৫০ সি সি মোটরসাইকেলটি ফেলে দ্রুত পালিয়ে যায়।মোটরসাইকেলে থাকা একটি ব্যাগের ভেতর থেকে ২০২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে পুলিশ।এ ব্যাপারে কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ বোরহান উদ্দীন জানান, মোটরসাইকেল জব্দসহ ২০২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধারের ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। মোটরসাইকেলটি থানা হেফাজতে রয়েছে।অজ্ঞাতনামা পলাতক আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।

ফুলতলার আলকা মিলনী স্কুলের সভাপতি হলেন আইয়ান জুট মিলের পরিচালক রাজীব ভুঁইয়া

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধি// আইয়ান জুট মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিআইপি মোহাম্মাদ জহির উদ্দিন রাজীব ভুঁইয়া ফুলতলার আলকা মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা ও প্রিজাইডিং অফিসার এস এম কামরুজ্জামান এর সভাপতিত্বে ম্যানেজিং কমিটির সদস্যবৃন্দের সর্ব সম্মতিক্রমে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হন। পরে নবনির্বাচিত সভাপতি মোহাম্মাদ জহির উদ্দিন রাজীব ভুঁইয়ার নেতৃত্বে দুপুরে ইউএনও কার্যালয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ শেখ আকরাম হোসেন ও ইউএনও সাদিয়া আফরিনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রশান্ত কুমার রায়, ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য মোঃ বাবুল শেখ, মোঃ ওলিয়ার রহমান, মোঃ রাসেল, মোঃ কবির জমাদ্দার, সংরক্ষিত মহিলা প্রতিনিধি মনিরা বেগম, শিক্ষক প্রতিনিধি বাসুদেব শীল, শ্যামপদ মন্ডল ও আছোরা বেগম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।