নয়ন বন্ডের ইন্ধনদাতাদের শাস্তি দাবি

ঢাকা অফিস : বরগুনায় চাঞ্চল্যকর রিফাত হত্যা মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ার পর এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।মেধাবী ছাত্র নয়ন কীভাবে নয়ন বন্ড হয়ে উঠল, কারাই-বা নয়ন বন্ডের কারিগর, আর কী ছিল এর কারণ? এসব নিয়ে উঠছে নানা প্রশ্ন। নয়ন বন্ড নিহত হওয়ার পর সন্তোষ প্রকাশ করলেও অনেকেই বলছে, নয়নকে মেরে তার ইন্ধনদাতাদের আড়াল করা হয়েছে।

গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলায় হলেও বাবার চাকরির কারণে পরিবারের সাথে বরগুনা শহরে আসে নয়ন বন্ড। শহরের সরকারি কলেজের পাশে নিজেদের বাড়িতেই বসবাস করতো সে।

পঞ্চম শ্রেণিতে ট্যালেন্টপুলে, অষ্টম শ্রেণিতে সাধারণ বৃত্তি আর এসএসসিতে ‘এ’ গ্রেড পাওয়া নয়নের এমন পরিণতি হবে কেউ কি ভেবেছিল তখন! এমন আক্ষেপ নয়নের মা সাহিদা বেগমের। অপরাধ ও অপরাধীদের সঙ্গে জড়িয়ে যাচ্ছে বুঝতে পেরে ছেলেকে ফেরাতে চেষ্টা করেছেন বহুবার। কিন্ত শেষ রক্ষা হয়নি। আর নয়ন বন্ডের সহপাঠী ইমাম হোসেনর আকুতি, ‘নয়ন বন্ডকে যারা তৈরী করেছেন তাদের মুখোশ উন্মোচন করা হোক এটা আমাদের একান্ত কামন।’

নয়নের নিহতের খবরে স্বস্তি প্রকাশ করলেও অনেকেই বলছেন, তাকে আইনের আওতায় আনা হলে বেরিয়ে আসতো অজানা অনেক তথ্য। বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবীর বলেন,’আমাদের মতো নেতারাই লালন পালন করে নয়ন বন্ড তৈরী করেছে। নয়তো নয়ন বন্ড এমন কেউ না যে বরগুনাতে ত্রাস সৃষ্টি করতে পারবে।’

বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি যুবায়ের আদনান অনিক ক্রসফায়ার জানান, ‘মূলতথ্য না নিয়ে যদি ক্রসফায়ারে দেয়া হয়, তাহলে আরও নয়ন বন্ড সূষ্টি হতে পারে।’

এদিকে, অনেকের অভিযোগ, এই ঘটনায় আড়াল করা হচ্ছে তার ইন্ধনদাতাদের। বরগুনার ফারিয়া লারা ফাউন্ডেশনের সমন্বয়ক চিত্তরঞ্জণ শীল বলেন, ‘কোন মহল বা কার ছত্রছায়ায় এরা বেপরোয়া হয়ে ওঠে। তাদেরও চিহ্নিত করা উচিত।’ জাতীয় মহিলা পরিষদের বরগুনা জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক কাজল রানী মনে করেন, ‘ইন্ধনদাতাদের বিচারের আওতায় আনা উচিত এবং তাদের সমূলে নির্মূল করা উচিত।’

তবে, তদন্ত চলছে জানিয়ে বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি বলেন, প্রমাণ পেলে জড়িত কাউকে ছাড়া দেয়া হবে না। বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি শফিকুল ইসলাম জানান, ‘অপরাধকে আমরা অপরাধ হিসেবে দেখবো। এর পিছনে যে থাক না কেন, সবাইকে আমরা আইনের আওতায় আনবো।’

সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে, নয়নকে বন্ড বানানোর নেপথ্যে থাকাদের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন অনেকে।

আপনার মতামত জানানঃ