ঝিনাইদহে ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার (ভিডিও)

খুলনা অফিস : র‌্যাব ৬ এর অভিযানে ঝিনাইদহ থেকে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিলসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হয়েছে ।
র‌্যাব জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঝিনাইদহ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল সংলগ্ন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে থেকে চুয়াডাঙ্গা জেলার মো হৃদয় খাঁন(২২) কে ৫৫৯ বোতল ফেন্সিডিল, ২টি মোবাইল ও মোটর সাইকেলসহ গ্রেফতার করা হয়। উল্লেখ্য যে, ধৃত আসামী হৃদয় খাঁন এর বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা এবং যশোর জেলার বিভিন্ন থানায় একাধিক মাদকসহ অন্যান্য মামলা রয়েছে। জব্দকৃত আলামত ও গ্রেফতারকৃত আসামীকে ঝিনাইদহ জেলার সদর থানায় হস্তান্তর করতঃ আসামীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

 

 

বাগেরহাটে চোরাই মালামালসহ গ্রেফতার ১ (ভিডিও)

খুলনা অফিস : বাগেরহাট জেলার মোল্লাহাট থানা এলাকায় থেকে চোরাই মালামালসহ চোরচক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব ৬।
র‌্যাব জানায়, গত ২৪ জুলাই ২০২২ তারিখ ঢাকা জেলার তেজগাঁও থানাধীন কাওরান বাজারস্থ মেট্টো এক্সপ্রেস কুরিয়ার সার্ভিসের কর্মচারী কর্তৃক অফিসের বিভিন্ন মালামাল চুরি হয়ে যায়। পরবর্তীতে উক্ত কুরিয়ার সার্ভিসের সুপার ভাইজার বাদী হয়ে উক্ত কর্মচারীর বিরুদ্ধে ডিএমপি ঢাকার তেজগাঁও থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
উক্ত কর্মচারী চোরাই মালামাল নিয়ে খুলনাঞ্চলে অবস্থান করছে মর্মে জানা যায়। র‌্যাব ৬ এর একটি আভিযানিক দল চোরকে ধরতে তদন্ত শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার দিবাগত রাতে র‌্যাব ৬ এর দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাগেরহাট জেলার মোল্লাহাট থানা এলাকা থেকে মোঃ রাজু শেখ (২৫) কে চুরিকৃত বিভিন্ন হার্ডওয়ার এর ১১৮৭ কেজি মালামাল, ৪৪ কেজি স্যানেটারী আইটেম,-প্রায়, ৩৮ কেজি খাবার সামগ্রীসহ গ্রেফতার করে।
গ্রেফতারকৃত আসামী রাজু শেখকে ডিএমপি ঢাকার তেজগাঁও থানায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

বঙ্গবন্ধু দিয়েছেন স্বাধীনতা আর শেখ হাসিনা দিয়েছেন অর্থনৈতিক মুক্তি : সাবেক ছাত্রলীগ ফোরামের ঈদ পুনর্মিলনীতে বাবুল রানা

ইউনিক প্রতিবেদক:

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সংগঠনটির দীর্ঘ পথচলায় রয়েছে দেশ ও জাতির জন্য গৌরবময় অসংখ্য অর্জন। সমৃদ্ধ সেসব অর্জন জাতিকে দিয়েছে নতুন পথের ঠিকানা। স্বাধীনতা শব্দটি আমাদের যেভাবে হলো, সে শব্দ প্রাপ্তিতে সংগঠনটির অবদান ইতিহাসের পাতায় আজও উজ্জ্বল হয়ে আছে। ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তৎকালীন দাবি ও প্রেক্ষাপটের আলোকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা করেন। বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা প্রতিষ্ঠিত করার দাবিতে; সর্বোপরি সাংগঠনিক প্রয়োজনীয়তা ও সংঘবদ্ধভাবে সফল আন্দোলন প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যেই জাতির পিতা ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা করেন। বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে ছাত্রলীগের রয়েছে অনন্য ভূমিকা। এ ছাত্র সংগঠনটিই হলো আওয়ামী লীগের প্রাণ।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর আমাদের দিয়েছেন স্বাধীনতা আর জননেত্রী শেখ হাসিনা দিয়েছেন অর্থনৈতিক মুক্তি। ১৯৮১ সালের ১৭ মে বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশে ফিরে পিতার পথ ধরে সারা বাংলাদেশে আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী সংগঠন হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছেন। সরকার প্রধান হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি সুযোগ্য রাজনৈতিক নেতৃত্বের কারণে আজ বিশ্ব নেত্রীতে পরিণত হয়েছেন। ২০৪১ সালে বাংলাদেশকে একটি উন্নত সমৃদ্ধশালী রাষ্ট্রে পরিণত করতে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন। আর একাজে ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতাকর্মীদের সবসময়ের মতো জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সহায়তা করতে হবে।

খুলনা সাবেক ছাত্রলীগ ফোরামের আয়োজনে নগরীর লিনিয়ার পার্কে সাবেক ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মিলন মেলা ও ঈদপুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কেডিএ‘র স্থায়াী সদস্য জামাল উদ্দিন বাচ্চু, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু। ছাত্রলীগের ফোরামের আহ্বায়ক ও মহানগর আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শেখ মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব আফরোজা জেসমিন বিথীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ১৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আবিদ উল্লাহ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হক, ২৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জি এম রেজাউল ইসলাম, সাংবাদিক হুমায়ুন কবীর, দিলীপ বর্মণ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আমিরুল ইসলাম লিটু, নুরে আলম ময়না, শাহিদা আক্তার রিনি, এ্যাড. মাহবুব রহমান, শহীদুল ইসলাম সবুজ সহ সাবেক ছাত্রলীগের নেতকর্মী, সমর্থক ও তাদের পরিবারবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

মিলনমেলায় সবার জন্য বিভিন্ন প্রতিযোগীতা, কৃতি শিক্ষার্থী সন্তানদের মাঝে সম্মাননা ক্রেস্ট, সকল বাচ্চাদের জন্য ক্রেস্ট প্রদান, ফানুস উড়ানো, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

খেলাধুলাসহ সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চা সৃষ্টিশীল প্রজন্ম গঠনে কার্যকর ভূমিকা রাখে : খুলনা বিভাগীয় কমিশনার

ইউনিক প্রতিবেদক :

খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন বলেছেন, খেলাধুলাসহ সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চা সৃষ্টিশীল প্রজন্ম গঠনে কার্যকর ভূমিকা রাখে।

খুলনা বিভাগের সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকতা-কর্মচারী ও তাঁদের ছেলেমেয়েদের ৩৩তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

আজ (শুক্রবার) সকালে জেলা স্টেডিয়ামে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মোঃ আব্দুর রশিদ এবং খুলনার জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বিভাগীয় কমিশনার আরো বলেন, খেলাধুলা মানসিক বিকাশ ও শরীর গঠনে সহায়তা করে। ক্রীড়ার মাধ্যমে খেলোয়াড় সুলভ মনোভাব তৈরির দ্বার উন্মুক্ত হয়। ক্রীড়া প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিশুদের মাঝে নেতৃত্বের বিকাশ ঘটে। তিনি বলেন, করোনার জন্য প্রায় দুই বছর খেলাধুলা বন্ধ ছিলো। করোনার প্রকোপ কমে আসার কারণে আবার শিক্ষার্থীরা খেলাধুলার জন্য মাঠে আসছে। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ভাতৃত্ববোধ ও একে অন্যকে চেনার সুযোগ তৈরি হবে।

বাংলাদেশ কর্মচারী কল্যাণ বোর্ড খুলনার পরিচালক মোঃ ফিরোজ শাহ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। এসময় বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, কেসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা লস্কার তাজুল ইসলাম, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আছাদুজ্জামান, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মোঃ ইকবাল হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ ইউসুপ আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কয়রায় মৎস্য ঘের দখলের চেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

শেখ মনিরুজ্জামান, কয়রা, খুলনা : 

খুলনার কয়রায় মৎস্যঘের দখলের চেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন কয়রা উপজেলার হড্ডা গ্রামের মৃত নিরোধ সরকারের পুত্র রুপক কুমার সরকার।

সোমবার (১৪ মার্চ)  বেলা ১১ টায় কয়রা উপজেলা প্রেসকাবে উপস্থিত হয়ে লিখিত সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তিনি জানান। হড্ডা মৌজার ৩৭০ নং খতিয়ানের ৯১০, ৯১২, ৯১৩, ৯৩৪ ও ৯৩৭ নং দাগের ৫.৫৮ একর সম্পত্তি সরকারে নিকট হতে বাংলা ১৩৮৬ সাল হতে ডিসিআর নিয়ে সরকারী বিধিমোতাবেক ১৪২৫ সাল পর্যন্ত রাজস্ব পরিশোধ করে দীর্ঘ ৪২ বছর যাবৎ শান্তিপূর্ণ ভাবে মৎস্য ঘের বা মৎস্য চাষ করে আসিতেছে। উল্লেখিত সম্পত্তির বেড়িবাঁধ দিয়ে সীমানা দেওয়া আছে। পূর্বশত্রুতার জের ধরে গত ৮ মার্চ একই গ্রামের মৃত মনিন্দ্র সরকারের পুত্র স্বপন সরকার, মনোরঞ্জন সরকার, দেবব্রত সরকার ও রঞ্জন সরকারের নেতৃত্বে পরিকল্পিত ভাবে দা, লাঠি, সাবোল, কোদাল, হাতুড়ি চাপাতি সহ অস্ত্রসস্ত্রে সর্জিত হয়ে বে-আইনিভাবে দলবদ্ধ হয়ে অজ্ঞাতনামা ভাড়াটিয়া ব্যাক্তিদের এনে আমার মৎস্য ঘেরে অবৈধ ভাবে প্রবেশ করে ঘেরের রাস্তা কাটিতে থাকিলে আমি ঘটনাস্থলে যেয়ে বাধা প্রদান করি। এ সময় তারা আমাকে জানে শেষ করার অসৎ উদ্দেশ্য মারপিট করে নগদ টাকা, একটি টার্চ মোবাইল ও রাস্তা কেটে আনুমানিক লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধণ করে । আমি বিষয়টি স্থানীয় ভাবে আপোষ মিমাংসার চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়ে উল্লেখিত ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, কয়রা, খুলনায় একটি মামলা দায়ের করি যার নং সিআর ১৩২/২২। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে সমন জারি করে।

এ ব্যাপারে স্বপন সরকারের নিকট জানতে চাইলে, তিনি ও তার ভাইদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করেন।

খুলনায় বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসের কর্মসূচি

বিজ্ঞপ্তি :

আগামী ১৭ মার্চ স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২২ যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপনের লক্ষ্যে জাতীয় কর্মসূচির আলোকে খুলনা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

১৭ মার্চ সকাল সকাল আটটায় বাংলাদেশ বেতার খুলনা কেন্দ্রে অবস্থিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। সন্ধ্যা সাতটায় জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে আলোচনা সভা ও শিশুদের নিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। সকাল সাড়ে নয়টা থেকে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসের অনুষ্ঠান বিটিভি’র সহায়তায় সরাসরি প্রদর্শন/প্রচারের ব্যবস্থা করা হবে।

সুবিধাজনক সময়ে শিশুদের অংশগ্রহণে কেককাটা, রচনা, চিত্রাংকন ও কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে। ১৪ মার্চ শিশু একাডেমি প্রাঙ্গণে রচনা ও চিত্রাংকন এবং ১৫ মার্চ সঙ্গীত ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে। ১৭ মার্চ টুঙ্গিপাড়ার খোকা থেকে বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবন নতুন প্রজন্মের চিন্তা-চেতনা ও আদর্শ ধারণ করে শিশুদের নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম নাটকের দ্বারা চিত্রায়ণ/মঞ্চায়নের মাধ্যমে মোটিভেশনাল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকবে।

১৭ মার্চ হাসপাতাল, কারাগার, শিশু পরিবার ও এতিমখানায় বিশেষ খাবার পরিবেশন এবং বাদযোহর বিভিন্ন মসজিদে মিলাদ-মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠান এবং অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হবে। মুজিববর্ষ উদযাপনের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ ব্যানার, ফেস্টুন ইত্যাদির মাধ্যমে সিটি কর্পোরেশনের গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও স্থাপনাসমূহ সজ্জিতকরণ, মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও সড়কদ্বীপসমূহে সৌন্দর্যবর্ধন ও পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচলনা করা হবে। সন্ধ্যায় গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাসমূহ ও সরকারি ভবনসমূহে আলোজসজ্জা করা হবে।

১৭ মার্চ খুলনা সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে নগরভবনে শিশুদের অংশগ্রহণে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে বিভিন্ন স্থানে বড় আকারের এলইডি স্ক্রিনে স্বাধীনতা ও বঙ্গবন্ধুর ওপর স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হবে। সুবিধাজনক সময়ে জেলা ও উপজেলায় বঙ্গবন্ধুর জীবনী ও মহান মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক পুস্তক ও ডকুমেন্টারি সপ্তাহব্যাপী প্রদর্শন এবং বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ প্রচার করা হবে। এছাড়া শিশুদের সাথে বঙ্গবন্ধুর ছবি আর্কাইভ থেকে সংগ্রহ করে প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হবে।

উপজেলা পর্যায়েও অনুরূপ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে

আজগর হোসেন ছাব্বির, দাকোপ : দাকোপে সুন্দরবনে অবৈধ অনুপ্রবেশে মাছ ও কাকড়া শিকারীদের হামলায় বনরক্ষিদের ট্রলার চালক হাসপাতালে। নগত টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ। এ ঘটনায় হামলাকারীদের নামে দাকোপ থানায় এজাহার দাখিল করা হয়েছে।
থানায় দাখিলকৃত এজাহার এবং ভুক্তভোগীদের বর্ণনামতে চলতি মাসের ৯ ও ১০ তারিখে নলিয়ান ষ্টেশনের বনরক্ষিরা সুন্দরবনে অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় বনে অবৈধ অনুপ্রবেশ এবং বিষ প্রয়োগে মাছ ও কাকড়া শিকারের অভিযোগে ১৬ জনকে আটক করা হয়। আটককৃতদের অধিকাংশের বাড়ী দাকোপের পানখালী ইউনিয়নে। আবার ওই অভিযানে বনরক্ষিদের ব্যবহ্নত ট্রলার চালক হিসাবে ছিলেন পানখালী ইউপির মৌখালী গ্রামের রব গাজীর পুত্র আইয়ুব আলী গাজী। যে কারনে ঘটনার পর থেকে অবৈধ মাছ ও কাকড়া শিকারীরা আইয়ুব আলীর প্রতি ক্ষিপ্ত হয়। তারই জের হিসেবে শনিবার সকাল ১০ টার দিকে আইয়ুব আলী গাজী মোটর সাইকেল যোগে পানখালী হয়ে মৌখালী যাওয়ার পথে অভিযুক্ত রম ফকির, কবির ফকির, খবির ফকির, আলীরাজ ফকির, সিরাজুল শেখসহ আরো কয়েকজন মিলে নিজেদের বাড়ীর সামনে থেকে আইয়ুব আলীকে ধরে বাড়ীতে নিয়ে বেধড়ক মারপিট করে। এ সময় আইয়ুব আলীর কাছে থাকা ঘেরের হারীর ১ লাখ ৭৭ হাজার টাকা তারা ছিনিয়ে নেয়। অবস্থা বেগতিক হয়ে পড়লে এলাকাবাসীর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে দাকোপ থানা পুলিশ আইয়ুব আলীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় আইয়ুব আলী বাদী হয়ে উল্লেখিত অভিযুক্তদের নামে দাকোপ থানায় এজাহার দাখিল করেছে। এ দিকে এজাহার দাখিলের পর থেকে হামলাকারীদের পৃষ্টপোষক জনৈক মহাসিন শেখ ভুক্তভোগীদের নানাভাবে হুমকি ধামকি দিচ্ছে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বনবিভাগের নলিয়ান ষ্টেশন কর্মকর্তা শেখ আনিসুর রহমান বলেন, আসামী কবির আলীরাজসহ ১৬ জনকে আমরা গত ৯ ও ১০ তারিখ সুন্দরবনের পাটকোষ্টা টহল ফাড়ীর আওতায় চেরাগখালী ও মোরগখালী খালে নিষিদ্ধ সময়ে নিষিদ্ধ এলাকায় অবৈধ অনুপ্রবেশে মাছ ও কাকড়া শিকারের অভিযোগে আটক করে কয়রা আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করি। তারা জামিনে এসে আমাদের ব্যবহ্নত ট্রলার চালকের উপর হামলা করেছে। ঘটনাটি জানার পর আমরা দাকোপ থানা পুলিশকে অনুরোধ করি ভিকটিমকে উদ্ধারের জন্য। এলাকাবাসী এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছে।

গাইবান্ধায় ত্রিমোহনী সেতুর সংযোগ সড়কের বেহাল অবস্থা

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধা জেলার সাঘাটা-ফুলছড়িবাসী গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা হয়ে ঢাকা-বগুড়া যাতায়াতের জন্য কাটাখালি নদীর ওপর প্রায় ২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ত্রিমোহনী সেতু নির্মাণ করা হয়। নির্মানের পর এ সেতুর কারণে সাঘাটা-ফুলছড়ি উপজেলার মানুষ প্রায় ১০ কিলোমিটার রাস্তা কমিয়ে খুব সহজে গোবিন্দগঞ্জ মহাসড়ক হয়ে ঢাকা-দিনাজপুর ও বগুড়ায় যেতে পারেন। কিন্তু বর্ষা শুরুর আগেই হালকা বৃষ্টিতে সেতুর সংযোগ সড়ক ধসে গেছে। সংযোগ সড়ক ধসে পড়লে হুমকিতে পড়বে দুই উপজেলার হাজার হাজার মানুষের চলাচল। যানবাহনের জন্য মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে এই সংযোগ সড়ক। সড়কটি দ্রুত সংস্কারের ব্যবস্থা না নিলে যেকোন মুহূর্তে ধসে পড়বে এ সেতুটি।

জানা যায়, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার রাখালবুরুজ ইউনিয়নের সঙ্গে সাঘাটা উপজেলার কচুয়া ইউনিয়নের কাটাখালি নদীর ওপর এলজিইডির অর্থায়নে ২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ত্রিমোহনী সেতু নির্মাণ করা হয়। বর্তমানে সেতুর পশ্চিম তীরের সংযোগ সড়ক ধসে গেছে। মে মাসের মাঝামাঝি সময়ের বৃষ্টিতে প্রথমে এক ফুট ধসে যায়। কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণে গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে এখন সংযোগ সড়ক পুরোটাই ধসের মুখে পড়েছে। একই সঙ্গে মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে এই সংযোগ সড়কটি। রাতে যেকোনো ধরণের দূরগামী গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে অনায়সে। স্থানীয়রা জানায়, এই সংযোগ সড়ক বালু দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে। হালকা বৃষ্টিতে বালু সরে গিয়ে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এরপর সড়ক ধসে গেছে। এখন মাঝেমধ্যেই দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয় কাঁচামাল ব্যবসায়ী আব্দুল করিম সাংবাদিকদের বলেন, একটু বৃষ্টিতেই সেতুর সংযোগ সড়ক ধসে গেছে। বর্ষাকাল শুরু হলে সংযোগ সড়ক আর খুঁজে পাওয়া যাবে না। এখননি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।

স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহবুবুর রহমান বলেন, জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়ার একান্ত প্রচেষ্টায় এই সেতুটি আমরা পেয়েছি । এতে যোগাযোগ সহজ হয়েছে আমাদের সকলের। কিন্তু নিম্নমানের কাজ করায় এখন সংযোগ সড়ক ধসে গেছে। সংযোগ সড়ক দ্রুত মেরামতের দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে সাঘাটা উপজেলা এলজিইডির কর্মকর্তা প্রকৌশলী মো. ছবিউল ইসলাম সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, সেতু ও সেতুর পূর্বপাশের সংযোগ সড়ক সাঘাটা উপজেলার আওতায়। পশ্চিমপাশের সংযোগ সড়ক গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার আওতায়। কাজেই সংযোগ সড়ক সংস্কার করতে হলে দুই উপজেলাকে করতে হবে। অন্যদিকে সাংবাদিকদের গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ জানান, ত্রিমোহনী ওই সেতুর সংযোগ সড়ক সংস্কারের জন্য এলজিইডি দফতরে আবেদন পাঠানো হয়েছে। দ্রুত সংস্কার করা হবে।

চট্টগ্রামে সুস্থ হয়ে আসা পুলিশ সদস্যের মৃত্যু

মানস চৌধুরী, চট্টগ্রাম ব্যুরো: ছিলো হালকা জ্বর, সঙ্গে ডায়রিয়া। করোনা উপসর্গ মনে করে নমুনা পরীক্ষাও করা হয়। পরীক্ষার ফলাফলে শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতিও পাওয়া যায়নি। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ছাড়পত্র দিলে বাসায় চলে যাওয়ার কয়েকদিন পর মৃত্যু হয় তার।
সদরঘাট থানার এএসআই মর্তুজা কাইয়ুমের এমন মৃত্যু মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে সহকর্মীদের। জ্বর ও ডায়রিয়া নিয়ে ১৯ মে থেকে বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন কাইয়ুম। সেখান থেকে ভর্তি করানো হয় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে। ২৭ মে নমুনা পরীক্ষা করার পর তার শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।
ডায়রিয়া ভালো হয়ে যাওয়ার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ছাড়পত্র দেয়। পরে তাকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়। বাসায় দুইদিন থাকার পর হঠাৎ ২ জুন অসুস্থ হয়ে গেলে হাসপাতালে নেওয়ার আগেই তার মৃত্যু হয়।
চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (ডিসি-দক্ষিণ) এসএম মেহেদী হাসান বলেন, তার করোনা উপসর্গ থাকায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু পরীক্ষায় করোনা নেগেটিভ আসে। পরে ডায়রিয়াও ভালো হয়ে যাওয়ায় বাসায় যায়। দুইদিন পর ২ জুন অসুস্থ হয়ে গেলে অ্যাম্বুলেন্স আসতে আসতেই বাসায় মৃত্যু হয় কাইয়ুমের।
করোনা পরীক্ষার জন্য আবারও তার নমুনা নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখনও রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। তাকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফন করা হয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

চট্টগ্রামে ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যা করতে শিবির ক্যাডারকে কন্ট্রাক্ট

মানস চৌধুরী, চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার বাজালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের সাবেক নেতাকে হত্যা করতে গিয়ে জনতার হাতে ধরা পড়েছে দুই ভাড়াটে খুনি। শিবির ক্যাডারকে হত্যার কন্ট্রাক্ট দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান। এঘটনায় দ্বায়িদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনে সিদ্ধান্ত নিয়েছে থানা আওয়ামীলীগ।
মঙ্গলবার (২ জুন) ভোররাতে হত্যার উদ্দেশ্যে বাড়ির এলাকা রেকি করতে গিয়ে ধরা পড়ে তারা। ধরা পরার পর দুই ভাড়াটে খুনি বাজালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ চৌধুরী ও ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি গিয়াস উদ্দীন সজিবকে হত্যার পরিকল্পনার কথা ফাঁস করে। তাদের ভাষ্যমতে পরিকল্পনাকারী হিসেবে নাম উঠে এসেছে বাজালিয়া ইউপি’র বর্তমান চেয়ারম্যান তাপস দত্ত ও জামায়াত ক্যাডার সদ্য কারামুক্ত রাশেদের নাম। পরে তাদের পুলিশের কাছে তুলে দেয় স্থানীয় জনতা। ধরা পড়া দুই ভাড়া করা খুনি হলো উপজেলার নলুয়া ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের আব্দুল গনির ছেলে হাবিবুর রহমান (২৮) ও ছদাহা ইউনিয়নের উত্তর ছদাহা এলাকার মোহাম্মদ সিরাজের পুত্র তরিকুল ইসলাম জিসান (২৫)। তাদের স্বীকারোক্তিমূলক একটি ভিডিও ফুটেজও ইতিমধ্যে সামজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এ ভিডিওটিতে আটককৃতরা চেয়ারম্যান তাপস দত্তের পরিকল্পনায় রাশেদের সঙ্গী হয়ে আওয়ামী লীগ নেতা শহীদুল্লাহ চৌধুরী ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সজিবের গতিবিধি অনুসরণ করার কাজ করছিল বলে স্বীকারোক্তি দেয়। সাতকানিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শফিউল কবীর বলেন, বাজালিয়া থেকে ২ যুবককে এলাকাবাসী আটক করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করেছে। ২ জনকেই আমরা সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গিয়েছিলাম। তার মধ্যে একজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
জানা যায় সাতকানিয়ার স্থানীয় রাজনীতিতে দলীয় কোন্দলের কারণে প্রতিপক্ষ হিসেবে তৈরি হওয়া সাবেক এক ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার জন্য শিবির ক্যাডারকে ব্যবহার করে আওয়ামী লীগ মনোনীত চট্টগ্রামের সাতকানিয়া বাজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের তাপস দত্তের বিরুদ্ধে।এই ঘটনা ঘটেছে সাতকানিয়া উপজেলার বাজালিয়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মীরপাড়া এলাকায়। হামলার টার্গেট হওয়া ওই সাবেক ছাত্রলীগ নেতার নাম গিয়াস উদ্দীন সজীব। তিনি বাজালিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি। গিয়াস উদ্দীন সজীব বাজালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ চৌধুরীর অনুসারী। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা জানান, বাজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাপস দত্ত ও বাজালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ চৌধুরীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে রাজনৈতিক বিরোধ চলে আসছে। এ বিরোধের জেরে চেয়ারম্যান তাপসের লোকজনের হাতে শহীদুল্লাহ চৌধুরীর লোকজন বেশ কয়েকবার মারধর ও হামলার শিকার হয়।
তাদের দুইজনের এ রাজনৈতিক বিরোধ মেটাতে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা বেশ কয়েকবার চেষ্টাও করেন। মঙ্গলবার (২ জুন) বিকেলে চেয়ারম্যান তাপস দত্ত ও শহীদুল্লাহ চৌধুরীকে নিয়ে উপজেলা আওয়ালী লীগ বৈঠক হয়েছে ।
সম্প্রতি বেশ কয়েকবার হামলার শিকার হওয়ার পর নিজ বাড়িতে থাকতেন না সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গিয়াস উদ্দীন সজীব। তিনি শহীদুল্লাহ চৌধুরীর বাড়িতে সোমবার রাতে অবস্থান করেন। তাকে অনুসরণ করে সেখানে যায় হাবিবুর রহমান ও মো. তরিকুল ইসলাম নামে দুই যুবক। পরে স্থানীয়রা তাদের আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। আটক হাবিবুর রহমান ও তরিকুল ইসলাম স্থানীয়দের সামনে স্বীকারোক্তিও দেন। তারা জানান, রাশেদ চৌধুরী নামে এক ব্যক্তি তাদের ভাড়া করেছেন। জনপ্রতি ৫ হাজার টাকার বিনিময়ে তারা মোট চারজন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা গিয়াস উদ্দীন সজীবের ওপর হামলা চালাতে আসেন।
রাশেদ চৌধুরী বাজালিয়া এলাকার শিবির ক্যাডার। তার ভাই মাসুদও শিবির ক্যাডার। তাদের বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা ও অভিযোগ রয়েছে। রাশেদ চৌধুরী দীর্ঘদিন কারাগারেও ছিলেন বলে জানা গেছে। আটক হাবিবুর রহমান ও তরিকুল ইসলাম বর্তমানে সাতকানিয়া থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে বলে জানান সাতকানিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ।
বাজালিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি গিয়াস উদ্দীন সজীব বলেন, চেয়ারম্যান তাপস দত্ত আমাকে মেরে ফেলার জন্য শিবির ক্যাডার রাশেদ চৌধুরীকে কন্ট্রাক্ট করেছেন। রাশেদ অন্য এলাকা থেকে লোক ভাড়া করে এনে আমার ওপর হামলা করতে এসেছিলেন। গিয়াস উদ্দীন সজীব বলেন, তাপস দত্ত আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়ার পর তার জন্য আমি কাজ করেছি। তার পক্ষে কাজ করেছি। কিন্তু তিনি চেয়ারম্যান হওয়ার পর স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের এড়িয়ে চলেছেন। কয়েকজনের ওপর হামলাও করিয়েছেন তার লোকজন দিয়ে। তারপর থেকে আমি তার সঙ্গ ত্যাগ করেছি। শহীদুল্লাহ চৌধুরী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, তার সঙ্গে রাজনীতি করার কারণে চেয়ারম্যান আমার ওপর ক্ষুব্ধ। ইতি পূর্বে চেয়ারম্যান তাপস দত্ত চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগ নেতা প্রশান্ত চৌধুরী জিশুর সাতকানিয়ার বাজালিয়া বাড়িতেও তার লোকজন দিয়ে হামলা করান বলে অভিযোগ করেন গিয়াস উদ্দীন সজীব।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ চৌধুরী বলেন, চেয়ারম্যান তাপস দত্তের সঙ্গে আমার দূরত্ব তৈরি হয়েছে তার বিতর্কিত কর্মকান্ডের কারণে। তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করান, এটা তো মেনে নিতে পারি না। তাকে এসব বন্ধ করতে অনেকবার অনুরোধ করেছি কিন্তু তিনি শুনেন না।
অভিযোগ অস্বীকার করে চেয়ারম্যান তাপস দত্ত জনান বলেন, আমি কাউকে হামলা করতে বলিনি। এ সম্পর্কে আমি কিছু জানি না। আমার সঙ্গে শহীদুল্লাহ চৌধুরী, গিয়াস উদ্দীন সজীবের কোনো বিরোধ নেই।
সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দীন চৌধুরী জানান এই ঘটনাটি অত্যন্ত দু:খ জনক। আমরা শংর্কিত দলের অন্তকোন্দলের কারণে জামাতের ক্যাডারকে ব্যবহার করে দলীয় নেতা কর্মীদের হত্যা পরিকল্পনায় যুক্তদের বিরুদ্ধে শীর্ঘই দলীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
বাজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদে একাধিক সদস্যরা নাম প্রকাশের না করার শর্তে দৈনিক আজকালের খবরকে জানান তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়া পর একটি হত্যা মামলায় গ্রেফতার হয়ে জেলে ছিল। তারা আরো জানান চেয়ারম্যান তাপস দত্ত দিকে বেলায় চেয়াম্যান হলে ও রাত ৩টা পর্যন্ত তার নিজস্ব পেট্রোল পাম্পের পাশে সন্ত্রাসী পরিকল্পনা করে।
গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে স্থানীয় ইউপি সদস্য বাদী হয়ে সাতকানিয়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই নজরুল ইসলাম আসামী হাবিবুর রহমান (২৮) তরিকুল ইসলাম জিসান (২৫) কে জিজ্ঞাসাবাদেও জন্য আদালতে রিমান্ডে আনার আবেদন করেছেন বলে দৈনিক আজকালের খবরকে নিশ্চিত করেছেন সাতকানিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শফিউল কবীর।