বটিয়াঘাটায় অসহায় কৃষকের পাকা ধান কাটলো স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতৃবৃন্দ

বিজ্ঞপ্তি : মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে করোনা ভাইরাসের কারনে অসহায় সম্মানিত কৃষকের সোনার ফসল পাকা ধান কেটে দিয়েছে বটিয়াঘাটা উপজেলা অাওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সোমবার উপজেলার সুরখালী ইউনিয়নে।
সম্মানিত কৃষক অছিকুল সরদারের অতি কষ্টে ফসল করা এক বিঘা পাকা ধান কাটা হয়। উপজেলা অাওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক,সাবেক ছাত্রনেতা মিজানুর রহমান মিজানের নেতৃত্বে এ সময় নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কমিটির সহ সভাপতি উজ্বল রায়, শশাংক রায়, অাতাউর রহমান, অর্জূন সরকার, নিতিশ রায়, অাবু দাউদ, হান্নান শেখ, নাজমুল শেখ, সাদ্দাম শেখ, মওলাত কবিরাজ, অাবজাল সরদার, অনিমেষ শীল, অাজিজুল ইসলাম, গোবিন্দ রায়, রেজোয়ান গোলদার প্রমুখ ৷

কেশবপুরে কর্মহীনদের মাঝে আর্থিক সহায়তা প্রদান

এস আর সাঈদ, কেশবপুর (যশোর) : যশোরের কেশবপুর উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কর্মহীনদের মাঝে উপজেলা চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম ৭ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা বিতরণ করেছেন।
সোমবার দুপুরে কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম জানান, উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে এপর্যন্ত তিনি ৪ শত কর্মহীনদের মাঝে তাঁর নিজস্ব অর্থায়নে ৪ লাখ টাকা বিতরণ করেছেন। এর মধ্যে ৫২ জন সাংবাদিককেও তিনি ৫২ হাজার টাকা আর্থিক প্রনোদনা প্রদান করেছেন। এছাড়াও উপজেলা চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম অদ্যবধি উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিল থেকে উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কর্মহীন অতিদরিদ্রদের মাঝে ৩ লাখ টাকা বিতরণ করেছেন।
অপরদিকে উপজেলা চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলামের পূত্র সাগরদাঁড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত তাঁর নিজস্ব তহবিল থেকে সাগরদাঁড়ী ইউনিয়য়নের ভ্যান চালক, নসিমন চালক, মোটর সাইকেল চালক, কমিমন চালক, ইজিবাইক চালক, আলমসাধু চালক, চায়ের দোকানদার-সহ ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী ও দিনমজুর ২৫ শত পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন।

কেশবপুরে সাদেক ও নাসিমা সাদেকের ৫০ হাজার টাকা প্রদান

এস আর সাঈদ, কেশবপুর (যশোর) : যশোরের কেশবপুর উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে লকডাউনে কর্মহীন অতিদরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী প্রদানের জন্য উপজেলা প্রশাসনের ত্রাণ তহবিলে যশোর জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব হাসান সাদেক ও কেশবপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা সাদেক ব্যক্তিগত ভাবে ৫০ হাজার টাকা প্রদান করেছেন। সোমবার সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুসরাত জাহানের হাতে তাঁর দপ্তরে উক্ত ৫০ হাজার টাকা হস্তান্তর করেন যশোর জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব হাসান সাদেক।

কেশবপুরে অতিদরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

এস আর সাঈদ, কেশবপুর (যশোর) : যশোরের কেশবপুর পৌরসভার অর্থায়নে পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সোমবার সকালে কর্মহীন অতিদরিদ্র ৫০ পরিবারের মাঝে প্রত্যেককে ১০ কেজি করে চাউল-সহ খাদ্যসাগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফজাল হোসেন বাবুর সভাপতিত্বে পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের শান্তি পাড়া ও মাছ বাজারের অতিদরিদ্র ৫০ পরিবারের মাঝে প্রধান অতিথি হিসাবে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম। এসময় উপজেলা বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের আহ্বায়ক সবুজ হোসেন নিরব-সহ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এছাড়া পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম পৌরসভার অর্থায়নে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত লকডাউনকৃত সকল পরিবার প্রতি ১০ কেজি করে চাউল, ১ কেজি করে ডাউল, ১ কেজি করে আলু, ৫০০ গ্রাম করে তৈল, ৫০০ গ্রাম করে পেয়াজ, ৫০০ গ্রাম করে লবণ, ২৫০ গ্রাম করে কাটামরিচ, ৫০০ গ্রাম করে পটোল, ৫০০ গ্রাম করে টমেটো ও ৫০০ গ্রাম করে কাঁচকলা প্রদান করেছেন।
অপরদিকে পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম তাঁর নিজস্ব অর্থায়নে প্রতিদিন অতিদরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি মধ্যবিত্ত পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ করছেন।

কেশবপুরে কৃষকের ধান কাটলেন স্কুলের শিক্ষকবৃন্দ

এস আর সাঈদ, কেশবপুর (যশোর) : যশোরের কেশবপুরে করোনা ভাইরাসের কারণে ধান কাটা শ্রমিকের সংকট দেখা দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার আহ্বানে গতকাল কানাইডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ কৃষকের ধান কেটে সহযোগিতা করেছেন।
কেশবপুর উপজেলার সারুটিয়া গ্রামের পাগল চন্দ্র দাস জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে লগডাউনে শ্রমিক সংকট ও বৃষ্টি-সহ ঝড়ো হাওয়ার কারণে ক্ষেতের পাকা ধান নিয়ে তিনি খুবই চিন্তিত ছিলেন। বিষয়টটি অবগত হয়ে কানাইডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুফলাকাটি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ মাষ্টার, সহকারী প্রধান শিক্ষক মাওঃ আব্দুস সবুর, সহকারী শিক্ষক নারায়ন বিশ্বাস, দিনবন্ধু বিশ্বাস, নিতাই বিশ্বাস, আলী আকবর, সুভাষ রায়, নূরুল ইসলাম, আব্দুল গণি, বিদ্যুৎ মন্ডল, মকবুল মাহফুজ, আলাউদ্দীন গাজী, বিশ্বজিৎ নাথ, চিত্তরঞ্জন মন্ডল গতকাল তাঁর ক্ষেতের পাকা ধান কেটে তাকে সহযোগিতা করেছেন। এসময় কাটাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মলয় কুমার ব্রম্ম ও পল্লী উন্নয়ন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শীতল চন্দ্র রাহাও উক্ত ধান কাটায় অংশ নেন।
এব্যাপারে কানাইডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সুফলাকাটি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ মাষ্টার বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার আহ্বানে আমরা ধান কেটে কৃষকের সহযোগিতা করছি। তিনি ভাইরাস থেকে বাংলাদেশ-সহ বিশ্ব বাসিকে মুক্তির জন্য আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের নিকট দোয়া প্রার্থনা করেন। তাছাড়া তিনি দেশের যে কোন সংকটে দেশবাসির পাশে থাকার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

মোংলায় অসাধু ব্যবসায়ীদের জরিমানা

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : রমজানে মোংলায় নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি বেশি দামে বিক্রির দায়ে কয়েক ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। সোমবার দুপুরে পৌর শহরের প্রধান বাজারের মুদি ব্যবসায়ীদের এই অর্থদন্ড দেয়া হয়। এছাড়া বাটখারায় ওজনে কম থাকায় মাছ ব্যবসায়ীকেও অর্থদন্ড দেওয়া হয় এসময়। ভ্রাম্যমান আদালতের এ অভিযানে ব্যবসায়ীদেরকে ১২ হাজার টাকা নগদ জরিমানা করার পাশাপাশি তাদেরকে ভবিষ্যৎ সতর্ক বাণী দেয়া হয়। অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে এ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রাহাত মান্নান। মোঃ রাহাত মান্নান বলেন, কিছু অসাধু ব্যবসায়ী নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি বেশি দামে বিক্রি করে সাধারণ মানুষদের ঠকাচ্ছেন। এসব অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। এছাড়া তিনি আরও বলেন, কাঁচা বাজারে যে সব ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট তৈরী করে পণ্য বিক্রি করছেন তাদেরকেও আইনেরও আওতায় এনে জরিমানা করা হবে।

রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে ভারতীয় শ্রমিকদের বিক্ষোভ

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি : ৯ দিনের মজুরী ও মান সম্মত খাবারের ব্যবস্থার দাবী এবং ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় লকডাউনের মধ্যেই ভারতে ফিরে যেতে চেয়ে রামপাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কয়েক’শ শ্রমিক বিক্ষোভ প্রর্দশন করেছে। ওই কেন্দ্রের কাজে নিযুক্ত ভারতীয় শ্রমিকদের মধ্য থেকে প্রায় ৪শ শ্রমিক সোমবার সকাল ৯ টার দিকে এ সকল দাবীতে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রাচীরের মুল গেইট থেকে বের হয়ে রাস্তায় চলে আসে। এ সময় তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে প্রায় ৩ কিলোমিটার পথ পায়ে হেটে জিরো পয়েন্টের কাছাকাছি চলে আসার পর স্থানীয় প্রশাসন তাদেরকে কেন্দ্রে ফিরিয়ে নিয়ে যায়। বিকেল সোয়া তিনটার দিকে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মামুনুর রশিদ ও পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় তাদেরকে কেন্দ্রের ভিতরে নিয়ে গিয়ে তাদের মধ্য থেকে ৫ জনসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে আলোচনায় বসেন। বিকেল সাড়ে ৪টায় বৈঠক শেষ হয়। বৈঠকে শ্রমিকদের বকেয়া ৯ দিনের বেতন পরিশোধ, যে কয়দিন শ্রমিকেরা সেখানে থাকবেন তাদেরকে ভাল খাবার পরিবেশন ও স্বল্প সময়ে তাদেরকে ভারতে যাওয়া সুযোগ করে দেয়ার সিদ্ধান্তে আন্দোলনরত শ্রমিকেরা শান্ত হয়েছেন।
এ বিষয়ে বাগেরহাট পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় বলেন, শ্রমিকদের দাবীর বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ মেনে নিয়েছে। ফলে শ্রমিকেরা তাদের ব্র্যাকে ফিরে গিয়েছেন। এছাড়া যারা ভারতে চলে যেতে যান দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদেরকে পাঠানোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
উল্লেখ্য, রামপাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে বিদেশী রয়েছেন ১৮০২ জন। এরমধ্যে চায়না ২১ জন এবং ১৩৪৪ জন ভারতীয় রয়েছেন।

ঈদের ছুটিতে কেউ কর্মস্থল ত্যাগ করতে পারবেন না

ঢাকা অফিস : ঈদ সামনে রেখে সীমিত পরিসরে দোকান ও শপিংমল খোলা থাকবে। সেই সঙ্গে মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি, বিকাল ৫টার মধ্যে দোকান ও শপিংমল বন্ধ করতে হবে।

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে আসন্ন ঈদুল ফিতরের ছুটিতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কর্মস্থল ত্যাগ করতে পারবেন না।

সরকারি চাকুরেদের এমন নির্দেশনা দিয়ে সাধারণ ছুটি বাড়ানোর প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। ছুটি ১৬ই মে পর্যন্ত বাড়িয়ে সোমবার (৪ঠা মে) এই প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এই নির্দেশনার কারণে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা যে যেখানে দায়িত্ব পালন করছেন সেই অঞ্চলের বাইরে যেতে পারবেন না।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ছুটিকালীন জনসাধারণ ও সকল কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের জারি করা নির্দেশমালা কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে।

জরুরি পরিষেবা যেমন- বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস ও অন্যান্য জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরসমূহের (স্থলবন্দর, নদীবন্দর ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট, ডাকসেবা এবং এ সংশ্লিষ্ট সেবা কাজে নিয়োজিত যানবাহন ও কর্মীরা এ ছুটির বাইরে থাকবেন।

আগে ডাক সেবা ছুটির আওতামুক্ত ছিল না। এটি নতুন করে যুক্ত হয়েছে। ঈদুল ফিতরের সরকারি ছুটিতে কেউ কর্মস্থল ত্যাগ করতে পারবে না বলেও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

ছুটি বাড়ানোর প্রজ্ঞাপনে আরো বলা হয়, সকল মন্ত্রণালয়, বিভাগ, তাদের নিয়ন্ত্রণাধীন অফিস প্রয়োজন অনুসারে খোলা রাখবে। সেই সঙ্গে তারা তাদের অধিক্ষেত্রের কার্যাবলী পরিচালনার জন্য সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা জারি করবে।

এদিকে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে ১৮২ জনের মৃত্যু হলো। একই সময়ে আক্রান্ত হিসেবে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরো ৬৮৮ জন। এতে দেশে ভাইরাসটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১০ হাজার ১৪৩ জনে।

খুলনায় মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে শাক-সবজি, দুধ, ডিম কেনা যাবে

খুলনা অফিস : করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে দেশব্যাপী লকডাউনের ফলে প্রান্তিক কৃষক, পোল্ট্রি ও ডেইরি খামারীদের উৎপাদিকত পণ্য মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বাজারজাতকরণের উদ্ভাবনী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে খুলনা জেলা প্রশাসন। খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের তত্ত্বাবধানে তৈরি ‘হাতের মুঠোয় কাঁচা বাজার’ নামক অ্যাপের মাধ্যমে ক্রেতা ঘরে বসেই ন্যায্য মূল্যে বাজার করতে পারবেন।

অ্যাপের ‘ঘরে বসে কৃষি বাজার করি’ কার্যক্রমের আওতায় শাক-সবজি, কাঁচা তরকারি, ফলমূল ইত্যাদি কেনা যাবে। ‘ডিজিটাল সুন্দরবন প্রোটিন হাউজ’ কার্যক্রমের আওতায় আমিষ জাতীয় পণ্য ডিম, দুধ ইত্যাদি কেনা যাবে।

গুগল প্লে-স্টোর থেকে ‘হাতের মুঠোয় কাঁচা বাজার’ অ্যাপটি সহজেই ডাউনলোড করা যাবে। ভোক্তা সাধারণ তাদের পছন্দ অনুযায়ী অর্ডার করলে ন্যায্য মূল্যের বিনিময়ে জেলা প্রশাসনের স্বেচ্ছাসেবক দল ঘরে ঘরে পণ্য পৌঁছে দিবে।

খুলনা জেলা প্রশাসনের এ উদ্যোগটি বাস্তবায়নে সহযোগীতা করেছে খুুলনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, জেলা প্রাণিসম্পদ অফিস এবং খুলনা কৃষি বিপণন অধিদপ্তর।

খুলনা জেলা প্রশাসনের এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

ঠাকুরগাঁওয়ে ম্যাচ মালিককে জরিমানা

জয় মহন্ত অলক, ঠাকুরগাঁও : করোনার মহামারী সময়ে ভাড়ার দাবিতে ছাত্রীদের ম্যাচ থেকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করায় ম্যাচ মালিককে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। সোমবার সকালে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন উল্লেখিত পরিমাণ দন্ডে দন্ডিত করেন।
ঠাকুরগাঁও সরকারি কলেজ,মহিলা কলেজ ,ইকো কলেজ ও পলিটেকনিক্যাল কলেজের বেশিরভাগ ছাত্রছাত্রী শহরের বিভিন্ন মহল্লায় স্থানীয় ম্যাচে থেকে লেখাপড়া করে আসছিল।করোনার কারণে অনেক শিক্ষার্থী ম্যাসের ভাড়া দিতে না পারায় ম্যাস মালিকরা অনেক শিক্ষার্থীকে ম্যাস থেকে বের করে দিচ্ছে।
এরুপ এক ঘটনা ঘটেছে সোমবার শহরের সকালে মন্দিরপাড়ায় ত্রিরত্ন ছাত্রী নিবাসে।ওই ম্যাসের কয়েকজন মেয়ে ম্যাচের ভাড়া দিতে না পারলে ম্যাচ মালিক শম্পা বর্মন তাদের বের করে দেয়।তারা তাৎক্ষনিকভাবে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসিকে জানালে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাাহ-আল-মামুনকে অবগত করেন।
ইউএনও তাৎক্ষণিকভাবে সেখানে উপস্থিত হয়ে সেই ছাত্রী নিবাসের ছাত্রীদের অভিযোগ শুনেন এবং তাদের বর্তমান পরিস্থিতি প্রেক্ষিতে তাদের থাকার ও ভাড়ার বিষয় বিবেচনার করার জন্য ছাত্রী নিবাসের মালিক শম্পা বর্মণ (৩৫)কে নির্দেশনা দেন।সেই সাথে বিনা নোটিশে কোন কারণ ব্যাতিত ছাত্রীদের ম্যাস থেকে বের করে দেওয়ার অপরাধে ম্যাচ মালিক শম্পা বর্মন স্বামী বিপ্লব বর্মনকে মালিককে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাাহ-আল-মামুন জানান,করোনা কালীন সময়ে ভাড়ার জন্য কোন ভাড়াটিয়া কিংবা শিক্ষার্থীদের ম্যাস থেকে বের করে দেওয়া যাবে না। বাড়ির/নিবাসের মালিকদের এই সময়ে ভাড়াটিয়াদের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করা উচিত।
উল্লেখ্য, ঠাকুরগাও শহরের কলেজপাড়াস্থ মামুন ছাত্রাবাস ও তাকিয়া ছাত্রী নিবাসের সকল ছাত্র-ছাত্রীদের করোনা সংকটকালীন সময়ের রুম ভাড়া সম্পূর্ণ মওকুফ করেছেন।শুধু তাই নয়,ভাড়া মওকুফের নোটিশ নিজের ফেসবুকে পোষ্ট করেন ম্যাস মালিক আব্দুল্লাহ আল মামুন।