ইন্টারপোলের রেড নোটিশ পি কে হালদারের বিরুদ্ধে

ঢাকা অফিস: ইন্টারপোল এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদারের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ জারি করেছে । বাংলাদেশের পুলিশের অনুরোধে আজ শুক্রবার এ নোটিশ জারি হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন পুলিশের সহকারী মহাপরিদর্শক সোহেল রানা।

এর আগে হাইকোর্ট ৫ জানুয়ারি পি কে হালদারের মা লীলাবতী হালদারসহ ২৫ ব্যক্তির দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন । তাঁরা যাতে বিদেশ না যেতে পারেন, সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। এর পাশাপাশি তদন্তের প্রয়োজনে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) আইন অনুসারে তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবে।

অভিযোগ রয়েছে পি কে হালদার ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেডসহ বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে থেকে অন্তত সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা লোপাট করেছেন। তিনি এখন পলাতক।

ইন্টারপোলের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে রেড নোটিশ সম্পর্কে বলা হয়েছে, এটি কোনো আন্তর্জাতিক গ্রেপ্তারি পরোয়ানা নয়। বিশ্বব্যাপী আইন প্রয়োগকারীদের কাছে হস্তান্তর, আত্মসমর্পণ বা অনুরূপ আইনি পদক্ষেপের অপেক্ষায় থাকা ব্যক্তিকে শনাক্ত করার ও গ্রেপ্তারের অনুরোধ।

এ নোটিশ মূলত দুই ধরনের তথ্য বহন করে। এক, ব্যক্তিকে শনাক্ত করার জন্য তাঁর নাম, জন্মতারিখ, জাতীয়তা, চুল ও চোখের রং, ফটোগ্রাফ ও আঙুলের ছাপ। দুই, ব্যক্তি যে অপরাধের জন্য পলাতক, সে সম্পর্কিত তথ্য, যা সাধারণত হত্যা, ধর্ষণ, শিশু নির্যাতন বা সশস্ত্র ডাকাতি হতে পারে। রেড নোটিশ সদস্যদেশের অনুরোধে ইন্টারপোল দ্বারা প্রকাশিত হয়।

সোহেল রানা বলেন, বাংলাদেশ পুলিশের এনসিবি ইন্টারপোল শাখা পি কে হালদারের বিরুদ্ধে রেড নোটিশ জারি করার জন্য ইন্টারপোলের কাছে আবেদন করেছিল। সেই আবেদনে তাঁর সম্ভাব্য লোকেশন উল্লেখ করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) যে মামলা এবং যেসব অভিযোগ রয়েছে, সেগুলো সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করে দেওয়া হয়েছে। আবেদনটি ইন্টারপোলের একটি বিশেষ কমিটি পর্যালোচনা করে তাঁর বিরুদ্ধে রেড নোটিশ জারি করেছে। ইন্টারপোলের এই রেড নোটিশ আগামী পাঁচ বছরের জন্য জারি থাকবে। ইন্টারপোল সারা বিশ্বে তাদের শাখা অফিসে নোটিশটি প্রেরণ করেছে।

আপনার মতামত জানানঃ