ফুলতলায় ইসলামী ব্যাংকের আলোচনা ও ইফতার মাহফিল

ফুলতলা অফিসঃ ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড এর ফুলতলা এসএমই শাখার উদ্যোগে সিয়াম, তাকওয়া, সাদাকাহ ও ওয়াকক্ষ শীর্ষক আলোচনা ও ইফতার মাহফিল মঙ্গলবার বিকালে শাখা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। শাখা ব্যবস্থাপক মোঃ ইফতেখার হোসেন আল মামুন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্যাংকের খুলনা ও বরিশাল বিভাগের জোন প্রধান মোঃ ওবায়দুল হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কে এম জিয়া হাসান তুহিন, শিল্পপতি শেখ শফিয়ার রহমান। প্রধান আলোচক ছিলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-রেজিষ্টার আলহাজ্ব মাওঃ গুলজার হোসাইন। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আলহাজ্ব এনামুল হক ভুইয়া, ইউপি চেয়ারম্যান শেখ আবুল বাশার, সাবেক চেয়ারম্যান শেখ আঃ রাজ্জাক রাজা, সাংবাদিক শেখ মনিরুজ্জামান, শামসুল আলম খোকন, তাপস কুমার বিশ্বাস, সহকারী অধ্যাপক মোঃ নেছার উদ্দিন, অধ্যক্ষ আছম আঃ রহিম, হাজী আশরাফ হোসেন, আক্তার ফিরোজ, অধ্যাপক গোলাম কিবরিয়া, প্রধান শিক্ষক কাউস আলী, মাওঃ শফিউল্লাহ হাজেরী, ব্যাংক কর্মকর্তা মোঃ আলমগীর হুসাইন, সাইফুল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম প্রমুখ।

ডুমুরিয়ায় অবৈধভাবে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষের অভিযোগ

ডুমুরিয়া: খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার পুটিমারীর ওয়াপদার ১৭/১ পোল্ডারের খানা বাড়িয়া খাল ও আঁধার মানিক এলাকা দিয়ে বয়ে যাওয়া খালে অবৈধভাবে ভেড়ি বাঁধ ও পাটা দিয়ে পানি সরবরাহ বাধা সৃষ্টি সহ সমগ্র খালে ঢালপালা পুঁতে দুপাড়ের নিরিহ গরীব জনগণ ও জেলেদের মাছ ধরা বন্দ করে এলাকার প্রভাবশালীরা অবৈধভাবে ভেড়ীবাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অন্য দিকে ঐ ২ বিলের ৩-৪ হাজার বিঘা কৃষকের জমি পানি নিষ্কাশন না হওয়ায় কৃষকেরা জমি চাষ করতে পারছে না। প্রাপ্ত অভিযোগ সুত্রে জানা যায় পুটিমারীর মৃত পরিমল রায়ের পুত্র নারায়ন রায় ও আঁধার মানিক গ্রামের ফকির মন্ডলের পুত্র শংকর মন্ডল সহ মুষ্টিমেয় কয়েকজন লোকে খাল দুইটি অবৈধভাবে জোর করে বাঁধ ও পাটা দিয়ে পানি সরবরাহ বাধার সৃষ্টির ফলে এলাকার জমির মালিকদের চলতি ফসলের ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এমনকি খালে মধ্যে ঢালপালা পুঁতে রাখায় স্থানীয় গরীব অসহায় জনগনের মাছ ধরা বন্দসহ বিলে পানি নিষ্কাশন একেবারে বন্দ করে জবর দখল করে মাছ চাষ করছে। এদের বিরুদ্ধে কথা বললে মামলা হামলা দেওয়ার হুমকি প্রদান করছে। এলাকার নিরিহ গরীব জনগণ ও গরীব জেলেরা যারা মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করে তাদের মাছ ধরতে না দেয়ায় অর্ধহারে-অনাহারে তারা দিনাদিপাত করছে বলে যানা যায়। অন্যদিকে এলাকার কৃষকদের কয়েক হাজার বিঘা জমি অজন্মা হয়ে পড়েছে। এদের বিরুদ্ধে দফায় দফায় শালিস মিটিং করলেও কোন ফল পাইনি এলাকার কৃষকেরা। জানা গেছে রেকর্ডে উক্ত খালটি ইউনিয়ন বোর্ড কর্তৃক সংরক্ষিত এবং জনগণের জন্য ব্যবহার্য্য হিসাবের উল্লেখ্য থাকলেও নারায়ন ও শংকরগং সহ কিছু প্রভাবশালী পেশিশক্তির জোরে অবৈধ তৎপরতায় জবর দখল করে মাছ চাষ করছে।

দাকোপে শিশুদের জন্য আমরা’র ইফতার সামগ্রী বিতরন

দাকোপ প্রতিনিধি : প্রতিবারের ন্যায় এবার দাকোপে পুষ্পের মাঝে সুন্দর খুজি এই শ্লোগানে গড়ে ওঠা অরাজনৈতিক সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “শিশুদের জন্য আমরা” এর উদ্যোগে হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে।
মঙ্গলবার উপজেলার সুতারখালী ইউনিয়নের পৃথক দু’টি স্থানে ইফতার সামগ্রী বিতরন করা হয়। সকাল ১০ টায় নলিয়ান বাজারের ফকির বাড়ী মোড় এবং বেলা ১২ টায় কালাবগী ঝুলনপাড়ায় শিশুদের জন্য আমরা সংগঠন কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত “আমাদের স্কুল” চত্বরে এলাকার দরিদ্র পরিবারের মাঝে ছোলা, মুড়ি. চিড়া. চিনি, খেজুরসহ ইফতার সামগ্রী বিতরন করা হয়। সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা এবং দাকোপ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজগর হোসেন ছাব্বির বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। শিশুদের জন্য আমরা’র সভাপতি বেল্লাল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহসভাপতি আমিরুজ্জামান সোহাগ, খায়রুল আলম মিঠু, রাসেল ফকির, অনিমেষ সরদার, শামিনুর রহমান, মানব কুমার, উজ্জল কুমার বিশ্বাস, রুবেল ফকির, জিনারুল ইসলাম, ইব্রাহীম হোসেন, উমা রায়, মানিক ফকির, রাতুল ফকির, শোয়াইব আলী, ইকলাসুর রহমান, এনামুল গাজী, জালাল মোড়ল প্রমুখ। উল্লেখ্য সম্পূর্ন অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী এই সংগঠনটি ধারবাহিকভাবে দরিদ্র পরিবারের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন, ইফতার সামগ্রী, ঈদের পোশাক বিতরন, চিকিৎসা ও শিক্ষা সহায়তা প্রদান, কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনাসহ সুবিধা বঞ্চিত ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক শিক্ষার আওতায় আনতে আমাদের স্কুল নামে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা ও পরিচালনা করে আসছে।

ধারণার চেয়েও দ্রুত হারে বাড়ছে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ধারণার চেয়েও দ্রুত হারে বাড়ছে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল একাডেমি অব সায়েন্সের নতুন গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে। বৈশ্বিক উষ্ণতার ফলে গ্রিনল্যান্ড ও অ্যান্টার্কটিকার বরফ গলার হার বেড়ে যাওয়ায়, বিপর্যয়ের শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

আগের আশঙ্কা ছিল, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে এই শতাব্দীতেই সাগরের পানির উচ্চতা এক মিটার পর্যন্ত বাড়তে পারে। কিন্তু নতুন গবেষণায় ধারণা করা হচ্ছে- পানির উচ্চতা দুই মিটার পর্যন্ত বাড়তে পারে।

ফলে এই শতাব্দীর শেষ নাগান সমুদ্রের পানির উচ্চতা ৫২ থেকে ৯৮ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এতে উপকূলীয় অঞ্চলগুলো পানিতে তলিয়ে যাবে। গৃহহীন হতে পারে বিভিন্ন দেশের কয়েক কোটি মানুষ। কার্বন নিঃসরণ বৃদ্ধি ও বন উজাড়ের কারণে এমন বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন বিজ্ঞানীরা।

গোবিন্দগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় রিক্সাভ্যান চালক নিহত

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামার এলাকায় গোবিন্দগঞ্জ-দিনাজপুর আঞ্চলিক মহাসড়কে গতকাল সোমবার সকালে দ্রুতগামী ট্রাকের ধাক্কায় শফি আলম বাবু (২৫) নামের এক রিক্সাভ্যান চালক নিহত হয়েছে। সে উপজেলার কাটাবাড়ী ইউনিয়নের ঘোড়ামারা গ্রামের ফজল আলমের ছেলে।
স্থানীয়রা জানায়, চাল বোঝাই ভ্যান নিয়ে শফি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শহরের দিকে আসার সময় গোবিন্দগঞ্জ-দিনাজপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামার এলাকায় পৌছিলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক তাকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে সে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।

ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ছাত্রলীগ নেত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা

ঢাকা অফিস : পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদবঞ্চিতদের ওপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে হামলার ঘটনায় সংগঠনের পাঁচ নেতা-কর্মীকে বহিষ্কার করেছে ছাত্রলীগ। এর তিন ঘণ্টা পর রাত ১২টার দিকে শোভন ও রাব্বানীকে উদ্দেশ্য করে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দেন সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য জারিন দিয়া। এর পর ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি।

নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসে জারিন দিয়া লিখেন- ‘গত ১৩ তারিখ পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেয়ার পর যখন দেখলাম আমার নামটি নেই, তখন ভাবলাম- হয়তো যোগ্য না। তাই হয়তো আমার নামটি দেয়নি। একপর্যায়ে শোভন ভাইকে ফোন দিলাম। ভাইকে বললাম, ভাই আমাকে কেন কমিটিতে রাখা হলো না? আমি শুনতে চেয়েছিলাম তিনি হয়তো বলবেন- আমি যোগ্য না। রাজনীতি করতে থাকো, পাবে একসময়। কিন্তু না…

ভাই আমাকে বললেন- তোকে অনেক রাখার চেষ্টা করেছি। কিন্তু রাব্বানীর জন্য তোকে রাখতে পারিনি। রাব্বানী তোর ওপর ব্যক্তিগত ক্ষোভ। আমাকে ভুল বুঝিস না। কথাটা শুনে কাঁদব না হাসব বুঝতে পারলাম না। তখন আমি শোভন ভাইকে বললাম- ব্যক্তিগত ক্ষোভের সেই ঘটনাটা। আরও বললাম, কোনো দিন যদি আপার সামনে যেতে পারি ভাই, আমি আপাকে একটা বার বলতে চাই- আপা সম্মেলনের আগে রাব্বানী ভাইয়ের সাথে এই বিষয়টি নিয়ে কথাকাটাকাটি হয়। তখন ভাই আপনি কী উত্তর দেবেন? কোনো উত্তর দিতে পারেননি শোভন ভাই।

রাব্বানী ভাইকে অনেক বার ফোন দিয়েছি। উনি ফোন ধরেননি। তাই সামাজিকমাধ্যমে ফেসবুকের একটি স্ট্যাটাসে আমার সঙ্গে রাব্বানী ভাইয়ের ক্ষোভের ঘটনাটি উল্লেখ করি। যেটা ভাইরাল হয়ে যায়। আজ সেই স্ট্যাটাসটার জন্য আমাকে ছাত্রলীগ থেকে তারা বহিষ্কার করে দিলেন? আমার দেশরত্নের কাছে একটা প্রশ্ন রেখে যেতে চাই- আমরা মেয়েরা আর কতটা অসম্মানিত হলে তাদের যোগ্য বলে মনে হবে?

শোভন-রাব্বানী ভাই আপনাদের একটা কথা বলে যেতে চাই, ব্যক্তিগত ক্ষোভ না দেখিয়ে যারা সংগঠনের জন্য কাজ করে তাদের মূল্যায়ন দিয়েন। আমি সেদিনের মারামারিতে যখন কোমরে আঘাত পেলাম, কই আপনারা তো আমার একটা খোঁজ নিলেন না! আমি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছি। জানি না কী করব। আমি যদি মারা যাই শোভন-রাব্বানী ভাইদের কাছ থেকে উত্তরগুলো নিয়ে আমাকে কলঙ্কমুক্ত করবেন পারলে। রাজনীতি করতে এসে রাজনৈতিক নেতাদেরই দ্বারা এতটা অসম্মানিত হব কোনোদিন ভাবতেও পারিনি।’

২০শে মে রাতে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মী সালমান সাদিকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ছাড়া সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী মুরসালিন অনু, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগ কমিটির সদস্য কাজী সিয়াম, একই শাখার আরেক কর্মী সাজ্জাদুল কবির ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য জারিন দিয়া।

কারণ দর্শানো নোটিশ পাওয়া দুজন হলেন ছাত্রলীগের নতুন কমিটির সংস্কৃতিবিষয়ক উপসম্পাদক বিএম লিপি আক্তার ও মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মসূচি ও পরিকল্পনাবিষয়ক সম্পাদক হাসিবুর রহমান শান্ত।

মধুর ক্যান্টিনের হামলাকে অনাকাঙ্ক্ষিত ও অপ্রীতিকর ঘটনা হিসেবে উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে ছাত্রলীগ বলছে, তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পর্যালোচনা করে তাদের সুপারিশের ভিত্তিতে এইসব সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

পাইকগাছায় মহিলা পকেটমারদের উপদ্রব বৃদ্ধি

পাইকগাছা প্রতিনিধি : পাইকগাছার পৌর সদরে ঈদের কেনাকাটা শুরু হতে না হতেই মহিলা পকেটমারদের উপদ্রব বৃদ্ধি পেয়েছে। রবিবার বেলা ১১টায় সোনালী কসমেটিক্স-এ কেনাকাটার সময় শেফালী বেগমের সপিং ব্যাগ ব্লেড দিয়ে কেটে জনৈক বোরকা পরিহিতা মহিলা চম্পট দেয়। এ সময় ঐ ব্যাগের ভিতরে ১ হাজার ও ১টি মোবাইল সেট ছিল বলে শেফালী বেগম জানায়। অপরদিকে, সুন্দরবন কাপড় পট্টি থেকে এক মহিলার ভ্যানিটি ভ্যাগ খুলে সুকৌশলে তারও পার্টস ব্যাগটি নিয়ে যায়। যার ভিতরে ১১শ টাকা ছিল বলে জানা যায়। একইভাবে একটি বোরকার দোকান থেকে ভ্যানিটি ব্যাগের ভিতর থেকে জনৈক মহিলার ২ হাজার টাকা নিয়ে যায়। স্থানীয় দোকানদাররা ধারণা করছে এ প্রতারক চক্রটি প্রতি বছর ঈদের সময় এ ধরণের ঘটনা ঘটে থাকে।

পাইকগাছায় কুকুরের কামড়ে ৯জন আক্রান্ত

পাইকগাছা প্রতিনিধি : পাইকগাছার জিরো পয়েন্টে শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় একটি কুকুর কমপক্ষে ৯জনকে আমড় ও আঁচড়িয়ে দিয়েছে। এ সময় এলাকায় ঐ কুকুরের ভয়ে সাধারণ জনগণ ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে। আক্রান্ত ৬ ব্যক্তি পাইকগাছা হাসপাতাল ভর্তি হয়। আক্রান্তরা হলেন- পাইকগাছার জয়নাল আবেদীনের ছেলে আব্দুল্লাহ আল-হাদী (২১), সরল গ্রামের উমরের মেয়ে চুমপি (৩০), একই এলাকার ভবরঞ্জন ছেলে তুফান মন্ডল (৩০), বান্দিকাটি গ্রামের মৃত বছির গাজীর ছেলে জিন্নাত গাজী (৭০), সরল গ্রামের মোবারেক গাজীর ছেলে তহিদুল গাজী (৪৫) ও বাতিখালী গ্রামের লোকমান হোসেনের শহীদ (৩৫)। অন্য তিনজনের পরিচয় জানা যায়নি। এ ব্যাপারে হাসপাতালে কোন কুকুরে কামড়ানো ঔষধ না থাকায় খুলনা সদর হাসপাতাল থেকে ভ্যাকসিন নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে বলে কর্তব্যরত ডাক্তার সঞ্জয় কুমার মন্ডল ও ডাঃ সামিউল ইসলাম জানান। ঐ রাতে স্থানীয় স্থানীয় জনগণ কুকুরটি মেরে ফেলে।

দূষণ আর দখলদারদের কবলে দাকোপের চালনা খাল

দাকোপ, খুলনা : অবৈধ দখল, দূষণ ও ভরাটের কারণে ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে খুলনার চালনা পৌর শহরের চালনা খালটি। শহরের পানিনিষ্কাশনের একমাত্র পথ এই খাল। কিন্তু খালটি রক্ষায় প্রশাসনের তেমন কোনো উদ্যোগ না থাকায় সেই পানিনিষ্কাশনব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে ফলে শত শত পরিবার চরম দূর্ভোগের মধ্যে জিবীকা নির্বাহ করছে।
চালনা পৌর শহরের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া খালটি দখলদাররা দখলে নিয়েছে। খালের বিভিন্ন স্থানে দখল করে বিপণীবিতান, কাঁচা-পাকা ঘরবাড়ি ও বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা রয়েছে। খাল ভরাট করার কারণে শহরে বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এমনকি চালনা পৌরসভার মেয়র নিজেও দখল করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কাজে ব্যবহার করছেন।
উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) কার্যালয় সুত্রমতে, চালনা খালটির আয়তন ২৫ একর পাঁচশত। এরমধ্যে ওয়াপদার বাহিরের উত্তরপাড়ে ৫০ ফুট, দক্ষিণপাড়ে ৩০ ফুট ও লম্বা এক হাজার ফুট দখলদারেরা দখল করেছে। এছাড়া ওয়াপদার ভিতরে অবৈধভাবে ২০ ফুট দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করেছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, পশুর নদীর পূর্ব তীরে চালনা পৌরসভা শহরটি অবস্থিত। খালটি পশুর নদী থেকে পৌর শহর হয়ে আনন্দনগর গ্রামের দিকে প্রবাহিত হয়েছে। খালটি দখলদারদের দখলে থাকায় দূষিত পানির দুর্গন্ধে অতিষ্ট পথচারিরা। পশুর নদের শুরু হতে খাল ভরাট করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করেছে। খালের ভিতরে ভরাট করে ধানের মাঠ ও স’মিল রয়েছে। ওয়াপদার বাহিরে খাল ভরাট করে আধাঁপাকা ও পাকা ঘরবাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে। এ কারণে এসব স্থানে খাল সরু হয়ে গেছে।
স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা জানান, পশুর নদী থেকে চালনা বাজার হয়ে আনন্দনগর গ্রাম পর্যন্ত খালটি প্রবাহিত। আট থেকে নয় বছর আগেও খালটিতে ধরা পড়ত ছোট বড় অনেক মাছ। কিন্তু দখল আর দূষণের কারণে মাছ তো দূরের কথা, ক্রমেই হারিয়ে যাচ্ছে খালটি। খালের দুই পারের শত শত পরিবারের হাজার হাজার মানুষ খালের পানি দৈনন্দিন কাজেও ব্যবহার কওে আসছিল। এখন দূষণের কারণে সেভাবে পানিও ব্যবহার করতে পারছে না। তাঁরা আরও জানান, খাল দখল করার কারণে গ্রামের বিলের পানি নামতে পারছে না। এতে বর্ষাকালে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়।
পৌরসভার কাজীপাড়ার ভিতরে বাড়ি ৫৮ বছর বয়সী আজম গাজীর। তিনি বলেন, ‘আমার জন্মই এ এলাকায়। এই খালে সারা বছর পানি থাকত। অনেকেই মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। কিন্তু গত ১০ থেকে ১২ বছর ধরে এই খাল হারিয়ে যাচ্ছে। খর¯্রােতের বহমানে খালটি ছিল অনেক বড়। খালের একপার থেকে অন্যপারে ডিঙি নৌকায় পাড়ি দিয়ে যেতে মানুষ। এখন ক্রমেই খালটি বিভিন্ন জায়গায় সরু হয়ে যাচ্ছে। যার যখন প্রয়োজন, তখন তিনি খালটিকে অবৈধভাবে ব্যবহার করছেন।’ আজম বলেন, ‘আমরা সারা জীবন দেখলাম, সেটি একটা খাল। হঠাৎ করে নিজের জমি দাবি করে সেখানে দালান নির্মাণ করা হচ্ছে। কেউ প্রতিবাদও করেন না। কেউ প্রতিবাদ করতে গেলে তার বিপদ চলে আসবে।’
০৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আইয়ুব কাজী বলেন, পুরো খালটি চার ও পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যেই পড়েছে। তবে অন্য লোকজন খালটি দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করেছেন। খালের আশপাশের বসবাসকারীরাই খালটিকে ক্রমেই ভরাট করে দখল করেছেন। তিনি আরও বলেন, শহরের মানুষকে জলাবদ্ধতা হতে রক্ষার্থে পুরো খালটি খনন ও দখলমুক্ত করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।
চালনা পৌরসভার মেয়র সনত কুমার বিশ^াস মুঠোফোনে বলেন, দীর্ঘবছর আগেই অবৈধভাবে দখল করে খালটির মধ্যে স্থাপনা নির্মাণ করায় তা আর দখলমুক্ত করা সম্ভাব হয়নি। সবচেয়ে বেশি দখলে বাজারের পাশটি। তিনি আরও বলেন, খালটির অবৈধ দখল থেকে মুক্ত করতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। নিজের দখলের বিষয়ে বলেন, সরকারের জায়গা তাই স্থাপনা নির্মাণ না করে মিলের সামনে খালের সমান্য জায়গা ভরাট করা হয়েছে।
দাকোপ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবদুল ওয়াদুদ বলেন, অবৈধ দখলদার থাকলে তালিকা করে দখলমুক্ত করা হবে। পূর্বের মতো যাতে ওই খাল দিয়ে পানিনিষ্কাশন হতে পারে তার জন্য ব্যবস্থা নেবেন কর্তৃকপক্ষ। আর এ বিষয় দাকোপ উপজেলা চেয়ারম্যান মুনসুর আলি খান বলেন এতকাল যাদের দায়িত্ব ছিল তারাই অনিয়মের মধ্যে ডুবে ছিল,তারাই অনেক জায়গা,জমি দখল করে আছে, এ সকল বিষয় এখন থেকে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।

হুইপ পঞ্চানন বিশ্বাসের সুস্থতা কামনা

বটিয়াঘাটা : জাতীয় সংসদের হুইপ পঞ্চানন বিশ্বাস পেটের পিড়ায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছেন। তার সুস্থতা কামনা করে বটিয়াঘাটা প্রেস ক্লাবের নেতৃবৃন্ধ ও পত্রিকা বিক্রেতা এসোসিয়েশন বিবৃতি দিয়েছেন। বিবৃতি দাতারা হলেন বটিয়াঘাটা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শেখ আব্দুল হামিদ, সভাপতি অধ্যাপক এনায়েত আলী বিশ্বাস, উপদেষ্টা দৈনিক ইকিলাবের খুলনা ব্যুরো প্রধান সাংবাদিক আবু হেনা মুক্তি, হুমায়ুন কবির পলাশ, সাংবাদিক এ্যাডভোকেট সোহেল রানা, বিবেক বিশ্বাস, রেজাউল করিম, ইমরান হোসেন, বিপ্রদাস রায়, দিপংকর রায় প্রমুখ। অনুরুপ বিবৃতি দিয়েছেন পত্রিকা বিক্রেতা এসোসিয়েশনের সভাপতি বিকাশ কুমার, সম্পাদক আব্দুস সামাদ। বিবৃতি দাতারা হুইপ পঞ্চানন বিশ্বাসের আশু রোগ মুক্তি কামনা করেন।