করোনায় পজিটিভ মনে হচ্ছে ? একদম ভাবনা নেই, সুস্থ হবেন ২ দিনেই

খুলনা অফিসঃ মহামারী করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ অর্থাৎ করোনায় পজিটিভ হলে হতাশ হবেন না মোটেই। এমনকি করোনার উপসর্গ অর্থাৎ সর্দি জ্বর, গলা ব্যথা বা কাশি যাহাই হোক না কেন – অবশ্যই নিয়ে নিন ঘরোয়া পদ্ধতিতে অত্যন্ত কার্যকরী ও যথোপযুক্ত চিকিৎসা:
১) আদা, লেবু, তেজপাতা, এলাচি, লং, দাড়চিনি একটি পরিস্কার পাত্রে পানিতে নিয়ে ১৫ মিনিট ফুটাতে থাকুন।সাথে আস্তা লেবু ২টা।
২) ফুটানো চলাকালে নিরাপদ দূরত্বে থেকে কমপক্ষে ৫ মিনিট গরম বাষ্প নাক দিয়ে লম্বা টেনে মুখ দিয়ে বের করতে হবে। দৈনিক এভাবে ৪ থেকে ৫ বার গ্রহণ করুন।
৩) তারপর এই ফুটন্ত আদা, লেবু, তেজপাতা ইত্যাদির মিক্স গরম পানি, চায়ের মতো করে ১ ঘন্টা পরপর পান করতে থাকুন।
৪) সাথে খেতে পারেন নাপা এক্সটেন্ডেড বা এইচ প্লাস জাতীয় ঔষধ।
৫) ফুসফুসকে ভাল রাখার জন্য বাসায় বা বাসার বারান্দায় বসে মুক্ত বাতাসে শ্বাস প্রশ্বাসের ব্যয়াম করুন, কমপক্ষে দৈনিক দুবার। নাক দিয়ে লম্বা নিশ্বাস গ্রহণ করুন। যতোবেশী নিতে পারেন নিন, তারপর যতোক্ষণ আটকিয়ে রাখতে পারেন রাখুন। তারপর আস্তে আস্তে মুখ দিয়ে দম ছাড়ুন। এভাবে ১০ বার করুন।
৬) প্লেটে আদা কেটে সামান্য লবন দিয়ে রাখুন। মুখে দিন একটু পরপর।
৭) আধা ঘন্টা পর পর গরম চা, গরম দুধ, কফি, গ্রিন টি পান করুন। গলা কোনভাবেই শুষ্ক রাখা যাবেনা। মনে রাখবেন ভিটামিন সি জাতীয় খাবার বেশি বেশি খাবেন এ সময়। সিভিট জাতীয় ঔষধও খাবেন, রুচি ধরে রাখবেন, কষ্ট করে স্বাভাবিক খাবার অবশ্যই খাবেন যাতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা immunity না কমে বরং বেড়ে যায়।
আপনি বাঁচবেন কি বাঁচবেন না, আপনার ‘কী রোগ হলো’ ভুলেও এসব ভাবনা মাথায় প্রশ্রয় দিবেন না। মনে রাখবেন, আসল কথা হচ্ছে মনোবল। কথায় আছে -“বনের বাঘে খায়না মনের বাঘে খায়”। তাই মনোবল হারালে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়, তাই আপনার যা ভালো লাগে তাই করবেন, মনোবল চাংগা রাখার জন্যে।
উপরোক্ত পদ্ধতিতে আপনি ২ দিন চিকিৎসা নিলে এটা পরীক্ষিত সত্য যে তৃতীয় দিনের দিন আপনার করোনাভাইরাস নেগেটিভ হতে বাধ্য।
শেয়ার করে বন্ধুদের জানিয়ে দিন। নিজ টাইমলাইনে রেখে দিন। প্রয়োজনে কাজে লাগতে পারে।

আপনার মতামত জানানঃ