খুলনায় পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের কর্মসূচি

খুলনা : খুলনায় পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর-২০১৯ যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সাথে উদযাপনের লক্ষ্যে সরকারিভাবে বিভিন্ন কর্মসূিচ গ্রহণ করা হয়েছে।
আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ঈদ-উল-ফিতরের প্রথম ও প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল আটটায় খুলনা সার্কিট হাউজ ময়দানে এবং দ্বিতীয় ও শেষ জামাত খুলনা টাউন জামে মসজিদে সকাল নয়টায় অনুষ্ঠিত হবে। আবহাওয়া প্রতিকূল হলে টাউন জামে মসজিদে প্রথম ও প্রধান জামাত সকাল আটটায়, দ্বিতীয় জামাত নয়টায় এবং তৃতীয় ও শেষ জামাত ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে। আবহাওয়া প্রতিকূল হলে কোর্ট জামে মসজিদে সকাল সাড়ে আটটায় একটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া বসুপাড়া ইসলামাবাদ ঈদগাহ ময়দানে, খুলনা আলিয়া কামিল মাদ্রাসা জামে মসজিদ, নিউমার্কেটস্থ বায়তুন-নূর মসজিদ কমপ্লেক্সে, খালিশপুর ঈদগাহ ময়দান, সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকা (২য় ফেজ), বায়তুল্লাহ জামে মসজিদ, নিরালা আবসিক এলাকা ঈদগাহ, খানজাহান নগর খালাসী মাদ্রাসা ঈদগাহ, দৌলতপুর ঈদগাহসহ অন্যান্য মসজিদ ও ঈদগাহসমূহে সংশ্লিষ্ট কমিটিদ্বারা সময় নির্ধারণ সাপেক্ষে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ৩১টি ওয়ার্ডে সিটি কর্পোরেশনের সহায়তায় ও ওয়ার্ড কাউন্সিলরগণের তত্ত্বাবধানে পৃথকভাবে নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।
ঈদের দিন সকল সরকারি, আধা-সরকারি,বেসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ভবনে যথাযথভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা এবং সূর্যাস্তের পূর্বে নামানো হবে। নগরীর প্রধান প্রধান সড়কসমূহ ও গুরুত্বপূর্ণ চত্বর, সড়কদ্বীপ ও সার্কিট হাউস ময়দান জাতীয় পতাকা ও ঈদ মোবারক (বাংলা ও আরবী) খচিত ব্যানার দিয়ে সজ্জিত করা হবে।

ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে বাংলাদেশ বেতার, খুলনা বিশেষ অনুষ্ঠানমালা এবং স্থানীয় সংবাদপত্রসমূহ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বিশেষ সংখ্যা প্রকাশ করবে। বিভিন্ন হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশুসদন, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রে এ উপলক্ষে বিশেষ খাবার পরিবেশন করা হবে। ঈদের পরে সুবিধাজনক দিন ও সময়ে শহীদ হাদিস পার্কে খুলনা জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে রাষ্ট্রীয় নীতি ও ধর্মীয় অনুভূতির সাথে সঙ্গতিপূর্ণ চলচ্চিত্র ও প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হবে।

ঈদ-উল-ফিতরের গুরুত্ব সম্পর্কে ইসলামিক ফাউন্ডেশন এবং ইমাম পরিষদের উদ্যোগে সুবিধামত সময়ে সেমিনার ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে। ঈদের দিন বিকেলে শিশু পার্কসমূহে দু:স্থ ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিনামূল্যে প্রবেশের ব্যবস্থা থাকবে। সুবিধাজনক সময়ে জেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে প্রীতি ফুটবল, জেলা শিল্পকলা একাডেমী সুবিধাজনক সময়ে অফিসার্স ক্লাবে ঈদ পুনর্মিলনী এবং জেলা শিশু একাডেমী সুবিধাজনক সময় ও স্থানে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য শিশু আনন্দমেলার আয়োজন করবে। ঈদে আইনশৃংঙ্খলা রক্ষার্থে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মহানগর ও মহানগরের বাইরের বিভিন্ন স্পটে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। ঈদুল ফিতরের সময় আতশবাজি ও পটকা ফোটানো, রাস্তা বন্ধ করে স্টল তৈরি, উচ্চস্বরে মাইক, ড্রাম বাজানো, রঙিন পানি ছিটানো এবং বেপরোয়াভাবে মটর সাইকেল চালানো যাবে না।

ঈদ উপলক্ষে রাস্তায় যত্রতত্র গেট নির্মাণ, প্যানা বা ব্যানার টাঙালে রাস্তা সংকুচিত হয়ে দুর্ঘটনার আশংকা থাকে এবং শহরের সৌন্দর্য নষ্ট হয়। এজন্য গেট নির্মাণ, প্যানা বা ব্যানার টাঙানোর বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের নিরুৎসাহিত করতে হবে। ঈদের সময় অজ্ঞান ও মলম পার্টি, ছিনতাইকারী ও পকেটমারদের তৎপরতা বন্ধে টার্মিনাল সংযোগ সড়ক, রেলস্টেশন, বাস ও নৌযান টার্মিনালসমূহে সাদা পোষকধারী পুলিশ মোতায়েন থাকবে এবং ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে। এছাড়া জাল টাকা বিস্তাররোধে প্রযোজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। ঈদের সময় ইভটিজিং বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রধান জামাত অনুষ্ঠানের সময় মুসল্লীদের গাড়ি পার্কিং এর জন্য খুলনা সার্কিট হাউজের হ্যালিপ্যাড, খুলনা অফিসার্স ক্লাব এবং জেলা স্টেডিয়াম সংলগ্ন আউটার স্টেডিয়াম সংরক্ষিত থাকবে। মুসল্লীদের অযুর জন্য পানির ব্যবস্থাও রাখা হবে। বাস, লঞ্চ, স্টিমারে যাতে অতিরিক্ত যাত্রী উঠতে না পারে এবং বেপরোয়াভাবে যান চলাচল করতে না পারে তার জন্য আইনশৃংঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত থাকবে। জেলার শান্তিশৃঙ্খলা বিঘেœর কোন সংবাদ পেলে তাৎক্ষণিকভাবে র‌্যাবের কন্ট্রোল রুমের মোবাইল নম্বর ০১৭৭৭৭১০৬৯৯-এ জাননো যাবে। যাকাতের একটি অংশ অর্থ সোনালী ব্যাংক, খুলনা কর্পোরেট শাখা, চলতি হিসাব নম্বর-৩৩০০০৮৩৫; ইসলামী ব্যাংক, খুলনা শাখা, চলতি হিসাব নম্বর-২১৫ এবং জনতা ব্যাংক খুলনা কর্পোরেট শাখা, চলতি হিসাব নম্বর-৩৩০০৭৫৭ অথবা উপপরিচালক, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, বয়রা, খুলনা-এর নিকট সরাসরি প্রদান করা যেতে পারে। উপজেলা সমূহেও স্থানীয়ভাবে অনুরূপ কর্মসূচি পালিত হবে।

মোরেলগঞ্জে নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার

বাগেরহাট প্রতিনিধি : বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের পানগুছি নদী থেকে এক নাবজাতকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় মোরেলগঞ্জ পৌরসভার পুরাতন ফেরীঘাট সংলগ্ন পানগুছি নদী থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজিজুল ইসলাম বলেন, একটি নবজাতকের মরদেহ নদীতে ভাসছে এমন খবর পেয়ে আমরা মরদেহ উদ্ধার করেছি। মরদেহের সুরতলাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে প্রেরনের প্রস্তুতি চলছে। তিনি আরও বলেন, কেউ হয়ত অবৈধ গর্ভপাত করে নবজাতকটিকে নদীতে ফেলে দিয়েছে। আমরা তদন্ত করে দেখব আসলে শিশুটি কে বা কারা ফেলে দিয়েছে।

বটিয়াঘাটার বীরমুক্তিযোদ্ধা মনোরঞ্জন মল্লিক আর নেই

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বীরমুক্তিযোদ্ধা মনোরঞ্জন মল্লিক (৭৪) আর নেই। তিনি সোমবার ভোর ৬টার দিকে বটিয়াঘাটার দেবীতলা গ্রামের নিজ বাসভবনে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে সকল কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী,দুই কন্যা সন্তান ও নাতী নাতনী সহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। বেলা ১টার দিকে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃক দেলোয়ার হোসেন এর নেতৃত্বে থানা পুলিশের একটি চৌকশ দল তাকে গার্ড অব অনার প্রদর্শন করেন। এ সময়ে অন্যোন্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান বুলু রায় গাঙ্গুলি, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বিনয় কৃষ্ণ সরকার ও শেখ আফজাল হোসেন,বীরমুক্তিযোদ্ধ্যা যথাক্রমে ধীরেন্দ্রনাথ মন্ডল, নিরঞ্জন কুমার রায়, বিকাশ কুসুম মন্ডল, বিধান গোলদার, অধীর রায়, বিদুৎ রায়, পঞ্চানন ঢালী, নিশিকান্ত গাইন, বিদ্যাধর বিশ্বাস, মনোরঞ্জন মন্ডল, দেলোয়ার হোসেন,অমারেশ,মনিরুল ইসলাম, প্রাক্তন শিক্ষক প্রভাষ রায় প্রমূখ। পরে তার শেষকৃত্যানুষ্ঠান দেবীতলা মহাশ্মশান ঘাটে অনুষ্ঠিত হয়।

দারিদ্র বিমোচন প্রকল্পগুলি প্রতিষ্ঠানিক রূপ দিতে হবে : জেলা প্রশাসক

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেছেন, ভালো কাজ করতে গেলে সমাজে ছোট খাটো সমালোচনা থাকবেই। সেটাকে উপেক্ষা করে তৃণমূল থেকেই সুশাসন প্রতিষ্ঠা করে দারিদ্র বিমোচন প্রকল্পগুলি প্রতিষ্ঠানিক রূপ দিতে হবে। বর্তমান সরকারের একের পর এক যুগান্তকারী গৃহিত পদক্ষেপে এমডিজি থেকে ২০৩০ সালের মধ্যে শতভাগ এসডিজি বাস্তবায়নে এগিয়ে চলেছে। তিনি সোমবার সকাল ৯ টায় বটিয়াঘাটা উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে মহানগরীর সিএসএস আভা সেন্টারের সম্মেলন কক্ষে স্থানীয় পর্যায়ে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট(এসডিজি) বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহম্মেদ জিয়াউর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্মশালায় রির্সোস পার্সন ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) মোঃ জিয়াউর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আশরাফুল আলম খান ও সিনিয়র সহকারি কমিশনার খাতুনে জান্নাত। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোঃ দেলোয়ার হোসেন, অধ্যক্ষ অমিতেষ দাস, অধ্যক্ষ আরিফুল ইসলাম, প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা বঙ্কিম চন্দ্র হালদার, কৃষি কর্মকর্তা মোঃ রবিউল ইসলাম, সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মনিরুল মামুন, প্রকৌশলী জি,এম শাহাবুদ্দিন, ওসি (তদন্ত) সরদার ইব্রাহীম হোসেন সোহেল, সাব-রেজিষ্টার সুব্রত কুমার সিংহ, সমাজসেবা কর্মকর্তা অমিত কুমার সমাদ্দার, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ হাবিবুর রহমান, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নারায়ন চন্দ্র মন্ডল, পিআইও শেখ আঃ কাদের,উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি প্রতাপ ঘোষ, পল্লী উন্নয়ন কর্মকতা সরদার রফিকুল ইসলাম, খাদ্য কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোনায়েম খান, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা বিপাশা দেবী তনু, সমবায় কর্মকর্তা জন্নাতুন্নেছা,জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী বিপ্রকাশ ঢালী, ভারঃ আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা শামসুর নাহার খানম, নির্বাচন কর্মকর্তা আঃ ছাত্তার, ইনস্ট্রাক্টর সিমু রাজিয়া লায়লা, দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা শামীমা খাতুন, তথ্য সেবা কর্মকর্তা মিতালী মন্ডল, সামাজিক বনায়ন কর্মকর্তা মোঃ ছালাম খান, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সমন্বয়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস, ইউপি চেয়ারম্যান মনোরঞ্জন মন্ডল, শেখ হাদি উজ-জামান হাদী, ইসমাইল হোসেন বাবু, উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ টিকাদার,সাংবাদিক আহসান কবীর, সাংবাদিক শাহীন বিশ্বাস, সাংবাদিক পরিতোষ রায়, কোডেকের ম্যানেজার লোকমান হোসেন, ব্যবসায়ী বীরেন্দ্রনাথ শীল, ডিলার ব্যবসায়ী অশোক ঘোষ, মিল মালিক মোশারফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, কলেজ শিক্ষার্থী ইন্দ্রা রাণী ঘোষ ও সজল মল্লিক, নারীনেত্রী প্রতিভা বিশ্বাস, আশালতা ঢালী, গরুদাসী বৈরাগী রবিতা বিশ্বাস, ব্র্যাক ম্যানেজার পলাশ ঘোষ, ওআইসি রিসোট সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুমন আহম্মেদ,পুরোহিত বৃত্তি সুন্দর চ্যাট্যার্জী, নিজেরা করি ম্যানেজার নাহিদ রেহানা, রুপান্তরের ম্যানেজার দিপ্তি রায়, ইমাম হাফেজ মোঃ মাহবুবুর রহমান প্রমূখ। সভায় বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, এনজিও প্রতিনিধি, ব্যবসায়ি,নারীনেত্রী, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও সমাজের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

‘বাংলাদেশ এখন দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির দেশ’

ঢাকা অফিস : বর্তমান সরকারের সময়ে বাংলাদেশ দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির দেশে পরিণত হয়েছে-এমনটি জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার সকালে, জাপানে ‘দ্য ফিউচার অব এশিয়া’ সম্মেলনে মূল বক্তব্যে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘তথ্যপ্রযুক্তি ও যোগাযোগ খাতকে যুগোপযোগি করার ফলে দেশে তরুণদের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। ২০৫০ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ বিশ্বের ২৩তম বৃহত্তর অর্থনীতির দেশে পরিণত হবে। প্রতিবছরই বাংলাদেশের মানুষের সামাজিক অবস্থার পরিবর্তন হচ্ছে। সরকারে সুনির্দিষ্ট নীতিমালার কারণে পোশাক শিল্প, চামড়াজাত পণ্যসহ উৎপাদনখাতের উন্নতি হচ্ছে।’

এছাড়াও বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিণত করার পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। সে লক্ষ্যেই তথ্যপ্রযুক্তি ও যোগাযোগ খাত উন্নয়নের দিকে বিশেষ নজর দিচ্ছে সরকার। বাংলাদেশ আইসিটি খাতে উন্নয়নের ফলে দেশে তরুণদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে  বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিকে, জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে দুই দেশের মধ্যে আড়াইশ কোটি ডলার চুক্তি স্বাক্ষর হয়। চুক্তির আওতায় যেসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে, সেগুলো হলো- মাতারবাড়ী বন্দর উন্নয়ন প্রকল্প-১, ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট উন্নয়ন প্রকল্প (লাইন-১), সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ উৎসাহিতকরণ প্রকল্প-২, জ্বালানি সক্ষমতা ও সংরক্ষণ উৎসাহিতকরণ অর্থায়ন প্রকল্প (ফেজ-২) ও মাতারবাড়ী আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প-৫।

এর আগে, দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বাংলাদেশে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে নিরাপদ ও সম্মানজনক প্রত্যাবাসনের পক্ষে বলেও জানান।

বটিয়াঘাটায় আ’লীগের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বটিয়াঘাটা উপজেলা আ’লীগের উদ্যেগে বুধবার বিকালে উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষ্যে এক আলোচনাসভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আশরাফুল আলম খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক দিলীপ হালদারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন আ’লীগ নেতা মনোরঞ্জন মন্ডল, ফিরোজুর রহমান, মীর মহাম্মদ আলী, প্রদীপ বিশ্বাস, মৃন্ময় পাল, পলাশ রায়, রবীন দত্ত, অনুপ গোলদার, চয়ন বিশ্বাস, বি.এম মাসুদ রানা,স্বপন সরকার, প্রসাদ রায়, চঞ্চলা মন্ডল, কিংকর রায়, অসিম মন্ডল, গোবিন্দ রায়, নারায়ন চন্দ্র সরকার,আকরাম হোসেন,পিযুস কান্তি মন্ডল, গোবিন্দ মল্লিক, ইউপি চেয়ারম্যান শেখ হাদী ইজ-জামান হাদী, মোঃ ওবায়দুল শেখ, পংকজ বিশ্বাস, মানষ পাল, চেয়ারম্যান মিলন গোলদার, ইউপি চেয়ারম্যান ইসমাইল হোসেন বাবু, ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম হাসান, মুশিবর রহমান, আবুল কালাম, গোবিন্দ মল্লিক, প্রকাশ রায়, কার্তিক টিকাদার, গৌর দাস ঢালী, মোস্তাফিজুর রহমান, মিজানুর রহমান মিজান, বিদ্যুৎ বিশ্বাস, অরিন্দম গোলদার, সুরজিৎ মন্ডল, ইব্রাহীম শেখ, ইফতেখার, রানা,অনিমেশ মল্লিক, সাইফুর,সোহাগ, প্রমুখ।

বটিয়াঘাটা থানায় ওপেন হাউজ ডে পালিত

বটিয়াঘাটা প্রতিনিধি : বটিয়াঘাটা থানা পুলিশের আয়োজনে বুধবার বেলা ১১ টায় স্থানীয় থানা চত্বরে ওপেন হাউজ ডে পালিত হয়। থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ রবিউল কবীর এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার( উত্তর) মোঃ নূর আলম সিদ্দীক। ওসি (তদন্ত) মোঃ সরদার ইব্রাহিম হোসন সোহেল এর সঞ্চলনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ হালদার ও ইউপি চেয়ারম্যান মনোরঞ্জন মন্ডল। বক্তৃতা করেন ইউপি চেয়ারম্যান হাদী-উজ-জামান হাদী, উপজেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ টিকাদার, সদর ইউনিয়নের আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মানস পাল, ইউপি সদস্য যথাক্রমে নজরুল ইসলাম খান, নূর আলম, ভূইঁয়া, বিউটি মন্ডল, সাংবাদিক পরিতোষ রায়, সাংবাদিক শাহীন বিশ্বাস, সাংবাদিক শাওন হাওলাদার, মানষ সরকার শহীদ শেখ, হালিম গাজী, আনন্দ মন্ডল সহ থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক ও সহকারি উপ পুলিশ পরিদর্শক সহ গ্রাম পুলিশের সদস্যবৃন্দ এবং গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

বন্দির হামলায় শীর্ষ সন্ত্রাসী অমিত মুহুরীর মৃত্যু

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতরে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত হয়েছেন শীর্ষ সন্ত্রাসী অমিত মুহুরী। বুধবার রাতে কারাগারের সেলে এক বন্দির ইটের আঘাতে গুরুতর আহত হন অমিত। পরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যান তিনি। এ ঘটনায় চট্টগ্রাম মেডিক্যালে ভাঙচুর চালিয়েছে অমিতের অনুসারীরা।

২০১৩ সালে চট্টগ্রামের সিআরবি এলাকায় রেলের টেন্ডার নিয়ে যুবলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে শিশুসহ ২ জন নিহত হয়। এরপরই অপরাধ জগতে অমিত মুহুরীর নাম ছড়িয়ে পড়ে। বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা হেলাল আকবর বাবরের হাত ধরে তার উত্থান। এরপর হয়ে উঠে ভয়ংকর এক সন্ত্রাসী।  পুলিশের হাতে আটক হওয়ার আগে ঝাউতলা এলাকায় প্রকাশ্যে অস্ত্র উঁচিয়ে গুলি করতে দেখা যায় অমিত মুহুরীকে।

২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে ছাত্রলীগ নেতা ইয়াছিনকে আমতলা এলাকায় কুপিয়ে হত্যা করে অমিত।  এরপর আগস্টে নিজ বাসায় বাল্যবন্ধু যুবলীগ কর্মী ইমরানুল করিমকে খুনের পর ড্রামে ঢুকিয়ে এসিডে পুড়িয়ে ও সিমেন্ট দিয়ে ঢালাই করে মরদেহ গুম করার চেষ্টা করে।  এ ঘটনায় তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।  এরপর থেকে কারাগারই ছিলো অমিতের ঠিকানা।

বুধবার রাত ৯টার দিকে কারাগারের ৩২ নম্বর সেলে রিপন নামের এক বন্দি অমিতকে মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করে। গুরুতর অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসার পর মৃত্যু হয় তার।

অমিত মুহুরীর বাবা অজিত মুহুরী বলেন, ‘আমরা এসে দেখি সে মৃত। দেখলাম মাথায় ব্যান্ডেজ করা, মনে হচ্ছে পেছন থেকে কেউ এসে হয়তো মাথায় মেরেছে।’

খবর পেয়ে অমিতের অনুসারীরা হাসপাতালে ভাঙচুর চালায়। এতে ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের ব্যাপক ক্ষতি হয়। এ সময় হাসপাতালে থাকা রোগী ও তাদের স্বজনদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

সিএমপি উপ-কমিশনার (উত্তর) বিজয় বশাক বলেন, ‘জেলখানায় আহত অবস্থায় তাকে এখানে নিয়ে আসা হয়, এবং এখানে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। এর পর তার অনুসারিরা তাৎক্ষণিক উত্তেজনায় এখানে কিছু ভাঙচুরের ঘটনা ঘটায়। পরে আরও বেশি পরিমাণ পুলিশ নিয়ে এসে আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি।’

এ ঘটনায় চট্টগ্রাম কারাগারে উত্তেজনা বিরাজ করছে। জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

কারারক্ষী আব্দুর রহমান বলেন, ‘আমার ওখানে ডিউটি ছিলো, আমি এই অবস্থায় (আহত) তাকে এখানে নিয়ে এসেছি।

র‌্যাব ও পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী অমিত মুহুরীর বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের বিভিন্ন থানায় তিনটি হত্যাসহ ১৪টি মামলা রয়েছে।