ব্যাচেলরদের মেস ভাড়া মওকুফের ঘোষণা

ঢাকা অফিস : করোনায় সৃষ্ট সঙ্কটে ব্যাচেলরদের মেস ভাড়া মওকুফের ঘোষণা। করোনা পরিস্থিতির কারনে রংপুর নগরীর মাস্টার পাড়ার ওহী ছাত্রাবাস ও ছাত্রীনিবাসের মালিক অ্যাডভোকেট এন বি শিল্পী কবির এক মাসের ভাড়া মওকুফের ঘোষণা দিয়েছেন।

ছাত্রাবাস ও ছাত্রীনিবাসের মালিক এন বি শিল্পী কবির জানান, নগরীর কলেজ রোডের মাস্টার পাড়ায় অবস্থিত ছাত্রাবাস দুইটি থেকে প্রতি মাসে চল্লিশ হাজার টাকা আয় হয়। করোনা সঙ্কটের কারণে শিক্ষার্থীরা মেসে নেই। অনেকেই টিউশনি করে মেসভাড়া ও পড়াশোনার খরচ জোগাতেন। এই সঙ্কটে অভিভাবকেরাও কষ্টে রয়েছেন।তাই জাতীয় এই দুর্যোগে এসব অসহায় শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়াতে নৈতিক দায়িত্ববোধ থেকে এক মাসের ভাড়া মওকুফের ঘোষণা দিয়েছি।

এদিকে, মেস ভাড়া মওকুফ করায় জাতীয় ছাত্র সমাজের কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে মেস মালিক শিল্পী কবিরকে অভিনন্দন জানানো হয়েছে।

জাতীয় ছাত্র সমাজ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক আল মামুন বলেন, করোনা সঙ্কটের কারণে শিক্ষার্থীদের কষ্টের কথা চিন্তা করে একজন মেস মালিকের এমন সিদ্ধান্ত শুধু উদারতাই নয় মহানুভবতাও বটে। এ সময় ছাত্র সমাজের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।

গত মাসের ৩০শে এপ্রিল বৃহস্পতিবার নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে জাতীয় ছাত্র সমাজের উদ্যোগে অসহায় মেধাবি শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়া মওকুফ করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

করোনার টিকা আবিষ্কারে বড় ভূমিকা রাখবে জিন রহস্য উন্মোচন

ঢাকা অফিস : করোনাভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্স বা জীবন রহস্য উন্মোচন টিকা আবিষ্কারে বড় ভূমিকা রাখবে; বিজ্ঞানী সমীর কুমার সাহা।
বেসরকারি প্রতিষ্ঠান চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশন দেশে প্রথমবারের মতো করোনার জিনোম সিকোয়েন্স বা জীবন রহস্য উন্মোচন করেছে। এই অভাবনীয় আবিষ্কারের ফলে করোনাভাইরাস কিভাবে জিন পরিবর্তন করে এবং এর গতি-প্রকৃতি সম্পর্কে খুব সহজেই ধারণা পাওয়া যাবে।

করোনার টিকা আবিষ্কারে যখন সারা বিশ্বের গবেষকরা হিমশিম খাচ্ছে। তখন করোনাভাইরাস কিভাবে তার ধরন পাল্টায় সে রহস্য উদঘাটন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। আর এই গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়েছেন বাংলাদেশে অণুজীব বিজ্ঞানী অধ্যাপক সমীর কুমার সাহা ও তার মেয়ে সেঁজুতি সাহা।

বাংলাদেশ চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশনের বিজ্ঞানী অধ্যাপক সমীর কুমার সাহা জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের জীবন রহস্য উন্মোচন টিকা আবিষ্কারের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

তিনি জানান, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ১শ’ টিকা নিয়ে কাজ করছেন গবেষকরা। এর মধ্যে ১০টিরও বেশি টিকা ট্রায়ালে রয়েছে।এছাড়া, কেন করোনা কখনো প্রাণঘাতী, কখনো উপসর্গহীন সে প্রশ্নের উত্তর মিলবে বলেও জানান তিনি।

এখন পরবর্তী ধাপে করোনার আরও সিকোয়েন্সিং করা হবে। তবে, তা পরিকল্পিতভাবে করার পরামর্শ দিয়েছেন অধ্যাপক সমীর কুমার সাহা।

কেশবপুরে জেলা পরিষদের উদ্যোগে খাদ্যসামগ্রী প্রদান

এস আর সাঈদ, কেশবপুর (যশোর): যশোর জেলা পরিষদের উদ্যোগে কেশবপুরে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কর্মহীনদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী প্রদান করা হয়েছে। বুধবার সকালে কেশবপুরস্থ জেলা পরিষদ ডাকবাংলার সভাকক্ষে যশোর জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কর্মহীন ৮৬ পরিবারের মাঝে চাউল, ডাউল, তৈল, চিনি, চিড়া, সোলা, সাবান ও লবণ বিতরণ করেন যশোর জেলা পরিষদের সদস্য ও কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সোহরাব হোসেন।
উল্লেখ্য ইতিপূর্বে যশোর জেলা পরিষদের উদ্যোগে কেশবপুর উপজেলার আলতাপোল আশ্রয়ন কেন্দ্রে ১ শত পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী প্রদান করা হয়েছে। উক্ত অনুষ্ঠানে কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুসরাত জাহান, জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব হাসান সাদেক, জেলা পরিষদের সদস্য সোহরাব হোসেন, কেশবপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দীন আলা, প্যানেল চেয়ারম্যান গৌতম রায় প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কেশবপুরে শাহীন চাকলাদারের পক্ষে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

এস আর সাঈদ, কেশবপুর (যশোর) : যশোর-৬ কেশবপুর সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারের পক্ষে কেশবপুর পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কর্মহীন অতিদরিদ্রদের মাঝে শহরের সোনালী ইলেকট্রনিক্সের স্বত্বাধিকারী ও পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগনেতা সমাজ সেবক নাসির উদ্দীনের ব্যক্তিগত অর্থায়নে খাদ্যসামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল শাহীন চাকলাদারের পক্ষে উক্ত খাদ্যসামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করেন পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম। এ্যাপারে ব্যবসায়ী নাসির উদ্দীন বলেন, কেশবপুর পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কর্মহীন অতিদরিদ্র ৩ শত ৭০ পরিবারের মাঝে শাহীন চাকলাদারের পক্ষে আমি নিজস্ব তহবিল থেকে খাদ্যসামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করেছি।

ফুলতলায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন কৃষকের মুখে হাসি

ফুলতলা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ ফুলতলা উপজেলাব্যাপী বোরোধান কাটা ও সংগ্রহের কাজ প্রায় শেষের পথে। আর কিছুদিনের মধ্যেই ফসলের মাঠ ফাঁকা হয়ে যাবে। করোনা ভাইরাসের ঝুকির মধ্যেও কৃষকদের মাঝে এক ভিন্ন ধরনের উৎসব মুখরতা বিরাজ করছে। ধান কাটার শুরুতেই কৃষকরা ছিল আতংকের মধ্যে। কারণ করোনা সংকটের কারণে শ্রমিক সংকট এবং বৈরী আবহাওয়া। এ সমস্ত সমস্যা মোকাবেলা করেই উপজেলার কৃষকরা প্রায় ৭০ থেকে ৮০ ভাগ জমির ধান কেটে ঘরে তুলেছে। অন্যদিকে এ বছর খরচের তুলনায় ধানের দাম বেশি। যদিও কয়েকদিন পূর্বে ঝড় বৃষ্টিতে কিছুটা বিরুপ অবস্থা সৃষ্টি করলেও বড় ধরনের সমস্যার মুখে পড়তে হয়নি কৃষকদের। তবে বর্ষার কারণে এবার অনেক বিছালী নষ্ট হয়ে গেছে। যার ফলে গো খাদ্যের সংকট দেখা দিতে পারে। সব মিলিয়ে ধানের বাম্পার ফলন হওয়ায় হাসি ফুটেছে কৃষকের মুখে। কৃষকরা এখন ব্যস্ত ধান কাটার কাজ শেষ করে অতি দ্রুত ধান ঘরে তুলতে। কৃষকদের সাথে কৃষাণী, ছাত্র-শিক্ষকরাও সহযোগিতা করছে। এ ছাড়া এ বছর আশার কথা হলো স্বেচ্ছা প্রনোদিত হয়ে কৃষক নন এমন পেশার মানুষও ধান কাটার কাজে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন। যা কৃষকদের অনেকাংশে উদ্দীপ্ত করেছে। কৃষকদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে গত বছর ধানের মূল্য কম ছিল। সেই তুলনায় এ বছর প্রায় দ্বিগুন। বিগত কয়েক বছরের মধ্যে কৃষকরা এবারই ধানের দাম বেশি পাচ্ছে। আবার সরকার ন্যায্যমূল্যে ধান ক্রয় করবে সেখানেও কৃষকদের সরাসরি অন্তভ‚ক্তি করায় তারা খুশি।

ফুলতলা উপজেলা কৃষি অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোছাঃ রীনা খাতুন জানান, এ বছর ৪ হাজার ৪৫ হেক্টর জমিতে কৃষি আবাদ করা হয়েছে। এর ভিতরে উপসি ২ হাজার ৫শ’ হেক্টর এবং হাইব্রিড ১৫শ’ ৪৫ হেক্টর। এতে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা একর প্রতি উপসি সাড়ে ৫টন ও হাইব্রিড ৭টন প্রায়। তিনি আরও জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে প্রথম দিকে শ্রমিক সংকট দেখা দেয়। পরবর্তীতে সরকারের পদক্ষেপের কারণে কৃষকরা প্রায় ৭০ থেকে ৮০ ভাগ জমির ধান কেটে ঘরে তুলেছে।

তবে কৃষক প্রতিনিধি রবিউল ইসলাম মোল্যা জানান, এখনও মাঠে প্রায় ৩০ ভাগ জমির ধান কাটতে বাকি রয়েছে। আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে কৃষকরা সকল জমির ধান কেটে ঘরে তুলতে পারবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ঝালকাঠিতে মেয়ের হাতে বাবার খুন

ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠির কাঠালিয়ায় এবার পারিবারিক কলহের জেরে কলেজছাত্রী মেয়ের ছুঁড়ে মারা পিঁড়ির আঘাতে বাবা খিতিশ চন্দ্র শীলের (৭০) মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (১২ মে) সকালে উপজেলার তালতলা বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, রাগের মাথায় ভাইয়ের উদ্দেশ্যে বোনের ছুঁড়ে মারা পিঁড়ি ছিটকে গিয়ে লাগে বাবার মাথায়। গুরুতর আহত খিতিশ চন্দ্রকে উদ্ধার করে কাঠালিয়া (আমুয়া) উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নেওয়ার পর দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জনান, সকালে খিতিশ চন্দ্র শীল তার ছেলেকে সারাদিন বাইরে ঘোরাফেরা না করে কাজকর্ম করতে বললে সে পিতার সাথে তর্কে লিপ্ত হয়। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে কলেজ পড়ুয়া মেয়ে শুকলা রানী পুতুল (১৭) ক্ষিপ্ত হয়ে একটি বসার কাঠের পিঁড়ি ছুড়ে মারে।

কাঠের সেই পিঁড়ি ছিটকে গিয়ে সরাসরি বৃদ্ধ পিতা খিতিশ চন্দ্রের মাথায় লাগলে গুরুতর আহত হয়ে ঘটনাস্থলেই জ্ঞান হারায়। পরে পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে আমুয়া স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নেয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

প্রসঙ্গত, এ ঘটনার একদিন আগে গত সোমবার (১১ মে) ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার কাঠিপাড়া এলাকায় মাদকাসক্ত জুয়াড়ি পুত্র বখাটে মাহফুজ আকন লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে মা-বাবাকে গুরুতর আহত করে। পরে তাদের দুজনকেই বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তির পর চিকিৎসাধীন অবস্থার বাবা মোঃ ইসমাইল আকনের (৫২) মৃত্যু হয়। পরে ঘাতক ছেলে মাহফুজকে আটক করে পুলিশ।

ঝালকাঠিতে অজ্ঞাত নারীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার

মো: নজরুল ইসলাম, ঝালকাঠি : ঝালকাঠিতে অজ্ঞাত পরিচয়ে এক নারীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঝালকাঠি জেলা শহরের কলেজ মোড় এলাকার একটি স্যানিটারী কারখানার ভেতরে ওই নারীর মরদেহ বুধবার সকালে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান সদর থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান।

ঝালকাঠির সদর থানার পুলিশ আরো বলেন, আনুমানিক (৩৫) বছরের ওই নারীকে মাথার পেছন থেকে রক্ত ঝড়া অবস্থায় পাওয়া যায়। তার পোশাক-পরিচ্ছদ অত্যান্ত সাধারণ। এসময় মরদেহের পাশে একটি ভ্যানিটিব্যাগও পাওয়া গেছে।
তবে ওই নারীর ঠিক কী কারণে মৃত্যু হয়েছে বা তাকে হত্যা করা হয়েছে কি না তা ময়না তদন্তের রিপোর্ট পুলিশ তদন্ত ছাড়া এই মুহুর্তে বলা যাচ্ছেনা।

এ বিষয়ে ওই নারী পরিচয় অনুসন্ধানের চেষ্টাসহ আইনী সব ধরণের পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলেও জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহারের পক্ষথেকে মংলায় অসহায়দের মাঝে খাদ্য সহায়তা

নিজস্ব প্রতিনিধি : করোনায় খাদ্য সংকটে পড়া মোংলার দুই হাজার আসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে পরিবেশ বন ও জলবাযু পরিবর্তন মন্ত্রনালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহারের পক্ষ থেকে।

সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে বুধবার (১৩মে) সকালে আওয়ামীলীগ’র কার্যালয়ে চাল, চিড়া, ছোলা ও চিনিসহ অন্যান্য ত্রান সামগ্রী বিতরণ করা হয়।এ সময় উপস্থিত ছিলেন মোংলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আব্দুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ ইব্রাহিম হোসেন, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিম সহ স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও অংঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মিরা।

কেশবপুরে নার্সের দেহে করোনা সনাক্ত

এস আর সাঈদ, কেশবপুর (যশোর) : যশোরের কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরো একজন সিনিয়র নার্সের দেহে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে আসায় সন্দেহজনকভাবে তার নমুনা পরীক্ষা জন্য পাঠানো হয়েছিল। বুধবার সকালে তার করোনা ভাইরাস পরীক্ষার রিপোর্ট আসে পজেটিভ। কেশবপুর উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ আলমগীর হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ নিয়ে কেশবপুর উপজেলায় করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৩ জনে। তবে কেশবপুর হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ১০ জন।
কেশবপুর উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডাঃ আলমগীর হোসেন জানান, আক্রান্ত ওই সিনিয়র নার্সকে হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। কেশবপুরে করোনাভাইরাস শনাক্ত ১৩ জনের মধ্যে ১০ জন হাসপাতালের চিকিৎসক ও কর্মচারী। একজন প্রাইভেট ক্লিনিকের স্বাস্থ্যকর্মী।
এদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা নিয়ে ১০ জন সুস্থ্য হয়ে সোমবার বিকালে বাড়িতে ফিরেগেছেন। এদের মধ্যে কেশবপুর হাসপাতালের দুইজন মেডিকেল অফিসার, দুইজন উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার, দুইজন স্বাস্থ্যকর্মী, একজন স্টোরকিপার, একজন বাইরের ক্লিনিকের কর্মচারী, একজন শহরের সোলানী ব্যাংক এলাকার যুবক এবং ধর্মপুর গ্রামেরএক গৃহবধূ। তবে নতুন আক্রান্ত নার্স-সহ বাকি ৩ জনকে আইসোলেশনে রয়েছেন।

ঠাকুরগাঁওয়ে দুই বোনকে গণধর্ষণ : ৫ ধর্ষক গ্রেফতার

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি :  ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার মহলবাড়ি গ্রামে আপন দুই বোনকে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগে ৫ ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে রানীশংকৈল থানা পুলিশ।

বুধবার (১৩ মে) বিকেলে ধৃত আসামীদের আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন রাণীশংকৈল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো: খায়রুল আনাম ডন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার (১১ মে) দুপুরে উপজেলার মহলবাড়ী (কবুলাডাঙ্গী) গ্রামের কুদ্দুস আলীর স্ত্রী (১৯) ও তার ছোট বোন(১৫) কে উপজেলার ক্ষুদ্র বাঁশবাড়ি গ্রামের আফাজ উদ্দিনের ছেলে জহিরুল (২৮) কৌশলে ওই এলাকার (সিডি অফিসের পিছনে) উপেন দেবের বাসায় ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে দুই বোনের হাত পা ওড়না দিয়ে বেঁধে জহিরুল ইসলাম, রুবেল (২৬), উপেন দেব (২৮), ফয়জুল আক্তার ফজলু (৩৫) ও মিলন (২০) বিকেল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় ভিকটিম নিজেরাই বাদী হয়ে রাণীশংকৈল থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করে।

মামলার প্রেক্ষিতে আজ বুধবার (১৩ মে) উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে উপজেলার ক্ষুদ্র বাঁশবাড়ি গ্রামের আফাজ উদ্দিনের ছেলে জহিরুল ইসলাম, বাবুল মিস্ত্রির ছেলে রুবেল, জ্যোতিষ চন্দ্র রায়ের ছেলে উপেন দেব, মহলবাড়ি গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে ফয়জুল আক্তার ফজলু ও দক্ষিণ সন্ধারই গ্রামের শহিদুলের ছেলে মিলনকে গ্রেপ্তার করে
মামলার তদন্তকারী অফিসার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: খাইরুল আলাম ডন।

পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: খাইরুল আলাম ডন বলেন, দুই বোনকে গণধর্ষণের অভিযোগ পেয়ে বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করে আসামীদের ধরতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। পরে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। পরবর্তীতে তাদের ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত তাদের কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

ধর্ষণের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাণীশংকৈল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মান্নান। তিনি বলেন, আসামিদের বিরুদ্ধে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী)২০০৩ এর ৯(৩)/৩০ ধারায় মামলা হয়েছে। রানীশংকৈল থানার মামলা নং- ১৫, তারিখঃ ১৪/০৫/২০২০।

তিনি আরও জানান, ভিকটিম’দ্বয়কে ধর্ষণ জনিত ডাক্তারী পরীক্ষা ও বিজ্ঞ আদালতে ২২ ধারা মতে জবানবন্দি রেকর্ড এর জন্য ঠাকুরগাঁওয়ে প্রেরণ করা হয়েছে।